যবিপ্রবিতে ‘বি’ ইউনিটে আসন পড়েছে ৩২৭৬ শিক্ষার্থীর



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন দুর্দশা লাঘবে প্রথমবারের মতো গুচ্ছ পদ্ধতিতে দেশের ২০টি সাধারণ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের স্নাতক প্রথম বর্ষের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

রোববার (২৪ অক্টোবর) ‘বি’ ইউনিটভুক্ত মানবিক বিভাগের শিক্ষার্থীরা ভর্তি পরীক্ষায় অংশ নেবেন। যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে (যবিপ্রবি) ‘বি’ ইউনিটের তিন হাজার ২৭৬ জন ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীর আসন পড়েছে।

গত ১৭ অক্টোবর ‘এ’ ইউনিটভুক্ত বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে গুচ্ছ পদ্ধতির যাত্রা শুরু হয়। ইতিমধ্যে ‘এ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার ফলাফলও প্রকাশ করা হয়েছে। জিএসটিভুক্ত সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে জানানো হয়েছে, ২৪ অক্টোবর ‘বি’ ইউনিটে মানবিক এবং ১ নভেম্বর ‘সি’ ইউনিটে বাণিজ্য বিভাগ থেকে পাশ করা শিক্ষার্থীদের দুপুর ১২টা-১টা পর্যন্ত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। তবে শিক্ষার্থীদের ভর্তি পরীক্ষা সংক্রান্ত অন্যান্য আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন করার জন্য পরীক্ষা শুরুর এক ঘণ্টা আগেই সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রে পৌঁছানোর নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

যবিপ্রবির জিএসটিভুক্ত সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার আহ্বায়ক কমিটি থেকে জানানো হয়েছে, বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব একাডেমিক ভবন ও মাইকেল মধুসূদন দত্ত গ্রন্থাগার কাম একাডেমিক ভবনে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। শিক্ষার্থীদের সুবিধার্থে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন স্থানে ডিজিটাল ব্যানারে রোল নম্বর, কেন্দ্র এবং ভবন নির্দেশক থাকবে। একইসঙ্গে শিক্ষার্থীদের সহায়তা দেওয়ার জন্য ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠেয় সকল ভবনের প্রবেশমুখে বিএনসিসিসহ অন্যান্য স্বেচ্ছাসেবকগণ থাকবেন। এ ছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্রীয়াশীল বিভিন্ন ছাত্র সংগঠনও ভর্তিচ্ছু ছাত্র-ছাত্রীদের সহায়তা করবেন।

পরিবহন প্রশাসকের কার্যালয় থেকে জানানো হয়, ভর্তি পরীক্ষার্থীদের জন্য সকাল সাড়ে ৯টা থেকে বেলা ১১টা পর্যন্ত পালবাড়ি-ক্যাম্পাস রুটে চারটি এবং চুড়ামনকাটি-ক্যাম্পাস রুটে দুটি গাড়ি অনবরত চলাচল করবে।

ভর্তি পরীক্ষা গ্রহণের প্রস্তুতির বিষয়ে যবিপ্রবির উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আনোয়ার হোসেন বলেন. ‘বি’ ইউনিটের পরীক্ষা গ্রহণে সর্বাত্মক প্রস্তুতি গ্রহণ করা হয়েছে। ভর্তি পরীক্ষার সময় যেকোনো ধরনের বিশৃঙ্খলা এড়াতে ও পরীক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ নিশ্চিত করতে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও পর্যাপ্ত পরিমাণ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নিয়োজিত থাকবেন। পরীক্ষার সময় কোনো পরীক্ষার্থী বা দায়িত্বরত কেউই মোবাইল ফোনসহ কোনো ধরনের ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহার করতে পারবেন না। যদি কেউ ইলেক্ট্রনিক্স ডিভাইস ব্যবহার করে বা অসাধুপায় অবলম্বন করে, তাহলে তার বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উল্লেখ্য, জিএসটিভুক্ত ভর্তি পরীক্ষা, ফলাফলসহ অন্যান্য সকল তথ্য https://gstadmission.ac.bd এই ওয়েবসাইটে পাওয়া যাবে।