ভাষার মাসে ডিপিএস এসটিএসের বর্ণাঢ্য আয়োজন



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে ডিপিএস এসটিএস স্কুল, ঢাকা (দিল্লি পাবলিক)-র ছাত্র, শিক্ষক ও অভিভাবকগণ নানাধরণের কর্মকাণ্ডের মধ্য দিয়ে নিজ নিজ আন্তরিক শ্রদ্ধা জ্ঞাপন করেছেন। ভাষা সংগ্রাম ও একুশের তাৎপর্যকে আগামী প্রজন্মের মাঝে জাগিয়ে রাখার প্রচেষ্টা থেকে এ দিনে ডিপিএস এসটিএস স্কুলের পক্ষ থেকে ছাত্রদের জন্য বিভিন্ন ধরণের অংশগ্রহণমূলক কর্মকাণ্ডের আয়োজন করা হয়। গোটা আয়োজনটির মূল লক্ষ্য ছিল ভাষাশহীদদের মহান আত্মত্যাগকে শ্রদ্ধা ভরে স্মরণ করা এবং বাঙালির ঐতিহাসিক শোকের আবহকে উপলব্ধি করা।

ডিপিএস এসটিএস স্কুলের প্রিন্সিপাল মাধু ওয়াল, ভাইস প্রিন্সিপাল ড. শিবানন্দ সিএস-সহ স্কুলের সিনিয়র লিডারশিপ টিমের সকল সদস্য একসাথে ২১ ফেব্রুয়ারি ভোরে খালি পায়ে হেঁটে স্কুলের অভ্যন্তরীণ শহীদ মিনারে যান এবং পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। শোকসন্তপ্ত পরিবেশের গভীরতাকে ধারণ করার লক্ষ্যে বাজানো হয় নানা দেশাত্মবোধক গান। গোটা দিনটিকে স্মরণীয় করে রাখার লক্ষ্যে স্কুলের শিক্ষার্থীরা নানারকম সাংস্কৃতিক চর্চা ও প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে, যার মধ্যে ব্যান্ড ‘ইগনাইট’-এর পরিবেশনা ছিল উল্লেখযোগ্য। এছাড়া মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে স্কুলটির ছাত্রছাত্রীরা বিশেষ আর্ট প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করে।

এ প্রসঙ্গে ডিপিএস এসটিএস স্কুলের প্রিন্সিপাল মাধু ওয়াল বলেন, “আমরা প্রায়শই আমাদের নিজ মাতৃভাষার গুরুত্বের প্রতি উদাসীন বা অসংবেদনশীল হয়ে পড়ি। এ বছর আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসে ডিপিএস এসটিএস স্কুলের মূল লক্ষ্য ছিল ছাত্রছাত্রীদের মাঝে মায়ের ভাষার মূল শেকড়কে অনুসন্ধানের অনুপ্রেরণা যোগানো। দিবসটিকে কেন্দ্র করে আয়োজিত প্রতিযোগিতাগুলোতে ছেলেমেয়েদের প্রাণবন্ত অংশগ্রহণ আমাদেরকে আশাবাদী করে তুলেছে যে, আমাদের সামনে এখনো যথেষ্ট সুযোগ আছে মাতৃভাষা প্রসঙ্গে আগামীর প্রজন্মকে আগ্রহী করে তোলার। হয়তো এমন ধারাবাহিক আয়োজনের মধ্য দিয়েই আমরা ভবিষ্যতের মেধাবী ভাষাবিদদের খুঁজে বের করতে পারবো”।

ভাষার মাসের আগমণের শুরু থেকেই ডিপিএস এসটিএস ছাত্রছাত্রীদের মধ্যে ‘৫২র ভাষা আন্দোলন ও আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস প্রসঙ্গে আলোচনা উৎসাহিত করে আসছে। এরই অংশ হিসেবে গত ১৮ ফেব্রুয়ারি তারিখে স্কুলের শিক্ষার্থীরা সকলে সাদা-কালো পোষাক পরে ভাষা শহীদদের আত্মত্যাগের প্রতি একাত্মতা প্রকাশ করে।

