কানে রুনা লায়লা ও আরিফিন শুভকে নিয়ে যা বললেন নাসিরুদ্দিন শাহ



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
নাসিরুদ্দিন শাহ, রুনা লায়লা ও আরিফিন শুভ

নাসিরুদ্দিন শাহ, রুনা লায়লা ও আরিফিন শুভ

  • Font increase
  • Font Decrease

দক্ষিণ ফ্রান্সে সাগরপাড়ের শহর কানে চলছে পৃথিবীর অন্যতম প্রাচীন এবং প্রভাবশালী কান চলচ্চিত্র উৎসবের ৭৭তম আসর। লম্বা অভিনয় ক্যারিয়ারে অনবদ্য সব চলচ্চিত্রে অভিনয় করলেও  সেখানে এবারই প্রথমবার হাজির হয়েছেন ভারতীয় কিংবদন্তি অভিনেতা নাসিরুদ্দিন শাহ।

উৎসবে চতুর্থ দিনে নাসিরুদ্দিন শাহ অভিনীত ‘মন্থন’ সিনেমাটি প্রদর্শিত হয়েছে ‘কান ক্লাসিকে’। চার যুগ আগে অভিনয় করেছিলেন ‘মন্থন’ সিনেমায়। সেটি ছিল নাসিরুদ্দিন শাহ অভিনীত দ্বিতীয় চলচ্চিত্র। গুজরাটের দুগ্ধখামারীদের ওপর কর্পোরেট আগ্রাসন ঘিরে বর্ষীয়ান নির্মাতা শ্যাম বেনেগালের ধ্রুপদি এই সিনেমাকে সম্মান জানিয়ে এই বিভাগে ঠাঁই দিয়েছে উৎসব কর্তৃপক্ষ।

‘মন্থন’ ছবির দৃশ্যে নাসিরুদ্দিন শাহ

এই শ্যাম বেনেগালই নির্মাণ করেছেন বঙ্গবন্ধুর বায়োপিক ‘মুজিব : একটি জাতির রূপকার’। প্রসঙ্গক্রমে সে কথা তুললে বাংলাদেশি সাংবাদিকদের নাসিরুদ্দিন শাহ্ বলেছেন, ‘বঙ্গবন্ধু বায়োপিক ছবিটি আমি দেখেছি। খুবই ভালো ছবি। দুর্ভাগ্যজনকভাবে বলতে হয়, শ্যাম বেনেগালের ছবিটি ব্যাপকভাবে প্রদর্শিত হয়নি। কিন্তু আমি মনে করি, মূল চরিত্রে যিনি অভিনয় করেছেন (আরিফিন শুভ) তিনি দারুণ করেছেন। আমি ছবিটি উপভোগ করেছি। ছবিটি দারুণ ইনফরমেটিভ, ইন্টারেস্টিং এবং নাটকীয়।’

নাসিরুদ্দিন শাহ্ শুধু শুভ’র প্রশংসাই করেননি। তিনি উপমহাদেশের কিংবদন্তি শিল্পী বাংলাদেশের সংগীতাঙ্গনের গর্ব  রুনা লায়লাকে দারুণভাবে সম্মান দিয়েছেন তার কথায়। বাংলাদেশে দু’বার মঞ্চে পারফর্ম করতে এসেছিলেন নাসিরুদ্দিন শাহ। সেই স্মৃতি রোমন্থন করে তিনি বলেন, ‘ঢাকার দর্শকরা চমৎকার। আমার সবচেয়ে আনন্দ লেগেছে রুনা লায়লাজির সঙ্গে দেখা করে।’

সবশেষে বাংলা ভাষা জানেন কিনা বলতেই নাসিরুদ্দিন শাহ বলেন, ‘আমি তোমাকে ভালোবাসি।’

কান চলচ্চিত্র উৎসবে নাসিরুদ্দিন শাহ ও তার স্ত্রী বর্ষিয়ান অভিনেত্রী রত্না পাঠক শাহ

শ্যাম বেনেগাল পরিচালিত ‘মন্থন’ (১৯৭৬) চলচ্চিত্রের প্রদর্শনী হয় গত শুক্রবার পালে দে ফেস্টিভ্যাল ভবনের বুনুয়েল থিয়েটারে রাত ৮টা ৪৫ মিনিটে। এর প্রদর্শনীতে নাসিরুদ্দিন শাহ ছাড়াও ছিলেন তার স্ত্রী বর্ষিয়ান অভিনেত্রী রত্না পাঠক শাহ, ‘মন্থন’-এর নায়িকা স্মিতা পাতিলের পরিবার, প্রযোজক এবং ভারতের ফিল্ম হেরিটেজ ফাউন্ডেশনের পরিচালক শিবেন্দ্র সিং দুঙ্গারপুর।

