টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের থেকে আইপিএল কম নয়: গম্ভীর



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় ফ্র্যাঞ্চাইজি ক্রিকেট লিগ কোনটা? বেশিরভাগ ক্রিকেট দর্শক ও সমর্থকরাই বলবেন- ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল)। বিশ্বের অন্য যেকোনো ঘরোয়া ক্রিকেট লিগ আইপিএলের উদ্দীপনা এবং উন্মাদনার কাছে কিছুই না। এবার একই প্রসঙ্গে কথা বলতে যেয়ে ভারতের সাবেক ব্যাটার এবং কলকাতা নাইট রাইডার্সের বর্তমান মেন্টর গৌতম গম্ভীর বললেন যে, আইপিএলের জনপ্রিয়তা টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের চেয়ে কম কিছু নয়।

অর্থের বা খরচের কথাই ধরুন অথবা তারকা ক্রিকেটারদের মিলনমেলা বলুন, আইপিএল এসব ক্ষেত্রে সবার ওপরেই অবস্থান করছে। টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটের এই ঘরোয়া লিগকে অনেকদিকেই টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের সঙ্গে তুলনা দেওয়া যেতেই পারে। এমনকি গম্ভীর তো এমনটাও মনে করেন যে, আইপিএলের জনপ্রিয়তা বিশ্বকাপের চেয়েও বেশি।

সম্প্রতি এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেছেন, ‘এটিই আইপিএলের সৌন্দর্য। সেই কারণেই এই প্রতিযোগিতাকে বিশ্বের সবচেয়ে কঠিন প্রতিযোগিতা বলা হয়। আমার তো মনে হয় আইপিএল টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের থেকে কোনো অংশেই কম নয়।‘

আইপিএলের প্রতি আসরেই হাড্ডাহাড্ডি লড়াই শেষ প্লে-অফে জায়গা করে নেয় শীর্ষের চার দল। সেখানেও নিজেদের মধ্যে বেশ কঠিন প্রতিযোগিতার পরেই ফাইনালের টিকিট কাটে দুই দল যারা সবশেষে শিরোপার লড়াইয়ে মাঠে নামে। আইপিএলের চলতি আসরেও দেখা মিলেছে এরকম দুর্দান্ত কিছু প্রতিযোগিতামূলক ম্যাচের। সব উন্মাদনা ছাপিয়ে এবারের ১৭তম আসরের শিরোপার জন্য ফাইনালে মুখোমুখি হচ্ছে কলকাতা ও হায়দরাবাদ।

গম্ভীর বলেন, ‘আইপিএলের বেশির ভাগ দলই খুব ভাল। কারণ, যে দল পয়েন্ট তালিকার শীর্ষে শেষ করেছে তার সঙ্গে তালিকার শেষে থাকা দলের খুব একটা পার্থক্য নেই। যে কোনো দিন যে কোনো দল অন্য দলকে হারাতে পারে। প্রতিটা দলেই ভাল ক্রিকেটার রয়েছে।'

আন্তর্জাতিক শিরোপার মূল্য ও মর্ম অবশ্যই যেকোনো ঘরোয়া লিগের শিরোপার চেয়ে বেশি। তারপরও বিগত ১৭ বছর ধরে ক্রিকেট প্রেমীদের জন্য আইপিএল এক আনন্দের নাম। ক্রিকেট খেলাটির সর্বোচ্চ বিনোদন এবং টানটান উত্তেজনা যে আইপিএল থেকেই দর্শকরা পেয়ে থাকেন এ বিষয়ে কোনো সন্দেহ নেই।

   

সাকিবের অবসর নিয়ে আবারও খোঁচা দিলেন শেবাগ 

  ক্রিকেট কার্নিভাল



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

বাংলাদেশ-ভারতের আবারও লড়াই শুরু। তবে সেটা কথার লড়াই। যেটা সাকিব আল হাসান বনাম বীরেন্দর শেবাগের লড়াই। আবারও সাকিবকে খোঁচা ভারতের লিজেন্ডারি এই ওপেনারের। সাকিবের এতো দ্রুত উইকেট বিলিয়ে দিয়ে আসা নিয়ে ক্রিকবাজে ম্যাচ পরবর্তী আলোচনায় চটেছেন ভারতের সাবেক এই ব্যাটার। আবারও সাকিবকে তার একই বার্তা। তরুণদের জন্য জায়গা ছেড়ে দাও। 

