ট্রাম্পের করোনা আক্রান্তের খবরে তোলপাড়!

  করোনা ভাইরাস



ড. মাহফুজ পারভেজ, অ্যাসোসিয়েট এডিটর, বার্তা২৪.কম
ট্রাম্পের করোনা সংক্রমণের খবরে তোলপাড়, ছবি: সংগৃহীত

ট্রাম্পের করোনা সংক্রমণের খবরে তোলপাড়, ছবি: সংগৃহীত

  • Font increase
  • Font Decrease

নিজের উপদেষ্টা হোপ হিকস করোনায় আক্রান্ত হওয়ার সংবাদ প্রকাশের কয়েক ঘণ্টা পরেই খোদ মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের করোনা পজিটিভ হওয়ার খবরে তোলপাড় সারা বিশ্বে। তাঁর ও স্ত্রী ফার্স্ট লেডি মেলেনিয়া ট্র্যাম্পের করোনা আক্রান্তের খবরটি নিজেই টুইটারে প্রকাশ করেন ৭৪ বছর বয়সী প্রেসিডেন্ট, যিনি আগামী নির্বাচনের জন্যেও লড়াই চালিয়ে যাচ্ছিলেন।   

আন্তর্জাতিক বার্তা সংস্থাগুলো জানাচ্ছে, ট্রাম্পের করোনা হওয়ার খবরের প্রতি বিশেষ আগ্রহ দেখাচ্ছে লোকজন। বিশেষ করে চীন, জাপানের মিডিয়ায় খবরটি গুরুত্বের সঙ্গে প্রচার করা হচ্ছে। টিভি ঘিরে আগ্রহী শ্রোতাদেরও দেখা যাচ্ছে সেসব দেশে।

এদিকে বিশ্বের অনেক নেতা ট্রাম্প ও তার স্ত্রীর করোনা মুক্তি কামনা করে বার্তা পাঠাচ্ছেন। ট্রাম্প এমন সময় সস্ত্রীক করোনায় আক্রান্ত হলেন, যখন তার সামনে নির্বাচনী লড়াই অপেক্ষমাণ। করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ের প্রাক্কালে ট্রাম্প দম্পতির আক্রান্তের সময়ে বিশ্বে ১০ লাখ আর মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে করোনায় মৃত্যুর সংখ্যা ২ লাখ ৫ হাজার।  

প্রেসিডেন্টের চিকিৎসক অবশ্য এক বার্তায় জানিয়েছেন, 'বর্তমানে তারা দুজনেই ভালো বোধ করছেন এবং হোয়াইট হাউসের বাড়িতে থেকেই চিকিৎসা নেওয়ার কথা ভাবছেন।'

ট্রাম্পের করোনা আক্রান্তের ঘটনাটি একটি দমকা বাতাসে মতো মার্কিন রাজনীতিতে আলোড়ন তুলেছে। কারণ তিনি এমন সময় আক্রান্ত হলেন, যখন ছিলেন কঠিন নির্বাচনী লড়াইয়ের মাঠে। সামনের কয়েক সপ্তাহ তার পক্ষে নির্বাচনী তৎপরতা চালানো মোটেই সম্ভব হবে না। যদিও ডেলাওয়ারে অবস্থানরত তার প্রতিদ্বন্দ্বী জো বাইডেনকে সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে সাবধানে নির্বাচনী প্রচার-প্রচারণা করতে হবে। বাইডেন অবশ্য সব সময় মাস্ক ব্যবহার করেন আর ট্রাম্প অনেকবারই মাস্ক নিয়ে কৌতুক ও কটাক্ষ করেছেন।    

তবে বার্তা সংস্থা এপির ফস্টার ক্লু মন্তব্য করেছেন যে, বিশ্বের 'মোস্ট পাওয়ারফুল পারসন'-এর 'মোস্ট নটরিয়াস ডিজিজ'-এ আক্রান্ত হওয়ার খবরের প্রতি সবাই উৎসুক। মার্কিন সীমানা ছাড়িয়ে খবরটি সমবেদনা, আগ্রহ, শোক ও আলোচনার খোরাক হয়েছে বিশ্বব্যাপী। 

ট্রাম্পের আগেও এ ভাইরাস সংক্রমণের বিরুদ্ধে বিশ্ব নেতাদের অনেককেই লড়তে হয়েছে। যাদের মধ্যে যুক্তরাজ্যের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন, যিনি ইনসেন্টিভ কেয়ার ইউনিটে সাত দিন কাটাতে বাধ্য হয়েছিলেন।

আরো আক্রান্ত হয়েছিলেন ব্রাজিলের প্রেসিডেন্ট জিয়ার বলসোনারো ও হন্ডুরাসের প্রেসিডেন্ট। এছাড়াও ইরান আর ভারতের বহু গুরুত্বপূর্ণ নেতা করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছিলেন।

বার্তা সংস্থাগুলো আরো জানিয়েছে যে, ট্রাম্পের করোনা আক্রান্তের খবর বিশ্ব অর্থনীতিতেও নাড়া দিয়েছে। তেলের দাম, স্টক এক্সচেঞ্জ ও শেয়ার বাজারে দর পতন হয়েছে।

আরও পড়ুন: করোনায় আক্রান্ত ট্রাম্প ও মেলানিয়া 

  করোনা ভাইরাস