দেশেই তৈরি হবে মার্কের কোভিড পিল



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশসহ নিম্ন ও নিম্ন-মধ্যম আয়ের ২৭টি দেশে নিজেদের তৈরি কোভিড পিল ‘মলনুপিরাভির’ উৎপাদনের জন্য চুক্তি করেছে বহুজাতিক ফার্মাসিউটিক্যাল কোম্পানি মার্ক অ্যান্ড কো।

বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) বার্তা সংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

প্রতিবেদনে বলা হয়, মার্কের সঙ্গে ও আন্তর্জাতিক জনস্বাস্থ্য বিষয়ক গোষ্ঠী মেডিসিন পেটেন্ট পুলের (এমপিপি) মাধ্যমে জাতিসংঘ সমর্থিত দেশগুলোর জেনেরিক ওষুধ প্রস্তুতকারকদের নিজস্ব সংস্করণ তৈরির সাব-লাইসেন্স দেওয়া হবে। ওষুধটি বাংলাদেশসহ ২৭টি দেশের কোম্পানি তৈরি করে বাজারেও এনেছে।

কোম্পানিটি দাবি করেছে, তাদের তৈরি ওষুধ মলনুপিরাভির মারাত্মক ঝুঁকিতে থাকা কোভিড রোগীদের হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার বা গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়ার হার ৩০ শতাংশ কমিয়ে আনতে পারছে। অ্যান্টিভাইরাল এই ড্রাগটি গত বছরের ডিসেম্বরে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে জরুরি ব্যবহারের অনুমোদন পেয়েছে।

এমপিপি বৃহস্পতিবার (২০ জানুয়ারি) বলেছে, বড়িটি কম দামে নিম্ন ও নিম্ন-মধ্যম আয়ের ১০৫টি দেশে সরবরাহ করা হবে। কোভিড যতদিন বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (ডব্লিউএইচও) ঘোষণা অনুযায়ী আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ‘জনস্বাস্থ্য জরুরি’ পরিস্থিতি হিসেবে শ্রেণিভুক্ত থাকবে।

মেডিসিন্স প্যাটেন্ট পুলের (এমএমপি) নির্বাহী পরিচালক চার্লস গোর বলেন, কোভিড-১৯ এর ধ্বংসযজ্ঞ থেকে মানুষকে রক্ষায় আমাদের ভাণ্ডারে নতুন আরেকটি অস্ত্র যোগ হলো। আমরা খুবই আনন্দিত। কয়েক মাসের মধ্যে মার্কের ওষুধটির জেনেরিক সংস্করণ বাজারে পাওয়া যাবে বলে জানান গোর।

বাংলাদেশের বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস, ভারতের ন্যাটকো ফার্মা, দক্ষিণ আফ্রিকার অ্যাস্পেন ফার্মাকেয়ার হোল্ডিংস এবং চীনের ফসুন ফার্মা এটি উৎপাদন করবে।

এবার চাল রফতানিতে লাগাম টানছে ভারত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

অভ্যন্তরীণ বাজারে দাম বৃদ্ধি ঠেকাতে গম ও চিনির পর এবার চাল রফতানি সীমিত করার পরিকল্পনা করছে প্রতিবেশী দেশ ভারত। সূত্র জানায়, চিনির মতো চাল রফতানির সর্বোচ্চ সীমা ১০ মিলিয়ন টন হতে পারে।

দেশটির কয়েকটি সূত্র জানিয়েছে, অভ্যন্তরীণ বাজারে চালের পর্যাপ্ততা নিশ্চিত করতে এবং দাম বৃদ্ধি ঠেকাতে ভারত সরকার এ সিদ্ধান্ত নিতে যাচ্ছে।

ভারত যদি সত্যিই চাল রফতানি সীমিত করে তাহলে বিশ্ব বাজারে চালের মৃল্য বৃদ্ধির আশঙ্কা করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা। যার প্রভাব বাংলাদেশের ওপরও পড়বে।