ক্রিকবাজে আলাপকালে সাকিবকে নিয়ে শেবাগ বলেন, ‘আপনার সঙ্গে যখন একজন ব্যাটার খেলছে, তখন তাকে সঙ্গ দিন। ম্যাচটা গড়ে তোলার চেষ্টা করুন। কিন্তু আপনি ১১ রান করে চলে গেলেন! এত অভিজ্ঞতা থাকার পরও সাকিব কেন যে সেটি ব্যবহার করে না আমি সেটাই বুঝতে পারি না। এমন নয় যে তাকে প্রতি বলে ছক্কা মারতে হবে। সে তার অভিজ্ঞতার ব্যবহার করে না। এজন্য আমি আগেরবার বলেছিলাম, সাকিব আল হাসানকে নতুন কোনো ক্রিকেটারের জন্য জায়গা ছেড়ে দেওয়া উচিত।’

সাকিবের অভিজ্ঞতা কাজে না লাগানো এবং অবসরে যাওয়া নিয়ে এর আগেও সরব হয়েছিলেন ভীরু। বলেছিলেন, সাকিবের লজ্জা পাওয়া উচিৎ এবং বলা উচিৎ অবসরে যাচ্ছি। গেলো টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে যাচ্ছেতাই পারফর্ম্যান্সের সময় থেকেই সাকিবকে বাংলাদেশের জার্সিতে টি-টোয়েন্টিতে দেখতে চাননি শেহওয়াগ। 

সাকিব কে নিয়ে কে এমন মন্তব্য করেছেন সেটা তিনি প্রেস কনফারেন্সে জিজ্ঞেস করেছিলেন। তবে কে বলেছেন সেটা জেনে রাখলেও, কে কী বললেন এসব নিয়ে একদমই ভাবেন না। এবারও দিলেন তেমন উত্তর। বললেন যদি খেলার আগ্রহটা হারিয়ে ফেলি, আমি আর খেলাটা উপভোগ না করি, তাহলে আর খেলব না।’

;

বাঁচা-মরার ম্যাচে আগে বোলিংয়ে ইংল্যান্ড 

  ক্রিকেট কার্নিভাল



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

আসরের সহ-আয়োজক দল ওয়েস্ট ইন্ডিজকে হারিয়ে সুপার এইটে যাত্রা শুরু করলেও পরের ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে হেরে যায় বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। তবে গ্রুপপর্বে দাপুটে পারফর্ম করলেও সুপার এইটে এখন পর্যন্ত জয়ের দেখা পায়নি যুক্তরাষ্ট্র। দল দুটি এবার মুখোমুখি হচ্ছে গ্রুপ ‘টু’-এ নিজেদের তৃতীয় ও শেষ ম্যাচে। সেখানে টসে জিতে আগে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন ইংলিশ অধিনায়ক জশ বাটলার। 

গ্রুপ ‘টু’ থেকে সেমিতে ওঠার লড়াই অনেকটা জয়ের চেয়েও নেট রান রেটের। সমান ২ পয়েন্ট নিয়ে যথাক্রমে দ্বিতীয় ও তৃতীয় স্থানে আছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও ইংল্যান্ড। সেখানে ক্যারিবীয়দের নেট রান রেট পাহাড়সমান, ১.৮১৪ এবং ইংল্যান্ডের ০.৪১২। যুক্তরাষ্ট্রকে অল্পেই থামিয়ে সেই লক্ষ্যে দ্রুত পৌঁছে নেট রান রেট বাড়িয়ে নেওয়ায় আপাতত লক্ষ্য বর্তমান চ্যাম্পিয়নদের। 

ইংল্যান্ডের একাদশে এসেছে এক পরিবর্তন। মার্ক উডের পরিবর্তে একাদশে ফিরেছেন ক্রিস জর্ডান। এদিকে আগের ম্যাচের অপরিবর্তিত একাদশ নিয়েই কেনসিংটন ওভালে আগে ব্যাটিংয়ে নামবে যুক্তরাষ্ট্র। 

