অতিরিক্ত যাত্রী বহনের কারণেই নৌকাডুবি: অভিযোগ স্বজনদের



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নেত্রকোনা
স্বজনদের আহাজারি/ছবি: বার্তা২৪.কম

স্বজনদের আহাজারি/ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

অতিরিক্ত যাত্রী বহনের কারণেই নেত্রকোনার মদন উপজেলার উচিতপুর হাওরে নৌকাডুবির ঘটনাটি ঘটে বলে ওই দুর্ঘটনায় নিহত ব্যক্তিদের স্বজনরা অভিযোগ তুলেছেন। তারা বলছেন, যে নৌকাটিতে ৪৮ জন যাত্রী পরিবহন করা হয়েছিল, সে নৌকায় সর্বোচ্চ ৩০ জনের মতো যাত্রীর ধারণ ক্ষমতা রয়েছে। তাই অতিরিক্ত যাত্রী বহনের কারণেই নৌকাডুবির ঘটনাটি ঘটে।

এদিকে এ ঘটনায় নৌকায় থাকা ৩০ জন সাঁতরে কোনো রকম প্রাণে বাঁচলেও মারা যান ১৮ জন। নিহত সবাই ময়মনসিংহ চরসিরতা ইউনিয়নের মারকাযুস সুন্নাহ হাফিজিয়া মাদরাসার শিক্ষক ও ছাত্র।

এ বিষয়ে কথা হলে নৌকাডুবিতে নিহত শফিকুল ইসলামের ছোট ভাই রানা আহমেদ জানান, নৌকার লোকজন জেনেশুনেই তাদের নৌকায় অতিরিক্ত যাত্রী বহন করে হাওরে ঘুরছিল। আর অতিরিক্ত যাত্রী বহনের কারণেই আমার ভাই ও ভাতিজাসহ এতগুলো মানুষের সলিল সমাধি ঘটেছে। এ জন্য সংশ্লিষ্টদের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণেরও দাবি জানান তিনি।

এছাড়া একই অভিযোগ করেন ছেলে হারা বৃদ্ধ পিতা শফিকুল ইসলাম ও দুই মেয়ে হারা পিতা ওয়াজ উদ্দিনসহ অনেকেই।

এদিকে হাওরে প্রচণ্ড বাতাস ও তীব্র ঢেউয়ের কারণে নৌকাডুবির এ ঘটনাটি ঘটেছে বলে স্থানীয়রা জানালেও ঘটনার সঠিক কারণ খুঁজে বের করতে ইতোমধ্য মদন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে (ইউএনও) প্রধান করে ৪ সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে দিয়েছেন জেলা প্রশাসন।

নেত্রকোনার জেলা প্রশাসক মঈনউল ইসলামের সঙ্গে কথা হলে তিনি জানান, মূলত প্রবল বাতাস ও ঢেউয়ের কারণে নৌকাডুবির ঘটনাটি ঘটেছে বলে আমরা প্রাথমিকভাবে জানতে পেরেছি। তবে অতিরিক্ত যাত্রী বহনের অভিযোগটিও শুনেছি। আশা করি তদন্তে মূল ঘটনা বের হয়ে আসবে।

এ নিয়ে কথা হলে তদন্ত কমিটির প্রধান ইউএনও বুলবুল আহমেদ দুর্ঘটনার শিকার নৌকাটিতে অতিরিক্ত যাত্রী বহন করা হয়েছিল জানিয়ে বলেন, আমরা তদন্ত কাজ করেছি। নির্ধারিত সময়েই তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করব।

এছাড়া বৃহস্পতিবার (৬ আগস্ট) বিকেলে উচিতপুর ঘাটের সাথে সংশ্লিষ্টদের সঙ্গে এক জরুরি বৈঠকে হাওরে নৌকা, ট্রলার চলাচলে কিছু শর্ত বেঁধে দেয়া হয়েছে বলেও জানান তিনি।

উচিতপুর হাওরে আরও এক মরদেহ উদ্ধার, মোট ১৮

হাওরে নৌকাডুবি, ১৭ জনের মরদেহ উদ্ধার

‘বেহেই লাশ লইয়া যাইতাছে, আমি বাড়িতগে কিতা কইয়াম’

নেত্রকোনায় হাওরে নৌকাডুবির ঘটনায় তদন্ত কমিটি