বৈশাখ উদযাপনের অর্থ ত্রাণ তহবিলে প্রদানের দাবি

জবি করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) পহেলা বৈশাখ উদযাপনের অর্থ প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে প্রদানের দাবি জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের সাংস্কৃতিক কেন্দ্র।

বুধবার (১ এপ্রিল) সাংস্কৃতিক কেন্দ্রের সভাপতি ফাইয়াজ হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক সাঈদ মাহাদী সেকেন্দার এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ দাবি জানান।

নেতৃবৃন্দ বলেন, চলমান বৈশ্বিক মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত গোটা বিশ্ব। চলছে বৈশ্বিক এক সংকট। বাংলাদেশও এ সংকটের বাইরে নয়। এরইমধ্যে করোনাজনিত কারণে দেশে সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। বিভিন্ন এলাকা লকডাউন এবং সাধারণ জনগণকে ঘরে থাকার অনুরোধ করা হয়েছে। এর ফলে নিম্ন আয়ের জনগোষ্ঠী, দিনমজুর তাদের দুর্ভোগ চরমে।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় মানবিক সংকটে বিভিন্ন সময়ে পাশে দাঁড়িয়েছে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় মানবিক সংকট মোকাবিলায় বিশ্ববিদ্যালয় দিবস আয়োজনের বাজেটের একটি বৃহৎ অংশ রোহিঙ্গাদের সহায়তায় ব্যয় করে বিগত সময়ে এক দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে। এছাড়া পদ্মা সেতু নির্মাণে আর্থিক অনুদান প্রদান করেছে।

তারা আরও বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে করোনা সংকট মোকাবিলায় জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন শিক্ষার্থীদের চিকিৎসা সহায়তা প্রদানের ব্যবস্থা করেছে। এছাড়া বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মানবিক দৃষ্টিতে শিক্ষার্থীদের সহায়তা করার আশ্বাস দিয়েছেন। এটি প্রশংসার দাবি রাখে। জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্র একইসঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের প্রতি দাবি রাখছে, আসন্ন পহেলা বৈশাখের জন্য বরাদ্দকৃত বাজেট প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে প্রদান করে চলমান সংকটে আর্তমানবতার ডাকে সাধারণ মানুষের পাশে দাঁড়ানোর।

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্র সবসময় বিশ্বাস করে সাধারণ মানুষ বেঁচে থাকলে দেশীয় সংস্কৃতি বেঁচে থাকবে। সুতরাং মানুষের পাঁশে দাঁড়ানো আমাদের মানবিক দায়িত্ব। আমাদের ডাকে সাড়া দিয়ে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে আর্থিক সহায়তা প্রদান করবে বলে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় সাংস্কৃতিক কেন্দ্র বিশ্বাস করে।

আপনার মতামত লিখুন :