স্বাস্থ্যসেবায় তিস্তা ও ধরলা চরাঞ্চলে সেনাবাহিনী



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, লালমনিরহাট
তিস্তা ও ধরলা চরাঞ্চলবাসীদের চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়, ছবি: বার্তা২৪.কম

তিস্তা ও ধরলা চরাঞ্চলবাসীদের চিকিৎসা সেবা দেওয়া হয়, ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশ্বজুড়ে ভয়াবহ আতঙ্কের এক নাম করোনাভাইরাস। যার প্রাদুর্ভাব বর্তমানে বাংলাদেশেও বেশ দেখা দিয়েছে। তাই জনসচেতনতার ধারাবাহিকতায় লালমনিরহাটের তিস্তা ও ধরলা চরাঞ্চলে কাজ করছেন সেনাবাহিনীর সদস্যরা।

সোমবার (৩০ মার্চ) সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত আদিতমারী উপজেলার তিস্তা নদীর চরাঞ্চলের অসহায় গরীব মানুষকে চিকিৎসা সেবা দিয়েছে সেনাবাহিনীর মেডিকেল ক্যাম্প। একই সঙ্গে করোনাভাইরাস প্রতিরোধে প্রচারণা ও জনসাধারণের মাঝে মাস্ক বিতরণ করেন তারা।

এদিকে, সদর উপজেলার কুলাঘাট ইউনিয়নের ধরলা নদী বেষ্টিত চর খাটামারী গ্রামের শতাধিক মানুষকে স্বাস্থ্যসেবা দিয়েছেন সেনাবাহিনীর সদস্যরা। একইসঙ্গে চরাঞ্চলের অসহায় গরীব মানুষদের প্রাথমিকভাবে মৌসুমি রোগ জ্বর, কাশি, ঠাণ্ডাজনিত রোগের ওষুধ বিনামূল্যে দিয়েছেন তারা। এ চিকিৎসায় সহযোগিতা করেছেন রংপুর ৩৪ ইস্ট বেঙ্গল সেনাবাহিনীর তত্ত্বাবধায়ন ও সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. মেজর কাওসার।

চরাঞ্চলবাসীদের খোঁজখবর নিচ্ছেন সেনা সদস্য ও চিকিৎসক

চরাঞ্চলের অসহায় গরীব মানুষরা বলেন, লোকমুখে করোনা ভাইরাসের কথা শুনেছি। আসলে করোনাভাইরাস কী, এ বিষয় আমাদের কোন ধারণা ছিল না। দিনভর সেনা সদস্যদের প্রচারণায় অনেকটা ধারণা পেয়েছি।

রংপুর ৩৪ ইস্ট বেঙ্গল সেনাবাহিনীর (সিএমএইচ) চিকিৎসক ডা. মেজর কাওসার বলেন, ‘চরাঞ্চলের অসহায় গরীব মানুষরা যাতে চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত না হয়, সে লক্ষ্যেই প্রত্যেকের দ্বারে দ্বারে গিয়ে বিনামূল্যে ওষুধসহ স্বাস্থ্যসেবা প্রদান করা হয়েছে। চরাঞ্চলের মানুষের পাশে বাংলাদেশ সেনাবাহিনী পাশে থাকবে।