বঙ্গবন্ধু বাঙালির স্বাধীনতা ও মুক্তির প্রতীক: হানিফ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা ২৪.কম, কুষ্টিয়া
বঙ্গবন্ধু বাঙালির স্বাধীনতা ও মুক্তির প্রতীক: হানিফ

বঙ্গবন্ধু বাঙালির স্বাধীনতা ও মুক্তির প্রতীক: হানিফ

  • Font increase
  • Font Decrease

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালির স্বাধীনতা ও মুক্তির প্রতীক। তিনি বাংলার মাটি ও মানুষের পরম আত্মীয়, শত বছরের ঘোর নিশীথিনীর তিমির বিদারী অরুণ, ইতিহাসের বিস্ময়কর নেতৃত্বের কালজয়ী স্রষ্টা, বাংলার ইতিহাসের মহানায়ক, স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা, স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ রাষ্ট্রের প্রতিষ্ঠাতা। বাঙালি জাতির পিতা।

বৃহস্পতিবার (৬ অক্টোবর) সকালে কুষ্টিয়া জেলা শিল্প কলা একাডেমিতে বজ্রকণ্ঠের আয়োজনে বঙ্গবন্ধু, স্বাধীনতা ও বাংলাদেশ শীর্ষক কর্মাশালায় যোগ দিয়ে তিনি এসব কথা বলেন।

তিনি বলেন, বাঙালির মহান নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের চেতনা অবিনশ্বর। বাঙালি জাতির অস্থিমজ্জায় মিশে আছেন বাঙালির অবিসংবাদিত নেতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। মুজিবাদর্শে শানিত বাংলার আকাশ-বাতাস জল-সমতল। প্রজন্ম থেকে প্রজন্মের কাছে শেখ মুজিবুর রহমানের অবিনাশী চেতনা ও আদর্শ চির প্রবহমান থাকবে।

তিনি আরও বলেন, জাতির পিতা চেয়েছিলেন ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত বৈষম্যহীন সমাজ প্রতিষ্ঠা করতে। বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশের জনগণের মুক্তির যে স্বপ্ন দেখেছিলেন তার সুযোগ্য কন্যা শেখ হাসিনার বলিষ্ঠ নেতৃত্বে ক্ষুধা ও দারিদ্র্যকে জয় করে বিশ্বসভায় একটি মর্যাদাবান ও উন্নয়নশীল রাষ্ট্র হিসাবে প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বাংলাদেশ। সারা বিশ্বে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল।

১৫ আগস্ট ইতিহাসের একটি কলঙ্কিত দিন। বাঙালির হৃদয় ভাঙা বেদনার দিন উল্লেখ করে আওয়ামী লীগের এই নেতা বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট স্বাধীন বাংলাদেশের স্থপতি জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে হত্যা করা হয়। যিনি তার সারাটি জীবন উৎসর্গ করেছিলেন বাঙালির মুক্তির জন্য, বাঙালির স্বাধিকারের জন্য।

ইতিহাসের নিষ্ঠুরতম এ হত্যাকাণ্ডের মধ্য দিয়ে বঙ্গবন্ধুর সহধর্মিণী শেখ ফজিলাতুন নেছা মুজিব, বঙ্গবন্ধুর একমাত্র ভাই শেখ আবু নাসের, পুত্র শেখ কামাল, শেখ জামাল ও শেখ রাসেল, নবপরিণীতা পুত্রবধূ সুলতানা কামাল ও রোজী জামাল, ভাগ্নে শেখ ফজলুল হক মণি ও তার অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রী বেগম আরজু মণি, ভগ্নিপতি আব্দুর রব সেরনিয়াবাত ও তার পরিবারের কয়েকজন সদস্য, বঙ্গবন্ধুর প্রধান নিরাপত্তা কর্মকর্তা কর্নেল জামিল উদ্দিন আহমেদসহ অনেককে নৃশংসভাবে হত্যা করা হয়। বিদেশে অবস্থান করায় প্রাণে বেঁচে যান বঙ্গবন্ধুর দুই কন্যা শেখ হাসিনা ও শেখ রেহানা।

১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট খুনিরা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে হত্যা করেই ক্ষান্ত হয়নি, বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার প্রক্রিয়া বন্ধ করতে ইনডেমনিটি অধ্যাদেশ জারি করে। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট থেকে দীর্ঘ ২১ বছর বাঙালি জাতি বিচারহীনতার কলঙ্কের বোঝা বহন করতে বাধ্য হয়। ১৯৯৬ সালে শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গঠিত সরকার বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের বিচারের কাঠগড়ায় দাঁড় করিয়ে নিয়মতান্ত্রিক বিচারিক প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ২০১০ সালে ঘাতকদের ফাঁসির রায় কার্যকর করার মধ্য দিয়ে বাঙালি জাতিকে কলঙ্কমুক্ত করে।

