হামরা না হয় উপোস থাকমো কিন্তু ছেলে দুইটা কি খাইবে

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুড়িগ্রাম
দিনমজুর নামদেল আলীর চার সদস্যের পরিবার

দিনমজুর নামদেল আলীর চার সদস্যের পরিবার

  • Font increase
  • Font Decrease

কুড়িগ্রামে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে সরকার ঘোষিত যানবাহনসহ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকায় জেলায় কর্মহীন হয়ে পড়েছে শ্রমজীবী মানুষ। তাদের মধ্যে একজন দিনমজুর নামদেল আলী। ভূমিহীন এই দিনমজুরের পরিবারের সদস্য চারজন। করোনার বিস্তার রোধে ৪ সদস্যের পরিবার নিয়ে কালাতিপাত দিন কাটাচ্ছে দিনমজুর নামদেল আলী। করোনা সংক্রমণের রোগ হওয়ায় কেউ কাজে নিচ্ছে না দিনমজুর হিসেবে। গত ৫ দিন ধরে কোনো কাজ না পাওয়ায় অর্ধাহারে-অনাহারে দিনাতিপাত করছেন।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, নামদেল আলীর বাড়ি কুড়িগ্রাম সদর উপজেলার পাঁচগাছি ইউনিয়নের ছত্রপুর মিল পাড়া গ্রামে। তিনি অন্যের জমিতে দিনমজুরের কাজ করেন। তা থেকে সামান্য যা মজুরি পান তা দিয়ে কোনো রকমে চলে চার সদস্য বিশিষ্ট পরিবারের সংসার। দিনমজুরের কাজ করলে পেটে ভাত, আর না করলে নেই।

নামদেল আলী বার্তা২৪.কম-কে বলেন, খুব কষ্টে আছি করোনাভাইরাস আসি। কাজ কর্ম করতে পারছি না, মানুষ কাজ করতেও ডাহায় না। ঘরে খাবারও নাই আমরা না হয় শুধু পানি খায়া দিন কাটামো কিন্তু দুইটা ছোট ছোট ছেলে কিভাবে উপোস থাকপের পায় বাহে। মোর বউ এক বাড়িতে কাজ করি হাফ কেজি চাউল নিয়ে আসছে আজ সকালে তা পাক করে সবাই খাইছি। মুই এখন পযর্ন্ত চেয়ারম্যান ও মেম্বারের কাছোত কোন সাহায্য পাং নাই।

নামদেলের স্ত্রী মিনু বেগম বার্তা২৪.কম-কে জানান, আমি অন্যের বাড়িতে ঘর মুছি জামা কাপড় ধুয়েই যে ১-২ কেজি চাউল পেতাম তা দিয়েই ভালোই চলছিলাম। কিন্তু এখন করোনার কারণে আর কেউ কাজ করতে ডাকছেন না।

আপনার মতামত লিখুন :