ভারতের বৃহত্তম দুগ্ধ উন্নয়ন আন্দোলন তথা শ্বেত বিপ্লবের পটভূমিতে তৈরি হয় ‘মন্থন’। এটি ছিল ভারতের প্রথম গণঅর্থায়নে নির্মিত চলচ্চিত্র। দেশটির গুজরাট রাজ্যের ৫ লাখ কৃষক ছবিটি নির্মাণে ২ রুপি করে দান করেন। ভার্গিস কুরিয়েনের দুগ্ধ সমবায় আন্দোলনে অনুপ্রাণিত ‘মন্থন’। ছবিটির অন্যতম গল্পকার তিনি।

কান চলচ্চিত্র উৎসবের রেড কার্পেটে ‘মন্থন’ ছবির টিম

ভার্গিস কুরিয়েনের বিলিয়ন লিটার আইডিয়া তথা অপারেশন ফ্লাড ভারত দুধের ঘাটতির দেশ থেকে বিশ্বের বৃহত্তম ও শীর্ষ উৎপাদনকারীতে পরিণত হয়েছে। তার শ্বেত বিপ্লবের কর্মপন্থা বিশ্বের বৃহত্তম কৃষি উন্নয়ন কর্মসূচি হিসেবে পরিচিত। ভারতের ডেইরি অ্যাসোসিয়েশন ২০১৪ সাল থেকে এই কীর্তিমানের জন্মদিনকে জাতীয় দুগ্ধ দিবস হিসেবে পালন করছে। ভারত সরকারের কাছ থেকে পদ্মবিভূষণ, পদ্মভূষণ, পদ্মশ্রী, কৃষিরত্ন পুরস্কার পেয়েছেন তিনি। এছাড়া বিভিন্ন দেশে অনেক সম্মাননায় ভূষিত করা হয় তাকে। ২০১২ সালে ৯০ বছর বয়সে পরলোকগমন করেন তিনি।

হিন্দি ভাষায় নির্মিত ২ ঘণ্টা ১৪ মিনিটের ‘মন্থন’ দেখিয়েছে গ্রামীণ ক্ষমতায়নকে কেন্দ্র করে কাল্পনিক আখ্যানের মাধ্যমে শ্বেত বিপ্লবের উৎপত্তি। এতে আরও অভিনয় করেছেন গিরিশ কারনাড, অমরিশ পুরি, কুলভূষণ খারবান্দা, মোহন আগাসে, অনন্ত নাগ, রাজেন্দ্র যশপাল, আভা ঢুলিয়া, সাধু মেহের ও অঞ্জলি পায়গানকার।

‘মন্থন’ ছবির একটি দৃশ্যে সহশিল্পীদের সঙ্গে স্মিতা পাতিলা, নাসিরুদ্দিন শাহ

৪৮ বছরের পুরনো ‘মন্থন’ ছবির প্রিন্ট পুনরুদ্ধার করেছে ফিল্ম হেরিটেজ ফাউন্ডেশন। এর ৩৫ মিলিমিটার মূল নেগেটিভ সংরক্ষিত ছিলো এনএফডিসিতে (ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র সংগ্রহশালা)। পুনরুদ্ধার প্রক্রিয়া বাস্তবায়নে কাজ করেছেন পরিচালক শ্যাম বেনেগাল, চিত্রগ্রাহক গোবিন্দ নিহালানি, চেন্নাইয়ের প্রসাদ করপোরেশনের প্রাইভেট লিমিটেডের পোস্ট–স্টুডিওস এবং ইতালির লি’মাজিন রিত্রোভাতা ল্যাবরেটরি। অর্থায়নে সহযোগিতা করেছে ভার্গিস কুরিয়েনের গড়া প্রতিষ্ঠান গুজরাট কো-অপারেটিভ মিল্ক মার্কেটিং ফেডারেশন লিমিটেড। ফিল্ম হেরিটেজ ফাউন্ডেশনে সংরক্ষিত প্রেক্ষাগৃহে মুক্তিপ্রাপ্ত ৩৫ মিলিমিটার প্রিন্ট থেকে শব্দ ডিজিটালে রূপান্তর করা হয়েছে।

