Barta24

শুক্রবার, ১৯ জুলাই ২০১৯, ৪ শ্রাবণ ১৪২৬

English Version

১৪২৬ বর্ষবরণের আয়োজন

সংগ্রহে রাখার মতো সেরা পাঁচ ‘লাল লিপস্টিক’

সংগ্রহে রাখার মতো সেরা পাঁচ ‘লাল লিপস্টিক’
ছবি: সংগৃহীত
ফাওজিয়া ফারহাত অনীকা
স্টাফ করেসপন্ডেন্ট
লাইফস্টাইল


  • Font increase
  • Font Decrease

লাল মানেই আভিজাত্য, সৌন্দর্য।

হাজারো রংয়ের মাঝে সবচেয়ে বোল্ড ও স্ট্যান্ডআউট রং হিসেবে ধরা হয় লালকে। সাজসজ্জার ক্ষেত্রেও লাল রংয়ের প্রাধ্যান্য থাকে সবচেয়ে বেশি। সময়ের সাথে রংয়ের ধরণ ও ব্যবহার পরিবর্তিত হলেও, লাল রংয়ের আবেদন কমেনি মোটেও।

বিশেষত আমাদের বাঙালি সংস্কৃতির সাজের বিশাল বড় একটি অংশ জুড়ে রয়েছে লালের আধিপত্য। পহেলা ফাল্গুন কিংবা পহেলা বৈশাখে কমন রং লালের উপস্থিতি থাকবেই। এই পহেলা বৈশাখে লাল পাড় সাদা শাড়ি কিংবা রঙিন কুর্তির সঙ্গে পছন্দনীয় লাল রংয়ের লিপস্টিক ছাড়া অপূর্ণ থেকে যাবে পুরো সাজের আয়োজন।

বিভিন্ন ব্র্যান্ডের অসংখ্য লাল রংয়ের শেডের মাঝ থেকে সবচেয়ে আকর্ষণীয় ও জনপ্রিয় পাঁচটি ব্র্যান্ডের পাঁচটি লাল লিপস্টিক বাছাই করা হয়েছে আপনাদের জন্য। বার্তা লাইফস্টাইলের বিশেষ আয়োজনে দেখে নিন এই বৈশাখে সাজের জন্য সেরা পাঁচ লাল লিপস্টিকের বিবরণ।

কালারপপ - আরিবা

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/05/1554450411226.jpg

জনপ্রিয় বিউটি গুরু, ইউটিউবার ও ইন্সটাগ্রামার ক্যারেন সারাহি গঞ্জালেস এর জন্মদিন উপলক্ষে এই স্টারের সাথে কোলাবরেশনে হাই-কোয়ালিটি নতুন প্রডাক্ট লাইন লঞ্চ করে কালারপপ। নতুন সেই প্রোডাক্ট লাইনের লিপস্টিক কালেকশনের একটি হলো আরিবা। যারা একেবারে সিঁদুর লাল লিপস্টিকের খোঁজে আছেন, এই লিপস্টিকের শেডটি তাদের জন্য হাইলি রিকমেন্ডেড। এতো চমৎকার লাল সচারচর দেখা যায় না। কালারপপের আরও বেশ কয়েকটি লাল লিপস্টিকের শেড থাকলেও, আরিবা সবগুলো শেডকে স্ট্যান্ড আউট করে যায় সহজেই।

মিলানি আমোর ম্যাট লিপ ক্রিম - ডিভোশন

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/05/1554450427375.jpg

ডিভোশন শেডটি ডার্ক ব্রিক রেড টিন্ট আনে ঠোঁটে। টকটকে লাল যারা এড়িয়ে চলেন কিন্তু লাল লিপস্টিকের খোঁজ করছেন, তাদের জন্য এই লালটি পারফেক্ট। লাইটওয়েট হওয়ায় লিপস্টিকের প্রলেপ ঠোঁটে বাড়তি ঝামেলা তৈরি করে না। ঠোঁটে ব্যবহারের পর খুব দ্রুত শুকিয়ে যায় বলে ব্যবহারের সময় এক সোয়াচেই ঠোঁট কভার করার চেষ্টা করতে হবে।