অনুষ্ঠানে কুষ্টিয়া-১ (দৌলতপুর) আসনের সংসদ সদস্য এ্যাড. আ.ক.ম সরোয়ার জাহান বাদশা, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি ও জেলা পরিষদের প্রশাসক হাজী রবিউল ইসলাম, সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আতাউর রহমান আতা, কুষ্টিয়া জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ হাসান মেহেদী, মাজহারুল আলম সুমন, বজ্রকণ্ঠ সংগঠনের প্রধান উপদেষ্টা ব্যারিস্টার গৌরব চাকীসহ দলীয় নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

দুই জঙ্গি ছিনতাই: তদন্তে আরও সময় চায় কমিটি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আদালত ফটকের সামনে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গি ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনা তদন্তে গঠিত কমিটি প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আরও সময় চাইবে। তদন্ত কাজ শেষ করতে তৃতীয় দফায় আরও অন্তত তিনদিন সময় চান কমিটির সদস্যরা।

জঙ্গি ছিনতাইয়ের ঘটনার পর তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের পূর্ব নির্ধারিত সময় ছিল তিন কার্যদিবস। এর মধ্যে তদন্ত শেষ করতে না পারায় আরও সাত দিনে সময় নেয় কমিটি। দ্বিতীয় দফার নির্ধারিত সময় শেষ হচ্ছে মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর)। তবে এ সময়ের মধ্যেও তদন্ত প্রতিবেদন দিতে পারছে না ডিএমপি’র গঠিত কমিটি।

এ বিষয়ে তদন্ত কমিটির প্রধান ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস) এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, প্রতিবেদন জমা দিতে আরও সময় লাগবে। আসামির পালিয়ে যাওয়া সংক্রান্ত দায়-দায়িত্ব নির্ধারণ এবং ভবিষ্যৎ করণীয় সম্পর্কে বিস্তারিত সুপারিশমালা প্রণয়ন করা হচ্ছে। কমিটির একেক সদস্য একেক কাজ করছেন। সবমিলে নিজেরা একটি বৈঠক করে সব চূড়ান্ত করার পর প্রতিবেদন দাখিল করা হবে। বিষয়টি স্পর্শকাতর হওয়ায় বিচার-বিশ্লেষণ করে প্রতিবেদন জমা দিতে আরও সময় চাইবে কমিটি।

এর আগে গত ২০ ডিসেম্বর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ফটকে পুলিশকে মারধর ও চোখে পিপার স্প্রে ছিটিয়ে নিষিদ্ধ সংগঠন আনসার আল ইসলামের দুই সদস্যকে ছিনিয়ে নিয়ে যান জঙ্গিরা।

তারা হলেন- মইনুল হাসান শামীম ওরফে সিফাত সামির ও মো. আবু ছিদ্দিক সোহেল ওরফে সাকিব। ওই দুজনসহ ১২ আসামিকে সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনাল থেকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের (সিএমএম) হাজতখানায় নেওয়া হচ্ছিল। ছিনিয়ে নেওয়া দুই জঙ্গি জাগৃতি প্রকাশনীর প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপন এবং লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায় হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। এ ছাড়া আরও কয়েকটি হত্যা মামলারও আসামি তারা।

;

ডেঙ্গুতে মৃত্যুশূন্য দিন পার করল দেশ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত আগের ২৪ ঘণ্টায় কারো মৃত্যু হয়নি। একই সময়ে নতুন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছেন আরো ৩৬৬ জন। এ নিয়ে চলতি বছর ডেঙ্গুতে মোট ২৪৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার (২৮ নভেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

আক্রান্তদের মধ্যে ২১০ জন ঢাকার বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন এবং বাকি ১৫৬ জন ঢাকার বাইরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে, সারাদেশের বিভিন্ন হাসপাতালে বর্তমানে ডেঙ্গু আক্রান্ত ১ হাজার ৮৩৭ জন রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এর মধ্যে ঢাকার ৫৩টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ১ হাজার ৮৪ জন এবং অন্যান্য বিভাগের হাসপাতালগুলোতে ৭৫৩ জন রোগী ভর্তি আছেন।

সরকারি প্রতিবেদন অনুযায়ী, ১ জানুয়ারি থেকে ২৮ নভেম্বর ২০২২ পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মোট ৫৬ হাজার ৪৯৬ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

এর মধ্যে ঢাকায় ৩৬ হাজার ১৫ জন এবং ঢাকার বাইরে ভর্তি হয়েছেন ২০ হাজার ৪৮১ জন ডেঙ্গু রোগী।

অন্যদিকে, চিকিৎসা শেষে ৫৪ হাজার ৪১২ জন ছাড়পত্র নিয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন। এদের মধ্যে ৩৪ হাজার ৭৮১ জন ঢাকার এবং বাকি ১৯ হাজার ৬৩১ জন ঢাকার বাইরের বাসিন্দা।

;

টাঙ্গাইলে বাস চাপায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, টাঙ্গাইল
টাঙ্গাইলে বাস চাপায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত

টাঙ্গাইলে বাস চাপায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে বাস চাপায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত হয়েছেন।