১৯৭৭ সালে ভারতের জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারে সেরা পূর্ণদৈর্ঘ্য কাহিনিচিত্র এবং সেরা চিত্রনাট্যকার (বিজয় টেন্ডুলকার) স্বীকৃতি জিতেছে ‘মন্থন’। ভারত থেকে অস্কারে পাঠানো হয় এই ছবি। এতে ‘মেরো গাম কথা পারে’ গানের জন্য ফিল্মফেয়ার অ্যাওয়ার্ডে সেরা গায়িকা বিভাগে পুরস্কার জয় করেন প্রীতি সাগর।

‘মন্থন’ ছবির দৃশ্যে স্মিতা পাতিলা
   

আজ হলো গায়ে হলুদ, কাল চমকের বিয়ে



মাসিদ রণ, সিনিয়র নিউজরুম এডিটর, বার্তা২৪.কম
চমকের গায়ে হলুদের ছবি

চমকের গায়ে হলুদের ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

অল্প সময়ে টিভি নাটকের ইন্ডাস্ট্রিতে জায়গা করে নিয়েছেন অভিনেত্রী রুকাইয়া জাহান চমক। সাবলিল অভিনয় দক্ষতা আর অপরূপা সুন্দরীতো তিনি বটেই! সঙ্গে যুক্ত হয়েছে বুদ্ধিদীপ্ত কথাবার্তা। মাঝে সহশিল্পীদের সঙ্গে বিবাদে জড়িয়ে তৈরী করেছেন বিতর্ক। সব মিলিয়ে বর্তমানে টিভি পর্দার অন্যতম চর্চিত অভিনেত্রী চমক।

অনেকেই বলে থাকেন, নায়িকারা বিয়ে করে ফেললে চাহিদা কমে যায়। বিশেষ করে চমকের মতো উঠতি অভিনেত্রীর বেলায় সে কথা আরও হলফ করে বলা হয়। তবে কিছু অভিনেত্রী বিয়ের পরও ভালো কাজের মাধ্যমে নিজের অবস্থান ধরে রাখতেও সক্ষম হয়েছেন। তা ভেবেই হয়তো পুরোপুরি জ্বলে ওঠার আগেই বিয়ের পীড়িতে বসতে যাচ্ছেন চমক।

চমকের গায়ে হলুদের ছবি

আজ হয়ে গেলো তার গায়ে হলুদ। সেই ছবি পোস্ট করে চমক লিখেছেন, ‘আজ কন্যার গায়ে হলুদ, কাল কন্যার বিয়া।’ অর্থাৎ আগামীকালই তাদের চার হাত এক হবে বলেই জানিয়েছেন এই অভিনেত্রী।

এর আগে একটি ভিডিও বার্তায় চমক বলেন, তিনি এখন শ্রীলংকায় অবস্থান করছেন। তার মানে বিয়ের অনুষ্ঠানটি তিনি সেখানেই পরিকল্পনা করেছেন বলে ধরে নেওয়া যায়।

চমকের গায়ে হলুদের ছবি

কদিন আগেই নিজের পছন্দের মানুষটির সঙ্গে আংটিবদল হয় তার। বিশেষ দিনের স্থিরচিত্র নিজের ফেসবুকে প্রকাশ করে এমনটা নিজেই জানিয়েছিলেন অভিনেত্রী। সেই ছবিতে দেখা গেছে, লাল শাড়ি ও লাল পাঞ্জাবিতে সেজেছেন চমক ও তার হবু স্বামী। শুধু তাই নয়, দুজনের হাতে পরা ছিল বিশেষ দিনের আংটিও।

ছবির ক্যাপশনে অভিনেত্রী লিখেছেন, ‘বন্ধুরা, আমরা একে অপরের প্রেমে পড়েছি! আমাদের স্বর্গীয় ভালোবাসা আর তোমাদের প্রার্থনায় আমরা আনুষ্ঠানিকভাবে আংটি বদল করেছি। শিগগিরই আমরা বিয়ে করতে যাচ্ছি। আমাদের জন্য দোয়া করবেন।’

