Alexa

আর নয় একই তেলে বারবার খাবার ভাজা

আর নয় একই তেলে বারবার খাবার ভাজা

ছবি: সংগৃহীত

আর মাত্র কদিন পরেই চলে আসবে পবিত্র রমজান মাস।

পুরো মাসব্যাপী রোজার আয়োজনে তেলে ভাজা খাবার থাকার রীতিটি অনেকটাই অলিখিত নিয়ম হয়ে দাঁড়িয়েছে। গরম বেগুনী, পাকোরা, পিঁয়াজু কিংবা চপ ভাজার জন্য বেশ অনেকখানি তেলের প্রয়োজন হয়। দেখা যায় অনেকেই একই তেলে কয়েকদিনের ভাজাপোড়ার কাজ সেরে নেন।

পুরনো তেলে খাবার রান্না করা বা ভাজাপোড়া করলে খুব একটা সমস্যা নেই- এমন ভ্রান্ত ধারনা থেকেই মূলত এই অভ্যাসটি দেখা দেয়। অথচ এই অভ্যাসটির জন্যেই দেখা দেয় নানাবিধ শারীরিক অসুস্থতাসহ ক্যানসারের মতো বড় ধরনের সমস্যাও।

সাম্প্রতিক সময়ে ইউনিভার্সিটি অফ ইলিনয়েসের ল্যাবরেটরিতে ইঁদুরের উপরে পুরনো তেলের একটি পরীক্ষা করা হয়। পরীক্ষার জন্য ইঁদুরদের শরীরে ৪টি১ ব্রেস্ট ক্যানসার সেল ইনজেক্ট করা হয়। এই ইঁদুরদের প্রথম সপ্তাহে লো-ফ্যাট ডায়েটে রাখা হয়। পরবর্তীতে ইঁদুরের একাংশকে ফ্রেশ সয়াবিন তেলে ভাজা খাবার খাওয়ানো হয় এবং বাকিদের পুরনো তেলে ভাজা খাবার দেওয়া হয়।

যার ফলাফল ছিল ভয়াবহ। পুরনো তেলে ভাজা খাবার খাওয়া ইঁদুরদের শরীরে, ফ্রেশ তেলে ভাজা খাবার খাওয়া ইঁদুরের চাইতে চার গুণ বেশি ব্রেস্ট ক্যানসার ছড়িয়ে পড়ার ফলাফল দেখা যায়। শুধু তাই নয়। তাদের ফুসফুসেও টিউমারের অস্তিত্ব পাওয়া যায়।

এখানে একটা বিষয়ে লক্ষ রাখতে হবে। পুরনো তেলে ভাজা খাবার ব্রেস্ট ক্যানসার তৈরি করে না,। তবে গবেষণার ফলাফল জানাচ্ছে শরীরে আগে থেকে থাকা ক্যানসারের বৃদ্ধিতে অবদান রাখে একই তেলে পুনরায় ভাজা খাবার।

পুরনো তেলে ভাজা খাবারে আর কী অপকারিতা রয়েছে সেটা জানাচ্ছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক পত্রিকা মেডিক্যাল নিউজ টুডে। তাদের জার্নালে প্রকাশ করেছে, একই তেল বারবার উচ্চতাপে গরম করে তাতে খাবার ভাজা হলে, তেল থেকে অ্যাক্রোলিন (Acrolein) নামক বিষাক্ত উপাদান নির্গত হয়। এই উপাদানটি অনেকক্ষেত্রে ক্যানসার তৈরি জন্য দায়ী।

‘আমরা সবাইকে এটা বোঝানোর চেষ্টা করছি যে, ক্যানসার বংশগত কিংবা শারীরিকগত ত্রুটির ফলে নয়, নিজের লাইফস্টাইলের ভুলের জন্যেও হয়ে থাকে। যদি সঠিক খাদ্যাভ্যাস ব্রেস্ট ক্যানসারকে কমাতে পারে তবে সেটা সুস্বাস্থ্যও এনে দিতে পারবে।’ এমনটাই বলেছেন পরীক্ষা ও গবেষণাটির প্রধান ডাব্লিউ. অয়েরিফিন।

তাই শুধু রমজানের সময়ে নয়, সবসময়েই পুরনো তেলে ভাজা খাবারের বিষয়ে সচেষ্ট হতে হবে। মূলত এই কারণেই বাইরের তেলে ভাজা খাবার খাওয়ার বিষয়ে নিরুৎসাহিত করা হয় ও ঘরে তৈরি খাবারের প্রতি জোর দেওয়া হয়। তবে ঘরে তৈরি খাবারেও একই তেল একবারের বেশি ব্যবহার না করার প্রতি সচেষ্ট থাকতে হবে।

আরও পড়ুন: বার্গার খাওয়ার পর কী ঘটে শরীরে?

আরও পড়ুন: পেটের মেদ বাড়ছে যে সকল অভ্যাসে

আপনার মতামত লিখুন :