অবৈধ অস্ত্রধারীদের ছাড় দেয়া হবে না: র‍্যাব মহাপরিচালক



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বান্দরবান
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

 

স্বাধীন দেশে কোন অবৈধ সংগঠন থাকবেনা, অবৈধ অস্ত্রধারীদের ছাড় দেওয়া হবে না। তারা যতক্ষণ শান্তির পরে ফিরে না আসবে ততক্ষণ যৌথ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জানিয়েছেন র‍্যাবের মহাপরিচালক এম খুরশীদ হোসেন।

তিনি বলেন, গজিয়ে ওঠা সশস্ত্র সন্ত্রাসী কুকি-চিন ন্যাশনাল ফ্রন্ট'র (কেএনএফ) জন্য শান্তির পথে ফিরে আসতে এখনো আলোচনার পথ খোলা আছে। তারা চাইলে আত্মসমর্পণ করে শান্তির পথে ফিরে আসতে পারে। তাদের জন্য যা যা করা লাগবে সে সবগুলো আমরা করবো।

বুধবার (১৭ এপ্রিল) বেলা ৩টায় বান্দরবানের সার্কিট হাউজে এক ব্রিফিং-এ একথা বলেন তিনি।

এর আগে তিনি সকালে রুমায় ব্যাংক ডাকাতি, মসজিদে হামলা, অস্ত্র লুটের ঘটনায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। এরপর সার্কিট হাউজে জেলার বিভিন্ন কর্মকর্তাদের সাথে বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।

বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের তিনি বলেন, বান্দরবানের রুমা-থানচিতে ঘটে যাওয়া ঘটনাগুলো খুবই নিন্দনীয় কাজ। সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে অভিযান চলমান রয়েছে এবং বিপদগামীরা যতদিন পর্যন্ত স্বাভাবিক জীবনে ফিরে না আসে ততদিন পর্যন্ত এই অভিযান চলমান থাকবে।

এছাড়া এই এলাকায় শান্তি প্রতিষ্ঠা কমিটি রয়েছে তাদের সাথে কিংবা জেলা প্রশাসক, সেনাবাহিনী, পুলিশ, ডিজিএফআই, এনএসআই,আনসার ও র‍্যাব সদস্যরা রয়েছে তাদের সাথে যোগাযোগ করে শান্তি আলোচনার মাধ্যমে বিপদগামীরা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে পারবেন। শান্তি আলোচনার পথ এখনো খোলা রয়েছে। সংঘর্ষ বা সংঘাত কারোই কাম্য নয়, বিপদগামী সকলের শুভবুদ্ধি উদয় হোক এই কামনা করেন তিনি।

আটজন ত্রিপুরাদের গ্রেফতারের বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, যাদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছে তাদেরকে প্রশ্ন করার জন্য নিয়ে আসা হয়েছে। কেননা তাদের সাথে সন্ত্রাসীদের যোগাযোগ থাকতে পারে। তারা চিহ্নিত বা দেখিয়ে দিলে আমাদের জন্য সন্ত্রাসীদের আস্তানায় অভিযান করা আরো সহজ হবে বলে মনে করি।

এসময় তিনি আরও বলেন, তারা যদি আত্মসমর্পণ করতে চায় তাহলে তাদের স্বাগত জানাবো। তাদের পুর্নবাসন করা হবে, সহযোগিতা করা হবে।

র‍্যাবের মহাপরিচালক বলেন, আমরা শান্তি চাই। সরকার প্রধান পার্বত্য অঞ্চলে শান্তি প্রতিষ্ঠার জন্য সেনাবাহিনী নিযুক্ত করেছে। যাতে পাহাড়ি অঞ্চলে সকল জাতিগোষ্ঠী শান্তিতে বসবাস করতে পারে। কিন্তু পাহাড়ের অশান্তি সৃষ্টি তৈরি হলে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী বসে থাকবে না। তাই আমরা চাই তারা শান্তি প্রতিষ্ঠা কমিটির মাধ্যমে আলোচনায় এসে আবার শান্তির পথে ফিরে আসুক।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, বান্দরবান জেলা প্রশাসক শাহ মোজাহিদ উদ্দিন, র‍্যাবের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (অপারেশনস্) কর্নেল মোঃ মাহাবুব আলম, বিজিবি বান্দরবান সেক্টর সদর দপ্তরের কর্নেল সোহেল আহমেদ, ডিজিএফআই এর কর্নেল মোহাম্মদ আসাদুল্লাহ জামশেদসহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা।

   

ক্রিকেট এগিয়েছে, ফুটবলও এগোতে পারত: কাদের



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশ্ব ক্রীড়া অঙ্গনে আমাদের ক্রিকেট এগিয়ে গেলেও ফুটবল সন্তোষজনকভাবে আগায়নি বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) দুপুরে তেজগাঁওয়ের ঢাকা জেলা কার্যালয়ে আওয়ামী লীগের নবগঠিত যুব ও ক্রীড়া উপ-কমিটির সদস্যদের পরিচিতি সভা ও ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের তার ক্রীড়ামন্ত্রী থাকার কথা স্মরণ করে বলেন, আমি যখন ক্রীড়ামন্ত্রী তখনই বাংলাদেশ ক্রিকেট বিশ্বকাপ খেলার যোগ্যতা অর্জন করে। তখনই বিশ্বকাপে গিয়ে ১৯৯৯ সালে পাকিস্তানের কত শক্তিশালী দলকে হারায়। দুইটা বিজয় ছিল, একটা স্কটল্যান্ডের সঙ্গে আরেকটা পাকিস্তানের সঙ্গে। ওই সময় বাংলাদেশ ক্রিকেটে টেস্ট মর্যাদা পেয়েছে। তখনই আমাদের প্রতিবন্ধীরা বিদেশে গিয়ে ২০টি স্বর্ণপদক নিয়ে আসে। আমাদের ক্রীড়া নিয়ে হতাশ হবার কারণ নেই।

তিনি বলেন, ক্রিকেট তো আমাদের অনেক এগিয়েছে। খেলায় উত্থানপতন আছেই। কখনো ভাল খেলবে, কখনো খারাপ হবে। আমি বলব, মোটামুটি সন্তোষজনক। ফুটবলটা আরও এগোতে পারত। বিশ্বকাপে যখন আইসল্যান্ডের মতো দল খেলছে তখন ভাবি, আইসল্যান্ড! আইসল্যান্ডও বিশ্বকাপে খেলে, আমরা পারি না। আমাদের এশিয়াতেই আছে সাউথ কোরিয়া ও জাপান। এছাড়া ইরান মাঝে মাঝে যায়। সৌদি আরবও কখনো কখনো যায়। মিশরও যায় কিন্তু আমরা যেতে পারি না।

;

পিরোজপুরে সুপেয় পানির তীব্র সংকট



তরিকুল ইসলাম, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, পিরোজপুর
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

পিরোজপুরে দেখা দিয়েছে সুপেয় পানির তীব্র সংকট। প্রতি ঘণ্টায় ১০ লক্ষ লিটার পানির চাহিদা থাকলেও শোধন হচ্ছে মাত্র দুই থেকে আড়াই লক্ষ লিটার। পরিশোধনে তীব্র ঘাটতি থাকায় জনদুর্ভোগ চরমে পৌঁছেছে।

পিরোজপুর দেড়’শ বছরের পুরাতন মহাকুমা হলেও জেলার মর্যাদা পায় ১৯৮৭ সালে। ২’শ বছর আগেও পিরোজপুরের জনগণকে সুপেয় পানি সরবরাহের জন্য বিভিন্ন এলাকায় নির্ধারিত পুকুর ও নলকুপ ছিল। সময়ের ব্যবধানে জনগণের চাহিদা পূরণের জন্য পিরোজপুর জনস্বাস্থ্য বিভাগ ১৯৮৩ সালে সুপেয় পানির জন্য চালু করে পানি শোধনাগার। এবং সেখান থেকে শুরু করা হয় পানি সরবরাহ। শুরুতে প্রতি ঘণ্টায় উৎপাদন হত প্রায় ৫০ হাজার লিটার। সময়ের ব্যবধানে উৎপাদন বেড়ে আড়াই লক্ষ লিটারে দাঁড়ালেও চাহিদার তুলনায় তা খুবই সামান্য। ফলে চাহিদাকৃত পানি পরিশোধনে অক্ষম ও পুরানো মেশিন দিয়ে পানি সরবারহ করায় গ্রাহক দুর্ভোগ এখন চরমে পৌঁছেছে। ফলে সুপেয় পানির চাহিদা পূরণ করতে সাধারণ মানুষকে দূরদূরান্তে যেতে হয়। তাছাড়া পানি সংকটের প্রভাব পড়ছে মানুষের আর্থিক অবস্থার ওপরও।


স্থানীয়রা বলেন, পানি নিয়ে সমস্যা র্দীঘদিনের। আগে এক ঘণ্টার বেশি সময় ধরে পানি পাওয়া যেত, কিন্তু র্বতমানে ৩০ মিনিটের বিেশ পানি পাওয়া যায় না। যা আমাদরে জন্য র্পযাপ্ত নয়। প্রচুর পরমিাণে মানুষ পানির অভাবে কষ্ট করছে। পর্যাপ্ত পানি না পাওয়ায় দূরদূরান্ত থেকে পানি আনা হয়। আগে আমরা দশ বারো কলস পানি পেতাম, সেখানে বর্তমানে আমরা পানি দুই এক কলসের বেশি পাই না। তীব্র গরমে পানির জন্য হাহাকার শুরু হয়েছে। পানরি অভাব পূরণ করার জন্য নতুন একটা প্লান দরকার। তাহলে আমরা পানির সমস্যা থেেকে মুক্তি পাবো।

পিরোজপুর জনস্বাস্থ্য বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী জয়ন্ত সরকার বলেন, এ মৌসুমে খাল বিল শুকিয়ে যাওয়ায় পানির সরবারাহ কমে যায়। ফলে দেখা দেয় পানির সংকট। ফলে পানি সমস্যার সমাধানে নেয়া হয়েছে উদ্যোগ। চলছে একটি প্রোজেক্টের সম্ভাব্যতা যাচাইয়ের প্রক্রিয়া।


পিরোজপুর পৌর সভার লক্ষাধিক বাসিন্দার জন্য প্রতি ঘণ্টায় ১০ লক্ষ লিটার পানির চাহিদা রয়েছে। আর উৎপাদন হচ্ছে মাত্র দুই থেকে আড়াই লক্ষ লিটার।

;

নরসিংদীতে দু’গ্রুপের গুলি বিনিময়, আহত ১০



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নরসিংদী
নরসিংদীতে দু’গ্রুপের গুলি বিনিময়, আহত ১০

নরসিংদীতে দু’গ্রুপের গুলি বিনিময়, আহত ১০

  • Font increase
  • Font Decrease

নরসিংদী সদর উপজেলার আলোকবালীতে সরকারি প্রকল্পের বালুর ব্যবসা নিয়ন্ত্রণ ও আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে দু’গ্রুপের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ সময়. গুলি ও টেটাবিদ্ধ হয়ে আহত হয়েছে ১০ জন।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) ভোরে আলোকবালীর খোদাদিলায় যুবলীগ কর্মী জাকির হোসেন ও ইউনিয়ন বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক জয়নাল আবেদিন গ্রুপের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।

আহতরা হলেন, কুতুব উদ্দিন (৩৫), আব্দুল্লাহ (১৬), তৈয়ব মিয়া (১৮)। বাকিদের নাম জানা যায়নি।

জাকির গ্রুপের নেপথ্যে রয়েছে ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের সভাপতি এড, আসাদ উল্লাহ এবং জয়নাল আবেদিন গ্রুপে রয়েছে ইউপি চেয়ারম্যান ও সাবেক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি দেলোয়ার হোসেন দীপু, ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি বজলুর রহমান ফাহিম।