এর আগে, ভারত সরকার ঘোষণা করে তারা ১ জুন থেকে চিনি রফতানি সীমিত করবে। গত ২৪ মে দেশটির ডিরেক্টরেট জেনারেল অব ফরেন ট্রেড এক বিজ্ঞপ্তিতে বলে, সরকার সেপ্টেম্বর মাস পর্যন্ত ১০ মিলিয়ন টন চিনি রফতানির অনুমতি দেবে।

চীনের পর ভারত বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম চাল উৎপাদনকারী এবং ২০২১-২২ সালে ১৫০টিরও বেশি দেশে চাল রফতানি করেছে ভারত।

দেশটির কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, পাঁচটি পণ্যের ওপর রফতানি নিষেধাজ্ঞার কথা ভাবা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই গম ও চিনি ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে।

করোনার মহামারি শেষ না হতেই ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসনের ফলে ভারতে মুদ্রাস্ফীতি দেখা দিয়েছে। যা নিয়ে উদ্বিগ্ন দেশটির সরকার। ভারতে গত আট বছরের মধ্যে মুদ্রাস্ফীতি সর্বোচ্চ ৭ দশমিক ৭৯ শতাংশে পৌঁছেছে।

ভারত চলতি বছরে ৬ দশমিক ১১৫ বিলিয়ন মূল্যের নন-বাসমতি চাল রফতানি করেছে। যা দেশটির কৃষি পণ্যের মধ্যে শীর্ষ বৈদেশিক মুদ্রা আয়কারী ছিল।

দেশটির সরকারি তথ্য বলছে, ভারতের নন-বাসমতি চাল রফতানি ২০১৩-১৪ অর্থবছরের ২ দশমিক ৯৩ বিলিয়ন ডলার থেকে ২০২১ -২২ অর্থবছরে ৬ দশমিক ১২ বিলিয়ন ডলারে বা ১০৯ শতাংশ বেড়েছে।

;

যৌনপেশা আইনসম্মত: ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

অন্যান্য পেশার ন্যায় যৌনকর্মও একটি পেশা। তবে একটি বিষয় খেয়াল রাখতে হবে যাতে কাউকে এই পেশায় জোরপূর্বক আনা না হয়। কিন্তু কেউ যদি যৌনপেশায় স্বেচ্ছায় আসে তাকে অযথা পুলিশি হয়রানি করা যাবে না বলে রায় দিয়েছেন ভারতীয় সুপ্রিম কোর্ট।

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) আনন্দবাজারের প্রতিবেদনে বলা হয়, বিচারপতি এল নাগেশ্বর রাওয়ের নেতৃত্বাধীন তিন বিচারপতির বেঞ্চ যৌনপেশা নিয়ে ছ’টি নির্দেশিকা জারি করেছেন। এর মধ্য দিয়ে যৌনকর্মীদের অধিকার সুরক্ষিত হবে বলে মনে করছেন দেশটির সুপ্রিম কোর্ট।

নির্দেশিকা বলা হয়েছে, ‘যৌনকর্মীরাও আইনের চোখে সমান সুরক্ষার অধিকারী। যখন এটা স্পষ্ট যে, যৌনকর্মী একজন প্রাপ্তবয়স্ক এবং সম্মতি সাপেক্ষেই যৌনতা বিক্রি করছেন, তখন পুলিশকে অকারণে হস্তক্ষেপ থেকে বিরত থাকতে হবে। কোনও ফৌজদারি ব্যবস্থাও গ্রহণ করা যাবে না। সংবিধানের ২১ নম্বর অনুচ্ছেদ এই দেশের প্রত্যেক নাগরিকের মর্যাদাপূর্ণ জীবনযাপনের অধিকার সুনিশ্চিত করেছে।’

