তিস্তার পানি বিপৎসীমার ওপরে, বাড়ছে বিপদ



মাহমুদ আল হাসান রাফিন, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, নীলফামারী
পানিবন্দি হয়ে আছেন নিম্নাঞ্চলের মানুষ

পানিবন্দি হয়ে আছেন নিম্নাঞ্চলের মানুষ

  • Font increase
  • Font Decrease

আষাঢ়ের বৃষ্টি আর উজান থেকে নেমে আসা ঢলে ফুলে উঠেছে তিস্তার বুক। চারদিক পানিতে টইটুম্বর। গত ৭২ ঘণ্টায় পরিস্থিতির উন্নতি না হওয়াতে নদী অববাহিকাসহ নিমাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন নীলফামারীর নদী তীরবর্তী চরাঞ্চলের কয়েক শতাধিক পরিবার। শুকনো খাবার ও বিশুদ্ধ খাবার পানি সংকটে পড়েছেন তারা।

রোববার (২৮ জুন) বিকেল ৩টা থেকে তিস্তা নদীর পানি ডালিয়া ব্যারেজ পয়েন্টে বিপৎসীমার ২০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। গত তিনদিন ধরেই ডালিয়া ব্যারেজ পয়েন্টে এ পরিস্থিতি বিরাজ করছে।

নদীতে পানি বাড়ায় চরাঞ্চলের সবজি খেতসহ ফসলি জমি তলিয়ে গেছে। বিপৎসীমার ওপর দিয়ে প্রবাহিত পানির তোড়ে পূর্ব খড়িবাড়ি টাপুরচরে বাধ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ভেঙে গেছে অনেক গাছপালা ও ঘরবাড়ি। পানিবন্দি মানুষের মধ্যে বিশুদ্ধ পানির সংকটসহ গবাদি পশু-পাখির বাসস্থান নিয়ে দুর্ভোগ দেখা দিয়েছে। অনেকেই নদী গর্ভে ঘরবাড়ি হারিয়ে নৌকায় ভাসমান জীবনযাপন করছে। এখনো ভাঙন ঝুঁকিতে আছে বহু পরিবার।

তিস্তার পানি বৃদ্ধি অব্যাহত রেয়েছে

জেলার ডিমলা উপজেলার টেপাখড়িবাড়ি ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান ময়নুল হক বলেন, ‘তিস্তা নদীর পানি বৃদ্ধি কারণে ইউনিয়নের প্রায় ৬ শতাধিক পরিবার পানিবন্দি রয়েছেন। পূর্ব খড়িবাড়ি টাপুরচর এলাকায় স্বেচ্ছাশ্রমে করা দুই হাজার মিটার বালির বাঁধটির ৫০০ মিটার গত বন্যায় বিলীন হয়েছে। এবারের বন্যায় আবারও বাঁধটির ২০০ মিটার নদী গর্ভে বিলীন হলো।’

ঝুনাগাছ চাপনী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান আমিনুর রহমান বার্তা২৪.কম-কে বলেন, ‘ভাঙনের মুখে ইউনিয়নের ভেন্ডাবাড়ি ও ছাতুনামা মৌজার ৩৪টি পরিবারের ঘরবাড়ি তিস্তা নদীতে বিলীন হয়েছে। আরও ৪০ পরিবার ভাঙনের মুখে পড়ে বসতঘর নৌকায় করে অন্যত্র সরিয়ে নিচ্ছে। প্রায় ৮০০ পরিবার পানিবন্দী রয়েছে।’

ডিমলা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জয়শ্রী রানী রায় বার্তা২৪.কম-কে জানান, ‘উপজেলার টেপাখড়িবাড়ী, খগাখগিবাড়ী ও ঝুনাগাছচাপানী ইউনিয়নের চরাঞ্চলের ৩ হাজার ১২০টি পরিবার পানিবন্দী রয়েছে। এরইমধ্যে নদীতে বিলিন হওয়া পরিবারগুলোকে শুকনো খাবার ও নগদ দুই হাজার টাকা করে দেওয়া হয়েছে। এছাড়া ৪৬.৮ মেট্রিক টন চাল দেওয়া হয়েছে।’

নদীর ভাঙনের মুখে অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া ঘর

পানি উন্নয়ন বোর্ড ডালিয়া ডিভিশনের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. রবিউল ইসলাম বার্তা২৪.কম-কে বলেন, ‘ডালিয়া ব্যারেজ পয়েন্টে তিস্তা নদীর পানি সকালের দিকে ৫ সেন্টিমিটার কম থাকলেও বর্তমানে বিপৎসীমার ২০ সেন্টিমিটার ওপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। তিস্তা ব্যারাজের সব কয়টি (৪৪টি) জলকপাট খুলে রাখা হয়েছে। আগামীকাল (সোমবার) থেকে পানি কমতে পারে।'