চমক এখন শ্রীলংকায়

বাগদান সারলেও কবে বিয়ে করতে যাচ্ছেন সে বিষয়ে কিছুই জানাননি চমক। তাছাড়া পাত্র কে বা তার সঙ্গে কবে থেকে পরিচয় সে বিষয়েও কিছু জানা যায়নি।

২০১৭ সালে মিস ওয়ার্ল্ড বাংলাদেশ প্রতিযোগিতায় দ্বিতীয় রানারআপ হয়ে শোবিজ অঙ্গনে পা রাখেন রুকাইয়া জাহান চমক। এরপর ২০২০ সালে অভিনয় শুরু করেন। তার উল্লেখযোগ্য নাটক ও সিরিজ হলো ‘গার্লস স্কোয়াড’, ‘হাউস নং ৯৬’, ‘মহানগর’, ‘সাদা প্রাইভেট’, ‘অসমাপ্ত’, ‘হায়দার’, ‘ভাইরাল হ্যাজব্যান্ড’ প্রভৃতি।

চমকের গায়ে হলুদের ছবি

;

আগামী সপ্তাহে ভারতে ‘তুফান’



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
শাকিব খান ও মিমি চক্রবর্তী

শাকিব খান ও মিমি চক্রবর্তী

  • Font increase
  • Font Decrease

ঈদুল আযহায় দেশের ১২৯টি প্রেক্ষাগৃহে মুক্তি পেয়েছে সুপারস্টার শাকিব খানের আলোচিত সিনেমা ‘তুফান’। সিঙ্গেল স্ক্রিন থেকে মাল্টিপ্লেক্স, সবখানেই ছবিটির টিকেট পেতে দর্শকের রীতিমত হাহাকার! এমনিতে কলকাতায় শাকিব খানের প্রচুর ভক্ত। তার ওপর আবার এই সিনেমার নায়িকা সেখানকার জনপ্রিয় অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তী। তাছাড়া ছবিটির অন্যতম প্রযোজক ভারতের শ্রী ভেঙ্কটেশ ফিল্মস।

ফলে ‘তুফান’ নিয়ে আগ্রহ কয়েকগুণ বেড়েছে পাশের দেশ ভারতেও! বিশেষ করে পশ্চিমবাংলার দর্শকরা ছবিটি দেখতে মুখিয়ে রয়েছে।

শাকিব খান

অবশেষে কলকাতার দর্শকদের জন্য এলো সুখবর। আজ (২১ জুন) ‘তুফান’-এর নির্মাতা রায়হান রাফী বার্তা২৪.কমকে বলেন, ২৮ জুন অর্থাৎ আগামী সপ্তাহেই ছবিটি মুক্তি পাচ্ছে পশ্চিমে। কারণ সেখান থেকে ছবিটি দেখার জন্য দর্শকের প্রচণ্ড চাপ রয়েছে ঢাকার ওপর। তাছাড়া ছবিটির অন্যতম অংশীদার ও পরিবেশক ভারতের এসভিএফ।

বাংলাদেশের ফলাফল থেকে সংশ্লিষ্টরা আগাম অনুমান করছেন, পশ্চিমেও ছবিটি ব্লকবাস্টার হিট হবে। গড়বে বাংলা সিনেমার বাণিজ্যে নতুন ইতিহাস।

মিমি চক্রবর্তী

ঈদের দিন থেকে দেশব্যাপী ১২৯টি প্রেক্ষাগৃহে চলছে ‘তুফান’। সিঙ্গেল স্ক্রিন থেকে মাল্টিপ্লেক্স, সবখানেই ছবিটির টিকিট পেতে হিমশিম খাচ্ছেন দর্শক।

ছবিতে শাকিব খান-মিমি চক্রবর্তী এছাড়াও অভিনয় করেছেন চঞ্চল চৌধুরী, মিশা সওদাগর, নাবিলা, গাজী রাকায়েত, সালাহউদ্দিন লাভলু, শহীদুজ্জামান সেলিম প্রমুখ।

;

জায়েদ খানের সঙ্গে সিনেমা করতে চান টয়া!



