ঐশ্বরিয়া-কিয়ারা নয়, সোনামের মতে কানে সেরা পোশাক পরেছেন ন্যান্সি ত্যাগী



বিনোদন ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
কানে ন্যান্সি ত্যাগী(বামে), সোনাম কাপুর (ডানে)

কানে ন্যান্সি ত্যাগী(বামে), সোনাম কাপুর (ডানে)

  • Font increase
  • Font Decrease

বিনোদন এবং ফ্যাশন সম্পর্কিত ব্যক্তিদের টক অব দ্য টাউন হলো  ‘কান’স ফিল্ম ফেস্টিভাল’। বিগত বছরের তুলনায় এই বছর কানরে উৎসবে কিছুটা ভিন্নতা দেখা গেছে।  তারকাদের পাশাপাশি ছোট-বড় অনেক ইনফ্লুয়েন্সারও যোগ দিয়েছেনে উৎসবে। তাদের মধ্যেই একজন ভারতীয় ইন্ফুয়েন্সার ন্যান্সী ত্যাগী। নিজের ডিজাইন করা পোশাক পরিহিত প্রথম তারকা হিসেবে চর্চায় রয়েছেন ন্যান্সি।

একের পর এক ঝকমকে পোশাকে নান্দনিকভাবে নিজেকে উপস্থাপন করছেন ন্যান্সি। দেশবাসীর পাশাপাশি তার প্রশংসায় পঞ্চমুখ তারকারাও। উর্ফি জাভেদ, খুশা কাপিলা সহ বড় বড় তারকাও তার প্রশংসায় ভাসছেন। এই তালিকায় শীর্ষে আছেন বলিউডের ফ্যাশন আইকন সোনাম কাপুর।

সোনাম কাপুরের মতে, ন্যান্সির বানানো পোশাকই কানে তার দেখা সেরা পোশাক। একই সঙ্গে সোনাম ন্যান্সীর কাছে অনুরোধ করেন, যেন তার জন্য ন্যান্সী কোনো পোশাক তৈরি করে দেন।

কান চলচ্চিত্র উৎসবে ন্যান্সি

১৮ তারিখের ইভেন্টে ন্যান্সী নিজের তৈরি করা পোশাক পরে প্রথম বার রেড কার্পেটে হাঁটেন। গোলাপি কাপড়ে তৈরি করা বিশাল টোইল সমৃদ্ধ গাউনটি ন্যান্সি একা হাতে তৈরি করেছেন। তাও মাত্র ১ মাসের মধ্যেই। তিনি এতে ব্যবহার করেছেন ১ হাজার মিটার কাপড়। এই গোলাপি গাউনটির ওজন ছিল ২০ কেজি। প্রথম দিন কানের লাল গারিচা পা রাখার সাথে সাথেই হৈ-চৈ ফেলে দেন ন্যান্সি। ৩০ দিনের মধ্যে তৈরি করা তার অসাধারণ পোশাকের কারণে দেশ জুড়ে হচ্ছে জয়জয়কার।

দ্বিতীয় দিন একটি চকচকে ল্যাভেন্ডার শাড়ি পরে হাজির হন তিনি। শাড়ির ডিজাইনের আদলে তৈরি করা পোশাকটিতে রয়েছে কিছুটা ওয়েস্টার্ন টাচ। এই পোশাকটিও নিজেই তৈরি করেছেন ন্যান্সী। প্রথম পোশাকের মতো দ্বিতীয় পোশাক দিয়েও সকলের নজর ও প্রশংসা কেড়েছেন এই উত্তর প্রদেশের এক ছোট শহরের মেয়ে।

   

ট্রেন্ড বুঝে ঈদের পোশাক কিনেছি : পারসা ইভানা



মাসিদ রণ, সিনিয়র নিউজরুম এডিটর, বার্তা২৪.কম
পারসা ইভানা

পারসা ইভানা

  • Font increase
  • Font Decrease

শোবিজ তারকাদের সবকিছু নিয়েই দর্শকের আগ্রহ থাকে। কোরবানির ঈদের সময় তারা জানতে চান প্রিয় তারকারা কোথায় ঈদ কাটাবেন, কি পোশাক পরবেন, কি খাবেন কিংবা কোথায় ঘুরবেন ইত্যাদি বিষয়। জনপ্রিয় তারকার ঈদের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন মাসিদ রণ

