মেক্সিকোতে নির্বাচনী প্রচারণার মঞ্চ ভেঙে নিহত ৯, আহত ৫০



আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: রয়টার্স

ছবি: রয়টার্স

  • Font increase
  • Font Decrease

মেক্সিকোতে একটি নির্বাচনী প্রচারণার মঞ্চ ভেঙে ৯ জন নিহত হয়েছে। এ ঘটনায় আহত হয়েছে আর ৫০ জন। নিহতদের মধ্যে আটজন প্রাপ্তবয়স্ক এবং একজন শিশু ছিল।

বৃহস্পতিবার (২৩ মে) মেক্সিকোর উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্য নুয়েভো লিয়নে সেন্ট্রিস্ট সিটিজেনস মুভমেন্ট পার্টির নির্বাচনী প্রচার মঞ্চ ভেঙে এ ঘটনা ঘটে।

বার্তাসংস্থা রয়টার্সের এক প্রতিবেদন এ তথ্য জানা গেছে।

উত্তর মেক্সিকান রাজ্যের গভর্নর স্যামুয়েল গার্সিয়া সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক বার্তায় জানান, নুয়েভো লিওনে সিটিজেনস মুভমেন্ট পার্টির সমাবেশে মঞ্চ ভেঙে ৯ জন নিহত হয়েছে। এতে আহত হয়েছে আরও প্রায় ৫০ জন। আহতদের স্থানীয় ক্লিনিকে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। নিহতদের মধ্যে আটজন প্রাপ্তবয়স্ক এবং একজন শিশু ছিল।

সেন্ট্রিস্ট সিটিজেনস মুভমেন্ট পার্টির প্রেসিডেন্ট প্রার্থী হোর্হে আলভারেজ মেনেজ বলেছেন, সান পেড্রো গারজা গার্সিয়া শহরের নির্বাচনি প্রচারণার সময় দমকা হাওয়া শুরু হয়। এতে সমাবেশের মঞ্চটি ভেঙে পড়ে। তিনি নিজেই এ ঘটনায় আহত হয়ে চিকিসৎসা নিচ্ছেন বলে জানিয়েছেন।

দুর্ঘটনার সময় করা ভিডিওতে দেখা গেছে, মঞ্চটি হঠাৎ ভিড়ের মধ্যে পড়ে যাচ্ছে, আতঙ্কিত হয়ে অনেকেই দৌড়ে আত্মরক্ষার চেষ্টা করছেন।

বিদায়ী রাষ্ট্রপতি আন্দ্রেস ম্যানুয়েল লোপেজ ওব্রাডর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এক বার্তায় নিহতদের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য, মেক্সিকোতে আগামী ২ জুন প্রেসিডেন্ট পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। এতে আলভারেজ মেনেজ প্রেসিডেন্ট পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন।

   

ইসরায়েলের বিরুদ্ধে আইসিজেতে কিউবা



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সামরিক অভিযানের নামে ফিলিস্তিনের গাজায় গণহত্যা চালানোর ঘটনায় ইসরায়েলের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক বিচার আদালতে (আইসিজে) আগেই মামলা দায়ের করেছে দক্ষিণ আফ্রিকা।

আল জাজিরার জানিয়েছে, এবার তাতে যোগ দেওয়ার ঘোষণা দিলো লাতিন আমেরিকার দেশ কিউবা।

শনিবার (২২ জুন) প্রকাশিত এক সংবাদে বলা হয়, শুক্রবার (২১ জুন) কিউবার পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, কিউবা আনুষ্ঠানিকভাবে ইসরায়েলের বিরুদ্ধে দক্ষিণ আফ্রিকার গণহত্যার অভিযোগকে সমর্থন করবে।

কারণ, গাজায় বেসামরিক নাগরিকদের বিরুদ্ধে নেতানিয়াহু সরকারের ক্রমবর্ধমান আক্রমণ বন্ধের কোনো লক্ষণ দেখা যাচ্ছে না ।

