কুষ্টিয়ায় আশঙ্কানক হারে বাড়ছে শনাক্ত, মৃত্যু ৩

  বাংলাদেশে করোনাভাইরাস



স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তা২৪.কম, কুষ্টিয়া
কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল

  • Font increase
  • Font Decrease

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের করোনা রোগীদের জন্য ১০০ বেডের স্থলে ১২৮ রোগী নিয়ে চিকিৎসায় হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যে এই হাসপাতালকে করোনা ডেডিকেটেড ঘোষণা করা হয়েছে।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. তাপস কুমার সরকার এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

মঙ্গলবার (২২ জুন) সকাল থেকে বর্হিঃবিভাগে রোগী দেখা বন্ধ করা হয়েছে। কেবল জরুরি বিভাগ চালু আছে।

ভারত সীমান্তবর্তী জেলা কুষ্টিয়ায় করোনা সংক্রমণের সাথে আশঙ্কাজনক হারে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। গত ২৪ ঘণ্টায় আরও ৩ জন করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে। এ সময় ১১৯ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে। নমুনা পরীক্ষা বিবেচনায় শনাক্তের হার ৩৯ শতাংশ। এ সময় সুস্থ হয়েছে ৪১ জন। গত ৫ দিনে এখানে ৬৩৪ জনের করোনা শনাক্ত হয়েছে।

কুষ্টিয়ায় কড়া বিধি-নিষেধ আরোপ করা হয়েছে

এদিকে গত শেষ ৩ দিনে ১৭ জনের মৃত্যু হয়েছে। এ পর্যন্ত ১৫৭ জনের মৃত্যু হলো। বর্তমানে জেলায় করোনা আক্রান্ত রোগী রয়েছে ১ হাজার ৩২৩ জন। একই সঙ্গে রোগীর চাপ বাড়ছে জেনারেল হাসপাতালে। ১০০ বেডের স্থলে ১২৮ রোগী নিয়ে চিকিৎসায় হিমশিম খাচ্ছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ইতিমধ্যে এই হাসপাতালকে করোনা ডেডিকেটেড ঘোষণা করা হয়েছে।

কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. তাপস কুমার সরকার জানান, হাসপাতালে অন্যান্য যেসব গুরুত্বপূর্ণ রোগী রয়েছে তাদেরকে ডায়াবেটিক হাসপাতালে স্থানান্তর করার প্রক্রিয়া চলছে। এছাড়া কুষ্টিয়া ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট জেনারেল হাসপাতালকে করোনা ডেডিকেটেড হাসপাতাল ঘোষণা করে করোনা রোগীদের জন্য চিকিৎসা কাজে ব্যবহার করা হচ্ছে। জরুরি বিভাগ খোলা থাকছে। সেখানে সাধারণ চিকিৎসা ব্যতীত জরুরি রোগীদের জন্য চিকিৎসার ব্যবস্থা এবং প্রয়োজন হলেই কেবল তাদের ডায়াবেটিক হাসপাতালে বেডের ব্যবস্থা করা হবে।

উল্লেখ্য, করোনা সংক্রমণ আর মৃত্যুর ঊর্ধ্বগতি ঠেকাতে জেলাজুড়ে ৭ দিনের চলমান সর্বাত্মক লকডাউনের আজ দ্বিতীয় দিনেও লকডাউন বাস্তবায়নে সকাল থেকে পুলিশের তৎপরতা দেখা গেছে। শহরের সাথে যোগাযোগের প্রায় সকল সড়কে পুলিশ চেকপোস্ট বসিয়ে মানুষের ও যান চলাচল নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করছেন।

  বাংলাদেশে করোনাভাইরাস