দোকানপাট খোলা রাখার সময় বেঁধে দিল মসিক



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, ময়মনসিংহ
ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশন

  • Font increase
  • Font Decrease

ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের (মসিক) আওতাধীন এলাকায় কাঁচাবাজার ও নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের দোকানপাট খোলা রাখার সময় বেঁধে দেওয়া হয়েছে। সে অনুযাযী, শুক্রবার (৩ এপ্রিল) থেকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত সকল মুদি দোকান সকাল ৭টা থেকে বেলা ১টা পর্যন্ত এবং সকল কাঁচামালের দোকান সকাল ৭টা থেকে সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত খোলা রাখা যাবে।

বৃহস্পতিবার (২ এপ্রিল) দুপুরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মেলন কক্ষে অনুষ্ঠিত করোনাভাইরাস প্রতিরোধে জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সিদ্ধান্তের আলোকে এ নির্দেশনা দিয়েছেন মসিক মেয়র মো. ইকরামুল হক টিটু।

জেলা দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কমিটির সভায় মেয়র করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রোধে ময়মনসিংহ সিটি করপোরেশনের গৃহীত নানা কর্মসূচি তুলে ধরেন এবং মানুষের সুরক্ষার স্বার্থে সিটি করপোরেশন আরোপিত বিভিন্ন সিদ্ধান্তের (অটো, সিএনজি, চায়ের দোকান, হোটেল-রেঁস্তোরা বন্ধ রাখা) প্রয়োগ আরও জোরদার করার নির্দেশনাও প্রদান করেন।

মেয়র ইকরামুল হক টিটু বলেন, ‘কিছু মানুষ খাদ্য বিতরণের নামে নিজের ও অন্যের নিরাপত্তার নিশ্চিত না করেই খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করছে, যা আমাদের আতঙ্কিত করে। বিভিন্ন খাদ্য বিতরণকে সমন্বিত করতে হবে যাতে যথাযথ মানুষকে এবং যাদের প্রয়োজন তাদের সবাইকে খাদ্য বিতরণ সম্ভব হয় এবং অবশ্যই খাদ্য নিরাপত্তার সাথে করোনার নিরাপত্তাও যেন নিশ্চিত হয় সে বিষয়ে অধিক মনোযোগী হতে হবে।’

মোংলায় ৩শ’ বিঘার চিংড়ি ঘের লুট



ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, মোংলা (বাগেরহাট)
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

মোংলায় আওয়ামী লীগের ৩শ’ বিঘার একটি চিংড়ি ঘের লুটের অভিযোগ পাওয়া গেছে প্রতিপক্ষের লোকজনের বিরুদ্ধে। ওই ঘেরটি দখলের নেওয়ার জন্য প্রতিপক্ষের লোকজন দীর্ঘদিন ধরেই নানা ধরণের অপতৎপরতা চালিয়ে আসছেন বলেও অভিযোগ রয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার (১৯ মে) ভোরে উপজেলার সুন্দরবন ইউনিয়নের বাঁশতলা গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

প্রতিপক্ষরা এ সময় আওয়ামী লীগ নেতা ও ঘের মালিক আঃ সালাম শেখের ছেলে মো. মুরাদ শেখ (৩৫) ও ঘেরের চৌকিদার মো. মুতাছিন শেখের (৩০) গলায় ধারালো অস্ত্র ধরে হাত ও পা বেঁধে ৬০ কেজি বাগদা চিংড়িসহ অন্যান্য প্রজাতির মাছ লুট করে নেয়। এ ঘটনায় বাঁশতলা গ্রামের বাসিন্দা সুন্দরবন ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ. সালাম শেখ বাদী হয়ে ১৫ জনকে অভিযুক্ত করে থানায় একটি অভিযোগ দিয়েছেন।

ঘের মালিক আ. সালাম শেখ জানান, উপজেলার সুন্দরবন ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার ও ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মো. ইস্রাফিল শেখের লোকজন মো. মনিরুল শেখ (৩৫), মো. সালাম ফকির (৪৫), মো. খবির শেখ (৩২), মো. শামীম ফকির (২৫), মো. সাইদ শেখ (২৬), মো. ইমরান শেখ (২৮), মো. শেরামিন ফকির (২৯), মো. রাসেল শেখ (২৭), মো. নাহিদ গাজী (৩০), মো. মাসুদ শেখ (৩২), মো. একলাজ শেখ (২৫), মো. দুলাল শেখ (২৬), মো. রিকু গাজী (৩০), মো. ছউদ খাঁন (৩৩) ও মো. হাদী মল্লিক (২৮) দীর্ঘদিন ধরে তার চিংড়ি ঘের দখলে নেওয়ার পায়তারা চালিয়ে আসছেন।

