রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নাশকতার পরিকল্পনা, অস্ত্রসহ ৪ আরসা সদস্য আটক



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কক্সবাজার
রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নাশকতার পরিকল্পনা, অস্ত্রসহ ৪ আরসা সদস্য আটক

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নাশকতার পরিকল্পনা, অস্ত্রসহ ৪ আরসা সদস্য আটক

  • Font increase
  • Font Decrease

কক্সবাজারের উখিয়ার রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নাশকতার উদ্দেশ্যে মজুত করে রাখা অস্ত্র-গোলাবারুদ-গ্রেনেডসহ আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির (আরসা) চার সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গতকাল বৃহস্পতিবার (২২ ফেব্রুয়ারি) রাত সাড়ে ১১টার দিকে জামতলি রোহিঙ্গা ক্যাম্প-১৫ এর ব্লক-ই/৫ এ অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন ৮ আর্মড পুলিশ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক (অতিরিক্ত ডিআইজি) মো. আমির জাফর।

এ সময় তাদের কাছ থেকে পাঁচটি ওয়ান শুটারগান, একটি এলজি, ৩৬ রাউন্ড রাইফেলের গুলি, আট রাউন্ড গুলির খোসা, চার রাউন্ড শটগানের কার্তুজ, তিনটি হাতে তৈরি গ্রেনেড, তিনটি বড় পটকা, একটি ওয়াকিটকি সেট, দুইটি বড় ছোরা, একটি গুলতি এবং দুইটি লোহার শিকল উদ্ধার করা হয়।

গ্রেফতার আরসা সদস্যরা হলেন- মোহাম্মেদ আমিন (২৩), পেটান শরীফ (৪৩), আবুল কাশেম (৩৩) এবং সৈয়দুর রহমান (২৫)।

এপিবিএন অধিনায়ক বলেন, গোপন খবর ছিল আরসা সদস্যরা রোহিঙ্গা ক্যাম্পে নাশকতার উদ্দেশ্যে ক্যাম্প-১৫তে বিপুল পরিমাণ অস্ত্র-গোলাবারুদ-গ্রেনেডসহ অবস্থান করছে। এপিবিএন'র একটি দল রাতে ক্যাম্প এলাকায় পৌঁছালে সন্ত্রাসীরা দৌঁড়ে পালানোর চেষ্টা করে। এ সময় ৪ জন আরসা সন্ত্রাসীকে ধরা গেলেও বাকি ১০/১২ জন পালিয়ে যায়। পরে ধৃত আরসা সদস্যদের তথ্যানুসারে একটি ব্যাগ তল্লাশি করে তার ভেতর থেকে অস্ত্র উদ্ধার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, গোয়েন্দা তথ্য ও গ্রেফতার সন্ত্রাসীদের জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায়, তারা ক্যাম্পের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার জন্য বড় ধরণের নাশকতার পরিকল্পনা করছিল। এ ব্যাপারে আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

   

গরমে ফসলের ক্ষতির আশঙ্কায় চাষি



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, যশোর
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

চলমান তাপপ্রবাহে সবজি জাতীয় ফসলের ক্ষতির আশঙ্কায় রয়েছেন চাষিরা। গরমে আম, কাঁঠাল, লিচু ও ড্রাগন ফলের ফুল-ফল ঝরে যাচ্ছে। গত কয়েকদিন ধরে তাপে পুড়ছে যশোর জেলার মানুষ। বৈশাখের শুরু থেকে টানা তাপ প্রবাহ চলছে।

কৃষি অফিসের তথ্য মতে, আরও চারদিন এ অবস্থা বিরাজ করতে পারে। তীব্র তাপের কারণে সবজির উৎপাদন কমে যেতে পারে। পানির অভাবে গাছের ফল-ফুল শুকিয়ে যেতে পারে।

কৃষকরা জানিয়েছেন, ইতোমধ্যে তাপমাত্রায় লতা জাতীয় সবজি নেতিয়ে পড়ছে। অনেক গাছ শুকয়ে যাচ্ছে। ফল ধরার আগেই ঝরে যাচ্ছে ফুল।

সরেজমিনে দেখা যায়, যশোর জেলার লেবুতলা ইউনিয়নের মাঠে উচ্ছে, পটল গাছ লাল বর্ণের হয়ে গেছে। অনেক গাছ দুমড়ে গেছে। ঘন ঘন সবজি ক্ষেতে সেচ দিয়েও পানি ধরে রাখতে পারছেন না কৃষক। আম এবং লিচুর গুটিও ঝরে পড়ছে।

