ডোমিনোজ নিয়ে এলো বাংলাদেশের প্রথম ‘লাইভ পিৎজা থিয়েটার’



নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ডোমিনোজ নিয়ে এলো বাংলাদেশের প্রথম “লাইভ পিৎজা থিয়েটার”

ডোমিনোজ নিয়ে এলো বাংলাদেশের প্রথম “লাইভ পিৎজা থিয়েটার”

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশে ডোমিনোজ পিৎজা চালু হওয়ার পর থেকেই সুস্বাদু খাবারের পাশাপাশি দ্রুততম ডেলিভারির মাধ্যমে সেই খাবার পৌঁছে দিচ্ছে গ্রাহকদের কাছে। এই সেবা ছাড়াও গ্রাহকদের জন্য প্রতিবার নতুন কিছু করতে ডোমিনোজ সবসময়ই সচেষ্ট। সেই ধারাবাহিকতায় এবার ডোমিনোজ নিয়ে এসেছে ‘লাইভ পিৎজা থিয়েটার’ যা দারুণ একটি ইন্টারঅ্যাকটিভ ফিচার, যেখানে পিৎজা তৈরির পুরো প্রক্রিয়া শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত দেখা যাবে এবং রিয়েল টাইমে ট্র্যাক করা যাবে।

উন্নত প্রযুক্তির সাহায্যে বাংলাদেশে এই প্রথমবারের মতো ভোজনরসিকরা হট অ্যান্ড ফ্রেশ ডোমিনোজ পিৎজা তৈরির সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া লাইভ উপভোগ করতে পারবেন। অর্ডার দেয়া মাত্র গ্রাহকদের কাছে এসএমএসের মাধ্যমে একটি লিঙ্ক শেয়ার করা হবে যাতে ট্যাপ করে গ্রাহক স্বাচ্ছন্দ্যে নিজের হ্যান্ডহেল্ড ডিভাইস, যেমন - স্মার্টফোন, ট্যাবলেট কিংবা ল্যাপটপে ঘরে বসেই পিৎজা তৈরির সম্পূর্ণ প্রক্রিয়া দেখতে পারবেন।

এই ফিচারটি গ্রাহকদের অর্ডার করা খাবার তৈরির পুরো প্রক্রিয়াটি যেমন সরাসরি দেখার সুযোগ করে দিবে, তেমনি খাবার তৈরির সময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা ও স্বচ্ছতার ব্যাপারেও মানুষকে সচেতন করবে। ডোমিনোজের ‘লাইভ পিৎজা থিয়েটার’ অত্যাধুনিক ডিজিটাল প্রযুক্তির সাথে খাদ্য নিরাপত্তার এক অসাধারণ সমন্বয়। ‘লাইভ পিৎজা থিয়েটার’ এর মাধ্যমে সবার চেয়ে একধাপ এগিয়ে খাদ্য সুরক্ষার প্রতিশ্রুতি দিচ্ছে ডোমিনোজ।

ডোমিনোজ পিৎজা বাংলাদেশের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৌমিল মেহতা বলেন, “ডোমিনোজ পিৎজা গ্রাহকদের পিৎজা তৈরি থেকে শুরু করে পরিবেশন করা পর্যন্ত সর্বোচ্চ অভিজ্ঞতা দিতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ। আধুনিক প্রযুক্তির সাহায্যে লাইভ কিচেন স্ট্রিমিং এনে আমরাই বাংলাদেশের ফুড মার্কেটকে নতুন উচ্চতায় নিয়ে যাচ্ছি। গ্রাহকদের জন্য নতুন কিছু করতে পেরে আমরা আনন্দিত এবং তাদের জন্য এমন অভিনব প্রক্রিয়া আনতে পেরে গর্বিত। আমরা বিশ্বাস করি যে লাইভ পিৎজা থিয়েটার আমাদের গ্রাহকদের কাছে খাদ্য নিরাপত্তার বিষয়ে আমাদের স্বচ্ছতার ক্ষেত্রে নিঃসন্দেহে একটি বড় পদক্ষেপ।”

এই ডিজিটাল যুগে আমরা সবসময় নতুন অভিজ্ঞতা অর্জন করতে চায়। যেকোনো জায়গা থেকে লাইভ পিৎজা তৈরি করা দেখার অভিজ্ঞতার মতো আর কি হতে পারে!

