মাথাব্যাথা সারবে আয়ুর্বেদিক উপায়ে

ফাওজিয়া ফারহাত অনীকা, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইফস্টাইল
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

যেকোন সময়ে হুট করেই মাথাব্যথা দেখা দিতে পারে। ঘুম কম হলে, ঘুম বেশি হলে, কাজের চাপ বেশি থাকলে, মানসিক চাপ, অনিয়ম কিংবা মাইগ্রেনের ফলে খুব কমন এই শারীরিক সমস্যাটি দেখা দিতে পারে।

মাথাব্যথা কমানোর জন্য ওষুধ গ্রহণ করার চাইতে নিজেকে কিছুটা সময় দিলে এবং আয়ুর্বেদের কয়েকটি নিয়ম মানতে পারলে বেশি উপকার পাওয়া যাবে।

ল্যাভেন্ডারের ঘ্রাণ নেওয়া

ল্যাভেন্ডারের সুমিষ্ট ঘ্রাণ ঘুম না এনেই মাথাব্যথা কমিয়ে আনে আরামদায়ক অনুভূতি প্রদানের মাধ্যমে। কারণে এতে প্রাকৃতিকভাবেই রয়েছে মাথাব্যথা কমানোর মতো উপাদান। বিশেষত মাইগ্রেনের সমস্যায় ল্যাভেন্ডার দারুণ উপকারী। মাইগ্রেনের ব্যথায় টানা ১৫ মিনিট ল্যাভেন্ডার অয়েলের ঘ্রাণ গ্রহণ করলে প্রায় ৭১ শতাংশ ক্ষেত্রেই মাথাব্যথা অর্ধেকের বেশি কমে যায়।

আদা চা পান করা

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jan/25/1548397821689.jpg

ক্লিনিক্যালি প্রমানিত, মাইগ্রেনের মতো ব্যথার ক্ষেত্রে আদা চা ওষুধের মতো কাজ করে। তবে এক্ষেত্রে আদা গুঁড়া ব্যবহার করলে সবচেয়ে বেশি উপকারিতা পাওয়া যাবে। চায়ের হালকা লিকারের সঙ্গে এক চা চামচ আদা গুঁড়া মিশিয়ে ছেঁকে এতে কয়েক ফোঁটা লেবুর রস কিংবা কমলালেবুর রস মিশিয়ে নিতে হবে। মাথাব্যথা থেকে মুক্তি চাইলে প্রতি দুই ঘণ্টা অন্তর আধা কাপ করে আদা চা পান করতে হবে।

নিঃশ্বাস নেওয়ার পদ্ধতি

আয়ুর্বেদে সঠিকভাবে নিঃশ্বাস-প্রশ্বাসের উপরে অনেকখানি গুরুত্ব দেওয়া হয়। সঠিক উপায়ে নিঃশ্বাস গ্রহণের মাধ্যমে শারীরিক চাপ ও মানসিক অশান্তি দূর হয়। যা খুব সহজেই মাথাব্যথাকে কমিয়ে আনে। মাথাব্যথা কমানোর জন্য সোজা হয়ে শুয়ে পাঁচ সেকেন্ড সময় নিয়ে নিঃশ্বাস গ্রহণ করতে হবে। দুই সেকেন্ডের মতো নিঃশ্বাস ধরে রেখে এরপর ধীরে ধীরে প্রশ্বাস ফেলতে হবে। টানা ২০ বার এমন করার ফলে মাথাব্যথার তীব্রতা কমে আসবে।

হিট থেরাপি

কাজের চাপে, অতিরিক্ত পরিশ্রম ও ঘুমের অভাবে মাথাব্যথা দেখা দিলে, ওষুধ কিংবা পেইন কিলার গ্রহণে আরাম পাওয়া যাবে না। সেক্ষেত্রে কিছু সময়ের জন্য হিট থেরাপি নিতে হবে। পরিষ্কার কাপড় গরম পানিতে ভিজিয়ে পানি নিংড়ে নিতে হবে। গরম কাপড়টি কপাল ও চোখের উপরে দিয়ে চুপচাপ শুয়ে থাকতে হবে কিছুক্ষণ। এতে অনেকটা চাপ কমে ও ব্যথাও প্রশমিত হয়। এক্ষেত্রে মনে রাখতে হবে, কাপড়ের পরিবর্তে তোয়ালে ব্যবহারে বেশি আরাম পাওয়া যাবে।

তবে মাইগ্রেনের ব্যথার ক্ষেত্রে ঠাণ্ডা পানি ব্যবহার করলে ব্যথা কমবে ও আরাম পাওয়া যাবে।

কফি পান

ক্লিনিক্যাল পরীক্ষার ফল থেকে দেখা গেছে, ক্যাফেইন ব্লাড ভ্যাসেলের প্রদাহকে কমায় এবং তীব্র মাথাব্যথায় তাৎক্ষণিকভাবে আরাম প্রদান করে। তীব্র মাথাব্যথায় ক্যাফেইন গ্রহণের পর ৫৮ শতাংশ মানুষ ব্যথা কমে যাওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত করে।