সোমবার(২৮ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬টার দিকে বাসাইল উপজেলার করাতিপাড়া বাইপাস এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত ময়থা গাছপাড়া গ্রামের মৃত আবু সাইদের পুত্র আবুল হোসেন (৪৬)। অপর নিহতের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

বাসাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, অজ্ঞাত দুই ব্যক্তি মোটরসাইকেলযোগে টাঙ্গাইলের দিকে যাচ্ছিলেন। এসময় পিছন থেকে এসআই পরিবহনের একটি বাস মোটরসাইকেলটিকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেলের দুই আরোহীর মৃত্যু হয়। এসময় বাসটি আটক করলেও চালক ও সহকারি পালিয়ে যায়।

;

দিনাজপুর বোর্ডে পাসের হারে সর্বনিম্ন কুড়িগ্রাম



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুড়িগ্রাম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

এসএসসি পরীক্ষা-২০২২ এর ফলাফলে দিনাজপুর বোর্ডে ৭৫.০২ শতাংশ পাসের হার নিয়ে সর্বনিম্ন অবস্থানে রয়েছে কুড়িগ্রাম জেলা। অন্যদিকে ৮৩.৬২ শতাংশ পাসের হার নিয়ে দিনাজপুর জেলা দিনাজপুর বোর্ডের অধীনস্হ ৮ টি জেলার মধ্যে সর্বোচ্চ অবস্থানে রয়েছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, দিনাজপুর এর অধীনে অনুষ্ঠিত ২০২২ সালের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষার ফলাফল সোমবার (২৮ নভেম্বর) বেলা ১২:০০ টায় প্রকাশ করা হয়। প্রকাশিত ফলাফল পরিসংখ্যান অনুযায়ী মোট পরীক্ষার্থী ১লাখ ৭৪ হাজার ৫৭৭ জন। এবং পাস করেছেন ১ লাখ ৪১ হাজার ৬৮২ জন শিক্ষার্থী যা মোট পরীক্ষার্থীর তুলনায় পাসের হার ৮১.১৬ শতাংশ।

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, দিনাজপুর এর ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জেলাভিত্তিক ফলাফল পরিসংখ্যান ঘোষণা করা হয়েছে। ফলাফল অনুযায়ী কুড়িগ্রাম জেলায় পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৯ হাজার ২০৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ পরীক্ষার্থী ১০ হাজার ৩০৯ জন এবং নারী পরীক্ষার্থী ৮ হাজার ৮৯৪ জন। এবং মোট উত্তীর্ণকারী শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৪ হাজার ৪০৭ যা অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের তুলনায় ৭৫.০২ শতাংশ। যা দিনাজপুর বোর্ডের অধীনস্হ অন্যান্য জেলা গুলোর তুলনায় সর্বনিম্ন।

অন্যদিকে ৮৩.৬২ শতাংশ পাসের হার নিয়ে দিনাজপুর জেলা পাসের হারের ভিত্তিতে প্রথম অবস্থানে রয়েছে। এবং ৮৩.৫৪ শতাংশ পাসের হার নিয়ে ঠাকুরগাঁও জেলা ২য় অবস্থানে রয়েছে। সর্বনিম্ন পাসের হারের জেলা কুড়িগ্রাম ৮ নম্বর জেলা এবং ৭৬.৩৯ শতাংশ পাসের হারের জেলা লালমনিরহাট ৭ম অবস্থানে রয়েছে।

তবে জিপিএ-৫ প্রাপ্তি দিক থেকে কুড়িগ্রাম জেলা কিছুটা সন্তোষজনক অবস্থানে রয়েছে। কুড়িগ্রামে মোট জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২ হাজার ২০৩ টি যা দিনাজপুর বোর্ডের অধীনস্হ ৮ টি জেলার মধ্যে ষষ্ঠ। অন্যদিকে ৫ হাজার ৮৭২ টি জিপিএ-৫ দিয়ে দিনাজপুর জেলা শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে। এবং মাত্র ১ হাজার ৯৯ টি জিপিএ-৫ নিয়ে লালমনিরহাট জেলা তলানিতে রয়েছে।

কুড়িগ্রাম জেলায় প্রতিষ্ঠানভিত্তিক ১৬১ জন ছাত্র জিপিএ-৫ পেয়ে শীর্ষে রয়েছে জেলার কুড়িগ্রাম সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়। প্রতি বছরের ন্যায় এবারেও শীর্ষ স্থানীয় ফল ধরে রেখেছে প্রতিষ্ঠানটি।

জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শামছুল আলম বলেন, প্রতি বছর শিক্ষা অফিস থেকে ফলাফলের একটি কপি প্রেস রিলিজের জন্য আমাদের কাছে পাঠায় কিন্তু এবছর আমাদের কাছে কোন ফলাফলের কপি আসেনি। জেলা প্রশাসনকে ফোন করেও জেনেছি সেখানেও কোন কাগজ আসেনি। ফলে এবারের এসএসসি ফলাফল সম্পর্কে আমি অবগত নই। তাই আপনাদেরকেও না জেনে কিছু বলা উচিত হবে না। আসলে আমি ফলাফল নিয়ে কোন তথ্য জানি না।

;