আদালত স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছে, যৌনপল্লিতে পুলিশি অভিযানের সময় যৌনকর্মীদের গ্রেফতার, দণ্ডিত করা, হেনস্থা করা উচিত নয়। কারণ যৌনকর্ম বেআইনি নয়, শুধুমাত্র যৌনপল্লি চালানো বেআইনি।

মা যৌনপেশায় আছেন, শুধু সেই যুক্তিতে সন্তানকে তার মায়ের কাছ থেকে সরিয়ে নেওয়া যাবে না বলে জানিয়েছে দেশটির শীর্ষ আদালত। পাশাপাশি কোনও যৌনকর্মী যদি তার বিরুদ্ধে সংঘটিত অপরাধের অভিযোগ নিয়ে পুলিশের কাছে যান, তা হলে সেটিও সমান মনোযোগের সঙ্গে দেখবেন পুলিশকর্মী।

বিশেষত, যদি যৌনকর্মী তার বিরুদ্ধে যৌন হেনস্থা বা অপরাধের অভিযোগ নিয়ে আসেন, তা হলে দ্রুততার সঙ্গে তার শারীরিক পরীক্ষা করে তদন্ত শুরু করতে হবে। এ ক্ষেত্রে, একজন সাধারণ মানুষ যেমন সুবিধার অধিকারী, একজন যৌনকর্মীর ক্ষেত্রেও তার অন্যথা করা যাবে না। কোনও ঘটনা ঘটলে যৌনকর্মীদের পরিচয় যেন প্রকাশ্যে না আসে, সে ব্যাপারেও স্পষ্ট নির্দেশিকা দিয়েছে আদালত।

;

বৈশ্বিক মন্দা নিয়ে সতর্ক করল বিশ্বব্যাংক



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনার মহামারি শেষ না হতেই ইউক্রেনে রাশিয়ার আগ্রাসন। যা ফলে খাদ্য, জ্বালানি ও সারের দাম প্রতিদিনই বৃদ্ধি পাচ্ছে। এমন পরিস্থিতিতে বিশ্বব্যাংক সতর্ক করে বলেছে, বিশ্বব্যাপী মন্দা দেখা দিতে পার। খবর বিবিসির।

বিশ্বব্যাংকের প্রধান ডেভিড ম্যালপাস বুধবার (২৫ মে) এক মার্কিন ব্যবসায়িক ইভেন্টে বলেন, আমরা কীভাবে মন্দা এড়াতে পারি’, তা নিশ্চিত করা কঠিন।

তিনি আরও বলেন, করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সিরিজ লকডাউনের জেরে অর্থনৈতিক গতি মন্থর হওয়া উদ্বেগ বাড়াচ্ছে।

বিশ্ব অর্থনীতি সংকুচিত হতে পারে এমন ক্রমবর্ধমান ঝুঁকির মধ্যেই বিশ্বব্যাংকের প্রধান এমন সতর্কবার্তা দিলেন।

তবে, কোনো নির্দিষ্ট পূর্বাভাস না দিয়ে বিশ্বব্যাংকের প্রধান ম্যালপাস বলেন, আমরা যদি বৈশ্বিক জিডিপির দিকে তাকাই... (তাহলে) আমরা কীভাবে মন্দা এড়াতে পারি, তা এখনই বুঝতে পারাটা কঠিন। জ্বালানির দাম দ্বিগুণ হওয়ার ধারণাই মন্দা শুরুর জন্য যথেষ্ট’, যোগ করেন তিনি।

এর আগে গত মাসে বিশ্বব্যাংক চলতি বছরের জন্য বিশ্বব্যাপী অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির পূর্বাভাস কমিয়ে ৩ দশমিক ২ শতাংশ ঘোষণা করেছিল।

জিডিপি অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির একটি পরিমাপ। একটি দেশের অর্থনীতি কতটা ভাল বা খারাপ তা পরিমাপ করা হয় জিডিপির মাধ্যমে। অর্থনীতিবিদ ও কেন্দ্রীয় ব্যাংক এই সময়ে তা ঘনিষ্ঠভাবে পর্যবেক্ষণ করছে।