এই ম্যাচ দিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে প্রথমবারের মতো বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মাঠে নামতে যাচ্ছে যুক্তরাষ্ট্র।  

ইংল্যান্ড একাদশ: ফিল সল্ট, জশ বাটলার (অধিনায়ক), জনি বেয়ারস্টো, হ্যারি ব্রুক, মঈন আলী, লিয়াম লিভিংস্টোন, স্যাম কারান, ক্রিস জর্ডান, জোফরা আর্চার, আদিল রশিদ, রিচ টপলি।

যুক্তরাষ্ট্র একাদশ: স্টিভেন টেইলর, আন্দ্রেস গাউস, নিতিশ কুমার, অ্যারন জোনস (অধিনায়ক), কোরি অ্যান্ডারসন, মিলিন্দ কুমার, হারমিত সিং, শ্যাডলি ভ্যান শালকউইক, নস্টুশ কেনজিগে, আলী খান, সৌরভ নেত্রভালকার।

;

নিজের অবসর প্রসঙ্গে যা বললেন সাকিব

  ক্রিকেট কার্নিভাল



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

ভারত বিশ্বকাপের আগেই সাকিব জানিয়ে দিয়েছিলেন কখন ক্রিকেটকে বিদায় জানিয়ে দিবেন সাকিব। সে হিসেবে সাকিবের ক্রিকেট ক্যারিয়ারের শেষ হওয়ার কথা ২০২৫ সালে পাকিস্তানের মাটিতে হতে যাওয়া আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি। এর মধ্যে আর কোনো বিশ্বকাপ না থাকায় সমর্থকরা ধরে নিয়েছিলেন এটাই সাকিবের শেষ বিশ্বকাপ। ৩৭ বছর বয়সী সাকিব যদিও এখন বলছেন অন্য কথা। আগের কথা থেকে সরে এসে অবসর নিয়ে সাকিব এখন বলছেন নতুন পরিকল্পনার কথা।

সবশেষ ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে ৫০ রানের ব্যবধানে হারের পর বিশ্বকাপ থেকে একরকম বিদায় হয়ে গেছে বাংলাদেশের। যেই ম্যাচে প্রথম ক্রিকেটার হিসেবে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে রেকর্ড ৫০টি উইকেট নেওয়ার মাইলফলক স্পর্শ করেছেন সাকিব। কীর্তি গড়ার পর সাকিবকে কথা বলেছেন নিজের অবসর নিয়েও।

এটাই শেষ বিশ্বকাপ কিনা এমন প্রশ্নে সাকিব বলেন, ‘শেষ কিনা জানি না। পৃথিবীতে যেকোনো কিছু হওয়া সম্ভব। সিদ্ধান্ত নেবে বোর্ড, আমারও কিছু সিদ্ধান্ত আছে।’

এর আগে সবশেষ ভারত বিশ্বকাপে নিজের অবসর পরিকল্পনা সম্পর্কে এক সাক্ষাৎকারে সাকিব জানিয়েছিলেন, ২০২৫ আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি দিয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ারের ইতি টানবেন তিনি। সে হিসেবে এটাই তার শেষ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ হওয়ার কথা। তখনকার সেই কথা নিয়ে সাকিব এখন বলছেন, ‘বলেছিলাম কারণ, ওটা তখন পর্যন্ত চিন্তা ছিল। চিন্তা পরিবর্তন হতেই পারে। এসব নিয়ে চিন্তিত নই আমি।’

অবসর নিয়ে তাহলে সাকিবের বর্তমান ভাবনা কি। এমন প্রশ্নে সাকিব বলেন, ‘সামনে অনেক বড় বিরতি আছে। দল যদি মনে করে আমার দরকার আছে, আমি যদি মনে করি আমার দরকার আছে, উপভোগ না করলে অবশ্যই খেলার বিষয় না। এটা সময়ের ব্যাপার। সামনে বড় বিরতি আছে। টেস্ট ম্যাচ আছে। এটা সময়ের ওপর ছেড়ে দিই। সময় হলেই সবাই জানতে পারবে।’

;

‘সেমিফাইনালে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে’, বললেন রশিদ

  ক্রিকেট কার্নিভাল



স্পোর্টস ডেস্ক, বার্তা২৪.কম
ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

