‘জাপান স্ট্রিট’ নামে বসুন্ধরা আবাসিকে রাস্তা



স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
জাপানের নামে বসুন্ধরা আবাসিকে রাস্তা

জাপানের নামে বসুন্ধরা আবাসিকে রাস্তা

  • Font increase
  • Font Decrease

বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায় জাপানের নামে একটি রাস্তা উদ্বোধন করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) ফিতা কেটে জাপান স্ট্রিট নামে এ রাস্তার উদ্বোধন করেন বাংলাদেশে জাপানের রাষ্ট্রদূত নাও‌কি ই‌তো এবং বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান।

বসুন্ধরা আবাসিকের আই ব্লকে নির্মাণাধীন জাপানের ‘জেসিএক্স বিসনেজ টাওয়ারের’ সামনের রাস্তার এ নাম রাখা হয়েছে।

জাপানের রাষ্ট্রদূত নাও‌কি ই‌তো বলেন, বিশ্বের বিভিন্ন দেশের বিনিয়োগের জন্য বাংলাদেশে সুষ্ঠু বিনিয়ো্গ পরিবেশ সৃষ্টি করতে হবে। আমি আর এ বিষয়ে কিছু বলতে চাই না।

বসুন্ধরা গ্রুপের চেয়ারম্যান আহমেদ আকবর সোবহান বলেন, সরকার সরকারি কর্মকর্তা কর্মচারিকে ঋণ দিচ্ছে। জাপানের উন্নয়ন সংস্থা জাইকাকে অনুরোধ করব, ২/৩ শতাংশ ঋণ দিয়ে আবাসন খাতে যেন ব্যবসা করে। এতে বাংলাদেশের আবাসন খাতের উন্নতি ঘটবে।

জেসিএক্স বিজনেজ টাওয়ারের প্রস্তাবিত নকশা

জাপানের স্থাপত্য নকশায় তৈরি জেসিএক্স বিজনেস টাওয়ার। রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকার আই ব্লকে এই টাওয়ারটির তিনটি তলার নির্মাণ সম্পন্ন হয়েছে। আরো দুটি তলার কাজ চলছে। ২০২০ সালের জুন মাসে ১৩ তলার এই টাওয়ারটির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে বলে প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে।

জাপানের গ্রিড গ্রুপ ও বাংলাদেশের জেসম গ্রুপের যৌথ উদ্যোগে এই বাণিজ্যিক টাওয়ারটিতে ৩৫০০ থেকে ১৯,৮০০ বর্গফুটের অফিস ও দোকানের জায়গা বিক্রি করা হবে। বসুন্ধরার আই ব্লকে ১১৩৬/এ, সোনিয়া সোবহান পঞ্চম এভিনিউতে এই স্থাপনার নিরাপত্তা ব্যবস্থায় বিশেষ গুরুত্ব দেওয়া হবে।

বসুন্ধরায় জাপান স্ট্রিট নামে রাস্তা

জেসিএক্স ডেভেলপমেন্ট লিমিটেডের কর্মকর্তা জানান, বিল্ডিংটিতে সেন্ট্রাল এয়ারকন্ডিশন থাকবে, যেখানে রয়েছে ভিআরএস এয়ারকন্ডিশন সিস্টেম। তিনটি বেজমেন্টে গাড়ি পার্কিং সুবিধাসহ স্থাপিত হবে সাতটি লিফট ও একজোড়া এস্কেলেটর। এটি দেশের বিল্ডিং কোড মেনে ভূমিকম্প সহনীয় স্থাপনা হিসেবে গড়ে উঠছে। দৃষ্টিনন্দন এই স্থাপনাটির অন্যান্য সুবিধার মধ্যে রয়েছে সোয়্যারেজ ট্রিটমেন্ট প্লান্ট, স্মোক ডিটেক্ট উইথ ফায়ার ফাইটিং, ন্যানো টেকনোলোজি এসটিপি।

নির্বাচন কমিশন গঠনের আইনের খসড়া সংসদে উত্থাপন



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

নির্বাচন কমিশন গঠনের জন্য জাতীয় সংসদে বিল বা আইনের খসড়া উত্থাপন করা হয়েছে।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) আইনমন্ত্রী আনিসুল হক খসড়া আইনটি সংসদে উত্থাপন করেন। প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও নির্বাচন কমিশনার নিয়োগ আইন, ২০২২’ নামে খসড়া আইনটির মাধ্যমে সার্চ কমিটির মাধ্যমে এর আগে গঠিত সব নির্বাচন কমিশনের বৈধতাও দেওয়া হবে।

খসড়া আইনে সার্চ কমিটির (অনুসন্ধান কমিটি) কাজ সম্পর্কে বলা হয়েছে, এ কমিটি স্বচ্ছতা ও নিরপেক্ষতার নীতি অনুসরণ করে দায়িত্ব পালন করবে। আইনে বেঁধে দেওয়া যোগ্যতা, অযোগ্যতা অভিজ্ঞতা, দক্ষতা ও সুনাম বিবেচনা করে সিইসি ও নির্বাচন কমিশনার পদে নিয়োগের জন্য রাষ্ট্রপতির কাছে সুপারিশ করবে।

