কালনায় দুই মাস ধরে চলছে এক ফেরি

সোহেল মিয়া, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজবাড়ী
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

 

মধুমতি নদী পারাপারে একমাত্র উপায় কালনা ফেরিঘাট। নড়াইলের লোহাগাড়ার কালনা ও গোপালগঞ্জের কাশিয়ানীতে যেতে ব্যবহার করা হয় এই ফেরি ঘাটটি। তবে গত দুইমাস ধরে দুইটি ফেরির মধ্যে একটি নষ্ট হয়ে আছে। যার ফলে একটি ফেরি দিয়ে পার হচ্ছে শত শত যানবাহন। এতে চরম ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে মধুমতি নদী পারের জন্য আসা বিভিন্ন যানবাহনের চালক ও যাত্রীদের।

মাত্র দুই থেকে তিন মিনিটের এই নদী পার হতে যানবাহনগুলোকে ঘাটে অপেক্ষা করতে হচ্ছে ঘণ্টার পর ঘণ্টা। নদী পার হওয়ার জন্য বিকল্প কোনো মাধ্যম না থাকায় ফেরির জন্য অপেক্ষা করতে হচ্ছে। অপরদিকে দীর্ঘ সময় অপেক্ষা না করে ঝুঁকি নিয়েই ছোট ছোট নৌকা দিয়ে নদী পার হচ্ছে সাধারণ যাত্রীরা।

শনিবার (২ ফেব্রুয়ারি) সরেজমিন কালনা ঘাটের উভয় প্রান্তে গিয়ে দেখা যায়, মধুমতি নদী পারের জন্য অপেক্ষা করছে ছোট বড় প্রায় ৪০টির মতো যানবাহন। এর মধ্যে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের পিকনিকের বাসের সংখ্যাই বেশি। মাত্র দুই থেকে তিন মিনিটের নদী পারের জন্য এ সকল যানবাহনগুলোকে অপেক্ষা করতে হচ্ছে প্রায় ঘণ্টাখানেক। আর যারা সাধারণ যাত্রী রয়েছেন তারা ছোট ছোট নৌকায় ঝুঁকি নিয়েই পার হচ্ছেন নদী।

ঝুঁকি নিয়ে নৌকা দিয়ে পার হচ্ছেন সাধারণ যাত্রীরা, ছবি: বার্তা২৪.কম

ঢাকার উদ্দেশে যশোরের নওপাড়া থেকে ছেড়ে আসা পণ্যবাহী ট্রাক চালক রইছ উদ্দিন বার্তা২৪.কমকে বলেন, ‘আমরা নিয়মিতভাবে এ নৌরুট দিয়ে যাতায়াত করে থাকি। আগে দুটি ফেরি চললেও আজ দুই মাস হল একটি ফেরি চলছে। যার কারণে আমাদের ঘাটে এসে বেশি সময় অপেক্ষা করতে হচ্ছে। এছাড়া গত কয়েকদিন ধরে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষা সফরের বাসের অনেক চাপ। যার ফলে আরও বেশি ভোগান্তিতে পড়তে হচ্ছে।’

এই ঘাট দিয়ে প্রতিদিন ছোট বড় প্রায় পাঁচ শতাধিক যানবাহন নদী পার হয় বলে জানিয়েছেন কালনা ঘাটের কাউন্টার মাস্টার হেমায়েত মুন্সী।

আপনার মতামত লিখুন :