উত্তর গাজায় তুমুল যুদ্ধ, রাফাহতে অগ্রসর হচ্ছে ইসরায়েলি ট্যাংক



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গাজার বাসিন্দা এবং চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, গাজায় আক্রমণ তীব্রতর করেছে ইসরায়েলি বাহিনী। রয়টার্স জানিয়েছে, গাজার উত্তরে জাবালিয়াতে প্রচণ্ড লড়াইয়ের খবর পাওয়া গেছে।

চিকিৎসকরা শুক্রবার (২৪ মে) বলেছেন, ‘জাবালিয়ায় ঘরবাড়িতে হামলার সময় কমপক্ষে পাঁচজন ফিলিস্তিনি নিহত হয়েছে এবং আরও অনেকে ধ্বংসস্তূপের নীচে চাপা পড়েছে। তবে, বোমা হামলার তীব্রতার কারণে এই অঞ্চলে পৌঁছানো যায়নি।’

এদিকে মিশরের সীমান্তবর্তী দক্ষিণাঞ্চলীয় রাফাহ’র বাসিন্দারা জানিয়েছেন, ইসরায়েলি ট্যাঙ্কগুলো পূর্ব দিকের জেনিনা জেলায় আরও অগ্রসর হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে সেখানে বিস্ফোরণের শব্দ এবং ধোঁয়া উঠতে দেখা যাচ্ছে।

অন্যদিকে ইসরায়েল বলেছে, তাদের বাহিনী যুদ্ধের কয়েক মাস আগে গাজার আটটি ঐতিহাসিক শরণার্থী শিবিরের মধ্যে সবচেয়ে বড় শিবির জাবালিয়া পরিষ্কার করছে।

বাসিন্দারা বলেন, শুক্রবার ট্যাঙ্কগুলো স্থানীয় বাজার ধ্বংস করেছে এবং বুলডোজারগুলো জাবালিয়ার সরু গলি দোকানগুলো ভেঙে দিয়েছে।

হামাসের সশস্ত্র শাখা বলেছে, তাদের যোদ্ধারা সেখানে তিনটি ট্যাংক ধ্বংস করেছে।

উল্লেখ্য, ফিলিস্তিনী সংগঠন হামাস গত বছরের ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে আকস্মিক বড়ো ধরনের হামলা চালায়। এ সময়ে তারা প্রায় এক হাজার ১৭০ ইসরায়েলিকে হত্যা এবং ২৫০ জনকে জিম্মি করে।

এখনও হামাসের কাছে ১২৪ জন জিম্মি হিসেবে আটক রয়েছে বলে ধারণা করছে ইসরায়েল।

হামাসের হামলার পরে গাজায় প্রতিশোধমূলক পাল্টা হামলা শুরু করে ইসরায়েল, যা এখনও চলছে। গাজায় ইসরায়েলের অব্যাহত এ হামলায় ৩৫ হাজার ৭০৯ ফিলিস্তিনী নিহত হয়েছে, যাদের অধিকাংশই নারী ও শিশু।

   

ইসরায়েলের গোপন স্থাপনার ফুটেজ প্রকাশ করল হিজবুল্লাহ



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইসরায়েলের গুরুত্বপূর্ণ ও স্পর্শকাতর স্থাপনার ভিডিও ফুটেজ প্রকাশ করেছে লেবাননের সশস্ত্র গোষ্ঠী হিজবুল্লাহর সামরিক গণমাধ্যম বিভাগ। 

রোববার (২৩ জুন) প্রকাশিত এই ভিডিও ফুটেজ সম্পর্কে লেবাননের আল-মায়াদিন টেলিভিশন চ্যানেল বলছে, ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর কাছে নিরাপত্তার দিক দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ এবং স্পর্শকাতর স্থাপনাগুলোকে হিজবুল্লাহ চিহ্নিত করেছে।