দুই জঙ্গি ছিনতাই: তদন্তে আরও সময় চায় কমিটি



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আদালত ফটকের সামনে পুলিশের ওপর হামলা চালিয়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত দুই জঙ্গি ছিনিয়ে নেওয়ার ঘটনা তদন্তে গঠিত কমিটি প্রতিবেদন দাখিলের জন্য আরও সময় চাইবে। তদন্ত কাজ শেষ করতে তৃতীয় দফায় আরও অন্তত তিনদিন সময় চান কমিটির সদস্যরা।

জঙ্গি ছিনতাইয়ের ঘটনার পর তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের পূর্ব নির্ধারিত সময় ছিল তিন কার্যদিবস। এর মধ্যে তদন্ত শেষ করতে না পারায় আরও সাত দিনে সময় নেয় কমিটি। দ্বিতীয় দফার নির্ধারিত সময় শেষ হচ্ছে মঙ্গলবার (২৯ নভেম্বর)। তবে এ সময়ের মধ্যেও তদন্ত প্রতিবেদন দিতে পারছে না ডিএমপি’র গঠিত কমিটি।

এ বিষয়ে তদন্ত কমিটির প্রধান ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপস) এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, প্রতিবেদন জমা দিতে আরও সময় লাগবে। আসামির পালিয়ে যাওয়া সংক্রান্ত দায়-দায়িত্ব নির্ধারণ এবং ভবিষ্যৎ করণীয় সম্পর্কে বিস্তারিত সুপারিশমালা প্রণয়ন করা হচ্ছে। কমিটির একেক সদস্য একেক কাজ করছেন। সবমিলে নিজেরা একটি বৈঠক করে সব চূড়ান্ত করার পর প্রতিবেদন দাখিল করা হবে। বিষয়টি স্পর্শকাতর হওয়ায় বিচার-বিশ্লেষণ করে প্রতিবেদন জমা দিতে আরও সময় চাইবে কমিটি।

এর আগে গত ২০ ডিসেম্বর চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের ফটকে পুলিশকে মারধর ও চোখে পিপার স্প্রে ছিটিয়ে নিষিদ্ধ সংগঠন আনসার আল ইসলামের দুই সদস্যকে ছিনিয়ে নিয়ে যান জঙ্গিরা।

তারা হলেন- মইনুল হাসান শামীম ওরফে সিফাত সামির ও মো. আবু ছিদ্দিক সোহেল ওরফে সাকিব। ওই দুজনসহ ১২ আসামিকে সন্ত্রাসবিরোধী ট্রাইব্যুনাল থেকে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের (সিএমএম) হাজতখানায় নেওয়া হচ্ছিল। ছিনিয়ে নেওয়া দুই জঙ্গি জাগৃতি প্রকাশনীর প্রকাশক ফয়সল আরেফিন দীপন এবং লেখক ও ব্লগার অভিজিৎ রায় হত্যা মামলার মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। এ ছাড়া আরও কয়েকটি হত্যা মামলারও আসামি তারা।

;

ডেঙ্গুতে মৃত্যুশূন্য দিন পার করল দেশ



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

  • Font increase
  • Font Decrease

এডিস মশাবাহিত ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হয়ে সোমবার সকাল ৮টা পর্যন্ত আগের ২৪ ঘণ্টায় কারো মৃত্যু হয়নি। একই সময়ে নতুন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত হয়েছেন আরো ৩৬৬ জন। এ নিয়ে চলতি বছর ডেঙ্গুতে মোট ২৪৭ জনের মৃত্যু হয়েছে।

সোমবার (২৮ নভেম্বর) স্বাস্থ্য অধিদফতরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুম এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানিয়েছে।