এর আগে, গত সোমবার (১৭ জানুয়ারি) নির্বাচন কমিশন গঠন আইনের খসড়া মন্ত্রিসভায় অনুমোদন দেওয়া হয়। সেদিন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনার এবং নির্বাচন কমিশনার নিয়োগদানের জন্য একটি অনুসন্ধান কমিটি গঠন করা হবে। সেটা রাষ্ট্রপতির অনুমোদন নিয়ে।

;

কেএমপি’র ৩ কর্মকর্তা পেলেন পিপিএম সেবা পদক



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, খুলনা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশ’র (কেএমপি) চৌকস, দক্ষ, মেধাবী ও মানবিক ৩ পুলিশ কর্মকর্তা পেলেন পিপিএম-সেবা পদক।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) কেএমপি সূত্র এ তথ্য জানায়।

কেএমপি সূত্র জানায়, ২০২০ ও ২০২১ সালে খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশে চাঞ্চল্যকর মামলা সমূহের রহস্য উদঘাটন, কৃতিত্বপূর্ণ, সাহসীকতা এবং বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ তাদেরকে “পিপিএম-সেবা” পদকে ভূষিত করা হয়েছে।

পদকপ্রাপ্ত কর্মকর্তারা হলেন, কেএমপি’র অতিরিক্ত উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ) সোনালী সেন, বিশেষ পুলিশ সুপার রাশিদা বেগম এবং এসআই (নি:) মোহাম্মদ আবু সাঈদ।

উল্লেখ্য, ২০২১ সালে জনাব সোনালী সেন, অতিঃ উপ-পুলিশ কমিশনার (দক্ষিণ), কেএমপি, খুলনা চাঞ্চল্যকর মামলাসমূহের রহস্য উদঘাটন, অপরাধ নিয়ন্ত্রণ, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষা, সেবামূলক কাজ এবং শৃঙ্খলামূলক আচরণের মাধ্যমে প্রশংসনীয় অবদানের স্বীকৃতি স্বরুপ “পিপিএম-সেবা” পদকে ভূষিত হয়েছে।

২০২০ সালে জনাব রাশিদা বেগম, বিশেষ পুলিশ সুপার, সিটি স্পেশাল ব্রাঞ্চ, কেএমপি, খুলনা কৃতিত্বপূর্ণ, কর্তব্যনিষ্ঠা, সততা এবং দক্ষতার সহিত বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীতে প্রশংসনীয় অবদান রাখার স্বীকৃতি স্বরূপ “পিপিএম-সেবা” পুরস্কারে ভূষিত হয়েছে। তিনি কোভিড-১৯ প্রাদুর্ভাব রোধে প্রশংসনীয় ভূমিকা পালন, শ্রমিক আন্দোলনকালীন ও সার্বক্ষণিক মহানগরীর আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখায় ভূমিকা, ভিআইপি/ভিআইপি, বিদেশীদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণসহ নাগরিক সেবা প্রদানে দায়িত্ব পালনকালে পেশাদারিত্বের যে অনন্য দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে এটি শুধু বাংলাদেশ পুলিশের সদস্যদের জন্যই নয়, দেশের নারী সমাজের কাছেও অনুসরণীয়, অনুকরণীয় ও অবিস্মরণীয় হয়ে থাকবে চিরকাল।

২০২০ সালে জনাব মোহাম্মদ আবু সাঈদ, এসআই(নি:), খুলনা থানা, কেএমপি, খুলনা এর কর্তব্যপরায়নতা, নিষ্ঠা, সততা, আন্তরিকতা, বিচক্ষণতা, সাহসীকতা এবং বীরত্বপূর্ণ কাজের স্বীকৃতি স্বরূপ তাকে “পিপিএম-সেবা” পদকে ভূষিত করা হয়েছে।

;

সিরাজগঞ্জে তিন এমপি করোনায় আক্রান্ত



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
সিরাজগঞ্জে তিন এমপি করোনায় আক্রান্ত

সিরাজগঞ্জে তিন এমপি করোনায় আক্রান্ত

  • Font increase
  • Font Decrease

সিরাজগঞ্জের তিনজন সংসদ সদস্য (এমপি) করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন। এছাড়াও একজন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও উপজেলা চেয়ারম্যান এবং জেলা যুবলীগের সভাপতিও আক্রান্ত হয়েছেন। আক্রান্তদের মধ্যে সবাই দুই ডোজ টিকা নিয়েছেন বলে জানা গেছে।

আক্রান্ত ব্যক্তিরা হলেন, সিরাজগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য তানভীর শাকিল জয়, সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না, সিরাজগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. আব্দুল আজিজ, কাজিপুর উপজেলা চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান সিরাজী, রায়গঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা তৃপ্তি কনা মন্ডল এবং জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ ইউসুফ জুয়েল। 