দেশটির ক্ষমতাসীন বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর সরকার যখন লেবাননের হিজবুল্লাহর বিরুদ্ধে সর্বাত্মক যুদ্ধের হুমকি দিচ্ছে, ঠিক তখনই এ ফুটেজ প্রকাশ করল সংগঠনটি। 

বার্তাসংস্থা ইরনার প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রকাশিত ফুটেজে যেসব গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনাকে চিহ্নিত করা হয়েছে, তার মধ্যে রয়েছে- নেগেভ মরুভূমিতে অবস্থিত ইসরায়েলের দিমোনা পরমাণু চুল্লি, তেল আবিবের বেনগুরিয়ন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর, হাকিরিয়া কমপ্লেক্স এবং নেভাতিম বিমানঘাঁটি।

উল্লেখ্য, গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা হাকিরিয়া কমপ্লেক্সে রয়েছে ইসরায়েলের সামরিক বাহিনীর জেনারেল স্টাফ এবং বহু শীর্ষ সামরিক কর্মকর্তার বাসা-বাড়ি, রামাত ডেভিড বিমান ঘাঁটি এবং লেবানন উপকূলের কারিশ গ্যাসক্ষেত্র। 

এর আগে, শুক্রবার (২১ জুন) ইসরায়েলের একটি নৌঘাঁটিসহ ৬টি স্থাপনায় ড্রোন হামলা চালিয়েছে হিজবুল্লাহ। এতে ওই নৌঘাঁটির একাংশ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে এবং বহু সেনা হতাহত হয়েছে বলে দাবি করেছে সংগঠনটি। 

;

ভারতে সরকারি অফিসে ১৫ মিনিট দেরি হলেই কাটা যাবে ছুটি



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ভারতের সরকারি অফিস সকাল ৯টা থেকে বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত চলবে। এক্ষেত্রে চাকরিজীবীদের অফিসে ঢুকতে হবে সকাল ৯টায়। দেরি হলেই ক্যাজুয়াল লিভ কাটা হবে বলে পরিপত্র জারি করা হয়েছে।

ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার ভারতের সরকারি চাকরিজীবীদের জন্য এই নতুন নিয়ম প্রণয়ন করেন।

রোববার (২৩ জুন)  টাইমস অব ইন্ডিয়ার প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে জানানো হয়, সরকারি চাকরিজীবীদের সময়মত অফিসে উপস্থিতির প্রকাশিত পরিপত্রে বলা হয়েছে, এখন থেকে অফিসে ঢুকতে সরকারি চাকরিজীবীরা সর্বোচ্চ ১৫ মিনিট ছাড় পাবেন। সকাল সোয়া ৯টার মধ্য অফিসে উপস্থিত না হলে তাদের জন্য বরাদ্দ ক্যাজুয়াল লিভের মধ্যে থেকে অর্ধদিবস ছুটি কেটে নেওয়া হবে।

এ ছাড়াও, প্রতিদিন অফিসে প্রবেশ ও বেরিয়ে যাওয়ার সময় বায়োমেট্রিক শনাক্তকরণ ব্যবস্থা ব্যবহারও বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। 

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, সাধারণ কর্মচারীরা শনাক্তকরণ ব্যবস্থা ব্যবহার করলেও ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের মধ্যে তা ব্যবহারে অনীহা দেখা যায়। তাছাড়া, করোনা মহামারির পর থেকে সরকারি চাকরিজীবীদের অফিসে দেরিতে আসার প্রবণতাও বেশি লক্ষ্য করা গেছে। ফলে নতুন এ নিয়ম চালু করেছে কেন্দ্রীয় সরকার।

;