যশোর আবহাওয়া অফিস জানায়, জেলায় ২০ এপ্রিল রেকর্ড তাপ ছিল ৪২ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

যশোর কৃষি অধিদফতরের তথ্য মতে, যশোর জেলায় সবজি চাষ হয়েছে ১১ হাজার ৮'শ হেক্টর জমিতে। সবজি চাষের পরিমাণ আরও বৃদ্ধি পাবে। এদিকে যশোরে মোট ফলের চাষ হয়েছে ১৩ হাজার ৩'শ ৩০ হেক্টর। এর মধ্যে আম চাষ হচ্ছে ৩ হাজার ৯'শ ২৩ হেক্টর, লিচুর চাষ ৬'শ ২৫ হেক্টর, পেয়ারা ৯'শ ৯৯ হেক্টর, কাঁঠাল ৭'শ ৫০ হেক্টর ও ড্রাগনের চাষ হয়েছে ২'শ ৭ হেক্টর জমিতে। এছাড়াও বিভিন্ন প্রকারের ফল চাষ হচ্ছে ৬ হাজার ৮'শ ২৬ হেক্টর জমিতে।

বীরনারায়ণপুর গ্রামের কৃষক ইমন হোসেন জানান, এই তাপে সবজি হবে না। কয়েক দিন ধরে দেখছি তাপের কারণে উচ্ছে গাছ নেতিয়ে গেছে। মাঠের অনেক গাছ লাল হয়ে যাচ্ছে।

বাঘারপাড়া উপজেলার কৃষক রবিউল ইসলাম জানান, এ গরমে জমিতে পানি দেওয়ার পরের দিন শুকিয়ে যাচ্ছে। এভাবে চললে পানি দিয়ে পারা যাবে না। মাঠে কাজও করা যাচ্ছে না। দুপুরে উচ্ছে গাছ মনে হচ্ছে সব মরে গেছে।

সিতারামপুর গ্রামের ফল চাষি আব্দুস সাত্তার জানান, দেড় বিঘা জমিতে লিচুর চাষ রয়েছে। এ বছর মোটামুটি ভালোই ফুল ও ফল দেখা যায়। কিন্তু কয়েক দিন ধরে দেখছি লিচু ঝরে যাচ্ছে। কয়েকবার স্প্রে করলেও ঝরে পড়া বন্ধ হচ্ছে না। এ তাপে কোন ফল গাছে থাকবে না। আম ও কাঁঠালও ঝরে পড়া শুরু করেছে।

যশোর কৃষি অধিদফতরের উপপরিচালক ড. সুশান্ত কুমার তরফদার বলেন, সাধারণত অতিরিক্ত তাপে মাঠিতে পানির অভাব দেখা দেয়। বর্তমানে যশোর জেলায় যে পরিমাণ তাপ তাতে লতা জাতীয় সবজি মুচড়ে যাচ্ছে। এভাবে তাপপ্রবাহ চলতে থাকলে সবজি এবং ফল জাতীয় ফসলের ব্যাপক ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে।

তিনি আরও বলেন, এই গরমে কৃষকের করণীয় ঘন ঘন সেচ দেওয়া এবং জমিতে পানি ধরে রাখার ব্যবস্থা করা। ফল জাতীয় গাছগুলোতে খড় বা আবর্জনা দিয়ে মালচিংয়ের ব্যবস্থা করে পানি ধরে রাখার ব্যবস্থা করা।

;

প্রথমবার অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী শিল্প উৎসব



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪. কম, ঢাকা
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রথমবারের মতো ঢাকায় অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী শিল্প উৎসব। আগামী ২৬ ও ২৭ এপ্রিল রাজধানীর শিল্পকলা একাডেমিতে সুন্দরম ও আইআইডি'র সহযোগিতায় যৌথভাবে এই উৎসবের আয়োজন করছে ঢাকা থিয়েটার ও ব্রিটিশ কাউন্সিল।

রোববার (২১ এপ্রিল) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির নসরুল হামিদ মিলনায়তনে সংবাদ সম্মেলন করে এসব তথ্য জানায় উৎসবের আয়োজকরা।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী শিল্প উৎসবের উৎসব পরিচালক নাসির উদ্দীন ইউসুফ বলেন, 'সকলের সাথে, সকল মিলে মানবিক বিশ্ব গড়বো' স্লোগান নিয়ে আগামী ২৬ ও ২৭ এপ্রিল বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী শিল্প উৎসবের আয়োজন করা হয়েছে৷ দু’দিনব্যাপী এই উৎসবে বাংলাদেশের ৮ বিভাগের ৯টি নাটক, কলকাতার পশ্চিমবঙ্গের দ্য ওয়েস্ট ল্যান্ড- এ জার্নিসহ সর্বমোট ১০টি নাটকের প্রদর্শনী করা হবে। এছাড়া অদম্য প্রদর্শনী, চলচ্চিত্র প্রদর্শনী, প্রতিবন্ধীদের নির্মিত শিল্প সমাহার, সেমিনারও থাকবে।

