সুস্থ ত্বক পেতে করা যাবে না যে কাজগুলো

ফাওজিয়া ফারহাত অনীকা, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইফস্টাইল
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ত্বকের পরিচর্যায় কমবেশি যত্ন সকলেই নেন। ঘরোয়া ফেসপ্যাক কিংবা ভালো ব্র্যান্ডের ফেসমাস্ক, যাই ব্যবহার করুন না কেন, কিছু সাধারণ নিয়ম না মানলে সকল পরিচর্যার ফল ভেস্তে যাবে। বরং এই সকল সহজ নিয়মগুলো মেনে চললে ত্বকের পরিচর্যার বিষয়টি সহজ হয়ে যাবে অনেকটা।  

মেয়াদোর্ত্তীর্ণ পণ্য ব্যবহার না করা

মুখের যত্নে যে সকল পণ্য ব্যবহার করা হয়, প্রতিটি পণ্যেরই একটি নির্দিষ্ট মেয়াদ থাকে। সেই মেয়াদ পার হয়ে যাওয়ার পরেও পন্যটি ঠিক আছে ভেবে অনেকেই মেয়াদোর্ত্তীর্ণ পণ্য ব্যবহার অব্যহত রাখেন। যা একেবারেই উচিৎ নয়। মেয়াদ পার হয়ে যাওয়ার পর এই সকল পণ্যের উপযোগিতা হ্রাস পেতে শুরু করে। ফলে কোন উপকারিতা পাওয়া সম্ভব হয় না। উপরন্তু মেয়াদ উত্তির্নের সময় বেশি হয়ে গেলে শুরু হয় কেমিক্যাল রিঅ্যাকশন। যা ত্বকের জন্য মারাত্বক ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়।

সীমিত পরিমাণ সাবান ব্যবহার করা

মুখের ত্বকের যত্নে বিশেষভাবে তৈরি করা সাবানও ব্যবহার করতে হবে বুঝেশুনে। কারণ মুখের ময়লা ও বাড়তি তেল পরিষ্কার করার পাশাপাশি ত্বকের উপর নেতিবাচক প্রভাবও ফেলে দেয়। যতই হালকা (মাইল্ড) ধাঁচের সাবান ব্যবহার করা হোক না কেন, সাবানে ক্ষার থাকবেই। অতিরিক্ত সাবানে ব্যবহার ত্বকের জন্য ক্ষতিকর।

সিস্টিক অ্যাকনে স্পর্শ না করা

সাধারণত মুখে যেকোন ধরণের ব্রণ বা র‍্যাশ দেখা দিলেই হাত দিয়ে স্পর্শ করতে নিষেধ করা হয়। সেখানে সিস্টিক অ্যাকনে হলে অবধারিতভাবেই সতর্কতার মাত্রা বৃদ্ধি পাবে। অনেকেই সিস্টিক অ্যাকনে খুঁচিয়ে পুঁজ বের করেন। যা ত্বকের জন্য প্রচন্ড ক্ষতিকর। এর ফলে একটি অ্যাকনে থেকে পুরো মুখেই অ্যাকনের জীবাণু ছড়িয়ে পড়ে। যার ফলে পরবর্তিতে মুখের বিভিন্ন অংশেই অ্যাকনের সমস্যা দেখা দেয়।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2018/Oct/30/1540889537281.jpg

যেকোন পরিবর্তনে খেয়াল রাখা

ত্বকের ছোটখাটো যেকোন ধরণের পরিবর্তন হয়তো আপনার চোখ এড়িয়ে যায়। যেটা একেবারেই উচিৎ নয়। হয়তো অনেকদিন ধরেই ত্বকে ছোট র‍্যাশ দেখা দিচ্ছে, ত্বকে নতুন দাগ তৈরি হচ্ছে, বহু পুরানো কোন ব্রণ ভালো হচ্ছে না- এমন সকল সমস্যাকে অবহেলা না করে দ্রুত ডার্মাটোলজিস্টের সঙ্গে যোগাযোগ করতে হবে।

সানস্ক্রিনকে ভোলা যাবে না

হোক গ্রীষ্মকাল কিংবা শীতকাল, সানস্ক্রিনকে কোন সময়েই ভোলা যাবে না। রোদের আলো আমাদের জানার অধিক ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে দেয় ত্বকে। অল্প বয়সে বলীরেখা দেখা দেওয়া, ত্বকের অসমান রং, সহ নানান উপসর্গ দেখা দেওয়া শুরু করে রোদের আলোর ফলে। যে কারণে প্রতিদিনের ত্বকের পরিচর্যার সাধারণ রুটিনের মধ্যে অবশ্যই রাখতে হবে ভালো মানের ও পরিচিত কোন ব্র্যান্ডের সানস্ক্রিন।

আপনার মতামত লিখুন :