   

ঈদের ছুটিতে পর্যটকদের পদচারণায় মুখর রাঙামাটি



আলমগীর মানিক, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাঙামাটি
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যের লীলাভূমি পাহাড়ি জেলা রাঙ্গামাটি। ঈদের ছুটিতে প্রকৃতির অপরূপ লীলাভূমি রাঙামাটিতে পর্যটকদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। রূপ বদলানো হ্রদ-পাহাড় আর মেঘ মিতালীর অপরূপ দৃশ্য-সমৃদ্ধ রাঙামাটির নান্দনিক দৃশ্য দেখার পর্যটকরা ছুটে এসেছেন। এতে স্থানীয়ভাবে উৎপাদিত পণ্য সামগ্রীর বেচা-বিক্রিও বেড়েছে।

হোটেল মোটেল ও সরকারি বিশ্রামাগারগুলোতে দেখা গেছে পর্যটকে ঠাসা। রাঙামাটির বিখ্যাত ঝুলন্ত সেতু, পলওয়েল পার্ক, ডিসি বাংলো এলাকায় পর্যটকদের উপস্থিতি অন্যান্য দিনের তুলনায় বহুগুণ বেড়ে গেছে। শহরের পর্যটন স্পটগুলো এখন পর্যটকদের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে। পর্যটকের আগমনে প্রতিদিনই রাঙামাটির অর্থনীতিতে যোগ হচ্ছে কোটি টাকার রাজস্ব।


রাঙামাটির পর্যটন সংশ্লিষ্ট্যরা জানিয়েছেন, লম্বা ছুটি, হ্রদ-পাহাড় আর পাহাড় ছোঁয়া মেঘের টানে রাঙামাটিতে পর্যটকদের ভিড় বেড়ে গেছে। পার্ক, ঝুলন্ত ব্রিজসহ দর্শনীয় স্থানগুলো লোকে লোকারণ্য। কোথাও তিল ধারণের ঠাঁই নেই। পর্যটন সংশ্লিষ্ট ব্যবসা-বাণিজ্য বেড়েছে। যানবাহন, ট্যুরিস্ট বোট, হাউজ বোটগুলোর ব্যবসাও ভালো হচ্ছে। সার্বিক বিবেচনায় পাহাড়ের পর্যটন ব্যবসা ঘুরে দাঁড়িয়েছে। শহর জুড়ে পর্যটকদের আনাগোনা বহুগুণ বেড়ে গেছে। রেস্টুরেন্টগুলো পর্যটকদের মধ্যে খাবার বিক্রি করতে ব্যস্ত সময় পার করছে। শহরের বেশিরভাগ হোটেল-মোটেলগুলো বুকিং রয়েছে।

সুদূর রাজধানী, নোয়াখালীসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে রাঙামাটিতে বেড়াতে আসা পর্যটকরা জানিয়েছেন, প্রকৃতির রূপ কত সুন্দর হয় সেটি রাঙামাটিতে বেড়াতে না আসলে বুঝতে পারতাম না। দেশে এত সুন্দর জায়গা আছে এখানে না এলে জানতাম না। তাই মনকে সতেজ রাখতে পাহাড়ি জনপদে ছুটে এসেছি। খুব ভাল লাগছে রাঙামাটি। এদিকে রাঙামাটির পর্যটনের উন্নয়নে এ শহরকে আরও বেশি ঢেলে সাজানো উচিত। তাহলে মানুষ বিদেশে বেড়াতে না গিয়ে এ শহরে বেড়াতে আসবে বলেও জানিয়েছেন পর্যটকরা।

রাঙামাটি হোটেল মালিকরা জানিয়েছেন, টানা ছুটিতে রাঙামাটিতে পর্যটকদের ঢল নেমেছে। ব্যবসা করতে পারায় ব্যবসায়ীরা খুব খুশি।


হোটেল পরিচালক সুমন জানিয়েছেন, আমাদের এখানে পর্যটকদের উপস্থিতি বেড়েছে এবং প্রায় সবগুলো রুম বুকিং হয়ে গেছে।

রাঙামাটি পর্যটন করপোরেশনের ব্যবস্থাপক আলোক বিকাশ চাকমা জানিয়েছেন, টানা সরকারি ছুটি থাকায় রাঙামাটিতে পর্যটকদের সংখ্যা বেড়ে গেছে। কয়েকদিনে জেলায় কয়েক লাখ পর্যটকের সমাগম হয়েছে বলে জানান তিনি।