ওই বিবৃতিতে আরও বলা হয়, গণহত্যা, বর্ণবাদ, জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুতি এবং নির্বিচারে শাস্তি আধুনিক বিশ্বে স্থান পেতে পারে না এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় এসব সহ্য করতে পারে না। ফিলিস্তিনি জনগণের বিরুদ্ধে সংঘটিত গণহত্যা বন্ধ করতে বৈধ আন্তর্জাতিক প্রচেষ্টাকে যথাসম্ভব সমর্থন করে দেশটি। তাই মামলায় অবদান রাখতে কিউবা অটল প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করছে।

এর আগে নিকারাগুয়া, কলম্বিয়া, লিবিয়া, মালদ্বীপ, মিসর, আয়ারল্যান্ড, বেলজিয়াম, তুরস্ক ও চিলি ইসরায়েলের বিরুদ্ধে মামলায় অংশগ্রহণ করার ইচ্ছা পোষণ করে এতে আনুষ্ঠানিকভাবে যোগ দেওয়ার ঘোষণা দিয়েছে।

২০২৩ সালের ডিসেম্বরে দক্ষিণ আফ্রিকা ইসরায়েলের বিরুদ্ধে গণহত্যার মামলা দায়ের করে। দক্ষিণ আফ্রিকার আবেদনে বলা হয়, গাজায় ইসরায়েলের কার্যক্রমে গণহত্যার আচরণ স্পষ্ট।

তারা ফিলিস্তিনি জাতীয়তা, জাতিগত ও নৃতাত্ত্বিক গোষ্ঠীর একটি উল্লেখযোগ্য অংশকে ধ্বংস করার উদ্দেশ্যে হামলা করছে।

;

ইরানে জনপ্রিয় র‍্যাপ গায়কের মৃত্যুদণ্ড বাতিল



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ইরানের সর্বোচ্চ আদালত দেশটির জনপ্রিয় র‍্যাপ গায়ক তোমাজ সালেহির মৃত্যুদণ্ড বাতিল করেছেন। সালেহির আইনজীবী আমির রাইসিয়ান শনিবার (২২ জুন) এ খবর নিশ্চিত করেছেন।

রয়টার্স জানিয়েছে, সরকারের সমালোচনা করে গান করায় এর আগে তাকে মৃত্যুদণ্ডের সাজা দেওয়া হয়েছিল।

সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম এক্স-এ আমির রাইসিয়ান বলেন, ইরানের সুপ্রিম কোর্ট সালেহির মৃত্যুদণ্ডের রায় বাতিল করেছেন। এই সঙ্গে তার বিরুদ্ধে নতুন করে শুনানির নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত এপ্রিলে সালেহিকে মৃত্যুদণ্ডের সাজা দেওয়া হয়েছিল। ওই সময়ও বিষয়টি জানিয়েছিলেন তার আইনজীবী রাইসিয়ান। তখন তিনি বলেছিলেন, সালেহির বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহে সহায়তা, রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে অপপ্রচার, দাঙ্গার আহ্বানসহ নানা অভিযোগ আনা হয়েছে।

এর আগে ২০২২ সালে পুলিশ হেফাজতে কুর্দি তরুণী মাহসা আমিনির মৃত্যুর পর দেশটিতে বিক্ষোভ ছড়িয়ে পড়ে। ওই বিক্ষোভের সময় ৩৩ বছর বয়সি তোমাজ সালেহি দেশের দুর্নীতি, শাসনব্যবস্থা, সরকারের সমালোচনা করে গান করেছিলেন। ওই বছরের অক্টোবরে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়।

মাহসা আমিনির মৃত্যুর পর বিক্ষোভ চলাকালে শত শত বিক্ষোভকারী নিহত হন। নিহত ব্যক্তিদের তালিকায় ছিলেন ইরানের নিরাপত্তাকর্মীরা। সে সময় গ্রেপ্তার করা হয় কয়েক হাজার মানুষকে। তাদের মধ্যে নয়জনের মৃত্যুদণ্ডের সাজা এরই মধ্যে কার্যকর করা হয়েছে।

;

পাকিস্তানে বোমা বিস্ফোরণে ৫ সেনা নিহত



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

পাকিস্তানের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে আফগানিস্তানের সীমান্তসংলগ্ন এলাকায় শুক্রবার (২১ জুন) দেশটির সেনাবাহিনীর একটি গাড়িতে বোমা বিস্ফোরণের ঘটনায় পাঁচজন পাকিস্তানি সেনা নিহত হয়েছেন।