সবশেষ দুটি বিশ্বকাপেই অস্ট্রেলিয়াকে হারানোর সুযোগ তৈরি হলেও শেষমেশ আফসোসই সঙ্গী হয়েছিল আফগানিস্তানের। ২০২২ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে অ্যাডিলেডে ৪ রানে হারের পর ওয়াংখেড়েতে আফগানদের জেতা ম্যাচ এককভাবে কেড়ে নিয়েছিলেন অজি তারকা অলরাউন্ডার গ্লেন ম্যাক্সওয়েল। তবে এবার সেটা পারেনি অজিরা।

অবশেষে অজিদের ২১ রানে হারিয়ে নিজেদের প্রথম জয়টা পেয়ে গেছে আফগানরা। গড়েছে একাধিক রেকর্ড। যা তাদের স্বপ্ন দেখাচ্ছে সেমিফাইনালে খেলার। এমন জয়ে উচ্ছ্বাসিত আফগান অধিনায়ক রশিদ খানও। জয়ের পর অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে তিনি জানিয়েছেন এটা কেবল শুরু।

ম্যাচে অজিদের ১৪৯ রানের লক্ষ্য ছুড়ে তাদের ১২৭ রানে অলআউট করে দিয়েছে আফগানরা। তুলেছে অজিদের বিপক্ষে নিজেদের ইতিহাসের প্রথম জয়। যাকে নিজেদের সেরা জয় হিসেবেই মানছেন আফগান অধিনায়ক রশিদ। বলেন, ‘দল এবং জাতি হিসাবে আমাদের জন্য একটি বিশাল জয়। অস্ট্রেলিয়াকে হারানো একটি দুর্দান্ত অনুভূতি। এটি এমন কিছু যা আমরা মিস করেছিলাম, ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপ এবং অস্ট্রেলিয়াতে ২০২২ বিশ্বকাপেও।’

অজিদের বিপক্ষে ২০ রান খরচায় ৪ উইকেট শিকার করেছেন গুলবাদিন নাইব। দিনের সেরা শিকার ম্যাক্সির উইকেটটাও তুলেছেন তিনি। তাকে তাই জয়ের কৃতিত্বটা দিতে ভুলেননি রশিদ। বলেন, ‘আমরা জানতাম এই ট্র্যাকে ১৪০ একটি ভাল স্কোর। হ্যাঁ আমরা ব্যাট দিয়ে ইনিংসটাকে আরও বড় করতে পারিনি, কিন্তু এই পিচে আপনি সবসময় লড়াই করতে পারেন, এবং আমরা শেষ পর্যন্ত লড়াই করেছি। গুলবাদিন যেভাবে বোলিং করেছে এবং তার অভিজ্ঞতা, যা সত্যিই বাকি ছেলেদের দারুণ প্রচেষ্টা করতে অনুপ্রাণিত করেছে।’

অজিদের বিপক্ষে প্রথম জয় ও সেমিতে খেলার সম্ভাবনা নিয়ে রশিদ বলেন, ‘আমাদের এই জয় বিশ্বজুড়ে আমাদের ভক্তদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ। আফগানরা যেখানেই থাকুক না কেন, এই জয়টা তারা খুব দুঃখজনকভাবে মিস করেছে। এটা আমাদের জন্য কেবল শুরু। আমাদের সেমিফাইনালে যাওয়ার সব সম্ভাবনা আছে।’

আগামী ২৫ জুন বাংলাদেশের বিপক্ষে সুপার এইটে নিজেদের শেষ ম্যাচ খেলবে আফগানিস্তান। যেখানে জিততেই হবে তাদের। তবে তার আগে যদি অস্ট্রেলিয়াকে ভারত হারিয়ে দেয় তাদের শেষ ম্যাচে তাতে আফগানদের সমীকরণটা আরও সহজ হয়ে যাবে। তবে সেটি না হলে অজিরা জিতলেও নেট রান রেটের হিসেব কষে বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলতে পারবে আফগানরা। যা হয়তো তাদের এগিয়ে দিতে পারে সেমির পথে। তবে অজিরা ভারতের বিপক্ষে হেরে বসলে অবশ্য তখন সুযোগটা তৈরি হবে বাংলাদেশেরও।

;