;

রেড জোনে ইমরান, সরকারকে ৬ দিনের আল্টিমেটাম



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পাকিস্তানের রাজধানী ইসলামাবাদের গুরুত্বপূর্ণ এলাকা রেড জোনে পৌঁছেছেন তেহরিক-ই-ইনসাফের (পিটিআই) চেয়ারম্যান ইমরান খান ও তার সমর্থকরা।

বৃহস্পতিবার (২৬ মে) সকালে রেড জোনে প্রবেশ করেন ইমরান খান। এসময় তিনি আগাম নির্বাচনের তারিখ ঘোষণার জন্য সরকারকে ছয়দিনের সময় বেঁধে দেন। এবং সতর্ক করে বলেন, দাবি মানা না হলে পুরো জাতি রাজধানীতে আসবে।

ইসলামাবাদ পুলিশের মুখপাত্র এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, পুলিশ, রেঞ্জার্স এবং অন্যান্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ধৈর্য্য নিয়ে বিক্ষোভকারীদের থামানোর চেষ্টা করছেন।

ডনের এক খবরে বলা হয়, পুলিশি বাধা ও গুলির মুখেও সেখানে ইমরানের সমর্থকেরা অবস্থান করছেন।

বুধবার (২৫ মে) থেকে ইসলামবাদের ডি-চকে সমর্থকেরা ইমরান খানের পৌঁছানোর অপেক্ষায় ছিলেন।

পিটিআইয়ের চেয়ারম্যান ইমরান খান ইসলামাবাদের নবম অ্যাভিনিউতে (রেড জোন) অবস্খান করা বিক্ষোভকারীদের উদ্দেশে বলেন, নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা এবং বিধানসভা ভেঙে দেওয়ার জন্য সরকারকে ছয় দিনের সময়সীমা দেওয়া হলো। অন্যথায় পুরো জাতি তিনি নিয়ে রাজধানীতে আবার ফিরে আসবেন।

তিনি বলেন, আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম যে সরকার বিধানসভা ভেঙে দিয়ে নির্বাচনের তারিখ ঘোষণা না দেওয়া পর্যন্ত আমি এখানে বসে থাকব, কিন্তু আমি গত ২৪ ঘণ্টায় যা দেখেছি, তারা (সরকার) জাতিকে নৈরাজ্যের দিকে নিয়ে যাচ্ছে। তিনি আরও বলেন, সরকার জাতি ও পুলিশের মধ্যে বিভেদ সৃষ্টির চেষ্টা করছে।

ইমরান বলেন, সরকার খুশি হবে যদি তিনি ইসলামাবাদে অবস্থান নেন কারণ এতে জনগণ, পুলিশ ও সেনাবাহিনীর মধ্যে সংঘর্ষ হবে।

ডনের খবরে আরও বলা হয়েছে, ইসলামাবাদের ‘রেড জোনের’ নিরাপত্তায় সেনাবাহিনীর সাহায্য চেয়েছে শাহবাজ শরিফের সরকার। ইতিমধ্যে সেনাবাহিনী মোতায়েনের অনুমতিও দিয়েছে সরকার। সরকারি গুরুত্বপূর্ণ ভবন রক্ষায় সেনাবাহিনী মোতায়েনের কথা বলা হয়েছে।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রানা সানাউল্লাহ একটি প্রজ্ঞাপন টুইট করে বলেছেন, সংবিধানের ২৪৫ অনুচ্ছেদের অধীনে রেড জোনে সেনাবাহিনী মোতায়েনের অনুমোদন দিয়েছে সরকার।

তিনি বলেন, ইসলামাবাদের পুলিশের মহাপরিদর্শক ডক্টর আকবর নাসির খানও ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন এবং বিক্ষোভকারীদের রেড জোন ছেড়ে যাওয়ার নির্দেশ দেওয়া হচ্ছে।

;