ভারতে খরচ বাড়ছে করোনাকালের হজযাত্রায়



ইসলাম ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
কাবা শরীফ, মক্কা, সৌদি আরব, ছবি: সংগৃহীত

কাবা শরীফ, মক্কা, সৌদি আরব, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ভারতীয় মুসলমানদের হজের খরচ বাড়ছে। তবে বাড়ছে না পশ্চিমবঙ্গ থেকে হজযাত্রীর সংখ্যা। নির্দিষ্ট কোটার চেয়ে বেশি সংখ্যক আবেদনকারী হলে উন্মুক্ত লটারির মাধ্যমে হজযাত্রী নির্বাচন করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পশ্চিমবঙ্গ হজ কমিটি। খবর আনন্দ বাজারের।

২০২১ সালের হজযাত্রার যে পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে, তাতে পশ্চিমবঙ্গ থেকে মাত্র সাড়ে তিন থেকে চার হাজার জন হজ পালনের সুযোগ পাবেন। ২০১৯ সালে পশ্চিমবঙ্গ থেকে হজ পালনকারীর সংখ্যা ছিল ১৭ হাজার ৮৩৫ জন। ওই বছর জন প্রতি খরচ হয়েছিল ২ লাখ ৬৫ হাজার টাকা। এ বার হজে যেতে হলে জমা দিতে হবে ৩ লাখ ৭৫ হাজার টাকা। অর্থাৎ ১ লাখ ১০ টাকা বেশি। খরচ আরও বাড়তে পারে বলে হজ কমিটির পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে। আর সেভাবেই প্রস্তুতি নিতে বলা হচ্ছে।

সম্প্রতি রাজ্য হজ কমিটির পক্ষ থেকে জেলা প্রশাসকদের চিঠি দিয়ে হজপালনেচ্ছুকদের আবেদন করতে বলা হয়েছে। ১২ ডিসেম্বর পর্যন্ত ৩০০ টাকার বিনিময়ে আবেদন জমা দেওয়া যাবে বলে চিঠিতে বলা হয়।

করোনা পরিস্থিতির কারণে সৌদি সরকার এ বার হজের সময় ভিড় এড়াতে নানা পদক্ষেপ করেছে। ২০২১ সালের হজে ১৮ থেকে ৬৫ বছর বয়সিরা যেতে পারবেন। এর চেয়ে বেশি বয়স্করা আপাতত হজে যেতে পারবেন না। মক্কা-মদিনাতে ৩০-৩৫ দিনের হজযাত্রা হবে এ বার। আগে বাইরে থেকে খাবার খাওয়ার সুযোগ ছিল, এবার থেকে সেটা থাকবে না। পরিবহনের ক্ষেত্রেও কড়াকড়ি থাকবে। এসব বিষয় জানিয়ে চিঠিতে বলা হয়েছে, ২ লাখ কোটার মধ্যে ভারত থেকে খুব বেশি হলে ৫০ হাজার যাত্রীকে হজে যাওয়ার অনুমতি দিতে পারে সৌদি সরকার।

আনন্দ বাজারের প্রতিবেদনে রাজ্য হজ কমিটির বরাতে বলা হয়েছে, অন্য সময় এক জন হজযাত্রীর জন্য ৪ বর্গমিটারের থাকার ব্যবস্থা করা হত। এ বার করোনার জন্য দূরত্ববিধি মেনে ৯ বর্গমিটার স্থানে এক জনের থাকার ব্যবস্থা করা হবে। সে জন্য আজিজিয়ায় একটি রুমে মাত্র ৩ জন থাকতে পারবেন, আগে ৫-৬ জন এক ঘরে থাকতেন। এ বার যাওয়ার আগে প্রত্যেক যাত্রীর করোনা পরীক্ষা হবে। রিপোর্ট নেগেটিভ এলে তার পর তাদের সৌদি আরব যাওয়ার অনুমতি মিলবে। সৌদি যাওয়ার আগে, মক্কায় পৌঁছে এবং হজ শেষে ফেরত এসে বাধ্যতামূলক কোয়ারেন্টাইনে থাকতে হবে হাজীদের।

এসব নিয়ম মানতে যেয়ে হজের খরচ বাড়বে বলে জানিয়েছেন হজ কমিটি কর্তৃপক্ষ। ফলে ২০২১ সালে হজে যেতে হলে সরকারি খরচ ও আনুষঙ্গিক খরচ মিলিয়ে জনপ্রতি সাড়ে চার থেকে পাঁচ লাখ টাকা খরচ হতে পারে বলে মনে করছেন তারা।

হজ কমিটি এটা বলছে, হজযাত্রার ব্যয় বাড়বে এটা ঠিক। কিন্তু চূড়ান্ত পরিমাণ এখনই বলা যাচ্ছে না। এটা জানা যাবে মার্চ মাস নাগাদ।

২০১৯ সালে ভারত থেকে হজ করেছেন ১ লাখ ৭০ হাজার জন। পরে অবশ্য ভারতের জন্য হজযাত্রীদের কোটা ৩০ হাজার বাড়িয়ে ২ লাখ করার সিদ্ধান্ত নেয় সৌদি আরব। কিন্তু ২০২০ সালে করোনার জন্য বিদেশিদের জন্য হজের অনুমতি না থাকায় কাউকে পাঠাতে পারেনি ভারত।

এদিকে বিদেশিদের জন্য উমরা ভিসা চালু হলেও এখন পর্যন্ত ভারতে করোনার প্রকোপ না কমায় এখনও উমরার অনুমতি মেলেনি।