সুনির্দিষ্ট প্রমাণ সহ অভিযোগ করলে ব্যবস্থা: জাবি শিক্ষার্থীদের নওফেল

  জাবি উপাচার্য অপসারণ আন্দোলন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, বার্তাটোয়েন্টিফোর.কম, ঢাকা
শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল

  • Font increase
  • Font Decrease

শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে বলেছেন, ‘কেউ আইন নিজের হাতে তুলে নিবেন না। বিশ্ববিদ্যালয়ের কারো বিরুদ্ধে যদি কোনো অভিযোগ থাকে। তাহলে সুনির্দিষ্ট প্রমাণ সহ লিখিত অভিযোগ আমাদের কাছে করলে, তদন্ত করে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

তিনি আরও যুক্ত করে বলেন, এই পরিস্থিতিতে সহিংসতা উসকে দিতে তৃতীয় পক্ষ সুযোগ নিতে পারে বলেও শঙ্কা রয়েছে।

বুধবার (৬ নভেম্বর) বিকালে সেগুনবাগিচায় আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ইনস্টিটিউটে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের চলমান পরিস্থিতি নিয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিং করে এসব কথা বলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল।

এসময় তিনি শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে আরও বলেন, এ আন্দোলন বা অচলাবস্থার ফলে সাধারণ শিক্ষার্থীরা বেশি ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে। যেহেতু বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। সকলের নিরাপত্তার স্বার্থে ও বিশ্ববিদ্যালয়ের সুশৃঙ্খল পরিবেশ বজায় রাখার স্বার্থে আমরা যেন সবাই সহনশীল হই এবং ধৈর্য ধারণ করি।

উপাচার্যের পদত্যাগ বিষয়ে এক প্রশ্নের জবাবে শিক্ষা উপমন্ত্রী বলেন, ‘কোনো উপাচার্য পদত্যাগ করুক আমরা সেটা চাই না। এর আগেও বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ফলে উপাচার্য পদত্যাগ করেছেন । উপাচার্য পদত্যাগের পরবর্তীতে সে সব আন্দোলনকারীদের তাদের অভিযোগের বিষয়ে আর খুঁজে পাওয়া যায় না। সুতরাং উপাচার্যের পদত্যাগেই সমাধান নয়।’

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক ও ছাত্রদের গায়ে ছাত্রলীগের হাত তোলার প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের জবাবে উপমন্ত্রী বলেন, জাহাঙ্গীরনগরের এই ঘটনার সঙ্গে ছাত্রলীগের নামধারী পদ-পদবী কেউ জড়িত থাকলে তার ব্যাপারে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

সারা দেশের বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে উদ্ভূত পরিস্থিতি চলছে এই পরিস্থিতিতে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের ভূমিকা কি এমন প্রশ্নের জবাবে উপমন্ত্রী বলেন, আপনারা জানেন বিশ্ববিদ্যালয়গুলো স্বায়ত্তশাসিত একটি প্রতিষ্ঠান। তাদের নিজেদের আইন আছে। তাদের একজন উপাচার্য নিয়োগ দেওয়া আছে। আপনারা জানেন বিশ্ববিদ্যালয়টি জ্ঞানচর্চার জায়গা। সহজে আমরা সেখানে হস্তক্ষেপ করতে চাই না। তবে ইতিমধ্যেই দেশের যেসব বিশ্ববিদ্যালয়ে খুবই খারাপ অবস্থায় গেছে সেসব জায়গায় আমরা তদন্ত করে ব্যবস্থা নিচ্ছে।

আপনার মতামত লিখুন :

  জাবি উপাচার্য অপসারণ আন্দোলন