ডোমিনোজ পিৎজার সব আউটলেটে ‘লাইভ পিৎজা থিয়েটার’ আছে এবং ডোমিনোজ অ্যাপ দিয়ে আপনি এই অভিজ্ঞতা যেকোনো সময় উপভোগ করতে পারবেন, যা সহজেই ডাউনলোড করতে পারবেন গুগোল প্লে-স্টোর থেকে। তাছাড়া, গ্রাহকরা ওয়েবসাইট (https://m.dominos.com.bd/) অথবা ১৬৬৫৬ নাম্বারে কল করে অর্ডার করতে পারবেন।

মস্তিষ্কের টিউমার ধরা পড়বে প্রস্রাব পরীক্ষায়!



লাইফস্টাইল ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সম্প্রতি এক গবেষণা বলছে, প্রস্রাবে থাকা একপ্রকার সূক্ষ্ম প্রোটিন ইঙ্গিত দিতে পারে মস্তিষ্কে টিউমারের অস্তিত্ব আছে কি না। গবেষণায় বলা হয়েছে, এই পরীক্ষার মাধ্যমেই জটিল কোনও পদ্ধতি ছাড়াই তা সনাক্ত করে ফেলা সম্ভব কারও মস্তিষ্কে টিউমার আছে কি না। এতে রোগ নির্ণয়ে এবং চিকিৎসা বা অস্ত্রোপচার সুবিধা হয়।

জাপানের নাগোয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকরা জানিয়েছেন, উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থায় বিভিন্ন ধরনের ক্যানসার সনাক্ত করা আগের চেয়ে অনেকটাই সহজ হয়ে গিয়েছে। কিন্তু মস্তিষ্কের ক্ষেত্রে তা এখনও বেশ সমস্যা।

চিকিৎসকদের কাছে মস্তিষ্কে এই ধরনের জটিলতা ধরা পড়ার প্রাথমিক লক্ষণগুলো হল স্নায়ুর অস্বাভাবিকতা। যেমন চলাফেরা করতে, কথা বলতে বা মস্তিষ্ক নির্ভর যে কোনও কাজ করতে অসুবিধা হওয়ার উপর।

কিন্তু এই গবেষণায় দাবি করা হয়েছে, মাথার টিউমারে থাকে এমন একটি কোষ বা ‘এক্সট্রাসেলুলার ভেসিকল’, প্রস্রাবের মধ্যেও উপস্থিত থাকে।

গবেষকদের প্রধান তাকাও ইয়াসুই বলেন, প্রস্রাব পরীক্ষা করার অনেক উপকারিতা রয়েছে। শরীরের বেশির ভাগ রোগই আমরা এই পরীক্ষার মাধ্যমে সনাক্ত করে ফেলতে পারি। ক্যানসারের ক্ষেত্রে তা যুগান্তকারী বলা যেতেই পারে।

যদিও ক্যানসার নির্ধারণের প্রচলিত পদ্ধতিগুলো বা রক্ত পরীক্ষাগুলো নিঃসন্দেহে নির্ভরযোগ্য। কিন্তু প্রস্রাবের মাধ্যমে পরীক্ষা করা অনেক বেশি সহজ এবং ‘নন ইনভেনসিভ’।

;