তারই ধারাবাহিকতায় বৃহস্পতিবার (১৯ মে) ভোরে তার ওই ৩শ’ বিঘার চিংড়ি ঘেরে দেশীয় ধারালো অস্ত্র (রামদা) নিয়ে ঢুকে তার ছেলে ও ঘেরে থাকা চৌকিদারকে ওই অস্ত্রের মুখে জিম্মি করে হাত-পা বেঁধে ৬০ কেজি মাছ, ছেলের কাছে থাকা ৩০ হাজার টাকা মূল্যের এন্ড্রয়েড ফোন, এক ভরি ওজনের স্বর্ণের চেইন, বিদেশি টর্চ লাইট, নগদ ১০ হাজার টাকাসহ অন্যান্য মালামাল লুট করে নিয়ে যায়।

তিনি আরো বলেন, ইউপি মেম্বার ও যুবলীগ নেতা মো. ইস্রাফিল শেখের লোকজন ঘেরটি দখলে নেয়ার জন্য অপচেষ্টা চালাচ্ছেন। এর আগেও তারা আমার এই ঘেরে হামলা ও লুটপাট চালিয়েছেন। মূলত তার ঘের দখল ও ঘেরের ভাগা নেয়ার জন্য প্রতিপক্ষ এসব কাণ্ড করছেন।

এ ঘটনায় উল্লেখিত ব্যক্তিদের বিরুদ্ধে আঃ সালাম শেখ বৃহস্পতিবার দুপুরে থানায় একটি অভিযোগ দিলেও পুলিশ এখনও পর্যন্ত কোন ব্যবস্থা নেয়নি বলে জানান তিনি।

তিনি বলেন, অভিযোগ দিয়ে আসার পর এখনও পুলিশ আসেনি।

এ বিষয়ে মোংলা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম বলেন, এ সংক্রান্ত একটি অভিযোগ পেয়েছি, তদন্ত করে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

এদিকে, সুন্দরবন ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার ও ওয়ার্ড যুবলীগের সভাপতি মো. ইস্রাফিল শেখ বলেন, যাদের নামে থানায় অভিযোগ দায়ের হয়েছে তারা সবাই আমার লোক এটা ঠিক, কিন্তু তারা যে এ ঘটনার সাথে জড়িত তার প্রমাণ কি?

;

প্যারিসে বৃষ্টিমুখর একটি সন্ধ্যা



আছিয়া খাতুন, রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়
ছবি: বার্তা২৪.কম

ছবি: বার্তা২৪.কম

  • Font increase
  • Font Decrease

সূর্যের প্রচণ্ড আঁচে গা পুড়ে যায় যায় অবস্থা। প্রচণ্ড এই গরমে শরীর ঘেমে গোসল হবার উপক্রম। তপ্ত দিনটির সন্ধ্যা নামার সাথে সাথে নামল ঝুম বৃষ্টি। বৃষ্টির এমন স্বস্তির পরশ স্পর্শ করতে কার না মন চায়। আর সেটা যদি হয় রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের প্যারিস রোড তাহলে তো কথায় নেই!

প্যারিস রোডের সৌন্দর্য এমনিতে সকলের চোখ ধাঁধিয়ে দেয়। আর সেখানকার বৃষ্টিতো আরও নজরকাড়া। এই রোডের সুউচ্চ গগণ শিরিষ গাছগুলোর কচি পাতা দিয়ে টুপটাপ ছন্দময় বৃষ্টি সবাইকে টানবে ভিজার জন্য!

