ফরিদপুরে পুলিশের ওপর হামলায় আহত ৩

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ফরিদপুর
ফরিদপুরে পুলিশের ওপর হামলায় আহত ৩

ফরিদপুরে পুলিশের ওপর হামলায় আহত ৩

  • Font increase
  • Font Decrease

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার ময়েনদিয়া বাজারে সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী নিত্য প্রয়োজনীয় অন্যান্য দোকান বন্ধ করতে গেলে স্থানীয় এক আওয়ামী লীগ নেতার ইন্ধনে ৩ পুলিশ সদস্যকে পিটিয়ে আহত করার ঘটনা ঘটেছে।

আওয়ামী লীগ নেতার অভিযোগ পুলিশ তাকে অসম্মান করেছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, পুলিশ ওই নেতাকে ৩ ফুট দূরত্বে থেকে কথা বলার পরামর্শ দেওয়াতেই তিনি অসম্মান বোধ করেছেন।

শনিবার (৪ এপ্রিল) দুপুর ১২টার দিকে ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলার পরমেশ্বরদী ইউনিয়নের ময়েনদিয়া বাজারে এ ঘটনা ঘটে। আহত ওই তিন পুলিশ সদস্য হলেন, সহকারি উপ-পরিদর্শক (এএসআই) পীযূষ এবং দুই কনস্টেবল ফরহাদ ও জালালউদ্দিন। এরা বোয়ালমারীর ডহন নগর পুলিশ ফাঁড়িতে কর্মরত রয়েছেন। আহত ওই তিন পুলিশ সদস্যকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, ময়েনদিয়া বাজারের সাপ্তাহিক হাটের দিন ছিল শনিবার। পুলিশ, ইউনিয়ন পরিষদ ও উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে আগেই এলাকায় মাইকিং করে বলা হয়েছিল, এ হাটে মাছ, সবজি ও চালসহ নিত্য প্রয়োজনীয় দোকানগুলো শুধু খোলা থাকবে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বেলা ১০টা থেকেই ওই বাজারের সকল দোকান খুলে যায় এবং সেখানে হাজারো লোকের সমাগম ঘটে। এ খবর পেয়ে ডহননগর পুলিশ ফাঁড়ির ওই তিন সদস্য বাজারে গিয়ে চায়ের দোকানসহ অপ্রয়োজনীয় দোকনগুলি বন্ধ করার উদ্যোগ নেয়। কিন্তু এ কাজে বাধা দেন ওই বাজার বণিক সমিতির সভাপতি মান্নান মাতুব্বর।

মান্নান মাতুব্বর পরমেশ্বরদী ইউনিয়ন আ.লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক। এর আগে তিনি ওই ইউনিয়নের একটি ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ছিলেন। গত ইউপি নির্বাচনে তিনি চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে পরাজিত হন।

এক পর্যায়ে মান্নান মাতুব্বর পুলিশের নিকটে এসে বাজার খোলা রাখার ব্যপারে বাকবিতণ্ডায় লিপ্ত হন। তখন এএসআই পীযূষ আ.লীগ ওই নেতাকে তিন ফুট দূরে থেকে তার বক্তব্য দিতে বলেন।

বোয়ালমারী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আমিনুল ইসলাম বলেন, এএসআই পীযূষ আ.লীগের ওই নেতাকে তিন ফুট দূরে দাড়িয়ে কথা বলার পরামর্শ দেওয়ায় এতে অপমানিত বোধ করেন আ.লীগের ওই নেতা। ওই নেতা হুমকি দিয়ে বলেন, জানেন আমি কে? পরে সমর্থকরা তিন পুলিশের উপর চড়াও হয়ে তাদের মারপিট করে আহত করেন।

বোয়ালমারী থেকে অতিরিক্ত পুলিশ সদস্য গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

এ ব্যাপারে মান্নান মাতুব্বরকে ফোন করা হলে কল ধরেন তার ভাই সিদ্দিক মাতুব্বর। সিদ্দিক মাতুব্বর বলেন, পুলিশ বাজারের দোকানগুলি বন্ধ করার জন্য তার ভাই মান্নানকে বাজারে ডেকে নেন। পরে মান্নানের সামনেই পুলিশ বাজারের এক ব্যবসায়িকে মারপিট করে। এ ঘটনায় জনতা ক্ষিপ্ত হয়ে পুলিশ সদস্যদের উপর চড়াও হয়। তিনি দাবি করে বলেন, তিন ফুট দূরে দাঁড়িয়ে কথা বলা নিয়ে কোন ঘটনা ঘটেনি।

আপনার মতামত লিখুন :