জমজমাট বিপিএল জুয়া, সর্বশান্ত অনেকেই

আমিনুল ইসলাম জুয়েল, উপজেলা করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, পীরগাছা (রংপুর)
ছবি: সংগৃৃহীত

ছবি: সংগৃৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশের জনপ্রিয় ক্রিকেট টুর্নামেন্ট বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বিপিএল) নিয়ে রংপুরের পীরগাছায় প্রায় ৪৫টি স্পটে চলছে জমজমাট জুয়া বাণিজ্য। এসব আসরগুলোতে জুয়া খেলে অনেকে পথে বসেছেন। আবার অনেকে ঋণগ্রস্ত হয়ে এলাকা ছাড়তে বাধ্য হয়েছেন।

বিপিএল জুয়া বন্ধে অভিযান শুরু করেছে পীরগাছা থানা পুলিশ। বিপিএল খেলাকে কেন্দ্র করে প্রকাশ্যে বাজি ধরে জুয়া খেলার অভিযোগে এক জুয়াড়িকে কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।

শনিবার(২৮ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় পীরগাছা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক জেসমীন প্রধান জুয়া খেলার অভিযোগে পলাশ হোসেন নামের ওই জুয়াড়িকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা অনাদায়ে ১৫ দিনের কারাদণ্ড দেন। দণ্ডপ্রাপ্ত পলাশ হোসেন উপজেলার ছাওলা ইউনিয়নের শিবদেব চর গ্রামের রফিকুল ইসলামের ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, হাট-বাজার থেকে শুরু করে পাড়া- মহল্লার চায়ের দোকান, বাসা-বাড়ি এমনকি যেখানেই টিভি সেখানেই চলছে বাজি ধরা। খেলা শুরু হওয়ার পর থেকে ১০০ থেকে শুরু হয়ে কয়েক লাখ টাকা পর্যন্ত বাজি ধরা হচ্ছে। জুয়ার টাকা যোগান দিতে কেউ কেউ দামি মোবাইল ফোন, ল্যাপটপ, মোটরসাইকেল, সোনার গহনাসহ নানা দামি জিনিসপত্র বন্ধক রাখছে। আর সুদের ব্যবসায়ীরাও থাকছেন জুয়ার বোর্ডের পাশেই।

উপজেলা সদর, চৌধুরাণী, কান্দি, তাম্বুলপুর, সৈয়দপুর, দেউতি, ইাঁকুমারী, পাওটানা ও নেকমামুদসহ প্রায় ৪৫টি স্পটে বিপিএল জুয়া চলছে। ফলে ক্রিকেট জুয়ার ফাঁদে পড়ে সর্বস্বান্ত হচ্ছে শিক্ষার্থীসহ যুবসমাজ।

প্রতিদিন সন্ধ্যায় টিভির পর্দার সামনে খেলার দর্শকের মধ্যে যে ভিড় দেখা যায়, এর প্রতিটিই ছোটখাটো জুয়ার আসর। ম্যাচে জয়-পরাজয়, এক ওভারে কত রান, এক বলে কী হবে, কোন খেলোয়াড় কেমন খেলবে এমন সব কিছুর ওপরই হচ্ছে জুয়া। চায়ের দোকানের এসব ছোটখাটো আসরে পুরো ম্যাচের জয়-পরাজয়ের ক্ষেত্রে একেক ধরনের রেট রয়েছে। তবে সাধারণত ফেবারিট দলের পক্ষে দেড় হাজার ও অপেক্ষাকৃত দুর্বল দলের পক্ষে এক হাজার টাকা ধরে খেলার প্রচলনই বেশি। মাঝারি মাপের জুয়ায় ১০ হাজার ও ১৫ হাজার টাকা রেট দেওয়া হচ্ছে। কেবল ম্যাচে হারজিত নিয়েই বাজি নয়, প্রতি ওভারে ওভারে- এমনকি বলে বলে বাজি ধরছেন ছোট-বড় বাজিকররা। রাস্তার মোড়ের দোকানগুলোতেই বেশি হচ্ছে এ খেলা।

ঠিকানা প্রকাশ না করার শর্তে আনারুল ইসলাম নামের এক বিপিএল জুয়াড়ি বলেন, হরেক রকম বাজি হয়। নির্দিষ্ট কোনো বলে উইকেট পড়বে, সিঙ্গেল-ডাবল রান হবে, নাকি বাউন্ডারি হবে। 

কোনো ওভারে ১০ রানের কম বা বেশি হবে কি না, কিংবা উইকেট পড়বে কি না। ইনিংসে রানের পরিমাণ কিংবা খেলার ফলের ওপর বাজি হয়। ম্যাচে ভালো দলের পক্ষে বাজির হারও বেশি হয়। দরও বেশি ওঠে। ভালো দল হারলে টাকা যেমন বেশি যায়, তেমনি খারাপ দল জিতলে বেশি টাকা আসে।

এ ব্যাপারে পীরগাছা থানার ওসি রেজাউল করিম বার্তা২৪.কম-কে বলেন, বিপিএল ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে জুয়া বন্ধে অভিযান শুরু করা হয়েছে। এ অভিযান অব্যাহত থাকবে। ইতিমধ্যে এক জুয়াড়িকে ভ্রাম্যমাণ আদালতে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

আপনার মতামত লিখুন :