যে সকল ফল খেলে দ্রুত মেদ ঝরবে



লাইফস্টাইল ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

শরীরের কাজকর্ম সুষ্ঠুভাবে চালানোর জন্য শক্তির প্রয়োজন হয়। সেই শক্তি আসে খাবার থেকে। শরীরকে চালানোর জন্য এই শক্তি বাবদ যতটা ক্যালোরি দরকার, খাবারে যদি তার চেয়ে বেশি ক্যালোরি থাকে, তা হলে মেদ জমবে। আর কম ক্যালোরি থাকলে, জমা মেদ থেকে শরীর শক্তি তৈরি করে নেবে। ফলে কমবে মেদের পরিমাণ। তাই সুস্থ থাকার জন্য অনেকেই ক্যালোরি-শূন্য খাবারের খোঁজ করেন। কিন্তু ক্যালোরি-শূন্য খাবার বলে কিছু হয় না। তবে যদি এমন খাবার খাওয়া যায়, যাতে ক্যালোরির পরিমাণ শরীরের চাহিদার চেয়ে অনেকটা কম, তা হলে মেদ কমবে।

তরমুজ

ওজন ঝরানোর ডায়েটে বেশি করে ফল রাখার পরামর্শ দেন পুষ্টিবিদরা। সেক্ষেত্রে কম ক্যালরিযুক্ত ফলের মধ্যে তরমুজ বেছে নিতে পারেন। প্রতি ১০০ গ্রাম তরমুজে ক্যালোরি কাউন্ট ৩০। তাছাড়া এতে ৯২ শতাংশ পানীয় উপাদান থাকে। তরমুজ খেলে ডিহাইড্রেশনের সমস্যা থেকে মুক্ত থাকা যায়।

টমেটো

টমেটোতে রয়েছে ভরপুর ভিটামিন। প্রতি ১০০ গ্রাম টমেটোতে ক্যালোরির পরিমাণ ১৮। তাছাড়া এতে রয়েছে লাইকোপিন যা ক্যানসার প্রতিরোধ করে এবং হার্ট ভাল রাখে। টমেটোর মধ্যে প্রচুর পরিমাণ সলিউবল ও ইনসলিউবল ফাইবার থাকে। যা ওজন কমানোর জন্য অত্যন্ত প্রয়োজনীয়।

সেলারি

স্যালাড হোক বা স্যুপ, স্বাস্থ্যকর ডায়েটে সেলারির খুব চাহিদা রয়েছে। ১০০ গ্রাম সেলারির ক্যালোরি কাউন্ট মাত্র ১৬। যে কোনও মৌসুমি সবজির সঙ্গেও রান্না করে খেতে পারেন। সেলারির মধ্যে রয়েছে ভিটামিন বি ওয়ান, বি টু এবং বি থ্রি যা কিডনির যে কোনও রোগ প্রতিরোধ করে। ওজন কমাতে এবং রক্তের পরিমাণ বাড়াতে সেলারির উপকারী।

শশা

ওজন কমাতে লো ক্যালোরি ডায়েট পছন্দের তালিকায় প্রথমেই থকতে পারে শশা। ওবেসিটি হোক বা ডায়বেটিস, যে কোনও রোগে চিকিৎসকেরা শশা খাওয়ার পরামর্শ দেন। এতে ক্যালোরির পরিমাণ খুব কম, প্রতি ১০০ গ্রামে মাত্র ১৬।

ফুটি

তরমুজের মতোই উপকারী এই ফলে প্রতি ১০০ গ্রামে ক্যালোরির পরিমাণ ৩৪। প্রচুর পরিমাণ পানীয় উপাদান থাকায় ডিহাইড্রেশনের হাত থেকে বাঁচায়। তাছাড়া এতে রয়েছে ভিটামিন সি, পটাশিয়াম এবং ফোলেট যা দেহে রোগ প্রতিরোধ শক্তি বাড়াতে সাহায্য করে।

;