মাসিদ রণ, সিনিয়র নিউজরুম এডিটর, বার্তা২৪.কম
জায়েদ খান ও মুমতাহিনা চৌধুরী টয়া

জায়েদ খান ও মুমতাহিনা চৌধুরী টয়া

  • Font increase
  • Font Decrease

চিত্রনায়ক জায়েদ খানের ফিল্ম ক্যারিয়ার সেভাবে দাঁড়ায়নি। তিনি তেমন কোন ব্যবসাসফল সিনেমা যেমন উপহার দিতে পারেননি, তেমনি তার অভিনয়, সংলাপ প্রক্ষেপন, নাচ, শারীরিক ভাষা সবকিছু নিয়েই সমালোচনা রয়েছে।

তবে এই সোশ্যাল মিডিয়ার যুগে জায়েদ খান এক চর্চিত নাম। তিনি নিজের ভ্যালু বাড়াতে সক্ষম হয়েছেন। তাকে এখন প্রতিনিয়ত নানা ধরনের প্রচারণামূলক কাজে দেখা যায়। এমনকি দেশে বিদেশের স্টেজ শোতেও নিজের কদর তৈরী করতে পেরেছেন!

মুমতাহিনা চৌধুরী টয়া / ছবি : ফেসবুক

এই কাজটি করতে গিয়ে জায়েদ খান নানা ধরনের ফানি মন্তব্য ও কর্মকাণ্ড করে থাকেন সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে। অনেকে মজা পেলেও নেটিজেনদের একাংশ তাকে নিয়ে নান ঠাট্টা বিদ্রুপও করে থাকে। এমনও দেখা গেছে, অনেক শোবিজ তারকা জায়েদ খানের সঙ্গে কাজ করতে কিংবা তার ব্যাপারে মন্তব্য করতে আগ্রহী নন।

কিন্তু এদিক থেকে ব্যতিক্রম দেখা গেল ছোটপর্দার জনপ্রিয় মডেল ও অভিনেত্রী মুমতাহিনা চৌধুরী টয়াকে। একটি ভিডিও সাক্ষাৎকারে টয়া বলেছেন জায়েদ খানের সঙ্গে তিনি সিনেমায় কাজ করতে চান!

জায়েদ খান / ছবি : ফেসবুক

উপস্থাপক টয়াকে একে একে শাকিব খান, সিয়াম আহমেদ, আরিফিন শুভ, শরিফুল রাজের সঙ্গে সিনেমা করার ব্যাপারে জানতে চান। টয়া প্রত্যেক নায়কের ব্যাপারে নিজের মন্তব্য করেন। সবশেষে জায়েদ খানের সঙ্গে সিনেমা করতে চান কিনা জানতে চাইলে টয়া বলেন, ‘দেখুন, সবাই উনার ফানি পার্ট সম্পর্কেই জানে। কিন্তু উনার এমনও দিক থাকতে পারে যেটা এখনো কেউ বের করে আনতে পারেনি। একটি ভালো গল্পে উনার মতো করে কোন চরিত্র তৈরী করে একজন ভালো ডিরেক্টর যদি কাজ করেন তাহলে উনিও দারুণ করবেন বলে আমার ধারণা। কারণ, উনি এরইমধ্যে অনেক কাজ করেছেন, উনার অভিজ্ঞতা অনেক। তাহলে কেন উনাকে দিয়ে হবে না? এ ধরনের প্রজেক্টে আমাকে কোন ভালো চরিত্র দিলে আমি অবশ্যই কাজ করতে চাই।’

মুমতাহিনা চৌধুরী টয়া / ছবি : ফেসবুক

তিনি আরও বলেন, ‘অভিনয়শিল্পী কিন্তু ভালো গল্প ও চরিত্র খোঁজে। আমরা কখনোই খুঁজি না যে কার সঙ্গে কাজ করছি, কে কেমন দেখতে। ওভাবে খুঁজতে গেলে তো কাজই করা কঠিন হয়ে যাবে। আর আমি মনে করি যাকে যে ধরনের কাজে সুইটেবল মনে হবে তাকে দিয়েই কাজটা করানো হোক। এতে করে সবাই কাজ করার সুযোগ পাবে। দর্শকও ভ্যারিয়েশন পেয়ে খুশি হবে।’

;

কন্যাকে জন্মদিনে গান উপহার পুতুলের



মাসিদ রণ, সিনিয়র নিউজরুম এডিটর, বার্তা২৪.কম
রেজা ও পুতুলের সঙ্গে কন্যা গীতলীনা

রেজা ও পুতুলের সঙ্গে কন্যা গীতলীনা

  • Font increase
  • Font Decrease

জনপ্রিয় সংগীতশিল্পী ও লেখক সাজিয়া সুলতানা পুতুল। নিজে গান গাওয়ার পাশাপাশি অনেক বছর ধরে গান লেখেন, সুর করেন এবং মিউজিক কম্পোজিশন করেন। তার স্বামী সৈয়দ রেজা আলীও গানের মানুষ। তিনিও একাধারে গায়ক, সুরকার এবং কম্পোজার।

