ঝালকাঠির সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি তিন দিনের রিমান্ডে

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বরিশাল
ঝালকাঠির সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি তিন দিনের রিমান্ডে, ছবি: সংগৃহীত

ঝালকাঠির সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি তিন দিনের রিমান্ডে, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

অস্ত্র মামলায় ঝালকাঠি জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি হাদিসুর রহমান মিলনকে তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত।

বুধবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুরে পুলিশের দায়ের করা এ মামলায় মিলনকে ঝালকাঠি সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে তুলে ৫ দিনের রিমান্ড চাওয়া হয়। আদালত তিন দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন।

এর আগে মঙ্গলবার (১৪ জানুয়ারি) রাতে ঝালকাঠি শহরের ডাক্তারপট্টি এলাকায় মিলনের বাসায় অভিযান চালিয়ে তার শয়নকক্ষ থেকে ১১টি রামদা ও ৪টি লোহার পাইপসহ তাকে আটক করে পুলিশ। অস্ত্র উদ্ধারের ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে মিলনসহ ৪ জনের বিরুদ্ধে অস্ত্র আইনে একাটি মামলা দায়ের করেন।

ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে ঝালকাঠি সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. খলিলুর রহমান বার্তা২৪.কমকে বলেন, অভিযান চালিয়ে মিলনকে প্রথমে চাঁদাবাজি মামলায় দেশিয় অস্ত্রসহ আটক করা হয়।

পরে শহরের বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে মিলনের সহযোগি হিসেবে পরিচিত তরিকুল ইসলাম অপু, মামুন খান, সাইফুল ইসলাম, পলাশ দাস ও মামুনুর রশিদ ওরফে কঠিন মামুনকে গ্রেফতার করা হয়। মিলন, তরিকুল ইসলাম অপু, মামুন খান এবং সাইফুল ইসলামের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও চাঁদবাজির মামলা রয়েছে।

তিনি আরও জানান, পলাশ দাস ও মামুনুর রশিদ ওরফে কঠিন মামুনকে ঠিকাদারের দায়ের করা চাঁদাবাজির মামলায় আদালতে সোপর্দ করা হয়। এ মামলার আরেক অভিযুক্ত এখনও পলাতক রয়েছে। অস্ত্র মামলায় মিলনকে তিন দিনের রিমান্ডের পাশিপাশি অপর অভিযুক্তদের কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

প্রসঙ্গত, মিলন শহরের মধ্য চাঁদকাঠি এলাকার অবসরপ্রাপ্ত জজ আদালত কর্মচারী সৈয়দ দেলোয়ার হোসেনের ছেলে। তিনি ২০১১ সালে ঝালকাঠি জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি হন। ছাত্রলীগের সভাপতি হওয়ার পর থেকেই তার বিরুদ্ধে নানা অভিযোগে ওঠে। সদর থানায় তার বিরুদ্ধে চাঁদাবাজিসহ বেশ কয়েকটি মামলা দায়ের করা হয়। মামলাগুলো বর্তমানে আদালতে বিচারাধীন রয়েছে বলে থানা সূত্র জানা গেছে।

আপনার মতামত লিখুন :