৫ হাজার পরিবারের পাশে ইসলাহুল মুসলিমীন



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম
৫ হাজার পরিবারের পাশে ইসলাহুল মুসলিমীন, ছবি: সংগৃহীত

৫ হাজার পরিবারের পাশে ইসলাহুল মুসলিমীন, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

মহামারি, দুর্ভিক্ষসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগে যুগে যুগে আক্রান্ত হয়েছে মানবসভ্যতা। জাগতিক এসব ক্রান্তিলগ্নে অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন মহৎপ্রাণ ব্যক্তিরা। প্রয়োজনীয় সাহায্য-সহযোগিতা করেছে মানবতার কণ্যালকামী বিভিন্ন সংস্থা-সংগঠন। শতাব্দীর সবচেয়ে কঠিন ও বড় আঘাত করোনা দুর্যোগে ইসলাহুল মুসলিমীন পরিষদ বাংলাদেশ ও এমডাব্লিউআইয়ের যৌথ উদ্যোগে ঢাকাসহ সারাদেশের তিন হাজার অসহায় পরিবারকে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্য সামগ্রী প্রদান করা হয়েছে এবং আরও দুই হাজার পরিবারের মাঝে এ সহযোগিতা প্রদানের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে।

ঢাকার উল্লেখ্যযোগ্য ৫টি স্থানসহ রংপুর, দিনাজপুর, সিলেট, ব্রাক্ষণবাড়িয়া, খুলনা, মৌলভীবাজার, কক্সবাজার, পঞ্চগড়, কিশোরগঞ্জ এবং ময়মনসিংহের ১০০০ পরিবারকে পবিত্র রমজান উপলক্ষে ইফতার এবং বাকি ২০০০ পরিবারের মাঝে নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী বিতরণ করা হয়। প্রতিটি ফুড প্যাকেজে ১৫ কেজি চাল, ৫ কেজি সয়াবিন তেল, ৫ কেজি আলু, ২ কেজি মসুর ডাল, ২ কেজি পেঁয়াজ, ২ কেজি চিনি, ২ কেজি আটা এবং ২ কেজি লবণ প্রদান করা হয়েছে। চলতি রমজানেই আরও ২০০০ পারিবারের মাঝে ইফতার ও নিত্যপ্রয়োজনীয় খাদ্যসামগ্রী প্রদানের প্রক্রিয়া চলমান রয়েছে বলে জানান মাওলানা সদরুদ্দীন মাকনুন।

করোনা দুর্যোগে আক্রান্ত অসহায় মানুষদের খাদ্য সহযোগিতা প্রদান প্রসঙ্গে ইসলাহুল মুসলিমীন পরিষদ বাংলাদেশের চেয়ারম্যান মাওলানা ফরীদ উদ্দীন মাসউদ বলেন, ‘মানবতার নবী হজরত মুহাম্মাদ (সা.)-এর শিক্ষা ও আদর্শকে ধারণ করে প্রতিষ্ঠার শুরু লগ্ন থেকে ছোট-বড় সব ধরনের দুর্যোগ-দুর্ভিক্ষের সময় ইসলাহুল মুসলিমীন মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। করোনা দুর্যোগ স্মরণকালের কঠিনতম মহামারি- এবারও সংস্থাটি তার দায়িত্ববোধ ও ঐতিহ্যগত ধারাবাহিকতা বজায় রেখে অসহায় মানুষকে সহযোগিতা করেছে। আল্লাহ তাওফিক দিলে ভবিষ্যতেও এই ধারাবাহিকতা বজায় থাকবে, ইনশাআল্লাহ।’

উল্লেখ্য ১৯৯৭ সালে প্রতিষ্ঠার পর থেকে বাংলাদেশের বিভিন্ন দুর্যোগপূর্ণ পরিস্থিতিতে অসহায় মানুষের পাশে থেকে মানবতার সেবায় অগ্রণী ভূমিকা পালন করেছে ইসলাহুল মুসলিমীন পরিষদ বাংলাদেশ।