জর্ডানা সুইট ম্যাট লিকুইড লিপক্রিম – রেড ভেলভেট কেক

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/05/1554450474077.jpg

লিপস্টিকের নস্টালজিয়া হলো জর্ডানা ব্র্যান্ডটি। পরিচিত ও জনপ্রিয় এই ব্র্যান্ডের লিকুইড ম্যাট লিপ কালার কালেকশনের রেড ভেলভেট কেক শেডটি সংগ্রহে রাখার মতো একটি লিপস্টিক। একেবারে ভেলভেটি ম্যাট ফিনিশ দেওয়া এই লিপ কালারটি খানিকটা গোলাপি ঘেঁষা লাল। হালকা ও মিষ্টি লাল ব্যবহার করতে চাইলে এই শেডটি বেছে নিতে হবে। সবচেয়ে দারুণ বিষয় হলো, ঠোঁটে ব্যবহারের ১৬ ঘন্টা পরেও লিপস্টিক ঠোঁটে খুব ফ্রেশ থাকে।

ম্যাক – রুবি উ

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/05/1554450489007.jpg

ম্যাট ফিনিশের ম্যাক রুবি উ সম্ভবত সবচাইতে বেশি প্রচলিত ও জনপ্রিয় লাল লিপস্টিক। যারা লিকুইড লিপস্টিক ব্যবহার করতে স্বাচ্ছন্দ্য বোধ করেন না কিন্তু ম্যাট লিপস্টিকের খোঁজ করছেন, নির্দ্বিধায় নিয়ে নিতে পারেন ম্যাকের রুবি উ। উজ্জ্বল, ভেলভেটি, টিন্টেড লাল শেডের রুভি উ অন্যান্য যেকোন লাল লিপস্টিককে ছাড়িয়ে গিয়েছে জনপ্রিয়তা ও গ্রহণযোগ্যতার দিক থেকে। অনেকেই রুবি উ এর পাশাপাশি ম্যাকের রাশিয়ান রেডকেও সাজেস্ট করে থাকেন। তবে লাল শেডের সৌন্দর্য বিবেচনায় রুবি উ এগিয়ে থাকবে অনেকখানি।

লরিয়াল স্টার রেড কালেকশন – পিউর রুজ

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Apr/05/1554450508358.jpg

অনেকেই ম্যাকের পণ্য এড়িয়ে চলেন, সেক্ষেত্রে লরিয়ালের পিউর রুজ পারফেক্ট একটি লিপস্টিক। পিগমেন্টেড ও সকল ত্বকের সাথে মানানসই এই লাল শেডটি। ম্যাট ও ড্রাই লিপস্টিক যাদের পছন্দ নয়, তাদের জন্যেও এই লিপস্টিকটি উপযুক্ত অনুষঙ্গ। ক্রিমি টেক্সচারের পিউর রুজ ব্যবহারের পর ৬ ঘন্টা খুব ভালোভাবেই থাকবে ঠোঁটে।

আরও পড়ুন: ‘ডিজনিল্যান্ড ভিলেনস’ থিমে কালারপপ মেকআপ কালেকশন

আরও পড়ুন: লাল লিপস্টিক ব্যবহার করুন সঠিক নিয়মে!

আপনার মতামত লিখুন :

যে তিনটি সময়ে হিটস্ট্রোকের সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি

যে তিনটি সময়ে হিটস্ট্রোকের সম্ভাবনা সবচেয়ে বেশি
দীর্ঘসময় রোদের নিচে থাকা থেকে বিরত থাকতে হবে, ছবি: সংগৃহীত

বিরক্তিকর বৃষ্টি শেষে বাইরে এখন রোদ হাসছে।

বৃষ্টি মানেই যেমন রাস্তায় কাদা-ময়লার ঝক্কি-ঝামেলা, ঠিক তেমনই বাইরে রোদ মানেই হিটস্ট্রোকের সম্ভাবনা। রোদের হাত থেকে বাঁচার জন্য সানস্ক্রিন, ছাতা, পানির বোতল সাথে রাখা হলেও দুঃখের সাথে জানাতে হচ্ছে, এরপরেও হিটস্ট্রোকের ঝুঁকি থেকেই যায়।

হিটস্ট্রোক আসলে কী?