গ্রিসে একদিনে ৬৬ দাবানল



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গ্রীসের ইভিয়া দ্বীপের কন্টোডেস্পোটি এলাকায় এবং পশ্চিম থ্রেসের সাপসি শহরাঞ্চলে একদিনে অন্তত ৬৬টি দাবনলের ঘটনা ঘটেছে। শুক্রবার (২২ জুন) সন্ধ্যা ৬টা থেকে স্থানীয় সময় শনিবার (২৩ জুন) গভীর রাত পর্যন্ত সময়ের মধ্যে এসব দাবানলের ঘটনা ঘটে।

তুর্কি বার্তা সংস্থা আনাদোলুতে এ খবর দেওয়া হয়েছে। 

প্রতিবেদনে বলা হয়, প্রাথমিকভাবে এসব দাবানলের ৫২টি স্থানের আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে দমকল বাহিনী। বাকি ১৪টি স্থানের আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে কাজ করছে দেশটির ফয়ার সার্ভিসের সদস্যরা। তবে এসব দাবানলের ঘটনায় কোন হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

দেশটির বেসামরিক সুরক্ষা কর্তৃপক্ষের উদ্ধৃতিদিয়ে রাষ্ট্রীয় বার্তা সংস্থা আমনা (এএমএনএ) জানিয়েছে, ইভিয়া দ্বীপের কন্টোডেস্পোটি এলাকায় এবং পশ্চিম থ্রেসের সাপসি শহরে এসব দাবানলের ঘটনা ঘটেছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, দাবানল মোকাবিলায় জোর তৎপরতা অব্যাহত রেখেছে গ্রীস প্রশাসন। এসব দাবানলের ঘটনায় জড়িতদের গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সূত্রে জানা গেছে, দাবানলের ঘটনায় এখন পর্যন্ত ১৩ জনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। ধারণা করা হচ্ছে সন্দেভাজনরা ইয়েট ক্রজে যাওয়ার সময় আতশবাজি ছুড়ে দিলে সেখান থেকে এসব দাবানলের ঘটনা ঘটেছে। বেসামিরক নিরাপত্তা মন্ত্রী অ্যাটিকা অঞ্চলে একটি দাবানলের উচ্চ ঝুঁকির বিষয়ে সতর্কতা অবলম্বনের পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি দেশটির ঐতিহাসিক নগরী এথেন্স এবং এর পার্শ্ববর্তী বন্দর শহর পিরেউস পিন ইভিয়াতেও বারতি সতর্কতার পরামর্শ দিয়েছেন।  

গণমাধ্যমের পৃথক আরেকটি খবরে বলা হয়েছে, তুরস্কের দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলে ভয়াবহ দাবানলে কমপক্ষে ১২ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছেন আরও বহু মানুষ। এই দাবানলের শত শত প্রাণীরও মৃত্যু হয়েছে। বৃহস্পতিবার থেকে এই দাবানল শুরু হয় এবং শুক্রবার পর্যন্ত আগুনে কয়েকশ প্রাণী মারা গেছে। কৃষকদের খড় পোড়ানো থেকে ওই আগুনের সূত্রপাত হয়েছিল বলে জানিয়েছে স্থানীয় প্রশাসন। 

;

তাইওয়ানের স্বাধীনতা চাইলেই মৃত্যুদণ্ড দিবে চীন



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

তাইওয়ান ভূখণ্ডের চারপাশে একের পর এক নৌমহড়া চালানোর পর এবার কট্টর আইন পাস করেছে রক্ষণশীল চীন। এ আইন অনুযায়ী, ভূখণ্ডটির স্বাধীনতা দাবি করলেই মৃত্যুদণ্ড প্রদান করা হবে।

শনিবার (২২ জুন) দ্য গার্ডিয়ানের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, তাইওয়ানের স্বাধীনতার পক্ষকে সমর্থনকারীদের মৃত্যুদণ্ডের শাস্তির বিষয়টি বিচারিক নির্দেশিকায় যুক্ত করেছে চীন। ফৌজদারি অপরাধের বিশেষ গুরুতর মামলার ক্ষেত্রে এ শাস্তি প্রযোজ্য হবে। 

