Alexa

১৪২৬ বর্ষবরণের আয়োজন

বৈশাখে বেড়াতে কী রাখা চাই সঙ্গে!

বৈশাখে বেড়াতে কী রাখা চাই সঙ্গে!

ছবি: সংগৃহীত

বৈশাখে বেড়াতে বের হওয়ার জন্য কোন পোশাক, গহনা, জুতা পরবেন,  সবকিছু ইতোমধ্যে গোছানো হয়ে গেছে নিশ্চয়।

গোছানো না হলেও সমস্যা নেই। আজকের দিনটি হাতে তো আছেই। হাজারো কাজ, ব্যস্ততা ঠেলে খানিকটা সময়ে সময়ের জন্য বৈশাখ যাপন করতে না পারলে কি চলে!

বর্ণীল শাড়ি-পাঞ্জাবি পরিহিত তরুণ-তরুণীদের পদচারণায় প্রাণচাঞ্চল্যে আলোকিত হয়ে উঠবে পরিচিত সব স্থান। উৎসবের দিনটি প্রিয়জনদের সঙ্গে কাটানো, ঘুরতে যাওয়া, গানের তালে গলা মেলানো, পান্তা ভাত খাওয়া, বৈশাখী মেলায় কেনাকাটা করা, ছবি তোলা- এভাবেই কাটিয়ে দেওয়া হয় বাংলা নববর্ষের দিনটি।

কিন্তু সারাদিনের পরিকল্পনা হাতে নিয়ে বাইরে বেরুবার আগে নিজের জন্য কিছুটা প্রস্তুতির বিষয় থাকে, যেদিকে খেয়াল করা প্রয়োজন সবকিছুর আগে।

বৈশাখের প্রথম দিনটিতে রোদ মাথার উপরে চড়ে বসতে পারে। এছাড়া বর্তমান সময়ে আবহাওয়ার মেজাজ-মর্জি বোঝা যাচ্ছে না একদম। রোদ মাথায় বাসা থেকে বের হয়ে গন্তব্যে পৌঁছানোর আগেই হয়তো বৃষ্টি শুরু হয়ে যেতে পারে। তাই সঙ্গে ছাতা রাখতে ভোলা যাবে না একদম।

এছাড়া পানির বোতলটিও নিতে হবে মনে করে। পানির বোতল ব্যাগে বহন করলে ব্যাগ ভারি হয়ে যায়, এমন তুচ্ছ বিষয়টি পাত্তা দেওয়া যাবে না একদম। কারণ মানুষের ভিড়ে ও রোদের তাণ্ডবে গরম বেড়ে যাবে স্বাভাবিকের তুলনায় বহুগুণ। এতে করে পিপাসা পাবে ঘনঘন। হাতের কাছে দোকানপাট না থাকলে পানি খুঁজে পাওয়া কষ্টকর হবে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/12/1555047733346.jpg

বড় ও ভারি দুটো জিনিসের পর মাথায় রাখুন হাতপাখার বিষয়টিও। ছোট, হালকা ও ভাঁজ করা হাতপাখা পাওয়া যায় সবখানেই। এমন পাখা সংগ্রহে না থাকলে বাসার কাছে কোন মার্কেট থেকেই কিনে নিতে পারবেন। দাম পড়বে ১৫০-৩০০ টাকার মাঝে।

এদিনে বাইরের খাবার না খাওয়াই ভালো। তবে পরিচিত ও ভালো ডাব বিক্রেতার কাছ থেকে ডাব খাওয়া যেতে পারে। খাবার হিসেবে ব্যাগে রাখা যেতে পারে প্যাকেটজাত কোন খাবার। বাসায় তৈরি শুকনো খাবার সাথে নিয়ে বের হলে সবচেয়ে ভালো হয়। এছাড়া গরম ও ভিড়ের দরুন দেখা দিতে পারে মাথা ঘোরা ও বমিভাবের প্রবণতা। সেক্ষেত্রে বাড়তি সতর্কতা হিসেবে সঙ্গে নিতে পারেন স্যালাইনের প্যাকেট ও কয়েকটি লজেন্স।

একেবারে ছোট ও অত্যান্ত প্রয়োজনীয় আরেকটি অনুষঙ্গ হলো ফেসিয়াল টিস্যু পেপার। গরমে ঘাম হবেই। সেক্ষেত্রে টিস্যু না থাকলে বিপাকে পড়তে হবে। সাধারণ ফেসিয়াল টিস্যুর সঙ্গে নিতে পারেন ওয়েট টিস্যুও।

সঙ্গে যদি শিশু থাকে তবে শিশুর প্রয়োজনীয় সব অনুষঙ্গ হিসেব করে নিতে হবে। ডায়পার, ফিডার, ওয়েট টিস্যু, ন্যাপকিন, খেলনা, বাড়তি পোশাক প্রভৃতি ভিন্ন একটি ব্যাগে গুছিয়ে রাখতে হবে।

মেকআপ অনুষঙ্গের মাঝে ফেসপাউডার ও লিপস্টিক রাখা যেতে পারে ব্যাগে। এতে করে গরমে ঘেমে গেলে কিংবা খাবার খাওয়ার ফলে লিপস্টিক নষ্ট হয়ে গেলে সহজেই ঠিক করে নেওয়া যাবে। এছাড়া মেকআপ অনুষঙ্গের সঙ্গে বাধ্যতামূলকভাবেই আয়নার বিষয়টি চলে আসবে। তাই ছোট পকেট মিরর নিয়ে নিতে হবে সাথে। সংগ্রহে না থাকলে নিকটস্থ মার্কেট থেকে ১০০-১৫০ টাকার মাঝেই কিনে নেওয়া যাবে এই আয়নাগুলো।

সবকিছু মিলিয়ে বাইরে বের হবার আগে এমনভাবে প্রস্তুতি নিতে হবে, যেন কোন সমস্যার মুখোমুখি হতে না হয়। মনে রাখতে হবে, সবার আগে প্রয়োজন শারীরিক সুস্থতা। তবেই আনন্দের সাথে উদযাপন করা যাবে বৈশাখের আয়োজন।

আরও পড়ুন: উৎসব যেন চুলের ক্ষতি না করে!

আরও পড়ুন: কাঠ নাকি কাপড়: কেমন গহনায় হবে বৈশাখ যাপন!

আপনার মতামত লিখুন :