বায়ুদূষণে বিপজ্জনক শহর এখন ঢাকা



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশ্বের দূষিত শহরের তালিকায় টানা ছয় দিন শীর্ষে রয়েছে রাজধানী ঢাকা।

বৃহস্পতিবার (২৬ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৭টায় দেখা যায়, এয়ার কোয়ালিটি ইনডেক্স (একিউআই) স্কোর ৪২৭ নিয়ে ঢাকার বাতাসের মান বিপজ্জনক বা দুর্যোগপূর্ণ অবস্থায় ছিল।

১০১ থেকে ২০০-এর মধ্যে একিউআই স্কোরকে সংবেদনশীল গোষ্ঠীর জন্য ‘অস্বাস্থ্যকর’ বলে মনে করা হয়। ২০১ থেকে ৩০০-এর মধ্যে থাকা একিউআই স্কোরকে ‘খুব অস্বাস্থ্যকর’ বলা হয়। এ অবস্থায় শিশু, প্রবীণ এবং অসুস্থ রোগীদের বাড়ির ভেতরে এবং অন্যদের বাড়ির বাইরের কার্যক্রম সীমাবদ্ধ রাখার পরামর্শ দেয়া হয়ে থাকে।

অন্যদিকে ৩০১ থেকে ৪০০-এর এর মধ্যে থাকা একিউআইকে ‘ঝুঁকিপূর্ণ’ বলে বিবেচিত হয়, যা বাসিন্দাদের জন্য গুরুতর স্বাস্থ্যঝুঁকি তৈরি করে।

এ তালিকায় ৩৭৮ একিউআই স্কোর নিয়ে দ্বিতীয় অবস্থানে তাজিকিস্তানের তাশখন্দ; ২৪৬ নিয়ে তৃতীয় মঙ্গোলিয়া উলানবাটার। এরপর চতুর্থ স্থানে থাকা
ভারতের বাণিজ্যিক রাজধানী মুম্বাইয়ের স্কোর ১৯১ এবং পঞ্চম স্থানে থাকা মিয়ানমারের ইয়াঙ্গুনের স্কোর ১৯০।

মেগাসিটি ঢাকা দীর্ঘদিন ধরে ভুগছে বায়ুদূষণে। এর বাতাসের গুণমান সাধারণত শীতকালে অস্বাস্থ্যকর হয়ে যায় এবং বর্ষাকালে কিছুটা উন্নত হয়।

২০১৯ সালের মার্চ মাসে পরিবেশ অধিদফতর ও বিশ্বব্যাংকের এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে যে, ঢাকার বায়ুদূষণের তিনটি প্রধান উৎস হলো: ইটভাটা, যানবাহনের ধোঁয়া ও নির্মাণ সাইটের ধুলা।

বর্তমানে শীত আসার সঙ্গে সঙ্গে নির্মাণকাজ, রাস্তার ধুলা ও অন্যান্য উৎস থেকে দূষিত কণার ব্যাপক নিঃসরণের কারণে ঢাকা শহরের বাতাসের গুণমান দ্রুত খারাপ হতে শুরু করে।

বাংলাদেশ স্বাস্থ্য অধিদফতরের মতে, বায়ু দূষণের কারণে বাংলাদেশে প্রতি বছর ৮০ হাজার মানুষ মারা যাচ্ছেন।

   

চট্টগ্রামে এসএসসি পরীক্ষায় অনুপস্থিতির হার বাড়ছেই



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চট্টগ্রাম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

চট্টগ্রাম শিক্ষা বোর্ডর অধীনে অনুষ্ঠিত মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট (এসএসসি) ও সমমান পরীক্ষায় অনুপস্থিতির হার যেন বাড়ছেই। বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় শুরু হয়ে দুপুর ১টায় শেষ হওয়া ইংরেজি (আবশ্যিক) দ্বিতীয় পত্রের পরীক্ষাতেও অনুপস্থিত ছিল ১ হাজার ১৪৫ জন পরীক্ষার্থী। ১ লাখ ৩২ হাজার ৬৫২ জনের মধ্যে উপস্থিত ছিল ১ লাখ ৩১ হাজার ৫০৭ জন।

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) বিকেল ৩টায় এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের সচিব ও ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান অধ্যাপক নারায়ণ চন্দ্র নাথ।

চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ড সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার (১৫ ফেব্রুয়ারি) শুরু হওয়া এসএসসি বাংলা (আবশ্যিক) ১ম পত্র পরীক্ষায় ৫টি জেলার (চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, রাঙামাটি, খাগড়াছড়ি ও বান্দরবান) ২১৯টি কেন্দ্রে ১ লাখ ২৫ হাজার ১৪৭ জনের মধ্যে উপস্থিত ছিল ১ লাখ ২৪ হাজার ৩৩৮ জন শিক্ষার্থী। মোট অনুপস্থিত ছিল ৮০৯ জন।

