‘ব্যাটেল অব মাইন্ডস-২০২০’-এর চ্যাম্পিয়ন টাইম ট্রাভেলার্স



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
চ্যাম্পিয়ন টাইম ট্রাভেলার্স।

চ্যাম্পিয়ন টাইম ট্রাভেলার্স।

  • Font increase
  • Font Decrease

তরুণদের দক্ষতা উন্নয়নের প্ল্যাটফর্ম ‘ব্যাটেল অব মাইন্ডস-২০২০’ এর ১৭তম আসরের চ্যাম্পিয়ন হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (আইবিএ), বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয় (বুয়েট) এবং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশ (আইইউবি)-এর শিক্ষার্থীদের নিয়ে গঠিত দল ‘টাইম ট্রাভেলার্স’।

প্রতিযোগিতায় রানার্স আপ হয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (আইবিএ), বাংলাদেশ ইউনিভার্সিটি অব প্রফেশনালস (বিইউপি) এবং ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজির (আইইউটি) শিক্ষার্থীদের সমন্বয়ে গঠিত দল ‘এনিথিং ওয়ার্কস’।

দ্বিতীয় রানার্স আপ ‘গো ফর ইট’-এর সদস্যরা সকলেই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ইনস্টিটিউট অব বিজনেস অ্যাডমিনিস্ট্রেশন (আইবিএ)-এর শিক্ষার্থী।

কয়েক মাস ধরে চলতে থাকা এই প্রতিযোগিতায় প্রায় ২ হাজার ৮০০ শিক্ষার্থী অংশ নেয়। প্রশিক্ষণ এবং বেশ কয়েকটি প্রতিযোগিতামূলক ধাপের মাধ্যমে চূড়ান্ত পর্যায়ের পর আজ সোমবার (ডিসেম্বর ১৪) এই তিনটি দলকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।

‘ব্যাটেল অব মাইন্ডস-২০২০’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে ভার্চুয়াল মাধ্যমে বক্তব্য রাখেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন। প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি বলেন, ‘ব্যাটেল অব মাইন্ডস-এর মাধ্যমে শিক্ষার্থীরা যেমন তাদের মেধা প্রদর্শন করতে পারে, তেমনি প্রচলিত গণ্ডির বাইরে গিয়ে ভাবতে শেখেন। আগামীর জন্য নেতৃত্ব তৈরি করতে পুঁথিগত বিদ্যা এবং করপোরেট কর্মজীবনের মধ্যে মেলবন্ধন তৈরি করে এই প্ল্যাটফর্ম। এছাড়া প্ল্যাটফর্মটি কর্মসংস্থান তৈরিতে ভূমিকা রাখার মাধ্যমে বেকারত্বের সমাধানও নিশ্চিত করছে, যা বাংলাদেশ সরকারেরও অন্যতম প্রধান লক্ষ্য।’

পররাষ্ট্রমন্ত্রী আরও বলেন, ‘আমাদের মেধাবী তরুণরা দেশের অর্থনীতিতে বড় ভূমিকা রাখতে পারে। আমাদের এই তরুণ জনসম্পদের সুষ্ঠু ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। ভবিষ্যতের পথে এগিয়ে নিতে আমাদের তরুণরা যেন সঠিক জ্ঞান এবং কর্মদক্ষতায় সমৃদ্ধ হয়ে ওঠে। তরুণদের প্রতিভা বিকাশে সঠিক প্ল্যাটফর্ম আমাদের নিশ্চিত করতে হবে। সৃষ্টিশীলতা, আবিষ্কার, প্রতিযোগিতা, উৎসাহ, নেটওয়ার্কিং- হচ্ছে সমৃদ্ধির মূল মন্ত্র, যা জীবনে চলার পথকে মসৃণ করে।’

অনুষ্ঠানে ব্রিটিশ আমেরিকান ট্যোবাকো বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক শেহজাদ মুনিম বলেন, ‘গত দেড় যুগের বেশি সময় ধরে ব্যাটেল অব মাইন্ডস দেশজুড়ে কয়েক হাজার মেধাবী তরুণদের এমন একটি প্লাটফর্ম প্রদান করেছে, যেখানে তারা বাস্তব জীবনের সমস্যা সমাধানে নিজেদের দক্ষতা প্রদর্শন করে আসছে। এই প্রতিযোগিতার লক্ষ্য হল শিক্ষার্থীদের মধ্য থেকে সেরাটা বের করে আনা এবং আশা করি আমরা সেই লক্ষ্যে সফল হয়েছি। দেশে তরুণদের প্রতিভা বিকাশে এবং বাংলাদেশ সরকারের টেকসই উন্নয়নের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের অংশ হিসেবে কর্মসংস্থ্যান তৈরিতেও ব্যাটেল অব মাইন্ডস আরো বেশি ভূমিকা রাখবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।’