Barta24

শনিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৯, ২ ভাদ্র ১৪২৬

English

নতুন বছর আসুক উপহারের আনন্দ নিয়ে!

নতুন বছর আসুক উপহারের আনন্দ নিয়ে!
ছবি: সংগৃহীত
ফাওজিয়া ফারহাত অনীকা
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
লাইফস্টাইল


  • Font increase
  • Font Decrease

হাতে গুণে আর মাত্র কয়েক ঘন্টা বাকি।

এরপরেই চলে আসবে নতুন আশা, নতুন উদ্যম ও নতুন দিনের স্বপ্ন নিয়ে আনকোড়া একটি নতুন বছর। বিদায় নেবে ২০১৮, পদার্পন হবে ২০১৯ এর। নতুন বছরের শুরুতে উপহার পেতে যতটা ভালো লাগে, প্রিয় ও কাছের মানুষদের উপহার দিতে তার চাইতেও বেশি ভালো লাগে।

যেহেতু বছরের শেষ, তাই পকেটের অবস্থার দিকেও নজর রাখা প্রয়োজন। পকেটের অবস্থা ও প্রিয়জনের জন্য উপহারের ধরণ মিলিয়েই আজকের ফিচারটি লেখা। এতে করে পকেটের প্রতি খেয়ালও রাখা হবে, হাতেও থাকবে উপহারের আনন্দ।

উপহার দেওয়ার কথা উঠলে অবধারিতভাবে প্রথমেই আসবে বাবা-মায়ের কথা। জানেন তো, সন্তানের সুস্বাস্থ্য ও সার্বিক কল্যান ছাড়া বাবা-মায়েরা কিছুই চান না। কিন্তু বাবা-মায়ের হাতে উপহার তো তুলে দেওয়া চাই। যেহেতু শীতকাল, তাই দুজনের জন্যেই মিলিয়ে কিনে নিতে পারেন চমৎকার শাল। চাইলে মায়ের জন্য রান্নাঘরের প্রয়োজনীয় কোন জিনিস কিনে ফেলতে পারেন। নতুন প্রেশার কুকার, ব্লেন্ডার কিংবা নন্সটিক প্যান হাতে নিয়ে খুশি না হয়ে উপায় থাকবে না আপনার মায়ের। বাবার জন্য ওয়ালেট কিংবা বেল্ট হতে পারে চমৎকার পছন্দ। বাবা-মা ধার্মিক হলে স্ব ধর্মের অনুষঙ্গও হতে পারে পারফেক্ট উপহার। মুসলমানদের জন্য জায়নামাজ, তসবি; হিন্দু ধর্মালম্বীদের জন্য কাঁসার বাসন, সিঁদুরের কৌটা, প্রতিমার গহনা প্রভৃতি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Dec/31/1546253697761.jpeg

বাবা-মায়ের পর আসবে ছোট-বড় ভাই-বোনের কথা। সহোদরদের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ হলে খুব সহজেই জানা সম্ভব তারা কি পছন্দ করেন। কারোর হয়তো কলম জমানোর শখ। কেউ হয়তো নেইলপলিশ দিতে খুব পছন্দ করেন। ব্যস, আপনার অর্ধেক কাজ কমে গেলো। তাদের পছন্দ অনুযায়ী জিনিস কিনে নিন। সহোদর ছোট হলে কয়েক প্যাকেট চকলেট, চিপসও হতে পারে দারুণ উপহার।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Dec/31/1546253719173.jpeg

এরপরেই আসবে বন্ধুবান্ধবের উপহারের প্রসঙ্গ। প্রিয় বন্ধুটা তার পছন্দসই কোন উপহার পেলে কতটা খুশি হবে সেটা আপনার চাইতে ভালো আর কেউ জানবে না। বন্ধু যদি বই পড়ুয়া হন, তবে উপহার হিসেবে বইয়ের বিকল্প আর কিছুই হতে পারে না। কেউ যদি মেকআপ করতে ভালোবাসেন তবে উপহার কেনার বিষয়টি বেশ সহজ হয়ে যায় আপনার জন্য। মেকআপের বিভিন্ন সামগ্রির মাঝে বন্ধুর পছন্দ ও আপনার বাজেট অনুযায়ী কিনে নিতে পারেন লিপস্টিক, লিপ গ্লস, আইশ্যাডো, হাইলাইটার, কাজল ইত্যাদি।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Dec/31/1546253733453.jpeg

