Alexa

বেকিং সোডা ও বেকিং পাউডার: মিলের মাঝেও যত অমিল

বেকিং সোডা ও বেকিং পাউডার: মিলের মাঝেও যত অমিল

ছবি: সংগৃহীত

দুটো জিনিসের নাম প্রায় কাছাকাছি হওয়ায়, অনেকেই এই দুটো জিনিস কেনার সময় ভুল করে ফেলেন।

বেকিং সোডার পরিবর্তে বেকিং পাউডার কেনা হয়ে যায় প্রায় সময়। রান্না বা বেকিং এর ক্ষেত্রে কয়েকবার করে নিশ্চিত হয়ে নিতে হয় বেকিং পাউডার নাকি বেকিং সোডা, কোনটা ব্যবহার করতে হবে।

নামে মিল থাকলেও আদতে এই দুটো জিনিস একেবারেই ভিন্ন। খেয়াল করে দেখবেন, এই দুটো জিনিস দেখতেও এক নয়। পার্থক্য রয়েছে তাদের পাউডারের ঘনত্বেও। ভালোমতো জানা থাকলে কাজের ক্ষেত্রে সুবিধা হয় বলেই আজকের ফিচার থেকে জেনে নিতে পারবেন, কোনটি বেকিং সোডা ও বেকিং পাউডার এবং কি তাদের ব্যবহার ও কার্যকারিতা।

বেকিং সোডা

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/22/1555903174445.jpg
বেকিং সোডা

বেকিং সোডা দেখতে অনেকটাই অস্বচ্ছ স্ফটিক দানাদার। যা এক ধরনের অ্যালকালাইন লবণ। বেকিং সোডা মূলত বেকিং পাউডার, ফায়ার এক্সটিংগুইশার ও অ্যান্টাসিডে ব্যবহার করা হয়। এটা মূলত বিশুদ্ধ সোডিয়াম বাইকার্বোনেট। বেকিং সোডা আর্দ্রতাপূর্ণ ও অ্যাসিডিক উপাদান তথা দই, চকলেট, মধুর সাথে মিশ্রিত করা হলে কেলিক্যাল রিঅ্যাকশনে কার্বন ডাই অক্সাইডের উৎপত্তি হয়। যা উচ্চ তাপমাত্রায় ওভেন বেকড খাদ্যের পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়। তবে বেকিং সোডা ব্যবহারে সাথে সাথেই তার কার্যকারিতা শুরু হয়। এ কারণে যে সকল খাদ্য তৈরির রেসিপিতে বেকিং সোডা ব্যবহার করতে বলা হয়, সে খাবারগুলো দ্রুত বেক করে ফেলতে হবে। নয়তো বেকিং সোডার কার্যকারিতা হারাবে।

বেকিং পাউডার

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/22/1555903214398.jpg
বেকিং পাউডার

বেকিং পাউডার মূলত তিনটি উপাদানে তৈরি হয়- অ্যাসিড, বেইস ও ফিলার। যেখানে বেকিং সোডা বেইস হিসেবে ব্যবহৃত হয়। বেকিং পাউডার বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই ডাবল-অ্যাকটিং বেকিং পাউডার হিসেবে পাওয়া যায়। যা মূলত দুইটি ধাপে তার কার্যকারিতা প্রকাশ করে। রেসিপি অনুযায়ি খাদ্যদ্রব্যের সাথে মেশানোর পর একবার তার কার্যকারিতা দেখা যায় এবং পরবর্তিতে উচ্চ তাপে পুনরায় তার কার্যকারিতা প্রকাশ পায়। এতে করে ময়দা ময়ান দেওয়ার সময় বেকিং পাউডার ব্যবহার করে কিছুক্ষণ রেখে দেওয়া হয়। এ সময়ে মাঝে তা বেশ খানিকটা ফুলে ওঠে। পরবর্তীতে উচ্চ তাপে তা বেশ খানিকটা ফোলে। এ কারণেই কোন খাবার বেক করতে বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই বেকিং পাউডার ব্যবহার করা হয়, যেন খাবারটি সুন্দরভাবে ফোলে।

কোন খাবারে কোনটি ব্যবহার করতে হবে?

মূলত খাবার তৈরির রেসিপির উপরে নির্ভর করে, বেকিং সোডা নাকি বেকিং পাউডার প্রয়োজন হবে। বেকিং সোডার পরিবর্তে বেকিং পাউডার ব্যবহার করা যাবে। সেক্ষেত্রে পরিমাণে একটু বেশি ব্যবহার করতে হবে। তবে বেকিং পাউডারের পরিবর্তে বেকিং সোডা ব্যবহার করা যাবে না। কারণ বেকিং সোডায় অ্যাসিডিটির মাত্রা কম থাকে, যা খাবারকে ফোলাতে পারবে না। তাই খাবারের রেসিপি অনুযায়ি বেকিং সোডা ও পাউডারের ব্যবহার করলে খাবার ভালোভাবে তৈরি করা যাবে।

আরও পড়ুন: বেকিং সোডার চমৎকার ছয় ব্যবহার

আরও পড়ুন: বেক করতে ঘরোয়া তাপমাত্রার ডিম!

আপনার মতামত লিখুন :