তিনি আরো বলেন, দীর্ঘ এক যুগের প্রতিবন্ধী নাট্য ও শিল্পচর্চার নিরলস কাজ করার অভিজ্ঞতায় আজ ঢাকা থিয়েটার ও ব্রিটিশ কাউন্সিল এই জায়গায় এসে দাঁড়িয়েছে৷ এই সুদীর্ঘ কঠিন ও পরিশ্রমী যাত্রায় দেশের ৮ বিভাগে জন্ম নিয়েছে প্রতিবন্ধী শিল্প সংগঠন সুন্দরম। যোগ দিয়েছে আই আই ডি। সব মিলে একটি মহাযজ্ঞের আয়োজন করছি আমরা।

তিনি আরো জানান, দুই দিনব্যাপী এই উৎসব প্রতিদিন সকাল ১১টায় শুরু হয়ে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত চলমান থাকবে। ২৬ এপ্রিল সকালে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সমাজকল্যাণমন্ত্রী ডা. দীপু মনি। এছাড়া ২৭ এপ্রিল রাত ৮টায় সমাপনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মোহাম্মদ আলী আরাফাত, সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী নাহিদ ইজাহার খান ও সংস্কৃতি বিষয়ক সচিব খলিল আহমেদ।

এ সময় সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন- ব্রিটিশ কাউন্সিলের ডিরেক্টর প্রোগ্রামস ডেভিড নক্স, আর্টস প্রোগ্রাম ম্যানেজার ও আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী শিল্প উৎসবের উৎসব কমিটির কো-পরিচালক সৌরদীপ দাশগুপ্ত, আইআইডি এর প্রতিষ্ঠাতা ও প্রধান নির্বাহী সাঈদ আহমেদ, আন্তর্জাতিক প্রতিবন্ধী শিল্প উৎসবের উৎসব কমিটির সদস্য সচিব ওয়াসিম আহমেদ।

;

বাড়বে গরম, তাপমাত্রা নিয়ে আবহাওয়া অফিসের দুঃসংবাদ!



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

রাজধানী ঢাকাসহ দেশজুড়ে বয়ে চলা তাপপ্রবাহে অতিষ্ট জনজীবন। চলমান এই দাবদাহে মারাত্মক অস্বস্তিতে মানুষ। গরমের তীব্রতা বাড়ায় শনিবার (২০ এপ্রিল) থেকে সারাদেশে জারি করা হয় তিনদিনের হিট অ্যালার্ট। তবে তাপমাত্রা কমার সম্ভাবনা না থাকায় হিট অ্যালার্টের সময়সীমা বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

রোববার (২১ এপ্রিল) আগারগাঁও- এ আবহাওয়া অফিসে গিয়ে জানা যায়, আগামী দুই একদিনের মধ্যে ঢাকায় বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা না থাকলেও সিলেটসহ আশপাশের এলাকায় রয়েছে বৃষ্টির সম্ভাবনা। ঢাকাসহ আশপাশের এলাকায় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে আগামী বুধবার ও বৃহস্পতিবার (২৪ ও ২৫ এপ্রিল)।

আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক বলেন, রোববার সকাল থেকে আগামী ২৪ ঘণ্টা সিলেটসহ আশপাশের এলাকায় অস্থায়ীভাবে দমকা হাওয়া কিংবা ঝড়ো হাওয়াসহ বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। তার পাশাপাশি কোনও কোনও জায়গায় বিক্ষিপ্তভাবে হতে পারে শিলাবৃষ্টি।

বৃষ্টির সম্ভাবনার কথা উল্লেখ করে ওমর ফারুক বলেন, বৃষ্টি হলে এই দুইদিন তাপমাত্রা কিছুটা কমলেও ২৭ ও ২৮ এপ্রিল আবারো তাপমাত্রা বাড়বে।

এদিকে, গতকাল শনিবার (২০) এপ্রিল দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রার রেকর্ড করা হয় যশোরে ৪২ দশমিক ৬ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং একই দিন ঢাকায় সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় ৪০ দশমিক ৪ ডিগ্রি সেলসিয়াস।