এর মাঝে প্রিয়জনের কথা ভুলে গেলে চলবে কি? প্রিয়জনের জন্য উপহারটাও হওয়া চাই একটু স্পেশাল, একটু ভিন্ন, একটু আলাদা। কিন্তু তার মানে কিন্তু এই নয় যে, যত দামি উপহার ততই ভালো। নিজের হাতে তৈরি করেও দিতে পারে এই উপহারটি। নিজের হাতে তৈরি উপহারের আমেজটাই থাকে ভিন্ন। যদি হাতে তৈরি করার ঝামেলায় না পড়তে চান তবে বেছে নিতে পারেন ফটোফ্রেম। নিজেদের ছবি সম্বলিত ফটোফ্রেম একটি চমৎকার উপহার। প্রিয় মানুষটি যদি ছবি আঁকতে ভালোবাসে তবে কিনে নিন স্কেচবুক। গান শুনতে পছন্দ করলে ভালো মানের ইয়ারফোন। আর যদি শাড়ি/ পাঞ্জাবী পরতে ভালোবাসেন প্রিয় মানুষটি তবে শাড়ি/পাঞ্জাবীই হবে সবচেয়ে সেরা উপহার। আর যদি ভালোবাসার মানুষটি হন প্রকৃতিপ্রেমী তাহলে তো কথাই নেই। ঝলমলে দুটো গাছ কিংবা তার পছন্দসই কোন গাছের বীজ কিনে ফেলুন নিশ্চিন্তে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Dec/31/1546253753946.jpeg

শেষ করা যাক সহকর্মীর উপহারের আলোচনা দিয়ে। সহকর্মীর কাজে আসবে এমন কিছু রাখতে পারেন উপহারের তালিকার প্রথম দিকে। এছাড়া নিউ ইয়ার কার্ড তো আছেই। এছাড়া ছোট দুল, আংটি, সানগ্লাস, বডি স্প্রেও কিনে নিতে পারেন উপহার হিসেবে।

একটা বিষয় মাথায় রাখুন, উপহারের অনেক বড় একটা অংশ হলো উপহারের পরিবেশনা। র‍্যাপিং পেপার কেনার বাজেট যদি শেষ হয়ে গেলেও মন খারাপ করবেন না। ঘরের পুরনো খবরের কাগজ দিয়েও খুব চমৎকারভাবে উপহার র‍্যাপ করা যায়। হোক না খুব ছোট উপহার, তাতে কি! ভালোবাসা জড়িয়ে আছে তো তার মাঝেই।

আরো পড়ুন: নতুন বছর আসুক সঞ্চয়ের প্রতিজ্ঞায়

আরো পড়ুন: ছুটির মাঝেও থাকা চাই ফিট!

আপনার মতামত লিখুন :

তিন উপাদানে ডিটক্সিফাইং পানীয়

তিন উপাদানে ডিটক্সিফাইং পানীয়
ডিটক্সিফাইং পানীয়

অন্যান্য সময়ের চাইতে ঈদের সময়টাতে তেল, চর্বি ও উচ্চমাত্রার ক্যালোরিযুক্ত খাবার বেশি খাওয়া হয়।

এতে করে সহজেই শরীরের উপর ক্ষতিকর প্রভাব পরে। এই ক্ষতিকর প্রভাব কাটানোর জন্য প্রয়োজন হয় ডিটক্সিফাইং পানীয়। যা শরীর থেকে ক্ষতিকর প্রভাবকে দূর করে সুস্থ রাখতে সাহায্য করবে।

এমন পানীয় তৈরিতে সাধারণত খুব বেশি উপাদান প্রয়োজন হয় না। আজকের বিশেষ ডিটক্সিফাইং পানীয়টি তৈরিতেও মাত্র তিনটি সহজলভ্য উপাদান প্রয়োজন হবে। প্রতিদিন সকালে খালি পেটে এই পানীয়টি পান করলে সবচেয়ে বেশি উপকার পাওয়া যাবে।

ডিটক্সিফাইং পানীয় তৈরিতে যা লাগবে

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/17/1566047849609.jpg

১. একটি বড় লেবুর রস।

২. ১-২ ইঞ্চি পরিমাণ আদা কুঁচি।

৩. এক চা চামচ হলুদ গুঁড়া।

৪. দুই কাপ পরিমাণ পানি।

৫. এক চিমটি কালো গোলমরিচ গুঁড়া (ঐচ্ছিক)