পারসা ইভানা, অভিনেত্রী ও নৃত্যশিল্পী
কোরবানির ঈদটা এবার ঢাকাতেই কাটাচ্ছি। সর্বশেষ তিন বছর আম্মু কোরবানির সময় আমাদের সঙ্গে থাকেন না। এবার আমাদের সঙ্গে তিনি ঈদ করছেন না। ফলে আমাকে আর ছোট ভাইকে ঈদ কাটাতে হচ্ছে।

পারসা ইভানা
 

রান্না তো আমাকে করতেই হতো। গরুর কালা ভুনা রান্না করতে পারি। সেটা এবার করার ইচ্ছে ছিল। কিছু ডেজার্ট আইটেমও রান্না করেছি। এছাড়া দাওয়াত তো থাকেই। খালা আর ফুফুর বাড়িতে যেতেই হয় ঈদের সময়।

পারসা ইভানা 

আর ঈদের দিন আমি সব সময় সালোয়ার কামিজই পরি। খুব আরাম লাগে। আমাকে দেখতে যেন স্নিগ্ধ লাগে, চোখে আরাম দেয় এমন কালারই বেছে নিই। তবে ডিজাইনটা অবশ্যই স্টাইলিশ হতে হবে। ঈদের জামা কেনার সময় শপিংয়ে গিয়ে দেখি এবার কোন ট্রেন্ড চলছে। সেসব বিবেচনা করেই ঈদের জামাটা চয়েস করেছি।

;

আমার দর্শক ভক্তদের ঈদের শুভেচ্ছা: সিয়াম আহমেদ



মাসিদ রণ, সিনিয়র নিউজরুম এডিটর, বার্তা২৪.কম
সিয়াম আহমেদ (চিত্রনায়ক) / ছবি: বার্তা২৪

সিয়াম আহমেদ (চিত্রনায়ক) / ছবি: বার্তা২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

শোবিজ তারকাদের সবকিছু নিয়েই দর্শকের আগ্রহ থাকে। কোরবানির ঈদের সময় তারা জানতে চান প্রিয় তারকারা কোথায় ঈদ কাটাবেন, কি পোশাক পরবেন, কি খাবেন কিংবা কোথায় ঘুরবেন ইত্যাদি বিষয়। জনপ্রিয় তারকার ঈদের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন মাসিদ রণ

সিয়াম আহমেদ, চিত্রনায়ক
ছোটবেলায় কোরবানির ঈদের কথা বলতে গেলে সবচেয়ে আগে মনে পড়ে বাবার সঙ্গে গরু কিনতে হাটে যাওয়ার কথা। বাবা অনেক দেখেশুনে গরু কিনতেন। গরু কেনার পর গরুর দড়ি ধরে বাসায় নিয়ে আসার আনন্দটা এখনো অনুভব করি।

সিয়াম আহমেদ (চিত্রনায়ক) / ছবি: বার্তা২৪

গরু কিনে যখন বাবা টাকা পরিশোধ করতেন তখন ভাবতাম যদি আমি বাবাকে গরু কেনার টাকাটা দিতে পারতাম। সেই স্বপ্ন পূরণ হয়েছে। পয়সা উপার্জনের পর থেকে প্রতি ঈদে কোরবানির গরু কেনার জন্য বাবাকে আলাদা করে টাকা দিই। এই কাজটা করতে খুবই ভালো লাগে। কিন্তু ছোটবেলার ঈদের যে আনন্দ তার ছিটেফোঁটাও যেন এখন অনুভব হয় না। আমার সব দর্শক ভক্তদের জানাই ঈদের শুভেচ্ছা।

সিয়াম আহমেদ (চিত্রনায়ক) / ছবি: বার্তা২৪

;

চাটগাইয়া স্পেশ্যাল কালা ভুনা রান্না করব : সাবিলা নূর



মাসিদ রণ, সিনিয়র নিউজরুম এডিটর, বার্তা২৪.কম
সাবিলা নূর / ছবি : বার্তা২৪

সাবিলা নূর / ছবি : বার্তা২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

শোবিজ তারকাদের সবকিছু নিয়েই দর্শকের আগ্রহ থাকে। কোরবানির ঈদের সময় তারা জানতে চান প্রিয় তারকারা কোথায় ঈদ কাটাবেন, কি পোশাক পরবেন, কি খাবেন কিংবা কোথায় ঘুরবেন ইত্যাদি বিষয়। জনপ্রিয় তারকার ঈদের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন মাসিদ রণ

