ধামতীর পীরের জানাজায় লাখো মানুষের ঢল, দাফন সম্পন্ন



ইসলাম ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ধামতীর পীরের জানাজায় লাখো মানুষের ঢল, ছবি: সংগৃহীত

ধামতীর পীরের জানাজায় লাখো মানুষের ঢল, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

কুমিল্লার ঐতিহ্যবাহী ধামতী দরবারের পীর এবং ধামতী ইসলামিয়া কামিল মাদরাসার সাবেক অধ্যক্ষ, উস্তাজুল ওলামা মাওলানা আবদুল হালিমের দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৩ সেপ্টেম্বর) বাদ জোহর ধামতী ইসলামিয়া কামিল মাদরাসা ময়দানে নামাজে জানাজার পর মাদরাসা সংলগ্ন কবরস্থানে মরহুমকে দাফন করা হয়।

লাখো জনতার উপস্থিতিতে মরহুম পীর সাহেব হুজুরের জামাতা ঢাকা রহিম মেটাল জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মাহমুদুল হাসান মমতাজী জানাজা নামাজে ইমামতি করেন।

পীর সাহেব হুজুরকে শেষবারের মতো দেখতে লাখো জনতা উপস্থিত হয়। এ পর্যায়ে জনস্রোতে পরিণত হয় ধামতী মাদরাসা ময়দান।

জানাজায় স্থানীয় আলেমরা ছাড়াও দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ছুটে আসেন দেশের প্রখ্যাত পীর মাশায়েখ, আলেম, এবং মাদরাসার সাবেক শিক্ষার্থী ও হুজুরের ভক্তবৃন্দ।

জানাজা পূর্ব বক্তব্যে বক্তারা বলেন, মাওলানা আবদুল হালিম (রহ.) সারাজীবন দ্বীনের ওপর অবিচল থেকেছেন। মাদরাসার ছাত্র-শিক্ষক ও পড়ালেখার উন্নতির জন্য নিরলস পরিশ্রম করেছেন। সর্বদা সুন্নতের অনুসরণ ও তাকওয়াকে অবলম্বন করে জীবন পরিচালনা করেছেন।

জানাজার আগে পীর সাহেব হুজুরের স্মৃতিচারণ করে বক্তব্য রাখেন, হুজুরের জামাতা ছারছিনা দরবারের পীর শাহ সাইফুল্লাহ সিদ্দিকী, ছারছিনা দরবারের ছোট পীর শাহ আরিফ বিল্লাহ সিদ্দিকী, আড়াইবাড়ি দরবারের পীর মাওলানা গোলাম সারোয়ার সাঈদী, নাগাইশ দরবারের পীর মাওলানা মুশতাক ফয়েজী, ঢাকা মিছবাহুল উলুম কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা শাহজাহান মাদানী, হাজীগঞ্জ আহমদিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ মাওলানা ড. হেফজুর রহমান, প্রখ্যাত মুফাসসিরে কোরআন মাওলানা ড. আবুল কালাম আজাদ বাশার, মাওলানা সাদিকুর রহমান আজহারি, মুফতি আমিমুল ইহসান, ঢাকার মাইলস্টোন কলেজের সহকারী অধ্যাপক মাওলানা মুহাম্মদ ছফিউল্লাহ হাশেমী ও মাওলানা মোল্লা নাজিম উদ্দীন প্রমুখ।

বুধবার দুপুর ৩টায় নিজ বাড়িতে মাওলানা আবদুল হালিম (রহ.) ইন্তিকাল করেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৭৮ বছর।

উল্লেখ্য, মাওলানা আবদুল হালিম (রহ.) প্রায় ৩০ বছর ঐতিহ্যবাহী দীনি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ধামতী ইসলামিয়া কামিল মাদরাসার অধ্যক্ষ হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন এবং মৃত্যুকাল পর্যন্ত ধামতী দরবারের পীর হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এ কারণে দেশ-বিদেশে তার অনেক ছাত্র, ভক্ত ও গুণগ্রাহী রয়েছে। তাছাড়া তিনি অনেক উঁচু মাপের বুজুর্গ ব্যক্তি ছিলেন। মৃত্যু পর্যন্ত তিনি ইলম ও দ্বীনের বহু খিদমত আঞ্জাম দিয়েছেন। তার হাতেগড়া বহু আলেম দ্বীনের বিভিন্ন খেদমতে আছেন।