পেঁয়াজের দাম কমায় হতাশ কৃষক

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, রাজবাড়ী
রাজবাড়ী আড়তে পেঁয়াজ আনা হচ্ছে

রাজবাড়ী আড়তে পেঁয়াজ আনা হচ্ছে

  • Font increase
  • Font Decrease

হঠাৎ করে পেঁয়াজের দাম কমে যাওয়ায় চরম বিপাকে পড়েছেন রাজবাড়ীর পাংশা, বালিয়াকান্দি, কালুখালী, গোয়ালন্দ ও সদর উপজেলার পেঁয়াজ চাষিরা।

গত দুই থেকে তিন দিন আগেও যে পেঁয়াজ ৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে সেই পেঁয়াজ এখন বাজারে বিক্রি হচ্ছে ৩৫-৪০ টাকা দরে । হঠাৎ করে পেঁয়াজের দাম কমে যাওয়ায় হতাশ এই অঞ্চলের লাখো কৃষক।

সরেজমিন রোববার (১ মার্চ ) বিকালে বালিয়াকান্দি বাজারে গিয়ে দেখা যায়, প্রান্তিক পেঁয়াজ চাষিরা তাদের উৎপাদিত নতুন পেঁয়াজ বিক্রির জন্য বাজারে নিয়ে এসেছেন। কিন্তু দাম শুনে অবাক হয়ে যান তারা। অনেক কৃষক তখনই ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

কোনো উপায় না পেয়ে শেষ পর্যন্ত অল্প দামেই পেঁয়াজ বিক্রি করতে হচ্ছে তাদের। অনেক পেঁয়াজ বিক্রেতা কৃষক তখনই বলেন, বর্তমান বাজারে পেঁয়াজের যে দাম যাচ্ছে তাতে আমাদের উৎপাদনের খরচও ঘরে উঠবে না।

পাইককান্দি গ্রামের কৃষক আলম হোসেন বার্তা২৪.কম-কে বলেন, কয়েক দিন আগেও যে পেঁয়াজ ৮০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হয়েছে সেই পেঁয়াজ আজ আমাদের ৪০ টাকা দরে বিক্রি করতে হচ্ছে। যা আমাদের জন্য ক্ষতি। এভাবে পেঁয়াজের দাম কমে যাবে তা ভাবতেও পারি নাই।

বনগ্রামের আরেক কৃষক তারেক হোসেন বার্তা২৪.কম-কে বলেন, বাজারে সুষ্ঠু মনিটরিং ব্যবস্থা না থাকায় একশ্রেণির অসাধু ব্যবসায়ী আমাদেরকে জিম্মি করে সিন্ডিকেট তৈরি করেছে। প্রশাসনের উচিত বাজার মনিটরিং করে এই সিন্ডিকেট ভেঙে দেওয়া।

বালিয়াকান্দি বাজারের পেঁয়াজ আড়তদার ওসমান গণি মানিক বার্তা২৪.কম-কে বলেন, হঠাৎ করে পেঁয়াজের দাম কমে যাওয়ায় চরম বিপাকে পড়েছেন কৃষক। ভারত তাদের পেঁয়াজ রফতানির ওপর নিষেধাজ্ঞা উঠিয়ে নেওয়ায় পেঁয়াজের দাম কমে গেছে।

তিনি আরও বলেন, এখন বাংলাদেশের কৃষকের পেঁয়াজের উৎপাদনের মৌসুম চলছে। এই মুহূর্তে যদি ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হয় তাহলে কৃষক মারাত্মক অর্থনৈতিক ক্ষতির সম্মুখীন হবে। তাই সরকারের উচিত এই মৌসুমে কোনো পেঁয়াজ আমদানি না করা।

আপনার মতামত লিখুন :