রোববার (১৮ ফেব্রুয়ারি) বাংলা (আবশ্যিক) ২য় পত্র পরীক্ষায় ১ লাখ ২৫ হাজার ১৪৭ জনের মধ্য়ে উপস্থিত ছিল ১ লাখ ২৪ হাজার ৩৩১ জন পরিীক্ষার্থী। অর্থাৎ মোট অনুপস্থিতি বেড়ে দাঁড়িয়েছিল ৮১৬ জনে।

এরপর মঙ্গলবার (২০ ফেব্রুয়ারি) ইংরেজি (আবশ্যিক) ১ম পত্র পরীক্ষায় ১ লাখ ৩২ হাজার ৬৫২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উপস্থিত ছিল ১ লাখ ৩১ হাজার ৫১৯ জন। অর্থাৎ অনুপস্থিতির সংখ্যা আরও বেড়ে হয়েছিল ১১৩৩।

আজ বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) ইংরেজি (আবশ্যিক) দ্বিতীয় পত্র পরীক্ষার দিনও অনুপস্থিতির হার আরও বেড়ে যায়। এ দিন ১ লাখ ৩২ হাজার ৬৫২ জন পরীক্ষার্থীর মধ্যে উপস্থিত ছিল ১ লাখ ৩১ হাজার ৫০৭ জন। অর্থাৎ অনুপস্থিত ছিল ১ হাজার ১৪৫ জন পরীক্ষার্থী।

অধ্যাপক নারায়ণ চন্দ্র নাথ বলেন, পরীক্ষার্থীরা কেন পরীক্ষা দিতে আসছে না, এর সঠিক কারণ জানা যাচ্ছে না। তবে, আমরা যতটুকু জেনেছি, অনেকেই ধারণা করেছিল যে, শর্ট সিলেবাসে পরীক্ষা হবে। কিন্তু এবছর আর সে সুযোগ রাখা হয়নি। সম্পূর্ণ সিলেবাসের প্রস্তুতির অভাবে অনেকেই পরীক্ষা না দিয়ে থাকতে পারে। তবে, পরীক্ষা যারা দিচ্ছে না, তাদের মধ্যে মেয়েদের সংখ্যাটা বেশি। কেননা, দুইজন মেয়ের কথা আমরা জেনেছি, যারা স্বামী ও অভিভাবকদের বাধার কারণে তারা পরীক্ষা দিতে পারছে না। আমরা সেই ছাত্রীদের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করছি।

তিনি আরও বলেন, এ পর্যন্ত সবগুলো পরীক্ষা সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন হয়েছে। আমরা নকলের ব্যাপারে যথারীতি জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেছি। চট্টগ্রাম শিক্ষাবোর্ডের পক্ষ থেকে সুষ্ঠুভাবে পরীক্ষা অনুষ্ঠানে সংশ্লিষ্ট সকলের সহায়তা কামনা করছি।

;

নামাজ পড়ে বাড়ি ফেরা হলো না বৃদ্ধের, প্রাণ ঝড়ল সড়কে



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চট্টগ্রাম
মুহাম্মদ ছালেহ আহমদ

মুহাম্মদ ছালেহ আহমদ

  • Font increase
  • Font Decrease

চট্টগ্রামের বাঁশখালী উপজেলায় এক সিএনজি অটোরিকশার ধাক্কায় চিকিৎসারত অবস্থায় মুহাম্মদ ছালেহ আহমদ (৯০) নামের এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। গতকাল বুধবার সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে উপজেলার মনছুরিয়া বাজারের উত্তরে দেলোয়ার কমিশনার ঘাটায় বাঁশখালী প্রধান সড়কে এই দুর্ঘটনা ঘটে।

পরে বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সকালে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে চিকিৎসারত অবস্থায় তার মৃত্যু হয়।

মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন তার নাতি নুরুল ইসলাম।

নিহত মো. ছালেহ আহমদ বাঁশখালী পৌরসভার দক্ষিণ জলদি ৯ নম্বর ওয়ার্ডের সাতঘর পাড়া এলাকার মৃত মতিউর রহমানের পুত্র।

স্থানীয় প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ছালেহ আহমদ স্থানীয় বায়তুল আমান জামে মসজিদে মাগরিবের নামাজ শেষ করে বাড়ি ফেরার পথে প্রধানসড়ক পার হতেই সড়কের উত্তর দিক থেকে আসা সিএনজির ধাক্কায় মাথায় ও বুকে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হন। ঘটনাস্থল থেকে তাকে উদ্ধার করে উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তার অবস্থা আশঙ্কাজনক দেখে চমেক হাসপাতালে প্রেরণ করেন।

নিহতের নাতি নুরুল ইসলাম বলেন, আমার দাদা চমেকে চিকিৎসাধীন অবস্থায় আজ সকালে ইন্তেকাল করেছেন।

 

;

