গণপরিবহন বন্ধ: ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে ৭০ টাকার ভাড়া ৯০০ টাকা!

খন্দকার সুজন হোসেন, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, মানিকগঞ্জ
বাড়তি ভাড়া দিয়ে গন্তব্যে যাচ্ছেন যাত্রীরা।

বাড়তি ভাড়া দিয়ে গন্তব্যে যাচ্ছেন যাত্রীরা।

  • Font increase
  • Font Decrease

করোনা সংক্রমণ ঠেকাতে সারা দেশের মতো ঢাকা-আরিচা মহাসড়কেও বন্ধ রয়েছে গণপরিবহন চলাচল। তবুও ট্রাক-প্রাইভেটকার এবং পিকআপে করে বাড়ি যাচ্ছে কর্মব্যস্ত মানুষগুলো। ট্রাক এবং পিকআপের সংখ্যা কম থাকায় প্রাইভেটকার ভাড়া নিয়েও গন্তব্যে যাচ্ছে অনেকেই।

রোববার (২৯ মার্চ) দুপুরে ঢাকা-আরিচা মহাসড়ক ও পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকায় আলাপ হয় ঘরমুখী একাধিক যাত্রীর সঙ্গে। এ সময় গণপরিবহন না থাকায় ইচ্ছে করেই বাড়তি ভাড়া দিয়ে গন্তব্যে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেন তারা।

পাটুরিয়া ফেরিঘাট এলাকায় সাভারের একটি গার্মেন্টসের অ্যাডমিন অফিসার আনোয়ার হোসেন জানান, সাভারে ভাড়া বাড়িতে থেকে গার্মেন্টসে চাকরি করেন তিনি। করোনা ইস্যুতে কয়েকদিন আগেই তার স্ত্রী এবং দুই ছেলে মাগুড়ায় তাদের নিজ বাড়িতে চলে গেছেন। ভাড়া বাড়িতে খেতে কষ্ট হওয়ায় আজ বাড়ির উদ্দেশে রওনা হয়েছেন তিনিসহ তার আরও ৩ সহকর্মী। সাভার বাসস্ট্যান্ড এলাকায় দুইঘণ্টা দাঁড়িয়ে থেকেও কোনো বাসের দেখা না পেয়ে ৩ হাজার ৬০০ টাকা দিয়ে প্রাইভেট কার ভাড়া করে পাটুরিয়ায় এসেছেন তারা। গণপরিবহন না থাকায় ইচ্ছেকৃতভাবেই ৭০ টাকার ভাড়া ৯০০ টাকা করে তাদের দিতে হয়েছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

আমিনুর রহমান নামে এক ব্যবসায়ী জানান, কর্মব্যস্ততার কারণে ইচ্ছা থাকার পরও বাড়ি যাওয়ার সুযোগ হয় না। দীর্ঘ কয়েকদিন ধরে তার টিভি-ফ্রিজের শো-রুম বন্ধ। আরও কয়দিন বন্ধ থাকবে তারও কোনো ঠিক নেই। তাই বাড়তি ভাড়া দিয়েই বাড়ির উদ্দেশে রওনা হয়েছেন তিনি।

ট্রাক-প্রাইভেটকার ও পিকআপে করে এই ঝুঁকিপূর্ণ যাতায়াত সম্পর্কে জানতে চাইলে গোলড়া হাইওয়ে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মনিরুল ইসলাম বার্তা২৪.কমকে জানান, ট্রাক ও পিকআপে যাত্রী বহনের বিষয়ে কঠোর অবস্থানে রয়েছে তাদের টহল টিম। নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে যাত্রী বহন ও চলাচল করার দায়ে বেশ কিছু যানবাহন জব্দ করা হয়েছে। তবে বেশির ভাগ প্রাইভেটকার ব্যক্তিগত থাকায় সেগুলো মহাসড়কে চেকিং করা হয় না বলেও জানান তিনি।

আপনার মতামত লিখুন :