এই দম্পতির একমাত্র কন্যা গীতলীনা। আজ তার দ্বিতীয় জন্মদিন। মেয়ের প্রথম জন্মদিনে পুরো মিউজিক ইন্ডাস্ট্রিতে একত্রিত করেছিলেন তারা। তবে এবার তেমন কোন আয়োজনের কথা শোনা যায়নি।

পুতুলের সঙ্গে কন্যা গীতলীনা

তাই বলে কী একমাত্র কন্যার জন্মদিন সাধারন রাখা চলে? মেয়েকে স্পেশ্যাল উপহার তো দেওয়া চাই-ই! সঙ্গীত নিয়ে যাদের বসবাস তাদের কাছে এক একটি নতুন গানও সন্তানের মতো পরম যত্নে লালিত হয়। তাইতো গীতলীনাকে জন্মদিনের উপহার হিসেবে একটি নতুন গান উপহার দিলেন মা পুতুল। সেই গানের লিংক শেয়ার করে পুতুল তার ফেসবুক অ্যাকাউন্টে লিখেছেন, ‘‘গীতলীনার দ্বিতীয় জন্মদিনে কী উপহার দিলাম? একটা গান; শিরোনাম ‘গীতলীনা’।’’

পুতুল আরও লিখেছেন, ‘অন্তঃসত্ত্বাকালীন সময় থেকে আজ ২ বছরের গীতলীনা পর্যন্ত এ এক যাত্রা; একটা গল্প। গীতলীনা যখন গর্ভে আমার, তখন থেকেই এই গানটার পরিকল্পনা করেছি। তাই তার ভূমিষ্ঠ হবার পর প্রথম কান্নাটা রেকর্ড করতে বলে রেখেছিলাম রেজাকে। সেই কান্নার শব্দ থেকে শুরু করে দুই বছরে গীতলীনার বিবর্তনের গল্প নিয়ে এই গান। সেই সঙ্গে অন্ত:সত্ত্বা থেকে মা হয়ে উঠবার আমার মনস্তাত্ত্বিক টানাপোড়েনটা উঠিয়ে এনেছি সৃষ্টির মোড়কে।’

সাজিয়া সুলতানা পুতুল

সবশেষে পুতুল লিখেছেন, ‘গানের দৈর্ঘ্য ১৭ মিনিট ৩০ সেকেন্ড। পুতুলগান যারা শোনেন বা শুনেছেন আগে, তারা এই দৈর্ঘ্য শুনে চমকাবার কথা নয়। এটাই পুতুলগান, যেখানে একটা গল্প বলি। যে গল্পটা হঠাৎ শুরু হয়ে হঠাৎ শেষ হয়ে যায় না। ধীরে স্থীরে জিরিয়ে জিরিয়ে গল্পের বিস্তার ঘটে। গানের কথা, সুর, কম্পোজিশন আমার। প্রডিউসার যথারীতি ঝুবফ জবুধ অষর. তার প্রতি কৃতজ্ঞতা গানটাকে চমৎকারভাবে হয়ে উঠতে পাশে থাকার জন্য। দুজন সৃষ্টিশীল বাবা মা তাদের সৃষ্টি ছাড়া সন্তানকে আর কী-ই বা দিতে পারে? সৃষ্টি উপহার দেয়াই শ্রেয় মনে করি, যেখানে গীতলীনা বড় হয়ে একদিন উদযাপন করবে এটা’

পুতুল এখন গানের পাশাপাশি অনলাইনভিত্তিক একটি আড্ডা অনুষ্ঠান উপস্থাপনা নিয়ে ব্যস্ত, যার নাম ‘পুতুলঘরে আত্মকথন’। এ অনুষ্ঠানে তিনি মূলত শোবিজ তারকাদের একান্ত ব্যক্তিগত অনুভূতি, টানাপোড়েন, আনন্দ ও মানসিক স্বাস্থ্য নিয়ে কথা বলেন।

‘পুতুলঘরে আত্মকথন’ অনুষ্ঠানে মারিয়া নূর ও পুতুল

;