ডিটক্সিফাইং পানীয় যেভাবে তৈরি করতে হবে

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/17/1566047866015.jpg

পানি ফুটিয়ে নামিয়ে এতে লেবুর রস, আদা কুঁচি, হলুদ গুঁড়া ও গোলমরিচ গুঁড়া মিশিয়ে পুনরায় চুলায় বসিয়ে ফুটিয়ে নিতে হবে। তৈরি হয়ে গেলে নামিয়ে কুসুম গরম থাককাকালী সময়ে পান করতে হবে।

আরও পড়ুন: ডেঙ্গুতে উপকারী পাঁচ পদের জুস

আরও পড়ুন: আহ, মশলা চা!

কতখানি নিকোটিন থাকে একটি সিগারেটে?

কতখানি নিকোটিন থাকে একটি সিগারেটে?
ছবি: সংগৃহীত

প্রশ্নাতীতভাবে ধূমপান সবচেয়ে বাজে ও ক্ষতিকর একটি অভ্যাস।

এ বদভ্যাসের দরুন নিজের স্বাস্থ্য তো বটেই, পাশাপাশি অন্যের স্বাস্থ্যও ঝুঁকির মাঝে পড়ে যায়। ধূমপানের ক্ষতিকর প্রভাব সম্পর্কে অবগত হওয়ার পরেও বেশিরভাগ ধূমপায়ী এই অভ্যাসটি বাদ দিতে চান না। তবে এর বিপরীত চিত্রও রয়েছে। অনেকেই চেষ্টা করেন স্বাস্থ্যের জন্য ঝুঁকিপূর্ণ এই অভ্যাসটিকে পাশ কাটিয়ে উঠতে। তবে ধূমপায়ী, অধূমপায়ী ও ধূমপান ত্যাগ করার চেষ্টা করছেন যারা, প্রত্যেকেই একটি বিষয় সম্পর্কে জানার আগ্রহ প্রকাশ করেন- একটি সিগারেটে কতখানি নিকোটিন থাকে! চলুন এই বিষয়টি জানানো যাক।

প্রতিটি সিগারেটে থাকে ৭০০০ ভিন্ন ভিন্ন ধরনের কেমিক্যাল। যার মাঝে সবচেয়ে ক্ষতিকর হলো নিকোটিন (Nicotine). হাজারো ধরনের কেমিক্যালের ভেতর এই নিকোটিন তৈরি হয় তামাক পাতা থেকে। তামাক পাতা থেকে তৈরি হওয়া এই উদ্ভিজ কেমিক্যাল নিকোটিনেই ধূমপায়ীদের আসক্তি তৈরি হয়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Aug/17/1566042274926.jpg

মেডিকেশন অ্যাডভোকেট জেসন রিড জানান, প্রতিটি সিগারেটে গড়ে এক মিলিগ্রাম পরিমাণ নিকোটিন থাকে। এছাড়া এক গবেষণা থেকে দেখা গেছে সিগারেটের ধরনের উপর নির্ভর করে এক একটি সিগারেটে ১.২-১.৪ মিলিগ্রাম পরিমাণ নিকোটিন থাকে। স্বল্প নিকোটিনযুক্ত ‘সিগারেট লাইট’ এ ০.৬-১ মিলিগ্রাম পরিমাণ নিকোটিন থাকে। তবে সাধারণ সিগারেটের মতো সিগারেট লাইটেও একই ধরনের সিগারেট বুস্ট তথা সিগারেটের প্রভাব থাকে।

এছাড়া নিকোটিন গ্রহণের মাত্রা ধূমপায়ীর উপর নির্ভর করে। সিগারেটে কত জোরে টান দিচ্ছে এবং সিগারেট পাফের কতটা নিকটবর্তী স্থান পর্যন্ত সিগারেট পান করছে- এই দুইটি বিষয়ের উপর নির্ভর করেও নিকোটিন গ্রহণের মাত্রায় তারতম্য দেখা দেয়।

আরও পড়ুন: ধূমপানে অন্ধত্ব!

আরও পড়ুন: প্যাসিভ স্মোকিংয়ে ক্যানসার ঝুঁকিতে আমরা সবাই!

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র