যারা তাইওয়ানের স্বাধীনতার পক্ষ নেবেন পরিস্থিতি বুঝে তাদের ১০ বছর থেকে শুরু করে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডও হতে পারে বলে আদেশে উল্লেখ আছে।

প্রতিবেদনে আরও বলা হয়, চিনহুয়া জানিয়েছে, শুক্রবার (২১ জুন) বেইজিংয়ের জারি করা নির্দেশনায় দেশকে বিভক্ত ও বিচ্ছিন্নতা উসকে দেওয়ার জন্য তাইওয়ানের স্বাধীনতাপন্থিদের শাস্তির কথা জানানো হয়েছে। এ ছাড়া ভূখণ্ডের স্বাধীনতার প্রচেষ্টায় মূল ভূমিকা পালনকারী এবং রাষ্ট্র ও জনগণের ক্ষতিকারীদের মৃত্যুদণ্ডের কথা বলা হয়েছে।

চীনের এমন আদেশ জারির পর তার তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে তাইওয়ান। তারা জানিয়েছে, বেইজিং পুরো তাইওয়ানে কোনো আইনি এখতিয়ার রাখে না। এ ছাড়া বেইজিং নিয়ম মানতে যে নির্দেশনা দিয়েছে তা তাইওয়ানের জনগণের জন্য মানা বাধ্যতামূলক নয়।

তাইওয়ানের মেইনল্যান্ড অ্যাফেয়ার্স কাউন্সিল এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, চীনের এমন পদক্ষেপ তাইওয়ান প্রণালিজুড়ে জনগণের মধ্যে সংঘাত বাড়িয়ে দেওয়ার জন্য উসকানি হিসেবে কাজ করবে। এ পদক্ষেপ বেইজিং ও তাইওয়ানের মধ্যে সম্পর্কের জন্য ইতিবাচক উন্নয়নে সহায়ক নয়।

চিনহুয়া জানিয়েছে, বিচ্ছিন্নতাবাদী সংগঠনের সঙ্গে জড়িত এবং রাষ্ট্রকে বিভক্ত করে এমন কর্মকাণ্ড চালাতে নির্দেশ দেওয়া ব্যক্তিদের উদ্দেশ্য করে বেইজিং এমন নির্দেশনা দিয়েছে। শুক্রবার থেকেই এটি কার্যকর করা হয়েছে।

চীনের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম পিপলস ডেইলি জানিয়েছে, শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে শীর্ষ নিরাপত্তা কর্মকর্তা সান পিং এ নির্দেশিকা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, এ নির্দেশনা অনুসারে অভিযুক্ত বিচ্ছিন্নতাবাদীদের ওপর আইনি পদক্ষেপের ধারালো খড়্গ সব সময় উঁচুতে ঝুলবে। 

তিনি আরও বলেন, তাইওয়ানের সব জনগণকে লক্ষ্য করে এটি জারি করা হয়নি। কেবল তাইওয়ানের স্বাধীনতা নিয়ে ওকালতি করা কিছু বিচ্ছিন্নতাবাদীদের লক্ষ্য করে এটি জারি করা হয়েছে।

তাইওয়ানকে নিজেদের ভূখণ্ড হিসেবে বিবেচনা করে চীন। ফলে এ ভূখণ্ডকে নিজেদের সঙ্গে যুক্ত করতে শক্তিপ্রয়োগের কথাও জানিয়ে আসছে দেশটি। এরই অংশ হিসেবে সম্প্রতি ভূখণ্ডের ওপর চাপ বাড়িয়েছে তারা। এমনকি তাইওয়ানের আশপাশে বেশ কয়েকটি সামরিক মহড়াও দিয়েছে চীন। গত মাসে তাওয়ানের নতুন প্রেসিডেন্ট লাই চিং তে দায়িত্ব নেওয়ার পর সর্বশেষ মহড়া চালায় তারা।

;