লামায় অজ্ঞাত রোগে শিশুর মৃত্যু, অসুস্থ ৩৩ জন



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, বান্দরবান
লামায় অজ্ঞাত রোগে অসুস্থ হয়ে ৩৩ জন হাসপাতালে ভর্তি

লামায় অজ্ঞাত রোগে অসুস্থ হয়ে ৩৩ জন হাসপাতালে ভর্তি

  • Font increase
  • Font Decrease

বান্দরবানের লামায় অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে দুতিয়া ম্রো (৮) নামে এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সোমবার (১৬ মার্চ) অজ্ঞাত এই রোগে আক্রান্ত হয়ে ৩৩ জনকে লামা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

লামা উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদুল হক জানিয়েছেন, রোগের লক্ষণ দেখে মনে হচ্ছে এটি হাম। তারপরেও আমরা নিশ্চিত হতে আক্রান্তদের কাছ থেকে রক্ত সংগ্রহ করে ঢাকায় স্বাস্থ্য বিভাগের গবেষণাগারে পাঠাবো।

তিনি বলেন, রোববার (১৫ মার্চ) খবর পাওয়া মাত্র তিন সদস্যের একটি মেডিকেল টিম সেখানে পাঠিয়েছিলাম। তারা তাদের প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদান করে। আমাদের পুরো মেডিকেল টিম আক্রান্তদের সেবা দিচ্ছে। হাসপাতালের ২টি ওয়ার্ডকে আইসোলেশন সেন্টার করা হয়েছে। ৩৩ জন রোগীকে সেখানে আলাদা করে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হচ্ছে।

তবে অসুস্থদের মধ্যে ৩ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন সেখানে কর্মরত ডাক্তাররা।

এ বিষয়ে পুরাতন লাইল্যা মুরুং পাড়ার পাড়া প্রধান লাতুং কারবারী বলেন, গত ১ মাস ধরে এই রোগের প্রাদুর্ভাব দেখা দিয়েছে। পাড়ার প্রায় সবাই এই রোগে আক্রান্ত।

বান্দরবান সিভিল সার্জন ডা. অংসুই প্রু মারমা জানিয়েছেন, আক্রান্তদের শরীরে হামের মত গুটি উঠেছে। তারা মারাত্মকভাবে অসুস্থ হয়ে পড়েছে। তবে পাড়ার আশেপাশে যাতে রোগ আরও ছড়িয়ে পড়তে না পারে সেজন্য সেখানে একটি মেডিকেল টিম কাজ করছে।

প্রসঙ্গত, লামা উপজেলার সদর ইউনিয়নের দুর্গমে অবস্থিত পুরাতন লাইল্যা মুরুং পাড়ার ৮টি পরিবারের প্রায় ৭০ জন শিশু, নারী ও পুরুষ সবাই অজ্ঞাত রোগে আক্রান্ত হয়ে পড়েছে। ইতিমধ্যে গত শুক্রবার অজানা রোগে আক্রান্ত হয়ে দুতিয়া ম্রো (৮) নামের এক শিশুর মৃত্যু হয়েছে। সে পাড়ার মেনহাত ম্রো এর ছেলে। আক্রান্তদের মধ্যে হতে বেশি অসুস্থ এমন ৩৩ জনকে লামা হাসপাতালে আনা হয়। ওই পাড়াটি লামা উপজেলা সদর থেকে প্রায় ৩৩ কিলোমিটার দূরে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন দুর্গম এলাকায় অবস্থিত। ওই এলাকায় ব্যবসা করতে গিয়ে আব্দুল কাদের নামে এক ব্যবসায়ীর নজরে প্রথমে বিষয়টি আসে। তার মাধ্যমে সবাই বিষয়টি জানতে পারে।