তিনি আরও বলেন, পর্যটন মোটেলগুলো শতভাগ বুকিং রয়েছে। আগামীকালও বুকিং আছে। খুব ভাল লাগছে পর্যটকদের উপস্থিতিতি বেড়ে যাওয়ায়। তবে করোনার সংক্রমণ এড়াতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে পর্যটকদের প্রবেশে বাধা দেওয়া হচ্ছে বলে যোগ করেন পর্যটন করপোরেশনের এ ম্যানেজার।

রাঙামাটির পুলিশ সুপার মীর আবু তৌহিদ-বিপিএম (বার) জানিয়েছেন, রাঙামাটিতে আগত ট্যুরিস্টদের জন্য জেলা পুলিশের পাশাপাশি ট্যুরিস্ট পুলিশের মাধ্যমে নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিশ্চিত করা হয়েছে। স্পর্শকাতর পর্যটন কেন্দ্রগুলোতেও বাড়তি পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে যাতে পর্যটকরা নিরাপদে ছুটি উপভোগ করতে পারে।

;

রংপুরে জুয়ার আসর থেকে যুবদল নেতাসহ আটক ৭



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রংপুর
রংপুরে জুয়ার আসর থেকে যুবদল নেতাসহ আটক ৭

রংপুরে জুয়ার আসর থেকে যুবদল নেতাসহ আটক ৭

  • Font increase
  • Font Decrease

রংপুরে জুয়ার আসর থেকে যুবদল নেতাসহ সাতজনকে আটক করেছে পুলিশ।

শনিবার (১৩ এপ্রিল) দুপুরে তাদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়।

এর আগে গতকাল শুক্রবার (১২ এপ্রিল) রাতে সদর উপজেলার সদ্যপুষ্করিনী ইউনিয়নের পালিচড়া বাজারের অনুসন্ধানী ক্লাব থেকে তাদের আটক করা হয়।

আটককৃতরা হলেন, ওই এলাকার হেফাজার মিয়ার ছেলে ও উপজেলা যুবদলের সদস্য সচিব হাবিবুর রহমান শ্রাবণ (৩৫), বকসি পাড়ার আলহাজ্ব খালেদ হোসেন লাইজুর ছেলে যুবদল নেতা হাসিব বাবু (৩২), বাবু মিয়ার ছেলে গোলাম রাব্বানী (৪০), রাজু মিয়ার ছেলে আল আমিন (২২), মৃত আফজাল মিয়ার ছেলে আনোয়ার হোসেন (৪৫), মৃত কাশেম মিয়ার ছেলে মনির হোসেন (৫০) ও মৃত আবু বক্করের ছেলে রফিকুল ইসলাম।

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) বজলুল রশিদ জানান, সদর উপজেলার সদ্যপুষ্করিনী ইউনিয়নের পালিচড়া বাজারের অনুসন্ধানী ক্লাবে নিয়মিত জুয়ার আসর বসত। শুক্রবার রাতে গোপন সংবাদের ভিত্তিতে ক্লাবটিতে অভিযান চালিয়ে ওই এসময় আটককৃতদের কাছ থেকে ৩ সেট তাস ও নগদ টাকা উদ্ধার করে পুলিশ।

তিনি আরো জানান, এ ঘটনায় থানায় নিয়মিত মামলা দায়েরের পর আসামিদের আদালতের মাধ্যমে জেল হাজতে পাঠানো হয়েছে।

;

লক্ষ্মীপুরে প্লাটিনাম জয়ন্তীতে প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মিলনমেলা



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট,বার্তা২৪.কম, লক্ষ্মীপুর
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার ৭৫তম বার্ষিকী উপলক্ষে প্লাটিনাম জয়ন্তী উদযাপন করেছে লক্ষ্মীপুরের ভবানীগঞ্জ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা।

বর্ণাঢ্য আয়োজনে বিদ্যালয় প্রাঙ্গণে শনিবার (১৩ এপ্রিল) সকাল থেকে দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে। শুরুতে জাতীয় সংগীত, পতাকা উত্তোলন ও বেলুন উড়িয়ে বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির উদ্যোগে আয়োজিত অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করা হয়।

পরে আলোচনা সভা, স্মৃতিচারণ, সংবর্ধনা অনুষ্ঠান, মধাহ্নভোজ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানসহ সহ নানা আয়োজন ছিল বিদ্যালয় মাঠে। প্রবীণ ও নবীন শিক্ষার্থীরা বিদ্যালয় মাঠে এসে আবেগে আপ্লুত হয়ে পড়েন।