আবহাওয়াবিদ মো. ওমর ফারুক আরও বলেন, অতি তীব্র তাপপ্রবাহ বয়ে যাচ্ছে যশোর, চুয়াডাঙ্গা ও পাবনা জেলার ওপর দিয়ে। ঢাকা বিভাগের ১৩ জেলাসহ খুলনা বিভাগে বইছে তীব্র তাপপ্রবাহ এবং দেশের অন্যান্য বিভাগ ও জেলার ওপর দিয়ে বইছে মৃদু থেকে মাঝারি ধরনের তাপপ্রবাহ। তবে, রোববার (২১ এপ্রিল) ১ থেকে ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস তাপমাত্রা বাড়তে পারে রংপুর বিভাগে।

দিনের তাপমাত্রা রাতেও প্রায় অপরিবর্তিতই থাকতে পারে বলে জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস।

;

জাল সার্টিফিকেট তৈরি চক্র: বোর্ডের চেয়ারম্যানকে জিজ্ঞাসাবাদ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
জাল সার্টিফিকেট তৈরি চক্র: বোর্ডের চেয়ারম্যানকে জিজ্ঞাসাবাদ

জাল সার্টিফিকেট তৈরি চক্র: বোর্ডের চেয়ারম্যানকে জিজ্ঞাসাবাদ

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)’র অতিরিক্ত কমিশনার মোহাম্মদ হারুন অর রশীদ বলেছেন, জাল সার্টিফিকেট তৈরি চক্রের সঙ্গে সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেলে তদন্তের প্রয়োজনে বাংলাদেশ কারিগরি বোর্ডের চেয়ারম্যান আলী আকবর খানকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

এরআগে গতকাল শনিবার (২১ এপ্রিল) রাজধানীর উত্তরার বাসা থেকে আলী আকবর খানের স্ত্রী শেহেলা পারভীনকে গ্রেফতার করে ডিবির লালবাগ বিভাগ।

রোববার (২১ এপ্রিল) দুপুরে রাজধানীর মিন্টু রোডে অবস্থিত ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

ডিবি প্রধান হারুন অর রশীদ বলেন, এই ঘটনার সঙ্গে যারাই জড়িত থাকে না কেন আমরা কাউকে ছাড় দেবো না। আমরা এখন পর্যন্ত কাউকে ছাড় দেইনি। এই চক্রের সঙ্গে যত বড় রাঘববোয়াল জড়িত থাক না কেন তাদের ছাড় দেওয়া হবে না। আমাদের তথ্য উৎপত্তে যদি চেয়ারম্যানের সংশ্লিষ্টতা থাকার প্রমাণ পাওয়া যায় তাহলে আমরা তাকেও জিজ্ঞাসাবাদ করবো। আমরা যেকোনো সময় তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করার জন্য ডাকবো।

এর আগে সংবাদ সম্মেলনে ডিবি প্রধান বলেন, ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) লালাবাগ বিভাগ  কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের জাল সার্টিফিকেট তৈরির সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গত ১ এপ্রিল রাজধানীর পীরেরবাগ এলাকায় একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে  বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের কম্পিউটার সেলের সিস্টেম এনালিস্ট একেএম শামসুজ্জামান ও একই প্রতিষ্ঠানের চারিচ্যুত ও বর্তমানে শামসুজ্জামানের ব্যাক্তিগত বেতনভুক্ত সহকারী ফয়সাল গ্রেফতার করা হয়।

তাদের কাছ থেকে বিপুল পরিমান জাল সার্টিফিকেট, মার্কশিট, রেজিস্ট্রেশন কার্ড ও প্রবেশপত্র, এবং শতশত সার্টিফিকেট মার্কশিট তৈরি করার মত বিশেষ কাগজপত্র, কম্পিউটার, ল্যাপটপ, প্রিন্টার, কারিগরি শিক্ষা বোর্ড থেকে চুরি করে নেয়া হাজার হাজার অরিজিনাল সার্টিফিকেট এবং মার্কশিটের ব্লাঙ্ক কপি, শতাধিক সার্টিফিকেট এবং ট্রান্সক্রিপ্ট, বায়োডাটা, গুরুত্বপূর্ণ দলিলাদি উদ্ধার করা হয়েছে।

তাদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে গত ৫ এপ্রিল কুষ্টিয়ার জেলার সদর থানা এলাকা থেকে গড়াই সার্ভে ইন্সটিটিউটের পরিচালক সানজিদা আক্তার কলিকে গ্রেপ্তার করে হয়। গ্রেপ্তার এই তিন জিন আদালতে ১৬৪ ধারায় জবানবন্দি দিয়েছে।

