হাসপাতালের ভাগাড় এখন ফুলের বাগান

অনিক চক্রবর্ত্তী, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, চুয়াডাঙ্গা
বাগানে রয়েছে বিভিন্ন প্রজাতির ফুল/ছবি: বার্তা২৪.কম

বাগানে রয়েছে বিভিন্ন প্রজাতির ফুল/ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

কয়েক মাস আগেও সকলের কাছে দুর্গন্ধ আর আবর্জনার আরেক নাম হিসেবে পরিচিত ছিল চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল। হাসপাতাল ভবনের সামনের ফাঁকা জায়গায় রোগীদের বর্জ্যে গড়ে উঠেছিল আবর্জনার বড় স্তূপ।

সেই ময়লার স্তূপের তীব্র দুর্গন্ধে হাসপাতালে আসা রোগীসহ পথচারীরা সবসময় অস্বস্তিতে থাকতেন। দুর্গন্ধ যেমন হাসপাতালের পরিবেশকে নষ্ট করতো, তেমনি আবর্জনায় জন্ম নেওয়া মশা-মাছি ছড়াতো বিভিন্ন রোগ-জীবাণু। কিন্তু এখন সেখানেই করা হয়েছে মনোরম ফুলের বাগান।

বাগানে রয়েছে বিভিন্ন প্রজাতির ফুল/ছবি: বার্তা২৪.কম

হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, আবর্জনার দুর্গন্ধে হাসপাতালের প্রধান ফটকে সবাই নাকে কাপড় দিয়ে প্রবেশ করতেন। রোগীদের কথা চিন্তা করে গত বছর আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাক্তার শামীম কবীর নিজ প্রচেষ্টায় ময়লার ভাগাড়টি সরিয়ে সেখানে ফুলের কয়েকটি গাছ লাগান।

পর্যায়ক্রমে বাগানটিতে গোলাপ, গাঁদা, ডালিয়া, সূর্যমুখীসহ ২২ রকম ফুল গাছ লাগানো হয়। বর্তমানে বাগানের ফুলের সৌন্দর্য সকলের দৃষ্টি কেড়েছে। ছোট্ট একটি বাগান হাসপাতালের পরিবেশকে বদলে দিয়েছে।

বাগানে রয়েছে বিভিন্ন প্রজাতির ফুল/ছবি: বার্তা২৪.কম

হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে আসা এক রোগীর আত্মীয় বলেন, মাস ছয়েক আগেও সহ্য করতে হতো ময়লার তীব্র গন্ধ। এখন হাসপাতালের ভেতরে ঢুকলেই নানা ফুলের সুবাস পাওয়া যায়।

বাগান হওয়ায় এখন আর নেই দুর্গন্ধ/ছবি: বার্তা২৪.কম

ডাক্তার শামীম কবীর জানান, ২০১৭ সালে যোগদানের সময় হাসপাতালের পরিবেশ এমন ছিল না। এই অবস্থায় আনতে যথেষ্ট পরিশ্রম করতে হয়েছে। এখনো হাসপাতালের যেসব জায়গায় আবর্জনার স্তূপ রয়েছে সেগুলো দ্রুত অপসারণ করে সেখানেও ফুলের বাগান তৈরির পরিকল্পনা আছে।

আপনার মতামত লিখুন :