অনুষ্ঠানের ফাঁকে কেউ কেউ দলবদ্ধ হয়ে ছবি তুলেছেন, কেউ আবার আড্ডায় গল্পে মেতেছেন। কারো বয়স আশির ঊর্ধ্বে। আবার কারো বয়স ষাট-সত্তরের মধ্যে। বিদ্যালয়ের পুনর্মিলনীতে সবাই একসঙ্গে হয়েছেন বিদ্যালয় মাঠে। একে অপরের সঙ্গে পুরনো দিনের স্মৃতিচারণ করেন।


বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি নাছির উদ্দিন রাজুর সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন স্বাধীনতা যুদ্ধের কিংবদন্তী নেতা ও সাবেক এমএলএ বীর মুক্তিযোদ্ধা খালেদ মোহাম্মদ আলী। উদ্বোধক ছিলেন বিদ্যালয়ের সাবেক ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক কামাল উদ্দিন।

বক্তব্য রাখেন- লক্ষ্মীপুর সরকারি কলেজের সাবেক অধ্যক্ষ অধ্যাপক মাইন উদ্দিন পাঠান, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আরিফুর রহমানসহ বিদ্যালয়ের শিক্ষক ও প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা।

আয়োজকরা জানিয়েছেন, বিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীদের মধ্যে বীর মুক্তিযোদ্ধা, অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক ও কৃতি শিক্ষার্থীদেরকে সম্মাননা প্রদান করা হবে।

১৯৪৭ সালে ভবানীগঞ্জ বহুমুখী উচ্চ বিদ্যালয় প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ২০২৪ সাল পর্যন্ত প্রায় ১৫০০ শিক্ষার্থী বিদ্যালয়ের প্লাটিনাম জয়ন্তী ও পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছেন বলে আয়োজকরা জানায়।

;

কেন ইসরায়েল থেকে ঢাকায় ফ্লাইট অবতরণ? ব্যাখা দিল বেবিচক



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সম্প্রতি ইসরায়েল থেকে দুটি ফ্লাইট সরাসরি ঢাকায় অবতরণ করার বিষয়ে ব্যাখ্যা দিয়েছে বাংলাদেশের বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ (বেবিচক)।

শনিবার বেবিচকের উপ-পরিচালক (জনসংযোগ) মোহাম্মদ সোহেল কামরুজ্জামানের স্বাক্ষর করা এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘ইসরাইল থেকে বিমান এলো ঢাকায়’ শিরোনামে বিভিন্ন পত্রপত্রিকার অনলাইন সংস্করণে ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের প্রতি বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষের (বেবিচক) দৃষ্টি আকৃষ্ট হয়েছে। বাংলাদেশের তৈরি পোশাক মধ্যপ্রাচ্য ও ইউরোপে নিয়ে যাওয়ার উদ্দেশ্যে গত ৭ এপ্রিল একটি বিমান তেল আবিব থেকে উড্ডয়ন করে সন্ধ্যা ৭টা ২২ মিনিটে ঢাকায় অবতরণ করে ও কার্গো নিয়ে রাত ১১টা ৫৫ ঘটিকায় ঢাকা থেকে উড্ডয়ন করে এবং অপরটি গত ১১ এপ্রিল তারিখ রাতে ঢাকায় অবতরণ ও মধ্যরাত সাড়ে ১২ টায় কার্গো নিয়ে ঢাকা থেকে উড্ডয়ন করে। দুটি বিমানই মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিবন্ধিত এবং ওই দেশের বিমান সংস্থা ন্যাশনাল এয়ারলাইন্সের।’

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, ‌‘বাংলাদেশ ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক বিমান চলাচল চুক্তি রয়েছে। বিমান চলাচল চুক্তি অনুযায়ী কার্গো ফ্লাইট দুটি ঢাকা এসেছিল। ঢাকা থেকে তৈরি পোশাক নিয়ে ফ্লাইট দুটি সংযুক্ত আরব আমিরাতের শারজাহ এবং ইউরোপের একটি গন্তব্যে গিয়েছে। বাংলাদেশ ও ইসরাইলের মধ্যে কোনো বিমান চলাচল চুক্তি নেই এবং ইসরাইলের কোনো বিমান বাংলাদেশে অবতরণের কোনো ঘটনা ঘটেনি।’

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়েছে, ‘ইসরাইল থেকে বিমান এলো ঢাকায়’ শিরোনামে বিভিন্ন অনলাইন পত্রিকা ও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বিষয়টি ভিন্নভাবে প্রকাশের ফলে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে। তাছাড়া, এ ধরনের বিভ্রান্তিকর সংবাদ পরিবেশনা অনাকাঙ্ক্ষিত ও উদ্দেশ্য প্রণোদিত হিসাবে বিবেচ্য। এরূপ সংবাদ পরিবেশন হতে বিরত থাকার জন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে অনুরোধ করা হলো। 

;