ফটিকছড়িতে কাঠ বোঝাই ৫ ট্রাক জব্দ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চট্টগ্রাম
ছবি: বার্তা ২৪.কম

ছবি: বার্তা ২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

চট্টগ্রামের ফটিকছড়িতে অবৈধভাবে কাঠ পরিবহনের সময় তল্লাশি চালিয়ে প্রায় ২ হাজার সিএফটি কাঠসহ পাঁচটি ট্রাক জব্দ করেছে উপজেলা প্রশাসন।

বুধবার (২১ ফেব্রুয়ারি) রাতে উপজেলার পাইন্দং ইউপির বৃন্দাবনহাটের বড়ুয়া পাড়া এলাকা থেকে এসব কাঠ জব্দ করা হয়। অভিযানে নেতৃত্ব দেয় উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ মোজাম্মেল হক চৌধুরী।

অভিযান সূত্রে জানা যায়, অবৈধভাবে কৃষি জমির টপসয়েল কাটা, বালু উত্তোলন ও অবৈধভাবে বনজদ্রব্য পরিবহনের বিরুদ্ধে অভিযান পরিচালনার অংশ হিসেবে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এ তল্লাশি চালিয়ে এ অভিযান পরিচালনা করা হয়।

অভিযানের খবর পেয়ে ড্রাইভার ও হেল্পাররা গাড়ি রেখে পালিয়ে যায়। মোবাইল কোর্ট আইন, ২০০৯ এর ৬(৫) ধারা মোতাবেক অপরাধের গুরুত্ব বিবেচনায় ও ঘটনাস্থলে আসামি না পাওয়ায় নিয়মিত মামলা দায়েরের জন্য বন বিভাগের নারায়ানহাট রেঞ্জের নিকট হস্তান্তর করা হয়েছে।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোজাম্মেল হক চৌধুরী বলেন, প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে হেয়াকো, রামগড়ের বিভিন্ন বন ও বাগান থেকে অবৈধভাবে কাঠ কেটে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। বিভাগ বন আইন ১৯২৭-এর ৪১, ৪২ ধারায় মামলা রুজু করবে।

;

দেশের প্রতিটি পরিবারকে স্বনির্ভর হতে সহায়তা করছে সরকার: পরিবেশমন্ত্রী



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী সাবের হোসেন চৌধুরী

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী সাবের হোসেন চৌধুরী

  • Font increase
  • Font Decrease

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী সাবের হোসেন চৌধুরী বলেছেন, দেশের প্রতিটি পরিবারকে নিজের পায়ে দাঁড়াতে সহায়তা করছে সরকার। প্রতিটি নাগরিক যাতে যথাযথ অধিকার ও সম্মানের সাথে জীবিকা নির্বাহ করতে পারে তার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। তরুণদের স্বাবলম্বী করতে ফ্রিল্যান্সিংয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হচ্ছে। আত্মকর্মসংস্থান সৃষ্টিতে এটি ভূমিকা রাখছে। সরকারের এ কর্মসূচি সফল করতে হবে।

বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) সবুজবাগ বৌদ্ধ মন্দির অডিটোরিয়ামে 'ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ গ্রহণ করি, নিজের ভবিষ্যৎ নিজে গড়ি' স্লোগানে ঢাকা-৯ নির্বাচনী এলাকার অন্তর্গত খিলগাঁও, সবুজবাগ, মুগদা থানায় বসবাসরত বেকার যুবক-যুবতীদের আত্মকর্মসংস্থান তৈরির লক্ষ্যে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের সার্বিক সহযোগিতায় আয়োজিত কর্মসূচির উদ্বোধনকালে পরিবেশমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

পরিবেশমন্ত্রী বলেন, এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচির আওতায় প্রথমে ঢাকা-৯ নির্বাচনী এলাকার তিন থানার ৭৫ জনকে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। সফলভাবে সমাপ্তকারীদের ল্যাপটপ প্রদান করা হবে। তবে ল্যাপটপ গ্রহণকারীদের ১০ জন তরুণকে প্রশিক্ষণ দিতে হবে। পরে পর্যায়ক্রমে ১ হাজার জন তরুণকে ফ্রিল্যান্সিংয়ে তিন মাসের প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে। প্রশিক্ষণে ডিজিটাল মার্কেটিং এবং গ্রাফিক্স ডিজাইনের মতো বিষয়গুলি অন্তর্ভুক্ত থাকবে। ঢাকা-৯ সকল ক্ষেত্রে সকল এগিয়ে থাকবে। পরিবেশ মন্ত্রণালয়কেও ১ নম্বর মন্ত্রণালয়ে পরিণত করা হবে।

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের সচিব মো. সামসুল আরেফিনের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি অধিদপ্তরের মহাপরিচালক মো. মোস্তফা কামাল, ৫ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর চিত্ত রঞ্জন দাস, নকরেক আইটির সিইও ফ্রিল্যান্সার সুবীর নকরেক প্রমুখ।

;