তিনি বলেন, জিজ্ঞাসাবাদ ও তাদের মোবাইল ফোন পরীক্ষা নিরীক্ষা করে এই চক্রের সঙ্গে জড়িত কামরাঙ্গীরচর হিলফুল ফুযুল টেকনিক্যাল এন্ড বিএম কলেজের অধ্যাপক মোস্তাফিজুর রহমানকে (৪৮) গত ১৮ এপ্রিল গ্রেফতার করা হয়েছে। এই চক্রের সঙ্গে জড়িত ঢাকা টেকনিক্যাল স্কুল এন্ড কলেজের পরিচালক মো.মাকসুদুর রহমান ওরফে মামুন (৪০) গত ১৯ এপ্রিল গ্রেফতার করা হয়। এছাড়া সর্বশেষ এই চক্রের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যানের স্ত্রী মোছা. শেহেলা পারভীন (৫৪) কে গতকাল উত্তরা থেকে গ্রেফতার করা হয়।

একে এম শাসমুজ্জামান ও তার ব্যাক্তিগত সহযোগী ফয়সাল গত কয়েক বছরে পাঁচ হাজারের অধিক জাল সার্টিফিকেট মার্কশিট বানিয়ে ভুয়া লোকদের কাছে হ্যান্ডওভার করেছে। একই সাথে সরকারি ওয়েবসাইটে, সরকারি পাসওয়ার্ড, অথরাইজেশন ব্যবহার করে ভুয়া লোকদের মধ্যে বিক্রি করা সার্টিফিকেটগুলোকে বাংলাদেশ সরকারের কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের ওয়েবসাইটে আপলোড করেছে। ফলে বাংলাদেশসহ পৃথিবীর যেকোনো দেশে বসে এই ওয়েবসাইটে গিয়ে রোল নাম্বার, রেজিস্ট্রেশন নাম্বার গুলোলে সার্চ করলে তা সঠিক পাওয়া যায়।

ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার বলেন, কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা প্রতিষ্ঠানের ছাত্রছাত্রীর তথ্য সংযোজন, বিয়োজন ও পরিবর্তন সংক্রান্ত আবেদন নিবেদনের ফোকাল পারসন সংশ্লিষ্ট শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান বা পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক। কোনক্রমে ই সিস্টেম অ্যানালিস্ট বা কম্পিউটার অপারেটররা নয়। সিস্টেম এনালিস্ট বা কম্পিউটার অপারেটরা প্রতিষ্ঠানের নিয়ন্ত্রকদের নির্দেশে কঠোর গোপনীয়তা বজায় রেখে সংবেদনশীল এই কাজগুলো করার কথা । কিন্তু বাংলাদেশের বিভিন্ন উপজেলা, জেলা এবং বিভাগীয় শহরে অবস্থিত সরকারি বেসরকারি কারিগরি স্কুল ও কলেজ, পলিটেকনিকেল ইনস্টিটিউট, সার্ভে ইনস্টিটিউটের পরিচালক, প্রিন্সিপালগঞ্জ সম্পূর্ণ অবৈধ ও অনৈতিকভাবে শিক্ষার্থীদের রেজিস্ট্রেশন, রোল নাম্বার সৃজন, রেজাল্ট পরিবর্তন পরিবর্ধন, নাম ও জন্ম তারিখ সংশোধনের তথ্য হোয়াটসঅ্যাপে টাকার বিনিময়ে আদান-প্রদান করেছে কম্পিউটার অপারেটর ও সিস্টেম এনালিস্টদের সাথে। এ রকম প্রতিষ্ঠানের দুর্নীতিপরায়ণ ২৫/৩০ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে যাদেরকেও আইনের আওতায়  নিয়ে আসা হবে। বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের কিছু দুর্নীতিপরায়ণ সিবিএ দালাল কর্মচারী কর্মকর্তা, কম্পিউটার এবং পরিদর্শন শাখার কর্মকর্তা কর্মচারী দীর্ঘদিন ধরে অবৈধভাবে রেজাল্ট পরিবর্তন, নাম ঠিকানা পরিবর্তন, প্রার্থীদের বয়স পরিবর্তন ও সময়ে অবৈধভাবে রেজিস্ট্রেশন নাম্বার, রোল নাম্বার প্রদান সংক্রান্ত কাজগুলো করার সিন্ডিকেট বানিয়েছে।

;