গণপরিবহনের বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহারের দাবি

নিউজ ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর শাখার লোগো, ছবি: সংগৃহীত

ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর শাখার লোগো, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

গণপরিবহনের ৬০ শতাংশ বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার করে আগের ভাড়া বহালের দাবি জানিয়েছে ইসলামী আন্দোলন ঢাকা মহানগর দক্ষিণ শাখার নেতৃবৃন্দ।

বুধবার (১২ আগস্ট) ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ ঢাকা মহানগর দক্ষিণের সভাপতি মাওলানা মুহাম্মদ ইমতিয়াজ ও সেক্রেটারী মাওলানা এবিএম জাকারিয়া গণমাধ্যমে পাঠানো বিবৃতিতে এ দাবি জানান।

বিবৃতিতে তারা বলেন, গণপরিবহনে যাতায়াত করে থাকেন নিম্ন ও মধ্যবিত্তের মানুষ। বাসভাড়া দ্বিগুণ করার প্রস্তাবের পর সারাদেশে সাধারণ মানুষ প্রতিমুখর হয়ে উঠেন। কিন্তু জনগণের দাবির প্রতি কোনো ধরনের তোয়াক্কা না করে গণপরিবহণের ভাড়া ৮০ শতাংশ বাড়ানোর প্রস্তাব করা হয়। পরে তা ৬০ শতাংশ বাড়িয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে কার্যকরও করা হয়। ফলে জনদুর্ভোগ বাড়ে।

নেতৃদ্বয় আরও বলেন, করোনা সংকট রয়ে গেলেও দেশে এখন কোনো গণপরিবহনেই স্বাস্থ্যবিধি মানা হচ্ছে না। যেসব শর্ত অনুসরণ করে বর্ধিত ভাড়া আদায়ের কথা বলা হয়েছিল, তার কোনোটাই মানা হচ্ছে না বাসগুলোতে। সেই পুরনো কায়দায় গাদাগাদি করে যাত্রী বহন করা হচ্ছে। বাস্তবতার নিরিখে দেখা যাচ্ছে, করোনাকালের ক্ষতি পুষিয়ে নেওয়ার জন্য বর্ধিত ৬০ শতাংশ ভাড়ার চেয়েও অধিকাংশ রুটে বেশি ভাড়া আদায় করা হচ্ছে। এতে করোনা সংকটে কর্মহীন ও আয় কমে যাওয়া দেশের সাধারণ মানুষের যাতায়াত দুর্বিষহ হয়ে উঠেছে।

মহানগর নেতৃদ্বয় বলেন, সরকার যাত্রী প্রতিনিধি বাদ দিয়ে মালিকদের নিয়ে বৈঠক করে এই সংকটে জনগণের ওপর একচেটিয়াভাবে বাসের ভাড়া ৬০ শতাংশ বাড়িয়ে দেয়। এ ঘোষণার পর পরই দেশব্যাপী চলাচলরত বাস-মিনিবাসের সঙ্গে লেগুনা, হিউম্যান হলার, টেম্পো, অটোরিকশা, প্যাডেলচালিত রিকশা, ইজিবাইক, নসিমন-করিমন ও টেক্সিক্যাবসহ সব যানবাহনের ভাড়া প্রায় দ্বিগুণ হয়ে যায়। এতে যাত্রী স্বার্থ চরমভাবে উপেক্ষিত হচ্ছে। সাধারণ মানুষ নিদারুণ কষ্টে চলাচল করছে।

এই দুই নেতা অবিলম্বে স্বাস্থ্যবিধির নামে গণপরিবহনের বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার করে দেশের প্রতিটি রুটের ভাড়া পূর্বের অবস্থায় ফিরিয়ে আনার প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেওয়ার দাবি জানান।

আপনার মতামত লিখুন :