ধূমপান ছাড়তে যা করবেন



লাইফস্টাইল ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সিগারেটের নেশা ছাড়ার জন্য অনেক চেষ্টা করেছেন? অনেক কিছু করে দেখেছেন। কিন্তু কিছুতেই ছাড়তে পারেননি? তবে এক বার যোগাসনের সাহায্য নিয়ে দেখুন। বিশেষজ্ঞরা দাবি করছেন, ৮৫ শতাংশ ধূমপায়ী যোগাসন ও ধ্যানের সাহায্যে ধূমপানের নেশা ছাড়তে পারেন।

অধিংকাংশ লোক সিগারেটের কুফল সম্পর্কে ওয়াকিবহাল। অনেকে এমনও আছেন, যারা ধূমপান মন থেকে ছাড়তে চান। তবু পেরে ওঠেন না। অফিসে কোনও রকম সমস্যা হলেই নীচে গিয়ে একটা সিগারেটে টান না দিলে নাকি উদ্বেগ কমে না। কর্মক্ষেত্রে চাপ, সাংসারিক টানাপড়েনের কারণে মানসিক চাপ, উদ্বেগ ক্রমাগত বেড়ে চলেছে জীবনে। মানসিক চাপ কমাতে পারলেই ধূমপানের আসক্তিও কমবে। মানসিক চাপ কমতে পারে যোগাসনের গুণে।

কিন্তু নিয়মিত কোন আসন করলে আপনি নিত্য জীবনের উদ্বেগ কমাতে পারেন, তা জেনে নিন।

উষ্ট্রাসন

এই আসন রক্ত চলাচল বাড়াতে সাহায্য করে। ফলে মস্তিস্কে বেশি অক্সিজেন যায়। মন অনেক শান্ত হয়। মাটিতে হাঁটুর উপর ভর করে বসে শরীর পিছনের দিকে হেলিয়ে দিয়ে দু’হাত দিয়ে দুই পায়ের গোড়ালি ধরুন। আবার স্বাভাবিক অবস্থায় ফিরে আসুন।

সেতু বন্ধাসন

এই আসনও শরীরের রক্ত চলাচলে সাহায্য করে। শিরদাঁড়ার জন্যেও এ আসন খুব ভাল। মাটিতে শুয়ে পড়ুন। তার পর হাঁটু ভাঁজ করে সামনের দিকে নিয়ে আসুন। এ বার শরীরটা হাওয়ায় তুলে দু’হাত দিয়ে দুই পায়ের গোড়ালি ধরুন। কয়েক সেকেন্ড এই অবস্থায় থেকে শবাসনে ফিরে আসুন।

ভদ্রাসন

যোগব্যায়ামের অন্যতম সহজ ও সাধারণ আসন এটি। কিন্তু আপনার পায়ের মাংসপেশিগুলো স্ট্রেচ করার জন্য দারুণ ব্যায়াম এটি। নিয়মিত করলে মনও অনেক শান্ত হবে। মাটিতে বসে দু’পায়ের পাতা একে অপরের সঙ্গে জুড়ে নিন। হাতের পাতা দু’টিও রাখুন পায়ের পাতার উপর।

বালাসন

বলা হয়, যোগায় সবচেয়ে রিল্যাক্সিং আসন এটি। ইংরেজিতে এর নাম ‘চাইল্ডস পোজ’। মন শান্ত করার জন্য এই আসনের জুড়ি মেলা ভার। হাঁটু মুড়ে গোড়ালির উপর বসুন। এ বার শরীরটা বেঁকান। শরীরটা এমন ভাবে বেঁকান যাতে বুক গিয়ে উরুতে ঠেকে। মাথা মেঝেতে রাখুন। আর হাত দু’টি সামনের দিকে প্রসারিত করে রাখুন। এই আসন স্নায়ুতন্ত্রের জন্য খুব উপকারী। সেই সঙ্গে ঘাড় ও পিঠের ব্যথা কমাতেও এর জুড়ি নেই।

প্রাণায়াম

শ্বাস-প্রশ্বাস নিয়ন্ত্রণ করলে মনের দুশ্চিন্তাগুলো অনেকটা কমানো সম্ভব। ১০-১৫ মিনিট চুপ করে ধ্যান করলেও উপকার পাবেন। এই সময়ে কপালভাতি, ভ্রমরির মতো প্রাণায়াম করতে পারেন।

;

দুর্গন্ধযুক্ত প্রস্রাব কিসের ইঙ্গিত?