হিটস্ট্রোককে সান স্ট্রোকও বলা হয়। দীর্ঘসময় রোদে থাকার ফলে আমাদের শরীরের তাপমাত্রা যখন অতিরিক্ত বেড়ে যায় তখনই হিটস্ট্রোকের মতো সিরিয়াস কন্ডিশন দেখা দেয়। সাধারণত অতিরিক্ত গরম ও পানিশূন্যতার যোগফলে দেখা দেয় হিটস্ট্রোক।

কার্ডিওলজিস্ট পল মনটানা ডে লা কায়ডেনা, এমডি হিটস্ট্রোক সম্পর্কে জানান, হিটস্ট্রোকে শরীরের অভ্যান্তরিন তাপমাত্রা কমানোর জন্য একটি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে হৃদযন্ত্র ও মস্তিষ্ককে রক্ষা করার জন্য বিভিন্ন প্রত্যাঙ্গের কাজকে বন্ধ করে দেয়।

হিটস্ট্রোক দেখা দেওয়ার পূর্ব লক্ষণগুলোর মাঝে রয়েছে- অতিরিক্ত গরম বোধ হওয়া, ত্বক লালচে হয়ে যাওয়া, মাথা ঘোরানো, বমিভাব, অস্থিরতা ও জ্ঞান হারানো।

কোন সময়গুলোতে হিটস্ট্রোকের সম্ভাবনা বেশি থাকে?

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/19/1563522061165.JPG

হিটস্ট্রোকের ফলে মস্তিষ্ক, কিডনি ও হৃদযন্ত্রের বড় ধরনের ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। এমনকি গুরুত্বর অবস্থা হলে এবং হিটস্ট্রোক দেখা দেওয়ার পর লম্বা সময় কোন ধরনের চিকিৎসা গ্রহণ করা না হলে মৃত্যুর ঝুঁকি দেখা দিতে পারে।

ডাঃ মনটানা হিটস্ট্রোকের ঝুঁকি কমাতে ও সচেতন হতে তিনটি বিষয় ও সময় সম্পর্কে জানিয়েছে, যে সময়গুলোতে হিটস্ট্রোকের সম্ভাবনা থাকে সবচেয়ে বেশি।

বাইরে খেলাধুলা করা

গ্রীষ্মকালে বাইরে খেলাধুলা করার ক্ষেত্রে হিটস্ট্রোকের ঝুঁকি থাকে সবচেয়ে বেশি। বিশেষত যাদের নিয়মিত বাইরে উন্মুক্ত স্থানে অনুশীলন করতে হয়। জুলাই-আগস্ট মাসে একইসাথে তাপমাত্রা ও বাতাসে আর্দ্রতা বেশি থাকে। যার দরুন খুব সহজেই গরম আবহাওয়ায় অতিরিক্ত ঘাম হয় এবং দীর্ঘসময় বাইরে থাকার ফলে হিটস্ট্রোকের ঝুঁকি বেড়ে যায়।

বাইরে কাজ করা

যাদের প্রতিদিন বাইরে ঘুরে কাজ করতে হয়, তাদের জন্য হিটস্ট্রোকের ঝুঁকিটা থাকে সবচেয়ে বেশি। বিশেষত ভারি যন্ত্র বহন করা, দীর্ঘসময় হাঁটাহাঁটি করা, ছায়াযুক্ত স্থানের অভাব, শারীরিক পরিশ্রম বেশি করতে হয়- এমন কাজের ক্ষেত্রে হিটস্ট্রোকের ঝুঁকি থাকে বেশি।

শরীর পানিশূন্য হয়ে যাওয়া

শিশু ও বৃদ্ধ ব্যক্তিরা খুব সহজেই পানি শূন্যতায় ভোগেন। তারা যদি দীর্ঘসময় রোদের নিচে থাকেন ও অতিরিক্ত ঘামেন তবে তাদের হিটস্ট্রোক দেখা দেওয়ার ঝুঁকি বেড়ে যায় বহুগুণ।

হিটস্ট্রোক দেখা দিলে কী করতে হবে?

