৭ টাকার টমেটো এখন সত্তরের ঘরে



হাসান মাহমুদ শাকিল, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, লক্ষ্মীপুর
লক্ষ্মীপুরে প্রতি বছরই প্রচুর টমেটো উৎপাদন হয়/ছবি: বার্তা২৪.কম

লক্ষ্মীপুরে প্রতি বছরই প্রচুর টমেটো উৎপাদন হয়/ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

লক্ষ্মীপুরে প্রতি বছররের মতো এবারও পর্যাপ্ত পরিমাণ টমেটো উৎপাদন হয়েছে। যদিও জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর উৎপাদন হিসেব তালিকাভুক্ত করে না। এদিকে উৎপাদন বেশি হওয়ায় দামও কম ছিল। এ নিয়ে হতাশ ছিলেন চাষিরা। কিন্তু করোনার ভয়াবহতায় আকাশচুম্বী হয়ে উঠেছে টমেটোর মূল্য। পাইকারি সাত টাকা কেজি দরের টমেটো এখন ৬৫-৭০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

শনিবার (২৮ মার্চ) বিকেলে লক্ষ্মীপুর পৌরসভার কাঁচাবাজারে ৮০ টাকা কেজি দরে (খুচরা) টমেটো বিক্রি করতে দেখা যায়। কিন্তু সর্বোচ্চ এক সপ্তাহ আগে ১৫ টাকা দরে কেজি প্রতি টমেটো বিক্রি করেছেন ব্যবসায়ীরা। এছাড়া ৭০ টাকা কেজি দরে বরবটি, বেগুন ৩০ টাকা, শসা ২০ টাকা ও লেবু প্রতি হালি ১০০ টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে। এ বাজারের দোকানগুলোতে টমেটোও কম দেখা গেছে।

জানতে চাইলে কয়েকজন বিক্রেতারা জানায়, প্রতি কেজি টমেটো পাইকারি ৭০ টাকার উপরে পড়েছে। এর সঙ্গে গাড়ি ভাড়া হিসেব করে ৮০ টাকা দরে টমেটো বিক্রি করতে হচ্ছে। টমেটো ছাড়া অন্য কোন সবজির দাম বাড়েনি। এদিকে করোনার কারণে বাজারে ক্রেতাও কম। সবজি কম বিক্রি হওয়ায় পচে লোকসান গুণতে হচ্ছে তাদের। করোনার কারণে বাইরের সবজি আসতে সমস্যা হওয়ায় দাম একটু বেড়েছে। তবে বেশি বেড়েছে টমেটোর দাম।

 খুচরা বাজারে টমেটোর কেজি ৮০ টাকা

জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্র জানায়, লক্ষ্মীপুরে এবার ৩৫০ হেক্টর জমিতে টমেটো আবাদ হয়েছে। এরমধ্যে সদর উপজেলার ভবানীগঞ্জ ইউনিয়নে সবচেয়ে বেশি টমেটো উৎপাদন হয়। এছাড়া একই উপজেলার লাহারকান্দির পিয়ারপুর এলাকায়ও টমেটোর ভালো ফলন হয়েছে। এ বছর আবাদকৃত জমিতে প্রায় সাড়ে ৮ হাজার মেট্রিক টন টমেটো উৎপাদন হতে পারে। তবে কৃষি বিভাগ টমেটোর উৎপাদন লক্ষ্যমাত্রা তালিকাভুক্ত করে না।

সম্প্রতি সদর উপজেলার চর মনসা এলাকায় ক্ষেত থেকে উৎপাদিত টমেটো বিক্রির উদ্দেশ্যে লক্ষ্মীপুর-রামগতি সড়কের পাশে স্তূপ করছিলেন চাষিরা। ওইসময় জানতে চাইলে চাষি আবদুর রহিম ও ফিরোজ আলম জানান, প্রতিবছরই তারা টমেটোর চাষ করেন। ফলনও ভালো হয়। এবারো প্রচুর টমেটো উৎপাদন হয়েছে। 

রাস্তার পাশে রাখা হয়েছে টমেটো

চাষিরা আরও জানান, প্রতি ঝুড়ি টমেটো তারা ২০০-২২০ টাকায় বিক্রি করছেন। একেকটি ঝুড়িতে ২৭-২৮ কেজি টমেটো ধারণ করা হয়। আর প্রতি কেজি টমেটো ৭ টাকা পড়ে। এতে ওই সময় হতাশ ছিলেন চাষিরা।

লক্ষ্মীপুর পৌর কাঁচাবাজারে ব্যবসায়ী মো. রনি বলেন, আগে লক্ষ্মীপুরের বাইরে থেকে টমেটো আসতো। কিন্তু এখন স্থানীয় চাষিরাই ভরসা। এ জেলায় টমেটো উৎপাদনের এখন শেষ সময়। এজন্য এখন টমেটো কম পাওয়া যাচ্ছে। এতে পাইকারি দরও বেশি।