Barta24

মঙ্গলবার, ২০ আগস্ট ২০১৯, ৫ ভাদ্র ১৪২৬

English

রাঙামাটিতে যুবলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা

রাঙামাটিতে যুবলীগ নেতাকে গুলি করে হত্যা
ছবি: সংগৃহীত
ডিসট্রিক্ট করেসপনডেন্ট
বার্তা২৪.কম
রাঙামাটি


  • Font increase
  • Font Decrease

রাঙামাটির রাজস্থলী উপজেলার বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি ক্রেহলা চিং মারমাকে গুলি করে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা।

রোববার (১৯ মে) রাত সোয়া ১১টার দিকে ৮নং ওয়ার্ডের নাইক্ষ্যংছড়ি পাড়া এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।

বাঙ্গালহালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান ঞোমং মারমা ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, ধারণা করা হচ্ছে জনসংহতি সমিতির (জেএসএস) সন্ত্রাসীরাই তাকে হত্যা করেছে।

তিনি আরও জানান, নিহত যুবলীগ নেতা নিজ ঘরেই অবস্থান করছিল। সন্ত্রাসীরা সশস্ত্র অবস্থায় এসে গুলি করে তার মৃত্যু নিশ্চিত করে চলে যায়। পরবর্তীতে ঘটনাস্থলে সেনাবাহিনী ও পুলিশের টিম গেছে বলেও জানান তিনি।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নিহত যুবলীগ নেতাকে বিগত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সময় থেকেই মেরে ফেলার হুমকি দিয়ে আসছিল আঞ্চলিক সংগঠন জেএসএস নামধারী একদল সন্ত্রাসী। গত ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের সময় তাকে একবার একবার অপহরণ করে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

এই বিষয়ে চন্দ্রঘোনা থানার অফিসার ইনচার্জ আশরাফ বলেন, 'আমরা ঘটনাটি শুনেই ঘটনাস্থলে পুলিশের একটি টিম পাঠিয়েছি। তারা ফিরে আসলে ঘটনার বিস্তারিত জানানো যাবে।'

আপনার মতামত লিখুন :

চুলার ভেতর থেকে অস্ত্র উদ্ধার, যুবক আটক

চুলার ভেতর থেকে অস্ত্র উদ্ধার, যুবক আটক
ছবি: প্রতীকী

যশোরের বেনাপোল সীমান্ত থেকে অস্ত্রসহ শিমুল (২৮) নামে এক যুবককে আটক করেছে র‌্যাব।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) দুপুর ২টার দিকে বেনাপোলের বড়আঁচড়া গ্রাম থেকে তাকে আটক করা হয়। আটক শিমুল ওই গ্রামের আলী হোসেন মধুর ছেলে।

যশোর র‌্যাব-৬ এর এএসপি সমীর সরকার বার্তাটোয়েন্টিফোর.কমকে জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শিমুলের বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে আটক করা হয়। পরে তার স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বাড়ির রান্না ঘরের চুলার ভেতর থেকে ৩টি বিদেশি পিস্তল, ৬৬ রাউন্ড গুলি, তিনটি ম্যাগজিন ও ১ কেজি গান পাউডার উদ্ধার করা হয়। তদন্তের স্বার্থে তাকে যশোর র‌্যাব সদর দপ্তরে রাখা হয়েছে।

এদিকে আটক শিমুলের মা সুফিয়া বেগম বলেন, ‘আমার ছেলেকে ষড়যন্ত্রমূলক ভাবে ফাঁসানো হয়েছে। উদ্ধারকৃত অস্ত্র আমার ছেলের না। আমার বাড়িতে আগে যশোর শহরের তপন নামে এক ব্যক্তি তার স্ত্রী ছনিয়াকে নিয়ে ভাড়া থাকতেন। এই অস্ত্র তাদের হতে পারে।’

ভারতে পাচার হওয়া ৯ নারী-শিশুকে বেনাপোলে হস্তান্তর

ভারতে পাচার হওয়া ৯ নারী-শিশুকে বেনাপোলে হস্তান্তর
ভারতে পাচার হওয়া ৯ নারী-শিশুকে বেনাপোলে হস্তান্ত, ছবি: সংগৃহীত

অবৈধ পথে ভারতে পাচার হওয়া নয় বাংলাদেশি নারী ও শিশুকে ফেরত পাঠিয়েছে ভারত সরকার।

মঙ্গলবার (২০ আগস্ট) বিকেল ৫টায় কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে ভারতের পেট্রাপোল ইমিগ্রেশন পুলিশ ও বিএসএফ তাদেরকে যৌথভাবে বেনাপোল চেকপোস্ট বিজিবি ও ইমিগ্রেশন পুলিশের হাতে তুলে দেয়। রাইটস যশোর নামে একটি এনজিও সংস্থা তাদেরকে পরিবারের কাছে পৌঁছে দিতে নিজেদের জিম্মায় নিয়েছে।

ফেরত আসা নারীরা হলেন- ঠাকুরগাওয়ের মিম আক্তার (১৭), মনি আক্তার (১৯) রুবিনা খাতুন (১৮), রিনা বেগম(১৬), মুক্তা আক্তার (১৯ ), বরিশালের মুন্নি আক্তার (২২), ইতি খাতুন (২১) ও রেক্সোনা আক্তার (১৭)।

জানা গেছে, ভালো কাজের প্রলোভনে দেশের বিভিন্ন সীমান্ত পথে তারা দালালের খপ্পরে পড়ে ভারতে পাচারের শিকার হয়। দালালরা তাদের সেখানে কাজ না দিয়ে ফেলে পালিয়ে যায়। পরে ভারতীয় পুলিশ তাদেরকে আটক করে জেল হাজতে পাঠায়। সেখান থেকে কলকাতার হাওড়ায় অবস্থিত লিলুয়া সেল্টার হোম নামে একটি এনজিও সংস্থা তাদেরকে ছাড়িয়ে নিজেদের আশ্রয়ে রাখে। পরে দুই দেশের সরকারের অনুমতিতে স্বদেশ প্রত্যাবাসন প্রক্রিয়ায় তারা ফেরত আসে।

বেনাপোল আইসিপি বিজিবি ক্যাম্পের নায়েব সুবেদার আতিয়ার রহমান জানান, কাগজপত্রের আনুষ্ঠানিকতা শেষে তাদেরকে পোর্টথানা পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে।

এনজিও সংস্থা রাইটস যশোরের প্রতিনিধি তৌফিকুজ্জামান জানান, ফেরত আসা নারীরা যদি পাচারকারীদের শনাক্ত করে মামলা করতে চায়, তবে তাদের আইনি সহায়তা দেওয়া হবে জানান তিনি।

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র