মাথা-ঘাড়ে ব্যথা? নার্ভের সমস্যা নয় তো!



লাইফস্টাইল ডেস্ক, বার্তা ২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হলে অনেকেরই মাথা ব্যথার সমস্যা দেখা দেয়। তবে এক ধরনের ভয়ানক মাথার যন্ত্রণায় অনেকেই কষ্ট পান, যা মাইগ্রেনের মাথা ব্যথার থেকেও বেশি কষ্টকর। ব্যথার তীব্রতায় কাজকর্মও করতে পারেন না। এটা মূলত নার্ভের এক বিশেষ সমস্যার কারণে অসহ্য মাথা ব্যথার কষ্ট সহ্য করতে হয়। আর এই রোগের নাম অক্সিপিটাল নিউরালজিয়া।

মাথা ও ঘাড়ের অসহ্য যন্ত্রণা এই রোগের প্রধান উপসর্গ। যাঁদের এক নাগাড়ে কম্পিউটারে কাজ করতে হয়, তাঁদের মধ্যে ঘাড় আর মাথা ব্যথার সমস্যা বেশি দেখা যায়। তবে মাথার তীব্র যন্ত্রণার অন্যতম কারণ অক্সিপিটাল নিউরালজিয়া নামে নার্ভের সমস্যা। ঘাড়ের পিছনের দিকে সি-২ ও সি-৩ নামক দুটি ভার্টিব্রেট বা কশেরুকা থেকে বেরোয় গ্রেটার অক্সিপিটাল নার্ভ ও লেসার অক্সিপিটাল নার্ভ। বিভিন্ন কারণে এই নার্ভগুলো ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে। আর তখনই শুরু হয় ভয়ানক ব্যথা আর যন্ত্রণা।

ভুল ভঙ্গিমায় একভাবে মাথা কাত করে বা ঘাড় বেঁকিয়ে মোবাইল বা কম্পিউটার স্ক্রিনের দিকে তাকিয়ে থাকলে নার্ভে চাপ পড়ে। ফলে যাঁদের অক্সিপিটাল নার্ভে অল্প স্বল্প সমস্যা আছে, তাঁদের সমস্যা বেড়ে যাওয়ার ঝুঁকি খুব বেশি। এছাড়া রিকশা, অটো বা বাসের ঝাঁকুনি লেগেও নার্ভ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। অনেকে সেলুনে বা পার্লারে গিয়ে মাথা ঘাড়ে ম্যাসাজ করান। এক্ষেত্রেও অনভিজ্ঞ হাতে জোরে ম্যাসাজ করার জন্যে নার্ভ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে।