১ কেজি মুড়ির দাম ১৪ হাজার ৮৮০ টাকা!



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বরিশাল
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বরিশালের একটি দাখিল মাদরাসার হিসাবের খাতায় একদিনের নাস্তার খরচে ১ কেজি মুড়ি ও বিস্কুটের মূল্য ধরা হয়েছে ১৪ হাজার ৮৮০ টাকা।

বরিশালের গৌরনদী উপজেলার দক্ষিণ দিয়াশুর সৈয়দিয়া দাখিল মাদরাসায় এ ঘটনা ঘটে।

দিয়াশুর সৈয়দিয়া দাখিল মাদরাসার সুপারিনটেনডেন্ট আব্দুস সত্তারের স্বাক্ষর জাল-জালিয়াতি করে ওই টাকা আত্মসাৎ করেন সহকারী সুপারিনটেনডেন্ট আবদুল হালিম।

মাদরাসার হিসাব খাতায় দেখা গেছে, ২০১৮ সালের ২৮ নভেম্বর সহকারী সুপারিনটেনডেন্ট আবদুল হালিম খরচ বাবদ মাদরাসার হিসাব খাতায় ১ কেজি মুড়ি ও বিস্কুটের বিল লিখেছেন ১৪ হাজার ৮৮০ টাকা। ওই মুড়ি ও বিস্কুটের বিল ব্যাংকে দেখিয়ে টাকা উত্তোলন করে তা আত্মসাৎ করেন আবদুল হালিম।

মুড়ির বিষয়ে গত ১৪ ডিসেম্বর (২০১৯) আবদুল হালিমকে শোকজ করেন মাদরাসা সুপারিনটেনডেন্ট আব্দুস সত্তার। বিষয়টি এতোদিন গোপন ছিল। এছাড়া সরকারি বই বিক্রিসহ বিভিন্ন দুর্নীতি করে অর্থআত্মসাতের অভিযোগ রয়েছে আবদুল হালিমের বিরুদ্ধে।

আবদুল হালিম বার্তা২৪.কমকে জানান, তার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে।

একদিনে এক কেজি মুড়ি ও বিস্কুটের বিল ১৪ হাজার ৮৮০ টাকা কীভাবে হলো সে বিষয়ে তিনি জানান, খাতায় হয়তো ভুল উঠানো হয়েছে। এছাড়া অন্যান্য খরচের হিসাব এক সঙ্গে যোগ করে খাতায় উঠানো হতে পারে।

দক্ষিণ দিয়াশুর সৈয়দিয়া দাখিল মাদরাসার সুপারিনটেনডেন্ট আব্দুস সত্তার জানান, ২০০৪ সাল থেকে শুরু করে ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন দুর্নীতি করে অর্থআত্মসাৎ করেছেন আবদুল হালিম।

গৌরনদী উপজেলা নির্বাহী অফিসার ইসরাত জাহান বার্তা২৪.কমকে জানান, এক কেজি মুড়ি ও বিস্কুটের দাম ১৪ হাজার ৮৮০ টাকা এমন বিলের ঘটনা তার জানা নেই। এছাড়া মাদরাসার পক্ষ থেকে এ বিষয়ে কেউ তাকে জানায়নি। তবে খোঁজ নিয়ে বিষয়টি দেখবেন তিনি।