লাইফস্টাইল ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রস্রাবের নিজস্ব কোনও গন্ধ নেই। হঠাৎ প্রস্রাবে দুর্গন্ধ। এ নিয়ে সতর্ক হওয়া তো দূর, বেশির ভাগই এড়িয়ে চলেন। পানি কম খাওয়ার কারণে হতে পারে অনুমান করেই বিষয়টি নিয়ে ভাবনার পরিসর কমে আসে। কিন্তু চিকিৎসকরা জানাচ্ছেন, প্রস্রাবে ঝাঁঝালো গন্ধ মূলত অ্যামোনিয়ার কারণে হয়ে থাকে। তবে কখনও প্রস্রাবের গন্ধ এত অসহনীয় হয়ে ওঠে, তা আসলে শারীরিক সমস্যার ইঙ্গিত করে। দুর্গন্ধযুক্ত প্রস্রাবের একমাত্র কারণ কখনও পানি কম খাওয়া হতে পারে না। এর নেপথ্যে থাকতে পারে শারীরিক কোনও সমস্যা। ঠিক কোন সমস্যাগুলো থাকলে মাত্রাতিরিক্ত দুর্গন্ধ হয় প্রস্রাবে?

>> মূত্রনালির সংক্রমণ হয় মূলত বিভিন্ন ব্যাকটেরিয়ার কারণে। প্রস্রাবে দুর্গন্ধ হওয়ার অন্যতম কারণ হতে পারে এই ব্যাকটেরিয়াগুলো। তাই প্রস্রাব থেকে দুর্গন্ধ বেরোলে সতর্ক হওয়া জরুরি। তবে শুধু মূত্রের দুর্গন্ধই নয়, প্রস্রাব করার সময়ে জ্বালা অনুভব করা, বার বার প্রস্রাব পাওয়ার মতো একাধিক লক্ষণ দেখা দিলে অতি অবশ্যই চিকিৎসকের কাছে যান।

>> ডায়াবেটিস শরীরে বাসা বাঁধলেও এমন লক্ষণ দেখা দিতে পারে। ডায়াবেটিকরা অন্যদের মতো চিনি হজম করতে পারে না। ফলে তাদের প্রস্রাব থেকে এমন দুর্গন্ধ বেরোনোর আশঙ্কা থাকে। সেই সঙ্গে ডায়াবেটিস হলে ঘন ঘন মূত্রত্যাগের প্রবণতাও থাকে।

>> প্রস্রাবে গন্ধ হওয়ার আরও একটি কারণ হল ‘সেক্সুয়ালি ট্রান্সমিটেড ইনফেকশন’। এই সংক্রমণ প্রস্রাব এবং মূত্রাশয়ে বড় ধরনের নেতিবাচক প্রভাব ফেলতে পারে। কখনও এই সংক্রমণের হাত ধরে মূত্রনালিতে প্রদাহ সৃষ্টি হয়, যা প্রস্রাবের গন্ধে পরিবর্তন আনতে পারে। তবে যৌনতার মাধ্যমে পরিবাহিত হওয়া ছাড়াও মূত্রনালির সংক্রমণও দুর্গন্ধযুক্ত প্রস্রাবের কারণ হতে পারে।

>> কিডনিতে পাথর জমলেও প্রস্রাব থেকে দুর্গন্ধ বেরোতে পারে। নুন এবং অন্যান্য খনিজ পদার্থ জমা হয়ে পাথর তৈরি করে। এই জমে থাকা উপাদান দুর্গন্ধের অন্যতম কারণ হতে পারে।

;