ছুটি নির্বিঘ্নে কাটাতে বাজার করে ফেলুন আজই!



ফাওজিয়া ফারহাত অনীকা, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইফস্টাইল
আগে থেকে প্রয়োজনীয় জিনিস সংগ্রহে থাকলে সমস্যায় পড়তে হবে না, ছবি: সংগৃহীত

আগে থেকে প্রয়োজনীয় জিনিস সংগ্রহে থাকলে সমস্যায় পড়তে হবে না, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

শুরু হয়ে গেলো লম্বা সময়ের ঈদ ছুটি।

কাঙ্ক্ষিত এই ঈদের ছুটিতে অনেকেই পরিকল্পনা করেছেন দেশের বাড়ি যাওয়ার কিংবা ভ্রমণে বের হওয়ার। তবে পরিবার পরিজন নিয়ে নিজ বাসাতে রিল্যাক্সে সময় কাটানো দলের মানুষও নেহাত কম নয়। আরামপ্রিয় মানুষেরা এমন একটা ছুটির জন্যেই অপেক্ষা করে থাকেন। ছুটিতে প্রিয় মানুষদের সাথে একান্তে, পছন্দের বই ও সিনেমার সাথে সময়গুলো পার করে দেওয়ার লোভ এড়িয়ে যাওয়া কষ্টকর বটে।

তবে শুধুই বিশ্রাম, বই ও সিনেমার সাথে এতগুলো দিন পার করে দেওয়া সম্ভব নয় নিশ্চয়। খাওয়াদাওয়াও তো করা চাই। সাথে প্রতিদিনের স্বাভাবিক কার্যকলাপ ও নিত্যদিনের চাহিদাও তো রয়েছে। গুরুত্বপূর্ণ এই বিষয়টি ভুলে গেলে চলবে কি!

যেহেতু লম্বা সময়ের ছুটি পাচ্ছেন সকলে, মুদি দোকান, বাজার, সুপার শপ কিংবা ভ্রাম্যমান ফল-সবজি ও অন্যান্য জিনিসের বিক্রেতারাও এ সময়ে তাদের অবকাশ পালনে থাকবেন। ফলে বন্ধ থাকবে এলাকার ছোটখাটো দোকান থেকে বড় সুপার শপগুলোও। সে জন্য আগে থেকেই প্রস্তুতি নিয়ে রাখতে হবে।

আজকের দিনে তালিকা তৈরি করে আগামী ১০ দিনের জন্য বাজার করে ফেললে কোন রকম সমস্যার মুখোমুখি হতে হবে না। চলুন তাহলে একটু আলোচনা করা যাক, কোন জিনিসগুলো কেনা প্রয়োজন হতে পারে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/31/1559279922665.jpg

প্রথমেই কাঁচাবাজারের দিকে নজর দিন। ফল, সবজি, শাক, মাংস, মাছের মতো উপাদানগুলো কিনে রাখুন। ফল, শাক, সবজি ফ্রিজে সংরক্ষণ করলেও এতো লম্বা সময় ভালো থাকবে না। সেক্ষেত্রে এগুলো পরিষ্কার করে কেটে ডিপ ফ্রিজ সংরক্ষণ করতে হবে। এদিকে ঈদের এই লম্বা বন্ধে বরাবরের মতোই তরল দুধের সংকট দেখা দিবে। সে বিষয়টি মাথায় রেখে চেষ্টা করুন যতটা বেশি সম্ভব তরল দুধের প্যাকেট কিনে রাখতে।

এরপরে আসা যাক মশলা ও অন্যান্য উপাদানের বিষয়ে। চাইলেই এই বন্ধের মধ্যে কাঙ্ক্ষিত মশলা, বাদাম প্রভৃতি পাওয়া যাবে না। তাই রান্নাঘর ঘুরে প্রয়োজনীয় প্রতিটি মশলা ও এ ধরনের উপাদান, তথা- আদা, রসুন, পেঁয়াজ, ধনিয়া-পুদিনার পাতা প্রভৃতি তালিকায় যোগ করে নিন।

ঈদের প্রথম দুই-তিনদিন ঈদের নানান পদ খাওয়া হবে। এরপরে হালকা কিছু খাওয়ার জন্য বিস্কুট, টোস্ট বিস্কুট, চানাচুর, চিপসের মতো খাবারগুলো কিনে রাখতে পারেন। সাথে বাড়তি চা পাতা কিনে রাখতে পারেন। 

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/May/31/1559280219926.jpg

এর মধ্যে সবচেয়ে জরুরি হলো প্রয়োজনীয় ওষুধ। সাধারণত এলাকার ওষুধের দোকান বন্ধের সময়েও খোলা থাকে। তবে ঝুঁকি না নিয়ে আগে থেকেই নিত্য দিনের প্রয়োজনীয় ওষুধ কিনে রাখুন। সেই সাথে স্যানিটারি ন্যাপকিন, শিশুদের ডায়পার মতো জিনিসগুলোও সংগ্রহে রাখুন।

যেহেতু গ্রীষ্মকালে পড়েছে এবারের ঈদ, লোডশেডিং এর সমস্যা দেখা দিতে পারে। তাই বাজারে মোমবাতিও কিনে রাখুন। যে কোন প্রয়োজনে কাজে আসবে।

সাথে বক্স টিস্যু, টয়লেট টিস্যু, কিচেন টিস্যু, টুথপেস্ট, শ্যাম্পু-সাবানের মতো টুকিটাকি জিনিসগুলোও সংগ্রহে রাখুন। হুট করে যদি দেখেন প্রয়োজনের সময়ে কোন একটি জিনিস শেষ হয়ে গেছে তবে সমস্যায় পড়তে হবে।

এছাড়া আপনার ব্যক্তিগত কোন জিনিসটি প্রয়োজন সেটার দিকেও নজর দিন। সকল প্রয়োজনীয় জিনিস কেনা থাকলে ছুটির সময়টিতে নির্বিঘ্নে কাটানো যাবে।

আরও পড়ুন: ঈদ ছুটিতে লাগেজ গোছাতে...

আরও পড়ুন: ছুটির মাঝে গাছ কীভাবে ভালো থাকবে?