অসাবধানতায় যদি হিটস্ট্রোক দেখা দেয় তবে রোগীকে দ্রুত ফ্যানের বাতাসযুক্ত স্থানে আনতে হবে এবং পানিতে ভেজানো কাপড় দিয়ে শরীর মুছে দিতে হবে। সেই সাথে রোগীর বগল, ঘাড়, কাঁধ ও পিঠে আইসপ্যাক দিতে হবে। এ সকল স্থানের ত্বকের খুব কাছাকাছি রক্তনালীকা থাকে। ফলে শরীরের তাপমাত্রা দ্রুত কমে যাবে। তবে শিশু ও বৃদ্ধদের ক্ষেত্রে আইসপ্যাক ব্যবহার এড়িয়ে যেতে হবে।

এ সকল ধাপের পর রোগী কিছুটা ধাতস্থ হলেচ পানি পান করাতে হবে এবং চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে।

আরও পড়ুন: প্রচণ্ড গরমেও এড়িয়ে চলুন ঠাণ্ডা পানি!

আরও পড়ুন: ঘরের পরিবেশ থাকুক দূষণমুক্ত

খালি পেটে কফি পান নয়

খালি পেটে কফি পান নয়
ছবি: সংগৃহীত

বহুমুখী স্বাস্থ্য উপকারিতা তো আছেই, কফির সুঘ্রাণ ও সুস্বাদের সাথে দিনের শুরু হওয়া অনেকের জন্যেই বাধ্যতামূলক যেন।

অনেকেই ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে, কোন খাবার না খেয়েই কফির পেয়ালায় চুমুক বসান। কিন্তু একদম খালি পেটে কফি পান করা কতটা উপকারী? খালি পেটে কফি পানে কি তার উপকারিতাগুলো শরীর পরিপূর্ণভাবে পায়?

উত্তরে বলতে হবে, না। একদম খালি পেটে নয়, কফি পান করতে হবে হালকা কোন খাবার খাওয়ার পরেই। একদম খালি পেটে কফি পানের ফলে শরীরে কর্টিসল নিঃসরণের মাত্রা বৃদ্ধি পায়। কর্টিসল শরীরের মেটাবলিজম, রোগ-প্রতিরোধ ক্ষমতা ও মানসিক চাপের উপর প্রভাব বিস্তার করে।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jul/18/1563462138926.jpg

এখন প্রশ্ন হলো, কর্টিসল নিঃসরণের মাত্রা বৃদ্ধি পেলে কি সমস্যা হবে? এখানে উত্তরে বলতে হবে, হ্যাঁ। গবেষণা থেকে দেখা গেছে, খালি পেটে কফি পানের ফলে কর্টিসলের মাত্রা বৃদ্ধি পায়, যা মানসিক চাপ তৈরি করে ও বাড়িয়ে দেয়।

এতে করে খুব দ্রুত মুড বদলে যায় এবং এর ফলে স্বাস্থ্যের উপর দীর্ঘমেয়াদী নেতিবাচক প্রভাব বিস্তার করে। এছাড়া কফি পাকস্থলিস্থ অ্যাসিড নিঃসরণের মাত্রাও বৃদ্ধি করে। যা অ্যাসিডিক প্রভাব তৈরি করে। ফলে বুক জ্বালাপোড়ার মতো সমস্যা দেখা দেয়।

নিজেকে চাঙা রাখতে, সারাদিনের কর্মব্যস্ততার সাথে তাল মিলিয়ে চলতে ও কফির উপকারিতাগুলো পেতে চাইলে সকালে নাশতা সেরে অথবা হালকা কিছু খেয়ে তবেই কফি পান করতে হবে।

আরও পড়ুন: ব্ল্যাক কফি পানে ওজন কমে?

আরও পড়ুন: কতটুকু কফি পান নিরাপদ?

আরও পড়ুন: কফি পানের সঠিক সময় কোনটি?

এ সম্পর্কিত আরও খবর

Barta24 News

আর্কাইভ

শনি
রোব
সোম
মঙ্গল
বুধ
বৃহ
শুক্র