আক্রান্তদের মধ্যে ২১০ জন ঢাকার বিভিন্ন সরকারি-বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন এবং বাকি ১৫৬ জন ঢাকার বাইরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

বিজ্ঞপ্তিতে আরো বলা হয়েছে, সারাদেশের বিভিন্ন হাসপাতালে বর্তমানে ডেঙ্গু আক্রান্ত ১ হাজার ৮৩৭ জন রোগী চিকিৎসাধীন রয়েছেন। এর মধ্যে ঢাকার ৫৩টি সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালে ১ হাজার ৮৪ জন এবং অন্যান্য বিভাগের হাসপাতালগুলোতে ৭৫৩ জন রোগী ভর্তি আছেন।

সরকারি প্রতিবেদন অনুযায়ী, ১ জানুয়ারি থেকে ২৮ নভেম্বর ২০২২ পর্যন্ত ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মোট ৫৬ হাজার ৪৯৬ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন।

এর মধ্যে ঢাকায় ৩৬ হাজার ১৫ জন এবং ঢাকার বাইরে ভর্তি হয়েছেন ২০ হাজার ৪৮১ জন ডেঙ্গু রোগী।

অন্যদিকে, চিকিৎসা শেষে ৫৪ হাজার ৪১২ জন ছাড়পত্র নিয়ে হাসপাতাল থেকে বাড়ি ফিরেছেন। এদের মধ্যে ৩৪ হাজার ৭৮১ জন ঢাকার এবং বাকি ১৯ হাজার ৬৩১ জন ঢাকার বাইরের বাসিন্দা।

;

টাঙ্গাইলে বাস চাপায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, টাঙ্গাইল
টাঙ্গাইলে বাস চাপায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত

টাঙ্গাইলে বাস চাপায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত

  • Font increase
  • Font Decrease

ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে বাস চাপায় মোটরসাইকেলের দুই আরোহী নিহত হয়েছেন।

সোমবার(২৮ নভেম্বর) সন্ধ্যা ৬টার দিকে বাসাইল উপজেলার করাতিপাড়া বাইপাস এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহত ময়থা গাছপাড়া গ্রামের মৃত আবু সাইদের পুত্র আবুল হোসেন (৪৬)। অপর নিহতের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

বাসাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোঃ মোস্তাফিজুর রহমান জানান, অজ্ঞাত দুই ব্যক্তি মোটরসাইকেলযোগে টাঙ্গাইলের দিকে যাচ্ছিলেন। এসময় পিছন থেকে এসআই পরিবহনের একটি বাস মোটরসাইকেলটিকে চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মোটরসাইকেলের দুই আরোহীর মৃত্যু হয়। এসময় বাসটি আটক করলেও চালক ও সহকারি পালিয়ে যায়।

;

দিনাজপুর বোর্ডে পাসের হারে সর্বনিম্ন কুড়িগ্রাম



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুড়িগ্রাম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

এসএসসি পরীক্ষা-২০২২ এর ফলাফলে দিনাজপুর বোর্ডে ৭৫.০২ শতাংশ পাসের হার নিয়ে সর্বনিম্ন অবস্থানে রয়েছে কুড়িগ্রাম জেলা। অন্যদিকে ৮৩.৬২ শতাংশ পাসের হার নিয়ে দিনাজপুর জেলা দিনাজপুর বোর্ডের অধীনস্হ ৮ টি জেলার মধ্যে সর্বোচ্চ অবস্থানে রয়েছে।

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, দিনাজপুর এর অধীনে অনুষ্ঠিত ২০২২ সালের মাধ্যমিক স্কুল সার্টিফিকেট পরীক্ষার ফলাফল সোমবার (২৮ নভেম্বর) বেলা ১২:০০ টায় প্রকাশ করা হয়। প্রকাশিত ফলাফল পরিসংখ্যান অনুযায়ী মোট পরীক্ষার্থী ১লাখ ৭৪ হাজার ৫৭৭ জন। এবং পাস করেছেন ১ লাখ ৪১ হাজার ৬৮২ জন শিক্ষার্থী যা মোট পরীক্ষার্থীর তুলনায় পাসের হার ৮১.১৬ শতাংশ।

মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বোর্ড, দিনাজপুর এর ওয়েবসাইটে প্রকাশিত এক বিজ্ঞপ্তিতে জেলাভিত্তিক ফলাফল পরিসংখ্যান ঘোষণা করা হয়েছে। ফলাফল অনুযায়ী কুড়িগ্রাম জেলায় পরীক্ষায় মোট পরীক্ষার্থীর সংখ্যা ১৯ হাজার ২০৩ জন। এর মধ্যে পুরুষ পরীক্ষার্থী ১০ হাজার ৩০৯ জন এবং নারী পরীক্ষার্থী ৮ হাজার ৮৯৪ জন। এবং মোট উত্তীর্ণকারী শিক্ষার্থীর সংখ্যা ১৪ হাজার ৪০৭ যা অংশগ্রহণকারী শিক্ষার্থীদের তুলনায় ৭৫.০২ শতাংশ। যা দিনাজপুর বোর্ডের অধীনস্হ অন্যান্য জেলা গুলোর তুলনায় সর্বনিম্ন।

অন্যদিকে ৮৩.৬২ শতাংশ পাসের হার নিয়ে দিনাজপুর জেলা পাসের হারের ভিত্তিতে প্রথম অবস্থানে রয়েছে। এবং ৮৩.৫৪ শতাংশ পাসের হার নিয়ে ঠাকুরগাঁও জেলা ২য় অবস্থানে রয়েছে। সর্বনিম্ন পাসের হারের জেলা কুড়িগ্রাম ৮ নম্বর জেলা এবং ৭৬.৩৯ শতাংশ পাসের হারের জেলা লালমনিরহাট ৭ম অবস্থানে রয়েছে।

তবে জিপিএ-৫ প্রাপ্তি দিক থেকে কুড়িগ্রাম জেলা কিছুটা সন্তোষজনক অবস্থানে রয়েছে। কুড়িগ্রামে মোট জিপিএ-৫ প্রাপ্ত শিক্ষার্থীর সংখ্যা ২ হাজার ২০৩ টি যা দিনাজপুর বোর্ডের অধীনস্হ ৮ টি জেলার মধ্যে ষষ্ঠ। অন্যদিকে ৫ হাজার ৮৭২ টি জিপিএ-৫ দিয়ে দিনাজপুর জেলা শীর্ষ অবস্থানে রয়েছে। এবং মাত্র ১ হাজার ৯৯ টি জিপিএ-৫ নিয়ে লালমনিরহাট জেলা তলানিতে রয়েছে।

কুড়িগ্রাম জেলায় প্রতিষ্ঠানভিত্তিক ১৬১ জন ছাত্র জিপিএ-৫ পেয়ে শীর্ষে রয়েছে জেলার কুড়িগ্রাম সরকারি বালক উচ্চ বিদ্যালয়। প্রতি বছরের ন্যায় এবারেও শীর্ষ স্থানীয় ফল ধরে রেখেছে প্রতিষ্ঠানটি।

জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা মো. শামছুল আলম বলেন, প্রতি বছর শিক্ষা অফিস থেকে ফলাফলের একটি কপি প্রেস রিলিজের জন্য আমাদের কাছে পাঠায় কিন্তু এবছর আমাদের কাছে কোন ফলাফলের কপি আসেনি। জেলা প্রশাসনকে ফোন করেও জেনেছি সেখানেও কোন কাগজ আসেনি। ফলে এবারের এসএসসি ফলাফল সম্পর্কে আমি অবগত নই। তাই আপনাদেরকেও না জেনে কিছু বলা উচিত হবে না। আসলে আমি ফলাফল নিয়ে কোন তথ্য জানি না।

;