রয়টার্স জানিয়েছে, পাকিস্তানের সেনাবাহিনী এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, দেশটির খাইবার পাখতুনখাওয়া প্রদেশের পার্বত্য খুররাম জেলায় এই হামলার ঘটনা ঘটে।

উল্লেখ্য যে, পাকিস্তানি তালেবান ও ইসলামিক স্টেট গ্রুপ (আইএস) পাকিস্তানের ওই এলাকায় দীর্ঘদিন ধরে বেশ সক্রিয়।

পাকিস্তানের সেনাবাহিনীর বিবৃতিতে বলা হয়েছে, নিরাপত্তা বাহিনীর গাড়িতে আগে থেকে পেতে রাখা বোমার বিস্ফোরণ ঘটেছে। এতে পাঁচজন সেনাসদস্য শহীদ হয়েছেন। তবে তাৎক্ষণিকভাবে এই হামলার দায় কোনো সংগঠন স্বীকার করেনি।

পাকিস্তানের ওই এলাকায় নিরাপত্তা বাহিনীর ওপর মাঝেমধ্যেই হামলা চালায় দেশটির তালেবান। সংগঠনটি তেহরিক-ই-তালেবান পাকিস্তান (টিটিপি) নামে পরিচিত।

২০২১ সালের আগস্টে প্রতিবেশী আফগানিস্তানে তালেবান শাসন ফিরে আসার পর এমন হামলার ঘটনা বেড়েছে।

;

দুই কোটি না দিলে যৌন হেনস্থার মামলায় ফাঁসানোর হুমকি



আন্তর্জাতিক ডেস্ক বার্তা২৪.কম
ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

দুই কোটি রুপি না দিলে ফাঁসানো হবে যৌন হেনস্থার মিথ্যা মামলায়! ধর্ষণ এবং যৌন হেনস্থার মামলায় গ্রেফতার হওয়া ভারতের কর্নাটকের সাবেক জেডিএস সাংসদ প্রজ্বল রেভান্নার ভাই সুরজকে এমনই হুমকি দেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে ইন্ডিয়া টুডে।

ভারতের সাবেক প্রধানমন্ত্রী এইচডি দেবগৌড়ার নাতি তথা কর্নাটক বিধানসভার জেডিএস সদস্য সুরজ এ বিষয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগও দায়ের করেছেন।

সুরজের পক্ষে তার সহকারী শিবকুমার এ বিষয়ে পুলিশের কাছে অভিযোগ জানিয়েছেন। এক্ষেত্রে শিবকুমার অভিযোগ করেছেন জেডিএসের যুব শাখার কর্মী চেতন কেএস এবং তার শ্যালকের বিরুদ্ধে।

অভিযোগ রয়েছে যে, রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের উছিলায় সুরজের সঙ্গে পরিচিতি বাড়ান চেতন। ‘সুরজ রেভান্না ব্রিগেড’ নামে একটি মঞ্চও গড়েছিলেন তিনি।

এর পরে প্রজ্বলের নারী কেলেঙ্কারি নিয়ে হইচই শুরু হতেই চেতন পরিস্থিতি বুঝে যৌন হেনস্থার মিথ্যা অভিযোগের তাঁকে ফাঁসানোর হুমকি দিতে থাকেন।

পুলিশকে সুরজ জানিয়েছেন, প্রথমে তার কাছে পাঁচ কোটি রুপি চেয়েছিলেন চেতন। পরে সেই দাবি কমে দুই কোটিতে দাঁড়ায়।

প্রসঙ্গত, একাধিক নারীকে যৌন নির্যাতনের ভিডিও প্রকাশ্যে আসার পরে গত মাসে গ্রেফতার করা হন সুরজের বড় ভাই প্রজ্বল। তিনি এখন জেলবন্দি।

আরেক নির্যাতিতাকে অপহরণের অভিযোগে গ্রেফতার করা হয় প্রজ্বল-সুরজের বাবা তথা কর্নাটকের সাবেক মন্ত্রী এইচডি রেভান্নাকেও। তবে পরে জামিনে মুক্তি পান তিনি।

;