তাইতো বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় বৃষ্টি নামার সঙ্গে সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের বৃষ্টি বিলাসের ধুম পড়ে এই রোডে। দেখা যায়, অনেকে ছাতা হতে একসময় এই রোডে দাঁড়িয়ে বৃষ্টি উপভোগ করলেও একসময় লোভ সামলাতে না পেরে ছাতা বন্ধ করে ভিজেছে বৃষ্টিতে। অনেকে আবার পলিথিন ব্যাগে নিজেদের মোবাইল ফোন ও প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র রেখে ভিজতে শুরু করে তাদের প্রাণের প্যারিস রোডে।

তবে বিশেষজ্ঞরা বলছেন বৃষ্টির সময় প্যারিস রোডে না ভেজাই উত্তম। এই রাস্তার গাছগুলো সুউচ্চ হওয়ায় বজ্রপাতের সম্ভাবনা বেশি। তাই শিক্ষার্থীদের তারা বৃষ্টির সময় প্যারিস রোডে ভিজতে নিরুৎসাহিত করছেন।

;

সাউথইস্ট ব্যাংক ও হাব’র মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
সাউথইস্ট ব্যাংক ও হাব’র মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত

সাউথইস্ট ব্যাংক ও হাব’র মধ্যে সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত

  • Font increase
  • Font Decrease

সম্প্রতি সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেড এবং হজ্জ্ব এজেন্সিজ এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর করেছে।

সাউথইস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক জনাব এম. কামাল হোসেন এবং হজ্জ্ব এজেন্সিজ এসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) -এর সম্মানিত প্রেসিডেন্ট জনাব এম শাহাদাত হোসেন তসলিম নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পক্ষে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। এর মাধ্যমে পবিত্র হজ্জ্ব পালনে ইচ্ছুক সম্মানিত হজ্জ্ব যাত্রীদের সেবা প্রদানকারী হজ্জ্ব এজেন্সিগুলোর অভিভাবক ‘হাব’ এর সম্মানিত সদস্যদের হজ্জ্ব সংক্রান্ত ফি এবং অন্যান্য খরচ ব্যাংকিং চ্যানেলের মাধ্যমে জমা দেওয়ার জন্য সাউথইস্ট ব্যাংকের আকর্ষণীয় সার্ভিস ও বিশেষ সেবা সমূহ রয়েছে।

সাউথইস্ট ব্যাংক লিমিটেড ‘হাব’ সদস্যদের কোন চার্জ ছাড়াই প্রিপেইড হজ্জ্ব কার্ড এবং ডুয়েল কারেন্সি ডেবিট /ক্রেডিট (ভিসা এবং মাস্টার কার্ড) ইস্যু করে ‘হাব’ সদস্যদের সেবা প্রদান করবে। এছাড়াও, ব্যাংক হজ্জ্ব এজেন্সীগুলোকে সৌদী আরবের যে কোন ব্যাংকে একাউন্ট খুলতে সহায়তা করবে এবং সেই একাউন্টের মাধ্যমে বাড়ি ভাড়া এবং অন্যান্য অনুমোদিত খরচ প্রদানের জন্য সহযোগিতা করবে। ‘হাব’ সদস্যরা কোন চার্জ ছাড়াই ব্যাংকের যে কোন শাখায় অনলাইন ক্লিয়ারিংয়ের জন্য নগদ ও চেক জমা দিতে পারবেন।

উক্ত সমঝোতা স্মারক অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে, ব্যাংকের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালকদ্বয়, প্রধান কার্যালয়ের নির্বাহীবৃন্দ, কয়েকটি শাখার শাখা ব্যবস্থাপক এবং ‘হাব’ এর উর্ধ্বতন পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।

;

‘শ্রীলঙ্কার কথা বলে দেশে বিশৃঙ্খল পরিস্থিতি সৃষ্টির চেষ্টা চলছে’



সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী

নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী

  • Font increase
  • Font Decrease

শ্রীলঙ্কার পরিস্থিতির কথা বলে দেশে বিশৃঙ্খলা পরিস্থিতি ও আতঙ্ক সৃষ্টির চেষ্টা চলছে বলে জানিয়েছেন নৌপরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী।

বৃহস্পতিবার (১৯ মে) ঢাকায় সদরঘাট নৌবন্দরে এম.ভি সুন্দরবন-১০ লঞ্চে ‘নৌ নিরাপত্তা সপ্তাহ-২০২২’ এর আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন কালে তিনি এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, দেশের নিরাপত্তা যাতে বিঘ্ন করতে না পারে সেদিকে সতর্ক থাকতে হবে। করোনা পরবর্তী ইউক্রেন-রাশিয়ার যুদ্ধ পরিস্থিতিতে সারাবিশ্ব টালমাটাল। সেখানে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দক্ষ নেতৃত্বের কারণে বাংলাদেশ দাঁড়িয়ে আছে।