শনিবার বিকেলে নিজের ফেসবুক পেজে দ্বিতীয়বারের মতো করোনা আক্রান্ত হওয়ার বিষয়টি জানিয়ে নিজের সুস্থতা কামনা করে দোয়া চেয়েছেন সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্না।

রোববার (২৩ জানুয়ারি) বেলা ১১টার দিকে সিরাজগঞ্জ-২ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. হাবিবে মিল্লাত মুন্নার এপিএস একরামুল হক স্বপন এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে, ২০২১ সালের ৭ ফেব্রুয়ারি টিকার প্রথম ডোজ গ্রহণের মাধ্যমে সিরাজগঞ্জে টিকা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন সিরাজগঞ্জ-২ আসনের এমপি অধ্যাপক হাবিবে মিল্লাত মুন্না। এরপর ৮ এপ্রিল জাতীয় সংসদ ক্লিনিক থেকে দ্বিতীয় ডোজ ও ১২ জানুয়ারি টিকার বুস্টার ডোজ গ্রহণ করেন তিনি।

সিরাজগঞ্জ-১ আসনের সংসদ সদস্য তানভীর শাকিল জয় বলেন, দুইটি করোনা টিকা এবং বুস্টার ডোজ গ্রহণ করার পরও ১৯ জানুয়ারি তৃতীয়বারের মতো তার শরীরে করোনা ধরা পড়েছে। ঠান্ডা ছাড়া তেমন কোন সমস্যা হচ্ছে না। বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন তিনি।

সিরাজগঞ্জ-৩ আসনের সংসদ সদস্য অধ্যাপক ডা. আব্দুল আজিজ সরকার বলেন, দুইটি টিকা নেওয়ার পর ৭ দিন আগে শরীরে করোনা ধরা পড়েছে। সর্দি-কাশি আছে, কিন্তু তেমন সমস্যা হচ্ছে না। বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন তিনি। 

রায়গঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তৃপ্তি কনা মন্ডল বলেন, দুইটি টিকা গ্রহণ করার পরও ১৮ জানুয়ারি করোনা ধরা পড়েছে। কাশি আছে, ডাক্তারের পরামর্শে বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন তিনি। 

অপর দিকে দুই টিকা গ্রহণের পরও ১৮ জানুয়ারি কাজিপুর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক খলিলুর রহমান সিরাজী এবং ১৭ জানুয়ারি জেলা যুবলীগের সভাপতি রাশেদ ইউসুফ জুয়েলের শরীরে করোনা ধরা পড়ে। এদেরও হাসপাতালে ভর্তি হতে হয়নি। বাসায় থেকেই চিকিৎসা নিচ্ছেন তারা।

;

হাতিয়ায় ১৪০ মণ জাটকা জব্দ



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট বার্তা২৪.কম, নোয়াখালী 
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

নোয়াখালীর দ্বীপ উপজেলা হাতিয়ার মেঘনা নদীর মৌলভীর চর এলাকায় অভিযান চালিয়ে ১৪০ মণ জাটকা ইলিশ জব্দ করেছে কোস্টগার্ড। 

শনিবার রাতে জব্দকৃত মাছগুলো ২০টি এতিমখানার শিক্ষার্থীসহ সহশ্রাধিক গরীব মানুষের মধ্যে বিতরণ করা হয়। 

এর আগে শনিবার সন্ধ্যার সময় অভিযান করে ঢাকার মোকামে নিয়ে যাওয়ার সময় মেঘনা নদী থেকে জব্দ করা হয় এসব জাটকা মাছ।

কোস্টগার্ড হাতিয়ার স্টেশন কমান্ডার লে. ইফতেখারুল আলম বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার মৌলভীর চর এলাকায় অভিযান চালায় বিসিজি স্টেশান কোস্টগার্ড হাতিয়া।

অভিযান চালিয়ে মৌলভীর চরের উত্তর পাশে মেঘনা নদী থেকে দুটি ইঞ্জিন চালিত ট্রলারে থাকা ১৪টি ঝুঁড়ি থেকে ১৪০ মণ জাটকা মাছ জব্দ করা হয় । পরবর্তীতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা পরামর্শ অনুযায়ী এবং মৎস্য অফিসের কর্মকর্তাদের উপস্থিতিতে জাটকা মাছ গুলো এতিমখানা ও গরিব দুঃখীদের মাঝে বিতরণ করা হয়। যার বাজার মুল্য প্রায় ১৭লাখ টাকা।

তিনি আরও বলেন, জব্দকৃত এসব জাটকা মাছ ব্যাবসায়ীরা বিক্রির উদ্দেশ্যে ভোলা জেলার মনপুরা উপজেলার হাজিরহাঁট ঘাট থেকে নদী পার হয়ে হাতিয়ার টাংকির ঘাট নিয়ে যাচ্ছিলেন।

;