করোনা: বেকার সুবিধা চেয়ে ৩.৩ মিলিয়ন মার্কিনির আবেদন

আন্তর্জাতিক ডেস্ক, বার্তা২৪.কম, ঢাকা
বেকার সুবিধা নিতে আমেরিকানদের ভিড়, ছবি: এপি

বেকার সুবিধা নিতে আমেরিকানদের ভিড়, ছবি: এপি

  • Font increase
  • Font Decrease

গত সপ্তাহে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ৩.৩ মিলিয়ন মানুষ বেকারত্বের সুবিধা চেয়ে আবেদন করেছে। দেশটির শ্রম বিভাগ বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) এ তথ্য জানায়। সূত্র: ওয়াশিংটন পোস্ট। যা ১৯৮২ সালের রেকর্ডের চারগুণ।

দেশটির শ্রম বিভাগ বলেছে, করোনভাইরাস মহামারি আকারে ছড়িয়ে পড়ায় দেশব্যাপী রেস্তোরাঁ, হোটেল, সেলুন, জিমসহ বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠান বন্ধ রয়েছে।  ফলে ব্যাপক অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দিয়েছে দেশটিতে।

করোনার কারণে চাকরিচ্যুত কর্মীরা বলছে, বেকার সুবিধার জন্য এতো বেশি  আবেদনকারী ছিল যে নিউইয়র্ক এবং ওরেগনসহ বেশ কয়েকটি রাজ্যের ফোন এবং ওয়েবসাইটগুলোর লাইন পেতে তাদের কয়েক ঘণ্টা অপেক্ষা করতে হয়েছিল। অনেক অর্থনীতিবিদ বলছেন, করোনাভাইরাসের কারণে অর্থনৈতিক মন্দা এরই মধ্যে শুরু হয়ে গেছে এবং গত সপ্তাহে যা ঘটেছিল তা ব্যাপক বেকারত্বের সূচনামাত্র। এ অবস্থায় এপ্রিলের মধ্যে ৪০ মিলিয়ন আমেরিকান নাগরিক চাকরি হারাতে পারে।

ব্যাংক অফ আমেরিকা ৩ মিলিয়ন মানুষ বেকারত্বের সুবিধা চেয়ে আবেদন করতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছিল। কিন্তু তাদের সে পূর্বাভাস ছাড়িয়ে ৩.৩ মিলিয়ন মানুষ এ আবেদন করেছে। এর আগে ১৯৮২ সালে দেশটিতে উচ্চ মুদ্রাস্ফীতি দেখা দেওয়ায় সর্বোচ্চ ৬ লাখ ৯৫ হাজার লোক বেকারত্বের সুবিধা চেয়েছিল। করোনভাইরাসের কারণে ওয়াল স্ট্রিটের ধারণার চেয়েও অনেক বেশি অর্থনৈতিক মন্দা দেখা দিয়েছে।

উল্লেখ্য, মহামারি নভেল করোনাভাইরাস মোকাবিলায় ও ক্ষতিগ্রস্ত অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে মার্কিন সিনেটে ২.২ ট্রিলিয়ন ডলারের একটি বিল পাস হয়েছে। বুধবার (২৫ মার্চ) রাতে সিনেটে একটি ভোটাভুটির হওয়ার পর বিলটি পাস হয়। মার্কিন সিনেটে এ বিলটির পক্ষে ভোট পড়েছে ৯৬টি। অন্যদিকে বিপক্ষে কোনো ভোটই পড়েনি।

বৃহস্পতিবার শ্রম বিভাগের প্রতিবেদনে জানানো হয়, ১৫ থেকে ২১ মার্চের মধ্যে এসব আবেদন করা হয়েছে। করোনার কারণে ১৬ মার্চ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প ঘোষণা করেছিলেন যে ১০ জনের বেশি লোক একসঙ্গে থাকতে পারবে না। সেই সঙ্গে তিনি রেস্তোরাঁ এবং অন্যান্য জনসমাগমস্থল বন্ধ করতে বাধ্য করেন। ওই দিনই অনেকে চাকরিচ্যুত হয়।

বিলটি অনুযায়ী, ২৫০ বিলিয়ন ডলার বেকারত্ব ঘোচাতে ব্যয় হবে। যেসব শ্রমিক মাসে ৭৫ হাজার ডলার করে বেতন পেত, তাদেরকে সরাসরি ১ হাজার ২০০ ডলার করে দেওয়া হবে। বিবাহিত দম্পতি যাদের ১ লাখ ৫০ হাজার ডলার ইনকাম ছিল, তাদের ২ হাজার ৪০০ ডলার করে দেওয়া হবে। আর শিশুবাবদ ৫০০ ডলার দেওয়া হবে।
বিলের আওতায় করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত শিল্পগুলোকে ৫০০ বিলিয়ন ডলার লোন দেওয়া হবে। এছাড়া ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীদের ৩৫০ বিলিয়ন ও মার্কিনীদের ৩ হাজার মিলিয়ন ডলার সহায়তা দেওয়া হবে। এছাড়া জনস্বাস্থ্য ও হাসপাতালগুলোকে ১০০ বিলিয়ন ডলার সহায়তা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে বিলে। আর করোনা মোকাবিলায় রাজ্য ও স্থানীয় সরকারগুলোকে ১৫০ বিলিয়ন ডলার দেওয়া হবে।

 

আপনার মতামত লিখুন :

এ সম্পর্কিত আরও খবর