জানা যায়, বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে মেঘনা নদী ও তার শাখা নদীর নাব্যতা বৃদ্ধিতে নদী থেকে বালু উত্তোলন গত দুই মাস আগে শুরু হয়। প্রকল্প অনুযায়ী এসব বালু নদীর পাশে রাখার কথা হলেও প্রভাব বিস্তার করে আলোকবালী ইউনিয়নের সাতপাড়া ও খোদাদিলাসহ বিভিন্ন গ্রামের ফসলী জমি, পুকুর, ডুবাসহ বিভিন্ন স্থান ভরাট করা হচ্ছে। আর এসব ভরাট করা বালুর জন্য প্রতি শতাংশ জায়গা ভরাটের জন্য জয়নাল আবেদিন ও ইউপি চেয়ারম্যান গ্রুপকে ১০-১৫ হাজার টাকা দিতে হচ্ছে।

ফলে, জাকির গ্রুপ তাদের ভাগ না পাওয়া ও পূর্ব আধিপত্য বিস্তার নিয়ে দীর্ঘ দিনের বিরোধ থেকে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। তাছাড়া আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে জাকির গ্রুপ এলাকার বাহিরে ছিল। পুনরায় গ্রুপটি এলাকায় প্রবেশ করতে চাইলে বৃহস্পতিবার ভোরের দিকে উভয় গ্রুপের সংঘর্ষ হয় এবং উভয় গ্রুপের অন্তত ১০ জন টেটাবিদ্ধ ও গুলিবিদ্ধ হয়। এদের মধ্যে কুতুব উদ্দিনকে আশঙ্কাজনক অবস্থায় ঢাকা মেডিকেল কলেজে পাঠানো হয়েছে।

নরসিংদী সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) তানভীর আহমেদ জানান, আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে তাদের মধ্যে দীর্ঘ দিনের বিরোধ রয়েছে। জাকির গ্রুপ এলাকায় প্রবেশ করতে চাইলে এ সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে বেশ কয়েকজন আহত হয়। খোদাদিলা গ্রামটি অনেক বড়। এক দিকে ধাওয়া করলে অন্য দিক দিয়ে পালাচ্ছে। খবর পেয়ে ভোর থেকে আমরা ঘটনাস্থলে রয়েছি। অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে এবং এ ঘটনায় কাউকে আটক করা যায়নি।

;

নোয়াখালীতে শিশু ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মামলা



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নোয়াখালী
নোয়াখালীতে শিশু ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মামলা

নোয়াখালীতে শিশু ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মামলা

  • Font increase
  • Font Decrease

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় এক শিশুকে (১২) ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে মো. শাহজালাল (৪৮) নামে এক ব্যক্তির বিরুদ্ধে মামলা হয়েছে।

বুধবার (২২ মে) নির্যাতিত শিশুর বাবা বাদী হয়ে সেনবাগ থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলাটি দায়ের করেন। এর আগে, গত ৫ এপ্রিল রাত সাড়ে ৯টার দিকে উপজেলার কেশারপাড় ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে।

অভিযুক্ত শাহজালাল উপজেলার ২নং কেশারপাড় ইউনিয়নের বীরকোট গ্রামের মৃত নুরুল ইসলামের ছেলে।

ভুক্তভোগীর পরিবার সূত্রে জানা যায়, শিশুটি রাত সাড়ে ৯টার দিকে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে ঘর থেকে বের হলে অভিযুক্ত ব্যক্তি শিশুটিকে মুখ চেপে ধরে বাড়ির পিছনে বাগানে নিয়ে যায়। এরপর জোরপূর্বক ধর্ষণের চেষ্টা করে। মেয়েকে দেখতে না পেয়ে ভিকটিমের মা টর্চ লাইট নিয়ে খুঁজতে বের হলে অভিযুক্ত ব্যক্তি বিষয়টি আঁচ করতে পেরে কৌশলে পালিয়ে যায়।

সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. নাজিম উদ্দিন বলেন, ভুক্তভোগী শিশুর বাবার লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা নেওয়া হয়েছে। তবে পরবর্তীতে তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

;