তিনি বলেন, দায়িত্বহীন মানুষেরা দেশ চালিয়েছিলেন বলে আমরা নিরাপত্তা দিতে পারিনি। এখন প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা দেশ চালাচ্ছেন বলে নিরাপত্তা দিতে পারছি। সড়ক, রেলপথে অনেক উন্নয়ন হয়েছে। এমনকি আকাশ পথে বিমান চলাচলের ক্ষেত্রেও উন্নয়ন হয়েছে। নৌপথেও উন্নয়ন হয়েছে। হাজার হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ হচ্ছে। আরো বাজেট আসবে। সেগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে।

খালিদ মাহমুদ চৌধুরী বলেন, আজকে আমরা নদী ও নৌপথ নিয়ে চিন্তা ভাবনা করছি। কিন্তু অত্যন্ত দূরদৃষ্টি সম্পন্ন মহাবিজয়ের মহানায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সেই পঞ্চাশের দশক থেকে নদী ব্যবস্থাপনার প্রয়োজনীয়তা সম্পর্কে ভাবতেন। তিনিই এদেশের সমুদ্র, নদ-নদী, নৌপথ এবং নৌপরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়নের প্রথম পথ প্রদর্শক।

তিনি বলেন, ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্টের সেই কলঙ্কিত অধ্যায় ও রাজনৈতিক পট পরিবর্তনের মধ্য দিয়ে সবকিছুই যেন ওলট পালট হয়ে যায়। ২০০৯ সালের শুরুতে বঙ্গবন্ধুর সুযোগ্য কন্যা প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আওয়ামী লীগ রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় আসীন হওয়ার পর পরই নেওয়া হয়েছে নানাবিধ উদ্যোগ।

নৌপ্রতিমন্ত্রী বলেন, বিলুপ্ত ও বেদখল হওয়া নদীগুলোকে পুনরুদ্ধার করে খননের মাধ্যমে প্রবাহমান করা এবং নৌপরিবহন ব্যবস্থার উন্নয়নের কঠিন কাজে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী নিজেই নেতৃত্ব দিচ্ছেন। হারিয়ে যাওয়া নৌপথ উদ্ধার ড্রেজার সংগ্রহের ওপর গুরুত্ব দিয়েছেন। নৌপথের নাব্যতা বজায় রাখার লক্ষ্যে স্বাধীনতার পর বঙ্গবন্ধু সাতটি ড্রেজার সংগ্রহ করেছিলেন। ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর আর কোন ড্রেজার সংগ্রহের উদ্যোগ নেয়া হয়নি। আওয়ামী লীগ সরকার এ পর্যন্ত ৪০টি ড্রেজার সংগ্রহ করেছে; আরো ৩৫টি ড্রেজার সংগ্রহের কাজ চলমান রয়েছে।

উল্লেখ্য, নৌপথে চলাচলরত নৌযান ও নৌযানে চলাচলকারী যাত্রী সাধারণের নিরাপত্তা নিশ্চিতকরণে এবং নৌপথকে দূষণমুক্ত রাখার উদ্দেশ্যে সংশ্লিষ্ট সকলকে উদ্বুদ্ধকরণের জন্য প্রতি বছর নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সার্বিক তত্ত্বাবধানে নৌপরিবহন অধিদপ্তরের উদ্যোগে নৌ নিরাপত্তা সপ্তাহ পালন করা হয়ে থাকে।

নৌপরিবহন অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কমডোর এ জেড এম জালাল উদ্দিনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সম্মানিত সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা মেজর (অবঃ) রফিকুল ইসলাম, বীর উত্তম, এমপি; সংসদ সদস‍্য এস এম শাহজাদা, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের সম্মানিত সচিব মোহাম্মদ মেজবাহ্ উদ্দিন চৌধুরী; বিআইডব্লিউটিসি’র চেয়ারম্যান আহমেদ শামীম আল রাজী; বিআইডব্লিউটিএ’র চেয়ারম্যান কমডোর গোলাম সাদেক; বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ চলাচল (যাপ) সংস্থার সাবেক প্রধান উপদেষ্টা গোলাম কিবরিয়া টিপু এমপি; বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ চলাচল (যাপ) সংস্থার সহ-সভাপতি বদিউজ্জামান বাদশ; বাংলাদেশ কার্গো ভেসেল ওনার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক মো. নুরুল হক, নৌপরিবহন অধিদফতরের প্রধান প্রকৌশলী মনজুরুল কবীর এবং বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি শাহ আলম ভূইয়া।

;