খাবার খাওয়ার পরে চা পান: ভালো নাকি খারাপ?



ফাওজিয়া ফারহাত অনীকা, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, লাইফস্টাইল
খাবার খাওয়ার পর চা পানের অভ্যাস থাকে অনেকের, ছবি: সংগৃহীত

খাবার খাওয়ার পর চা পানের অভ্যাস থাকে অনেকের, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

চা প্রেমীদের কাছে চায়ের চাইতে প্রিয় পানীয় আর কিছুই হতে পারে না।

ধোঁয়াওঠা গরম এক কাপ পছন্দনীয় চায়ের সাথেই যত সখ্যতা। মন খারাপে, আনন্দে, পারিবারিক মিলনে, বন্ধুদের আড্ডায় চা না হলে অপরিপূর্ণ থাকে পুরো আয়োজন।

এদিকে যাদের চা পানের প্রতি আসক্তি রয়েছে, প্রতিবেলা খাবার খাওয়ার পরেই চায়ের প্রয়োজন হয় তাদের। এমন অনেকেই আছেন, সকালের নাশতা, দুপুর ও রাতের ভরপেট খাওয়ার পরপরই চা পান করেন। এই অভ্যাসটি বহু আগে থেকেই চালু হয়ে আসছে অনেকের প্রতিদিনের খাদ্যাভ্যাসে। কিন্তু এই অভ্যাসটি সম্পর্কে কোন প্রশ্ন কি কখনো মাথায় এসেছে?

আদৌ এই অভ্যাসটি স্বাস্থ্যকর কি? খাবার খাওয়ার পরপরই গরম চা পানে কোন স্বাস্থ্যগত ক্ষতি হওয়ার সম্ভবনা আছে কি? এই বিষয়টি নিয়ে আলোচনা উঠে আসবে আজকের এই ফিচারে।

কিছু গবেষণার ফল জানাচ্ছে, খাবার খাওয়ার কিছুক্ষণ পর গ্রিন টি পান করা ভালো অভ্যাস। ভরপেট খাবার খাওয়ার পর উচ্চমাত্রার অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট ও পলিফেনলযুক্ত গ্রিন টি পানের ইতিবাচক দিকগুলো জেনে নিন।

https://img.imageboss.me/width/700/quality:100/https://img.barta24.com/uploads/news/2019/Jun/22/1561195154842.jpg

১. খাবার খাওয়ার পর হারবাল চা অথবা গ্রিন টি অনুঘটক হিসেবে কাজ করে। কারণ এই চা খাদ্য পরিপাকজনিত বেশ কিছু এনজাইম নিঃসরণ বৃদ্ধি করে। যার মাঝে রয়েছে- গ্যাস্ট্রিক রস, স্যালাইভা ইত্যাদি।

২. গ্রিন টিতে থাকা পলিফেনলিক উপাদান পেপসিনের কার্যকারিতা বৃদ্ধি করে। পেপসিনের বৃদ্ধি ডায়েটারি প্রোটিন ভাঙার ক্ষেত্রে উপকারী ভূমিকা পালন করে।

৩. বেশ কিছু জটিল প্রক্রিয়ার মাধ্যমে গ্রিন টিতে থাকা অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট খাদ্য পরিপাকের সাথে সংযুক্ত। এমনকি, খাদ্য পরিপাকের ক্ষেত্রে গ্রিন টিকে উত্তম উপাদান হিসেবে ধরা হয়ে থাকে। ইন্টেসটাইনাল গ্যাস ও বাওয়েল সিনড্রোম (পেটের সমস্যা) দূর করতেও গ্রিন টি উপকারী।

৪. হারবাল চা অথবা গ্রিন টি গ্রহণকৃত খাদ্যের পুষ্টিগুণ শরীরে ভালোভাবে শোষিত হতে সাহায্য করে।

এবারে আসা যাক আসল কথা। বেশিরভাগ মানুষ হারবাল চা বা গ্রিন টি পান করতে পছন্দ করেন না। চা মানেই হলো দুধ চা অথবা রঙ চা। এক্ষেত্রে জেনে নিন খাবার খাওয়ার পর এই চা পানে কি ধরণের পার্শ্ব-প্রতিক্রিয়া রয়েছে।

চায়ে থাকা ট্যানিনের উপস্থিতি

এই সকল চায়ে ট্যানিন আয়রন, জিংক ও ক্যালসিয়ামের মতো মিনারেল শোষণের গতি ধীর করে দেয়। ফলে শরীরে এই সকল পুষ্টি উপাদানের ঘাটতি দেখা দিতে পারে। এমনকি কিছু ক্ষেত্রে ট্যানিনের ফলে কোষ্ঠ্যকাঠিন্যের সমস্যাও দেখা দেয়।

চায়ে থাকা ক্যাফেইনের উপস্থিতি

চায়ে থাকা ক্যাফেইন সম্পর্কে নতুনভাবে আর বলার কিছু নেই। ক্যাফেইন ঘুমের সমস্যা ঘটায়, এটাও নতুন কোন তথ্য নয়। এছাড়া স্টমাক আলসারের সমস্যা বৃদ্ধি করে ক্যাফেইন। অন্যদিকে হার্টবিট রেইটও বৃদ্ধি করে এই উপাদানটি।

সকল আলোচনা শেষে বলা যেতে পারে, খাবার খাওয়ার কিছু সময় বাদে গ্রিন টি পান করা গেলেও, দুধ চা কিংবা রঙ চা পান করা থেকে বিরত থাকাই হবে উত্তম পন্থা।

আরও পড়ুন: বদহজমের জন্য দায়ী যে খাবারটি

আরও পড়ুন: আর নয় একই তেলে বারবার খাবার ভাজা