সাবিলা নূর, মডেল ও অভিনেত্রী
এবার কোরবানিতে আমি আসলে বেশ কয়েক পদ রান্না করব। কারণ এবার আব্বু আর আম্মু দেশে নেই। বড় বোনের বাড়িতে বেড়াতে আমেরিকা গিয়েছেন। ফলে ঈদের পুরোটা সময় শশুরবাড়িতে কাটাবো। শশুরবাড়ির সবার জন্যই মূলত রান্না করব। অনেকেই জানেন আমি চট্টগ্রামের মেয়ে। তাই কোরবানিতে চাটগাইয়া স্পেশ্যাল কালা ভুনা না হলে কী জমে? এই পদটি অবশ্যই রান্না করব। সঙ্গে চট্টগ্রামের ঐতিহ্যবাহী মেজবানীও করার ইচ্ছে আছে। সময় সুযোগ হলে সেটিও করে ফেলব।

সাবিলা নূর / ছবি : বার্তা২৪

রান্নার বাইরে পরিবারের সবার সঙ্গে আনন্দ আড্ডায় দিন পার হবে যাবে আশা করি। এই কাজটিই ঈদের সময় সবচেয়ে উপভোগ করি। কারণ সারা বছর শুটিংয়ের জন্য বাইরে বাইরেই থাকতে হয়। ঈদে যেহেতু শুটিং থাকে না, তাই এই পুরো সময়টা আমি আসলে পরিবারের সঙ্গেই থাকতে পছন্দ করি। এজন্য কোন ঘোরাঘুরির পরিকল্পনাও রাখিনি। যা ঘোরার ক’দিন আগে ঘুরে এসেছি দেশের বাইরে থেকে।

সাবিলা নূর / ছবি : বার্তা২৪

ঈদে একেবারেই যে বাইরে যাবো না, তা কিন্তু নয়। এবার ঈদেও আমাদের সিনেমাহলে অনেকগুলো ভালো ছবি মুক্তি পাবে বলে শুনছি। সেগুলো থেকে কয়েকটি তো হলে গিয়ে দেখতেই হবে।

;

নিজে হাটে গিয়ে গরু কিনেছি : সাফা কবির



মাসিদ রণ, সিনিয়র নিউজরুম এডিটর, বার্তা২৪.কম
সাফা কবির / ছবি: বার্তা২৪

সাফা কবির / ছবি: বার্তা২৪

  • Font increase
  • Font Decrease

শোবিজ তারকাদের সবকিছু নিয়েই দর্শকের আগ্রহ থাকে। কোরবানির ঈদের সময় তারা জানতে চান প্রিয় তারকারা কোথায় ঈদ কাটাবেন, কি পোশাক পরবেন, কি খাবেন কিংবা কোথায় ঘুরবেন ইত্যাদি বিষয়। জনপ্রিয় তারকার ঈদের পরিকল্পনার কথা জানিয়েছেন মাসিদ রণ-

সাফা কবির, মডেল ও অভিনেত্রী
ঈদে আমি খুব একটা সাজগোজ করি না। সাদা ছিমছাম পোশাক পরি। আম্মুকে বাড়ির কাজে সাহায্য করি। তবে ভক্ত দর্শক জানতে চান, আমি ঈদে কিভাবে কাটাচ্ছি, কি খাচ্ছি, কিরকম সাজগোজ করছি। তাই ঈদের দিন বিকেল বেলা আমার ভক্তদের জন্যই স্পেশ্যালি রেডি হই। তখন একটু কালারফুল পোশাক পরা হয়। তবে অনেক বেশি গর্জিয়াস পোশাক আমি পরি না। ঈদের ছবি সবার সঙ্গে শেয়ার করি, ভক্তরা খুশি হন।

সাফা কবির / ছবি: বার্তা২৪

তবে কোরবানির ঈদে আমার ব্যস্ততা বেশ আগে থেকেই শুরু হয়। কারণ অনেকেই জানেন, আমার বাবা দীর্ঘদিন ধরে দেশের বাইরে থাকেন। সব ঈদে তিনি দেশে ফিরতে পারেন না। তাই আমাকে আর মাকেই ঈদ করতে হয়। মায়ের এখন বয়সও হচ্ছে। তাই অনেক কাজে সরাসরি আমাকেই এগিয়ে আসতে হয়। যেমন কোরবানির গরু কেনা। এবারও আমি নিজে হাটে গিয়ে গরু কিনেছি। ঈদের ঠিক আগের দিন শুটিংয়ের সব ব্যস্ততা শেষ করে ফেলেছি। এরপর গরুর হাটে গিয়েছি। এই কাজটি করতে প্রথমে ভয় ভয় লাগলেও এখন আমি বেশ উপভোগ করি।

সাফা কবির / ছবি: বার্তা২৪

;